নতুন পোশাকে মাঠে নামবে মাদক নিয়ন্ত্রণের বাহিনী

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরে সিপাহী থেকে শুরু করে অতিরিক্ত পরিচালক পর্যন্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নতুন নীল রঙের পোশাক পেতে যাচ্ছেন।

উত্তম সেন গুপ্ত চট্টগ্রাম ব্যুরোবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 June 2022, 03:32 PM
Updated : 22 June 2022, 03:32 PM

আগামী জুলাইয়ের শেষ নাগাদ নতুন পোশাকে মাঠে নামবেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের (ডিএনসি) মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা। আগে সিপাহী থেকে পরিদর্শক পর্যন্ত খাকি রঙের পোশাক পরতেন।

নতুন ‘টার্কিশ ব্লু’ রঙের পোশাকের সঙ্গে কর্মকর্তাদের থাকবে র‌্যাঙ্ক ব্যাজও। 

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আজিজুল ইসলাম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “ইতোমধ্যে নতুন পোশাকের জন্য কাপড় কেনা হয়ে গেছে। এখন সেলাই প্রক্রিয়ায় আছে। আশা করি, আগামী জুলাইয়ের মধ্যে সেলাইয়ের কাজ শেষ হবে।”

সেলাই শেষে বিতরণের পর আগামী মাসের শেষ দিকে অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নতুন পোশাক পরা শুরু করবেন বলে আশা মহাপরিচালকের।

এর আগে ২০১৪ সাল থেকে প্রজ্ঞাপন অনুসারে অধিদপ্তরের সিপাহী থেকে পরিদর্শক পর্যন্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা খাকি রঙের পোশাক পরতেন। তবে সেই পোশাক নিয়ে তাদের অসন্তোষও ছিল।

২০২১ সালের ২৩ মে নতুন প্রজ্ঞাপনে ‘টার্কিশ ব্লু’ রঙের পোশাক নির্ধারণ করা হয়।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মচারদের (পোশাক সামগ্রী প্রাধিকার) বিধিমালা-২০২১ নামে গত বছর জারি করা এ প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী- অতিরিক্ত পরিচালক, উপ-পরিচালক, সহকারী পরিচালক, প্রসিকিউটর, পরিদর্শক, সহকারী প্রসিকিউটর ও উপ- পরিদর্শক, সহকারী উপ-পরিদর্শক, সিপাহী, ওয়ারলেস অপারেটর ও গাড়ি চালক পর্যন্ত সকলকেই পোশাক পরিধান বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

বিধিমালায় উল্লেখ করা হয়, টার্কিশ ব্লু রঙের সেলুলার কাপড়ের বুকখোলা ফুল ও হাফহাতা শার্ট, ডিপ নেভি ব্লু রঙের প্যান্ট এবং অধিদপ্তরের লোগো সম্বলিত টুপি পরবেন কর্মকর্তারা। আর নারী সদস্যরা টার্কিশ ব্লু রঙের বুশ শার্ট ও ডিপ নেভি ব্লু রঙের প্যান্ট পরবেন।

নতুন পোশাকে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাজের স্পৃহা বাড়বে বলে মনে করেন অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক জিল্লুর রহমান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “মাদকের বিরুদ্ধে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত জিরো টলারেন্স বাস্তবায়নের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ। নতুন পোশাকে তারা নতুন উদ্যমে কাজ করবেন।”

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, অতিরিক্ত পরিচালকদের র‌্যাঙ্ক ব্যাজে থাকবে একটি শাপলার সঙ্গে অ্যালমুনিয়ামের তৈরি শাপলা সম্বলিত চারকোণা বিশিষ্ট দুইটি পিপস ও কলার রিবন।

উপ-পরিচালকদের র‌্যাঙ্ক ব্যাজ হবে এক শাপলার। তবে ওই পদে চাকরির বয়স চার বছর পূর্ণ হলে শাপলার সাথে অ্যালমুনিয়ামের তৈরি শাপলা সম্বলিত চার কোণা একটি পিপস যুক্ত হবে।

সহকারী পরিচালকদের র‌্যাঙ্ক ব্যাজ হবে অ্যালমুনিয়ামের তৈরি শাপলা সম্বলিত চার কোণা দুটি পিপস। চাকরির বয়স চার বছর অতিক্রম করলে সেক্ষেত্রে আরেকটি পিপস যুক্ত হবে।

পরিদর্শক ও প্রসিকিউটেরর র‌্যাঙ্ক ব্যাজে থাকবে অ্যালমুনিয়ামের তৈরি শাপলা সম্বলিত চার কোণা একটি পিপস।

সহকারী পরিদর্শক ও প্রসিকিউটেরর র‌্যাঙ্ক ব্যাজে চার ডানাযুক্ত দুটি এবং উপ-সহকারী পরিদর্শকের ব্যাজে থাকবে একটি স্টার এবং কালো রঙের রিবন।

সিপাহী এবং ওয়ার্লেস অপারেটরদের পোশাকে থাকবে ডিএনসি লেখা শোল্ডার স্ট্রিপ, আর গাড়ি চালকের থাকবে শোল্ডার স্ট্রিপের সাথে কালো রঙের রিবন।

প্রজ্ঞাপনে মহাপরিচালক, অতিরিক্ত মহাপরিচালক এবং পরিচালকের পোশাক বিধি সম্পর্কে কিছু উল্লেখ নেই।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, অতিরিক্ত পরিচালক পর্যন্ত পদে বিভাগীয় সদস্যরা দায়িত্ব পালন করেন। তবে পরিচালক, অতিরিক্ত মহাপরিচালক এবং মহাপরিচালকরা আসেন বিসিএস অ্যাডমিন ও পুলিশ সার্ভিস থেকে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক