এইচএসসি’র ফলে এগিয়েছে তিন পাবর্ত্য জেলা

এইচএসসিতে আগের বছরের তুলনায় চট্টগ্রামের তিন পার্বত্য জেলা রাঙামাটি, বান্দরবান ও খাগড়াছড়িতে বেড়েছে পাশের হার।

চট্টগ্রাম ব্যুরোবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 August 2016, 02:45 PM
Updated : 18 August 2016, 02:45 PM

চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের অধীন পাঁচটি জেলার মধ্যে এই তিন পাবর্ত্য জেলার পাশাপাশি চট্টগ্রাম জেলাতে পাশের হার কিছুটা বাড়লেও কক্সবাজারে তা কমেছে।

বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল বিশ্লেষণে দেখা যায়, তিন পার্বত্য জেলায় পাশের হার বেড়েছে প্রায় চার শতাংশের বেশি।

এতে এবার চট্টগ্রাম বোর্ডেও সার্বিকভাবে পাসের হার বেড়ে হয়েছে ৬৪ দশমিক ৬০ শতাংশ, যা গত বছর ছিল ৬৩ দশমিক ৪৯ শতাংশ।

চট্টগ্রাম বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাহবুব হাসান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, অন্যান্য বারে পার্বত্য অঞ্চলের ফলাফল চট্টগ্রাম বোর্ডের পাশের হারে প্রভাব ফেলে। তবে এবার ওই তিনজেলার কলেজগুলো অন্যান্য বছরের চেয়ে ভালো করেছে।

দুর্গম এলাকার এসব কলেজগুলো অনেকটা পিছিয়ে থাকলেও তারা পর্যায়ক্রমে ভালো ফল করছে বলেও মনে করেন তিনি।

এবছর রাঙামাটি জেলায় পাশের হার ৪৭ দশমিক ১৪, যা গত বছর ছিল ৪৩ দশমিক ৯১।

এছাড়া বান্দরবান জেলায় পাশের হার গতবারের চেয়ে প্রায় চার শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৬১ দশমিক ৬৪। গত বছর পাশের হার ছিল ৫৭ দশমিক ৯৯ শতাংশ।

খাগড়াছড়িতেও পাশের হার বেড়েছে এক শতাংশের বেশি। গত বছর এ জেলায় পাশের হার ছিল ৫০ দশমিক ১৬ শতাংশ আর বর্তমান বছরে তা দাঁড়িয়েছে ৫১ দশমিক ৭০ শতাংশ।

পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাহবুব হাসান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, রাঙামাটিতে সবচেয়ে বেশি পরীক্ষার্থী অংশ নেয় রাঙামাটি সরকারি কলেজ, সরকারি মহিলা কলেজ ও কর্ণফুলী কলেজ থেকে।  

এ কলেজগুলোতে পাশের হার ৫০ শতাংশের কম হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, “এই তিন কলেজ থেকে পাশের সংখ্যা বাড়লে ফলাফলটা আরও ভালো হতো।”

বৃহস্পতিবার এইচএসসির ফল ঘোষণার পর চট্টগ্রামের এক কলেজে শিক্ষার্থীদের উচ্ছ্বাস

এবছর রাঙামাটি থেকে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে পাঁচ হাজার ৪৩১ জন, এর মধ্যে পাশ করেছে দুই হাজার ৫৬০ জন শিক্ষার্থী।

এ জেলায় মোট ১৫টি কলেজের মধ্যে সবচেয়ে বেশি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে রাঙামাটি সরকারি কলেজ থেকে এক হাজার ১৯৬, সরকারি মহিলা কলেজ থেকে ৮৭৫ জন ও কর্ণফুলী কলেজ থেকে ৬৭০ জন শিক্ষার্থী।

এ তিন কলেজসহ রাঙামাটির সাত কলেজে পাশের হার ৫০ শতাংশের নিচে।

এদিকে খাগড়াছড়িতে পাঁচটি কলেজে ছয় হাজার ৪৪৭ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে তিন হাজার ৩৩৩ জন আর বান্দরবানে পাঁচটি কলেজের অধীনে এক হাজার ৮৮৫ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে এক হাজার ১৬২ জন।

খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজ, সরকারি মহিলা কলেজসহ পাঁচটি কলেজে ৫০ শতাংশের নিচে পাশ করলেও বান্দরবানে সব কলেজে পাশের হার ৫০ শতাংশের বেশি।

পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাহবুব হাসান বলেন, “যেসব কলেজে ৫০ শতাংশের নীচে তার কারণ জানতে চেয়ে সেসব কলেজের সাথে আমরা বৈঠক করব।”

এই তিন পার্বত্য জেলার তুলনায় চট্টগ্রাম জেলার পাশের হারে অগ্রগতি কম দেখা যায়। এ বছর চট্টগ্রাম জেলায় পাশ করেছে ৬৭.৫৮ শতাংশ পরিক্ষার্থী, যা গত বছর ছিল ৬৬.২৪ শতাংশ। পাশের হার বেড়েছে ১.৩৪ শতাংশ।

কক্সবাজারে পাশের হার কমেছে; গত বছর এই জেলায় শতকরা ৬৪.৮০ ভাগ পরিক্ষার্থী পাশ করলেও এবার তা নেমে এসেছে ৬৩.৭৪ শতাংশে।

৫৪ কলেজে পাশের হার ৫০ শতাংশের কম

চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের অধীনে এবছর অংশ নেওয়া ২২৫টি কলেজের মধ্যে ৫৪টি কলেজে ৫০ শতাংশের নীচে পরীক্ষার্থী পাশ করেছে।

এর মধ্যে ৩৭টি চট্টগ্রাম জেলায়, ১৭টি কক্সবাজার ও সাতটি রাঙামাটি জেলায়।

পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাহবুব হাসান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, পার্বত্য অঞ্চলের কলেজগুলো আগের চেয়ে ভালো ফলাফল করলেও চট্টগ্রাম জেলার বেশ কিছু কলেজে পাশের হার ৫০ শতাংশের কম।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক