উইকেটের সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশের দ্রুততম মুস্তাফিজ

লর্ডসের অনার্স বোর্ড বলতে কেবল আগে টেস্টের পারফরম্যান্সকেই বোঝাত। মাত্র কিছুদিন আগে নতুন অনার্স বোর্ড বসানো হয়েছে সীমিত ওভারের জন্য। বাংলাদেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে সেই বোর্ডে নাম লেখালেন মুস্তাফিজুর রহমান। ৫ উইকেট নেওয়ার পথচলায় গড়লেন বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে দ্রুততম একশ ওয়ানডে উইকেট নেওয়ার রেকর্ডও।

ক্রীড়া প্রতিবেদক লন্ডন থেকেবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 5 July 2019, 03:19 PM
Updated : 5 July 2019, 03:19 PM

৫ উইকেট নিতে অবশ্য ৭৫ রান খরচ করতে হয়েছে মুস্তাফিজকে। তবে পাকিস্তানের বিপক্ষে শুক্রবার লর্ডসের এই পারফরম্যান্সে বাঁহাতি পেসার গড়েছেন আরও কিছু রেকর্ড।

উইকেটের সেঞ্চুরি হতে এই ম্যাচে দুটি উইকেট প্রয়োজন ছিল মুস্তাফিজের। বিশ্বকাপে এবার আগের বেশিরভাগ ম্যাচের মতো এ দিনও প্রথম স্পেলে ছিলেন উইকেটশূন্য। পরে সেঞ্চুরিয়ান ইমাম-উল-হককে ফিরিয়ে শুরু করেন শিকার। হারিস সোহেলকে ফিরিয়ে পূর্ণ করেন ১০০ উইকেট।

৫৪ ম্যাচে মুস্তাফিজ ছুঁলেন ১০০ উইকেট। ৬৯ ম্যাচে মাইলফলক ছুঁয়ে আগের রেকর্ড ছিল বাঁহাতি স্পিনার আব্দুর রাজ্জাকের। ৭৮ ম্যাচে একশ হয়েছিল মাশরাফি বিন মুর্তজার।

দ্রুততম ১০০ উইকেটের বিশ্ব রেকর্ডে মুস্কাফিজ জায়গা করে নিয়েছেন চারে। ৪৪ ইনিংসে ১০০ ছুঁয়ে রেকর্ডে সবার ওপরে রশিদ খান। ৫২ ম্যাচে ১০০ হয়েছিল মিচেল স্টার্কের, ৫৩ ম্যাচে সাকলায়েন মুশতাকের।

বাংলাদেশের রেকর্ডে ৫০ উইকেটেও দ্রুততম ছিলেন মুস্তাফিজ। লেগেছিল ২৭ ম্যাচ। সেখানেও ছাড়িয়েছিলেন রাজ্জাককে (৩২ ম্যাচ)।

রাজ্জাককে এ দিন আরেকটি জায়গাতেও ছাড়িয়েছেন মুস্তাফিজ। বাংলাদেশের হয়ে ওয়ানডেতে সবচেয়ে বেশিবার ৫ উইকেট নেওয়ার কীর্তি এখন মুস্তাফিজের একার। রাজ্জাকের ছিল ৪ বার।

পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটির আগে ভারতের বিপক্ষেও ৫ উইকেট নিয়েছিলেন মুস্তাফিজ। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের আর কোনো বোলারের একাধিকবার নেই ৫ উইকেট। টানা দু্ই ম্যাচে ৫ উইকেটের তো প্রশ্নই আসছে না।

এই ম্যাচের পারফরম্যান্সে আরেকটি রেকর্ডেও শুরুর দিকে আছেন মুস্তাফিজ। তবে সেটি খুব কাঙ্ক্ষিত নয় কোনো বোলারের। ৫ উইকেট নিতে সবচেয়ে বেশি রান খরচের তালিকায় মুস্তাফিজ আছেন দুইয়ে। গত ফেব্রুয়ারিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে গ্রেনাডায় ৫ উইকেট নিতে ইংলিশ লেগ স্পিনার আদিল রশিদ গুনেছিলেন ৮৫ রান।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক