• বই লেখা, অনলাইন পরামর্শ, ভিডিও দেখায় সময় কাটছে ক্রিকেট কোচদের
    ‘এই জীবন যে কবে শেষ হবে, আর ভালো লাগছে না’, ক্রিকেটবিহীন সময়ে এভাবেই হাঁপিয়ে উঠেছেন মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। বাস্তবতার কাছে তবু অসহায় সবাই। করোনাভাইরাসের প্রকোপের এই অস্থির সময়ে নিজের ভেতরের অস্থিরতা দমিয়ে রাখার চেষ্টা করছেন দেশের অন্যতম সফল এই কোচ। এগিয়ে রাখছেন কোচিং নিয়ে নিজের লেখা বই শেষ করার কাজ।
  • বিপিএলের সূচি নিয়ে প্রশ্ন সালাউদ্দিন-মালানের
    বিপিএলের সূচি নিয়ে এবার শুরু থেকেই চাপা বিরক্তি ছিল অনেকের। বিপিএল যখন হাঁটছে শেষের পথে, বিরক্তিও প্রকাশ্য হতে শুরু করেছে। ঢাকা প্লাটুন কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন যেমন বলছেন, সূচি আরও গোছানো হওয়া উচিত ছিল। কুমিল্লা অধিনায়ক দাভিদ মালানের চোখে এই সূচি অদ্ভুতুড়ে।
  • ‘দলের চাওয়াই পূরণ করছে তামিম’
    ধারাবাহিকতা যথেষ্ট ভালো। গড় দুর্দান্ত। কিন্তু একটু ভ্রু কুঁচকে যেতে পারে তামিম ইকবালের স্ট্রাইক রেট দেখে। খুব খারাপ নয়, তবে এই যুগের টি-টোয়েন্টির সঙ্গে কতটা মানানসই, সেই প্রশ্ন উঠতেই পারে। তবে মোহাম্মদ সালাউদ্দিনের প্রশ্ন নেই। ঢাকা প্লাটুন কোচ বরং এই অভিজ্ঞ ওপেনারের ওপর খুশি দলের দায়িত্ব ঠিকভাবে পালন করতে পারায়।
  • ‘দেশি কোচকে মনের কথা বলা সহজ’
    কোচের সঙ্গে যোগাযোগের দিক থেকে বাকি দলগুলোর চেয়ে নিজেদের একটু এগিয়ে রাখছেন এনামুল হক। কারণ, একমাত্র ঢাকা প্লাটুন দলেই আছেন স্থানীয় কোচ। মোহাম্মদ সালাউদ্দিনের সঙ্গে যে কোনো সময়ে মনের কথা খুলে বলতে পারেন দলের সবাই।
  • ‘শুভকে নেওয়ার পুরো কৃতিত্ব তামিমের’
    ফাইনালে ওঠার ম্যাচে ১৫ বলে অপরাজিত ৩৪ রানের ম্যাচ জেতানো ইনিংস। আরও কয়েকটি ম্যাচে দলের জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। এবারের বিপিএলে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের সাফল্যে উল্লেখযোগ্য অবদান শামসুর রহমানের। অথচ এই ব্যাটসম্যানকে দলে নিতেই চাননি কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। অকপটে তা স্বীকার করে শামসুরকে দলে নেওয়ার কৃতিত্ব কোচ পুরোটাই দিলেন তামিম ইকবালকে।
  • বিপিএল শিরোপার মঞ্চে দুই দেশি কোচ
    দেশি কোচের ওপর আস্থা রেখেছিল দুটি দল। বিদেশি কোচদের ভিড়ে এবারের বিপিএলের ফাইনালে উঠেছে সেই দুই দলই। দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের অন্যতম সফল কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিনের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ফাইনালে লড়বে খালেদ মাহমুদের ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে।
  • ‘স্নিকো, আলট্রা এজ আনতে অনেক টাকা লাগে’
    রিভিউ পদ্ধতি রাখা হয়েছে, কিন্তু স্নিকোমিটার কিংবা আলট্রা এজ নেই। অদ্ভুত এই ডিআরএস (ডিসিশান রিভিউ সিস্টেম) দেখা যাচ্ছে এবার বিপিএলে। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন জানালেন, স্নিকোমিটার যে থাকবে না, এটি আগেই জানানো হয়েছিল দলগুলিকে। কারণ এটি রাখতে খরচ হবে বেশি।
  • গুরুর ছোঁয়ায় শাণিত মুমিনুল
    বিপিএল শেষে যখন ছুটি কাটাচ্ছিলেন ক্রিকেটারদের অনেকে, মুমিনুল হক চলে গিয়েছিলেন বিকেএসপিতে। ভাবনায় ছিল সামনের টেস্ট সিরিজ। মনে অস্বস্তির কাঁটা স্পিনে ভোগান্তি। ক্রিকেটে যে কোনো সমস্যায় সবার আগে তার মনে পড়ে ‘মেন্টর’ মোহাম্মদ সালাউদ্দিনের কথা। বিকেএসপিতে গিয়ে কোচের সঙ্গে কাজ করলেন ‘ফুটওয়ার্ক’ নিয়ে। উন্নতির ছাপ দেখালেন বিসিএলে। বাড়ল আত্মবিশ্বাস। সেটির প্রতিফলনই পড়ল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম দিনে।