• ‘ঐতিহাসিক’ পাকিস্তান সিরিজ খেলতে না পেরে হতাশ ল্যাথাম
    দেড় যুগ পর নিউ জিল্যান্ডের পাকিস্তান সফর। দুই দেশের জন্যই বহুল আকাঙ্ক্ষিত এক সিরিজ। কিন্তু নিরাপত্তা শঙ্কায় শেষ মুহূর্তে সব আয়োজন ভেস্তে যায় নিমিষেই। স্বাগতিকরা তো বটেই, হতাশ সফরকারীরাও। এই সফরে নিউ জিল্যান্ডের অধিনায়ক হিসেবে যাওয়া টম ল্যাথাম বললেন, তার জন্য সিরিজটি ছিল বিশেষ কিছু।
  • শেষ ভালোর তৃপ্তি ল্যাথামের
    সিরিজের ফয়সালা হয়ে গিয়েছিল আগেই। প্রাপ্তির সুযোগ তারপরও কম ছিল না। ৪-১ ব্যবধানে হারের চেয়ে ৩-২ ব্যবধানের হার তো অনেক সম্মানের! শেষ ম্যাচ জিতে সেই লক্ষ্য পূরণ করার তৃপ্তি নিয়ে বাংলাদেশ সফর শেষ করতে পারছেন নিউ জিল্যান্ড অধিনায়ক টম ল্যাথাম।
  • বাংলাদেশকে হারিয়ে পরিপূর্ণ পারফরম্যান্সের খোঁজে নিউ জিল্যান্ড
    প্রথম ম্যাচে স্রেফ ৬০ রানে গুটিয়ে গিয়ে হার। পরের ম্যাচে ১৪০ ছাড়ানো স্কোর তাড়ায় শেষ বলে হার। উন্নতির ধারা ধরে রেখে তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে বড় জয়। সিরিজ বাঁচিয়ে রাখায় দারুণ খুশি টম ল্যাথাম। তবে নিজেদের আরও উন্নতির সুযোগ দেখছেন সফরকারী অধিনায়ক। এই কিপার-ব্যাটসম্যান জানালেন, পরিপূর্ণ পারফরম্যান্স থেকে এখনও কিছুটা দূরেই আছে তারা।
  • ‘উইকেট ভালো থাকলে খেলাও ভালো হয়’
    ৬০ রানের বিব্রতকর অভিজ্ঞতা থেকে ১৪২ তাড়া করে ফেলার কাছাকাছি যাওয়া। একতরফা এক ম্যাচের পর শেষ বলে ফয়সালার রোমাঞ্চ। প্রথম ম্যাচের হতাশার চিত্র দ্বিতীয় ম্যাচে বদলে দেওয়ায় দারুণ খুশি নিউ জিল্যান্ড অধিনায়ক টম ল্যাথাম। তার মতে, উইকেট এ দিন ভালো ছিল বলে লড়াইও হয়েছে জমজমাট।
  • লড়াই করে জিতে আরও এগিয়ে বাংলাদেশ
    ২ বলে প্রয়োজন ১৩ রান। ম্যাচ বাংলাদেশের মুঠোয়। তখনই মুস্তাফিজুর রহমান করে বসলেন ‘নো বল’, টম ল্যাথাম সেটি পাঠালেন বাউন্ডারিতে। আচমকাই ম্যাচে উত্তেজনা, ২ বলে ৮ রান তো খুবই সম্ভব! শেষ পর্যন্ত অবশ্য পারলেন না ল্যাথাম। অসাধারণ ইনিংস খেলেও নিউ জিল্যান্ড অধিনায়ক থমকে গেলেন কাঙ্ক্ষিত ঠিকানার কাছাকাছি গিয়ে। শঙ্কা উড়িয়ে বাংলাদেশ পেল আরেকটি জয়ের স্বস্তি।
  • ভুল থেকে শিখতে চায় নিউ জিল্যান্ড
    মিরপুরের উইকেটে কাজটা কঠিন হবে, জানা ছিল টম ল্যাথামের। কিন্তু এতটা কঠিন, তা ভাবতে পারেননি নিউ জিল্যান্ড অধিনায়ক। তারা তাই এখন বোঝার চেষ্টা করছেন এই উইকেটের আদর্শ স্কোর কত। খুঁজে বের করার চেষ্টা করছেন ওই স্কোরে পৌঁছানোর পথ।
  • কেমন হবে প্রথম ম্যাচের উইকেট
    ম্যাচের আগের দিন বিকেলের দৃশ্য। মাঠে ঢুকেই নিউ জিল্যান্ডের কয়েকজন ক্রিকেটার সরাসরি চলে যান পিচের কাছে। চটের কাভার উঁচিয়ে দেখতে শুরু করেন উইকেট। আঙুল দিয়ে টিপে পরখ করেও দেখেন দু-একজন। এসব দেখে মাঠের বাইরে থেকে তড়িঘড়ি করে ছুটে যান মাঠকর্মীরা। উইকেট দেখারও তো একটা নিয়ম আছে! কিউইরা বুঝতে পেরে সরে যান দ্রুত। পরে অবশ্য প্রথা মেনেই মাঠকর্মীরা কাভার পুরোপুরি সরিয়ে উইকেট দেখার সুযোগ করে দেন কিউইদের।
  • বিশ্বকাপ প্রস্তুতির আবহে নিউ জিল্যান্ডকে হারানোর অভিযান
    টম ল্যাথাম মনেই করতে পারছিলেন না, শেষ কবে টি-টোয়েন্টি খেলেছেন। সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্নকারীই পরে মনে করিয়ে দিলেন, ঘরোয়া টি-টোয়েন্টিও তিনি সবশেষ খেলেছেন আড়াই বছরের বেশি আগে! অথচ এই ল্যাথামই এখন অধিনায়ক। স্রেফ এতেই ফুটে ওঠে, এই সফরকে নিউ জিল্যান্ড কীভাবে নিয়েছে। বাংলাদেশের বাস্তবতা ভিন্ন। সম্ভাব্য সেরা দল নিয়ে তারা ঝাঁপিয়ে পড়তে প্রস্তুত জয়ের মন্ত্রে উদ্বুদ্ধ হয়ে।
  • অস্ট্রেলিয়া সিরিজের মতো উইকেটের জন্য প্রস্তুত নিউ জিল্যান্ড
    অস্ট্রেলিয়াকে যে ধরনের উইকেটের পরীক্ষায় ঠেলে দিয়েছিল বাংলাদেশ, সেরকম উইকেটের জন্যই প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে নিউ জিল্যান্ড। এমনকি আরও চ্যালেঞ্জিং কিছুর জন্যও তারা প্রস্তুত, জানালেন কিউই অধিনায়ক টম ল্যাথাম।
  • ক্যাচ ছেড়ে ম্যাচ হারল বাংলাদেশ
    জিমি নিশামের ব্যাট ছুঁয়ে বল উইকেটের পেছনে। সহজ ক্যাচ অযথা ডাইভ দিতে গিয়ে ছেড়ে দিলেন মুশফিকুর রহিম। টম ল্যাথামের টাইমিংয়ের গড়বড়ে সহজ ক্যাচ, ধরতে পারলেন না বোলার মেহেদি হাসান নিজেই। পরপর দুই ওভারে সুযোগ হাতছাড়া, বাংলাদেশের আশার সমাধি সেখানেই। ল্যাথাম আর নিশাম মিলেই নিউ জিল্যান্ডকে এগিয়ে নিলেন জয়ের পথে। অপরাজিত সেঞ্চুরিতে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়লেন অধিনায়ক ল্যাথাম।
  • ল্যাথামকে তামিমের শুভ কামনা, তবে ‘খুব বেশি নয়’
    প্রতিপক্ষ অধিনায়কের মাইলফলকের ম্যাচ, অভিনন্দন তো জানাতেই হয়। তবে তার বেশি ভালো চাওয়া মানে তো নিজেদের বিপদ ডেকে আনা! তামিম ইকবাল তাই টম ল্যাথামকে শুভেচ্ছা জানিয়েও মজা করে বললেন, শুভ কামনা সবটুকু নয়।
  • ল্যাথামের সেঞ্চুরিতে লিডের পথে নিউ জিল্যান্ড
    লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যানদের নিয়ে দারুণ লড়াই করলেন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা। পঞ্চম সেঞ্চুরিতে দলকে নিয়ে গেলেন আড়াইশ রানের কাছে। আগের ম্যাচে ভালো শুরুগুলো বড় করতে না পারা টম ল্যাথাম মেলে ধরলেন নিজেকে। দশম সেঞ্চুরিতে কলম্বো টেস্টে নিউ জিল্যান্ডকে লিড নেওয়ার পথে রাখলেন এই ওপেনার।
  • বাংলাদেশকে নিয়ে সতীর্থদের সতর্ক করলেন ল্যাথাম
    গত কয়েক বছরে বাংলাদেশের বিপক্ষে অনেক ম্যাচ খেলেছে নিউ জিল্যান্ড। প্রতিপক্ষের শক্তি-সামর্থ্য খুব ভালো করে জানা কেন উইলিয়ামসনের দলের। তাই দুই দেশের সবশেষ সিরিজে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল হোয়াইটওয়াশ হলেও প্রতিপক্ষকে নিয়ে সাবধানী টম ল্যাথাম। সতীর্থদেরও বাংলাদেশের চ্যালেঞ্জের ব্যাপারে সতর্ক করলেন এই কিপার-ব্যাটসম্যান। 
  • সাকিবের স্পিন সামলাতে নিউ জিল্যান্ডের প্রস্তুতি
    মাঝের ওভারগুলোতে সবচেয়ে বড় হুমকি হতে পারেন সাকিব আল হাসান। তাই বাঁহাতি স্পিনারকে সামলাতে বাড়তি প্রস্তুতি নিয়েছে নিউ জিল্যান্ড। টম ল্যাথাম জানান, বিশ্বকাপ দলে না থাকা স্বদেশের বাঁহাতি স্পিনার এজাজ প্যাটেলকে নেটে খেলেছেন ব্যাটসম্যানরা।
  • একই একাদশ নিয়ে বাংলাদেশের বিপক্ষে নিউ জিল্যান্ড
    চোট থেকে এখনও পুরোপুরি সেরে উঠেননি টিম সাউদি। তার জায়গায় সুযোগ পাওয়া ম্যাট হেনরি দারুণ বোলিং করেছেন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। তাই একাদশে পরিবর্তন আনছে না নিউ জিল্যান্ড। বাংলাদেশ ম্যাচের আগের দিন কিপার টম ল্যাথাম জানিয়ে দিলেন, একই একাদশ নিয়ে নামবেন তারা।
  • বিশ্বকাপে নিউ জিল্যান্ডের প্রথম ম্যাচে অনিশ্চিত ল্যাথাম
    আঙুলের চোটে বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে অনিশ্চিত হয়ে পড়েছেন নিউ জিল্যান্ডের উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান টম ল্যাথাম।
  • নিউ জিল্যান্ডের রান উৎসবে মলিন বাংলাদেশ
    বাংলাদেশের রান ছাড়িয়ে গেল নিউ জিল্যান্ডের প্রথম জুটিই। দুই ওপেনার জিম রাভাল ও টম ল্যাথাম পেরিয়ে গেলেন শতরান। সেঞ্চুরির কাছে গিয়েছেন কেন উইলিয়ামসনও। বাংলাদেশের নির্বিষ বোলিংয়ে কিউইরা মেতে উঠেছে রান উৎসবে।
  • ল্যাথাম-নিকোলসের সেঞ্চুরিতে শ্রীলঙ্কার সামনে বিশাল লক্ষ্য
    টানা দুই টেস্টে সেঞ্চুরি পেলেন টম ল্যাথাম। শেষ তিন টেস্টে দ্বিতীয়বারের মতো তিন অঙ্কের দেখা পেলেন হেনরি নিকোলস। তাদের দেড়শ ছাড়ানো দুটি ইনিংসের ওপর ভর করে ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে শ্রীলঙ্কাকে ৬৬০ রানের বিশাল লক্ষ্য দিয়েছে নিউ জিল্যান্ড।
  • আদ্যন্ত ব্যাটিংয়ে সর্বোচ্চ রানের বিশ্ব রেকর্ড ল্যাথামের
    ইংল্যান্ডের অ্যালেস্টার কুককে ছাড়িয়ে ‘ক্যারিং ব্যাট থ্রু আউট আ কমপ্লিটেড ইনিংস’ এ সর্বোচ্চ রানের বিশ্ব রেকর্ড গড়লেন নিউ জিল্যান্ডের বাঁহাতি ওপেনার টম ল্যাথাম।
  • ল্যাথামের কীর্তির পর বিপদে শ্রীলঙ্কা
    ধ্রুপদী এক টেস্ট ইনিংসে দলকে বিশাল সংগ্রহ এনে দিলেন টম ল্যাথাম। দেশের মাটিতে নিউ জিল্যান্ডের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে গড়লেন আদ্যন্ত ব্যাটিংয়ের কীর্তি। তার ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির পর তৃতীয় দিনের শেষ বেলায় দ্রুত টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যানকে হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা।
  • ল্যাথামের সেঞ্চুরি, উইলিয়ামসনের ৯ রানের আক্ষেপ
    মাত্র ৯ রানের জন্য সেঞ্চুরি না পাওয়ার আক্ষেপ নিয়ে ফিরলেন কেন উইলিয়ামসন। তবে দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরি তুলে নেওয়া টম ল্যাথাম জুটি গড়েছেন অভিজ্ঞ রস টেইলরের সঙ্গে। তাদের ব্যাটে ওয়েলিংটন টেস্টে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে বড় লিডের আশা জাগিয়েছে নিউ জিল্যান্ড।
  • টেইলর-ল্যাথামের জুটি হারিয়ে দিল ভারতকে
    নিজের ২০০তম ওয়ানডেতে দারুণ সেঞ্চুরিতে ভারতকে টানলেন বিরাট কোহলি। কিন্তু ম্যাচ শেষে তার মুখে নেই হাসি। ভারত অধিনায়কের কীর্তি আড়াল করে দিল রস টেইলর ও টম ল্যাথামের দুর্দান্ত জুটি আর নিউ জিল্যান্ডের অসাধারণ জয়।
  • নিউ জিল্যান্ডই চ্যাম্পিয়ন, রানার্সআপ বাংলাদেশ
    খেলছিল নিউ জিল্যান্ড ও আয়ারল্যান্ড; তবে ম্যাচে না থেকেও ছিল বাংলাদেশ। মাশরাফিদের ট্রফি জয়ের সম্ভাবনা ধরে রাখতে এই ম্যাচে হারত হতো নিউ জিল্যান্ডকে। উল্টো আইরিশদের উড়িয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজের শিরোপা জিতে গেল কিউইরা।
  • পাকিস্তানের মতো বাংলাদেশেরও ধসের অপেক্ষায় ল্যাথাম
    পঞ্চম দিনের উইকেটে ঘটতে পারে যে কোনো কিছু। পাকিস্তানের বিপক্ষে আগের সিরিজের উদাহরণের কথা মাথায় রেখেই জয়ের আশা ছাড়ছে না নিউ জিল্যান্ড। টম ল্যাথাম মনে করছেন, সকালে দ্রুত ৩ উইকেট তুলে নিতে পারলে এখনও ফল সম্ভব।
  • বাংলাদেশের কাছাকাছিই থামল নিউ জিল্যান্ড
    সকাল দশটায় আম্পায়াররা মাঠ পরিদর্শন করে জানালেন, খেলা শুরু হবে ঠিক সময়েই। মানে সাড়ে দশটায়। অথচ দুই দল তখনও মাঠেই আসেনি! আগের রাত থেকেই ছিল থেমে থেমে বৃষ্টি। সেটি চলছিল রোববার সকাল থেকেও। কিন্তু হুট করেই রোদের ঝিলিক। তড়িঘড়ি মাঠে এসে কোনো রকমে গা গরম করেই মাঠে নামল বাংলাদেশ।
  • ৩ উইকেট আর পাঁচটি সুযোগ
    মার্টিন ক্রোর সেঞ্চুরির রেকর্ড ছোঁয়ার হাতছানি। মুহূর্তটার সাক্ষী হতে গ্যালারিতে রস টেইলরের বাবা-মা আর পরিবারের বেশ কজন। টেইলর থমকে গেলেন দারুণ শুরুর পরও। থিতু হওয়া কেন উইলিয়ামসনকে সরানোর দুঃসাধ্য কাজটিও হয়ে গেল তাসকিন আহমেদের গোলায়। কিন্তু টম ল্যাথামের দেয়ালে মুখ থুবড়ে পড়ল সব প্রচেষ্টা। ঠিক প্রথম ওয়ানডের মতো!
  • লড়াই করতেও পারল না বাংলাদেশ
    ক্রাইস্টচার্চে তখন সকাল ৯টা। স্টেডিয়ামে গাড়ি থেকে নেমে এগিয়ে যাচ্ছিলেন সাইমন ডুল। বাংলাদেশের সাংবাদিক পরিচয় পাওয়ার পর সাবেক এই ফাস্ট বোলার ও ধারাভাষ্যকার বললেন, “বাংলাদেশের এবার ভালো সম্ভাবনা আছে।” ম্যাচের শুরুর দিকেই প্রায় পরিপূর্ণ হ্যাগলি ওভালের গ্যালারি। ‘বক্সিং ডে’ একটা কারণ, তবে বড় কারণ বাংলাদেশের সেই সম্ভাবনাও। মাঠের ক্রিকেট জমজমাট হওয়ার প্রত্যাশা। সেই প্রত্যাশা জমেছিল দেশেও। কিন্তু প্রথম ম্যাচে সম্ভাবনা আর প্রত্যাশার প্রতিফলন মাঠে পড়ল সামান্যই।