• অ্যামব্রোসের ২৬ বছর পর রোচ
    সেই ১৯৯৪ সালে ২০০ টেস্ট উইকেট পূর্ণ করেছিলেন কার্টলি অ্যামব্রোস। সময়ের পরিক্রমায় তিনি ৩০০ পেরিয়ে ছুঁয়েছিলেন ৪০০ টেস্ট উইকেট। এরপর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানান, সেটিও প্রায় দুই দশক হতে চলল। দীর্ঘ এই সময়ে ২০০ উইকেটের ক্লাবে জায়গা করে নিতে পারছিলেন না ওয়েস্ট ইন্ডিজের আর কেউ। অবশেষে সেই খরা ঘোচালেন কেমার রোচ।
  • ‘বন্ধু’ রোচকে তিনশর উচ্চতায় দেখছেন ওয়ালশ
    দুজনের বয়সের ব্যবধান ২৫ বছর। তবে একটা বড় মিল, দুই যুগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেস আক্রমণের কাণ্ডারি দুজন। বোলিংই কাছাকাছি এনেছে কোর্টনি ওয়ালশ ও কেমার রোচকে, গড়ে উঠেছে বন্ধুত্ব। রোচ এখন দাঁড়িয়ে ২০০ টেস্ট উইকেটের সামনে। ওয়ালশের বিশ্বাস, চোটে না পড়লে ৩০০ উইকেট পর্যন্ত অনায়াসেই যেতে পারবেন রোচ।
  • অ্যান্ডারসনের বোলিংয়ের মুগ্ধ দর্শক রোচ
    কদিন পরই দুজন হবেন প্রবল প্রতিপক্ষ। দুই দলের পেস আক্রমণের মূল অস্ত্র তারা দুজন। তবে মাঠের লড়াই শুরুর আগে একজন কেবলই আরেকজনের ভক্ত। ক্যারিবিয়ান ফাস্ট বোলার কেমার রোচ বলছেন, ইংলিশ পেসার জিমি অ্যান্ডারসনের বোলিং মুগ্ধ হয়ে দেখেন তিনি।
  • ‘সিরিজ চলার সময় আর্চারের সঙ্গে কোনো বন্ধুত্ব নয়’
    জন্ম বার্বাডোজে। অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ে খেলেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে। স্বাভাবিকভাবেই জফ্রা আর্চারের বন্ধু আছে ক্যারিবিয়ান দলে। সেটাই ফুটে উঠল ওয়েস্ট ইন্ডিজের কেমার রোচের কথায়। তবে অভিজ্ঞ এই পেসার পরিষ্কার জানিয়ে দিলেন, আসছে তিন ম্যাচের সিরিজ চলার সময়ে আর্চারের সঙ্গে বন্ধুত্বের কথা ভুলে থাকবেন তারা।
  • ক্যারিবিয়ান পেসে ৭৭ রানেই শেষ ইংল্যান্ড
    গত জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে গিয়েই পেস তোপের মুখে পড়েছিল বাংলাদেশ। গুটিয়ে গিয়েছিল ৪৩ রানে। একইরকম অভিজ্ঞতা হলো এবার ইংল্যান্ডের। ইংলিশ ব্যাটিং বিধ্বস্ত হলো ক্যারিবিয়ান পেসে। বাংলাদেশের সেই ম্যাচের মতোই ওয়েস্ট ইন্ডিজের ধ্বংসযজ্ঞের নায়ক কেমার রোচ।
  • জ্যামাইকায় বাংলাদেশের সামনে নেই রোচ
    স্রেফ ৫ ওভারের একটি স্পেল। অ্যান্টিগা টেস্টের প্রথম সকালে ওই স্পেলেই বাংলাদেশকে গুঁড়িয়ে দিয়েছিলেন কেমার রোচ। তবে এরপরই মাঠ ছেড়েছিলেন হ্যামস্ট্রিংয়ে টান লাগায়। সেই চোটের কারণে দ্বিতীয় টেস্টে খেলতে পারছেন না এই ফাস্ট বোলার। থাকবেন বিশ্রামে।