• হেরেও সেরা কারান-ফখর, শীর্ষে টেন্ডুলকার
    গত সপ্তাহে স্যাম কারান, রোববার ফখর জামান; গত কিছুদিনের মধ্যে ক্রিকেট দুনিয়ার দুই প্রান্তে অসাধারণ দুটি ইনিংস খেলেন এই দুই ক্রিকেটার। খাদের কিনারা থেকে দলকে উদ্ধার করে অবিশ্বাস্য জয়ের দুয়ারে দলকে নিয়ে যান দুজনই। শেষ পর্যন্ত পারেননি, তবে দল হারলেও ম্যান অব দা ম্যাচ হন দুজনই। হেরে যাওয়া ওয়ানডেতে ম্যাচ সেরা হওয়া হরহামেশা দেখা না গেলেও বিরল নয়। এখানেও শীর্ষে শচিন টেন্ডুলকার, ক্রিকেটে যিনি অসংখ্য রেকর্ডে সবার ওপরে।
  • এক ম্যাচেই এত রেকর্ড!
    রান তাড়ার রেকর্ড, দুই দলের দুজনের সেঞ্চুরি, ছক্কা বৃষ্টি, সব মিলিয়ে অসাধারণ এক ম্যাচ উপহার দিয়েছে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী ও ফরচুন বরিশাল। স্মরণীয় এই লড়াইয়ে ব্যাট-বলের নানা কীর্তিতে ওলট-পালট হয়েছে রেকর্ড বইয়ে।
  • শান্ত-পারভেজের ব্যাটিং ঝড়ে ২৮ ছক্কার রেকর্ড
    অগ্রহায়ণের কুয়াশা মোড়ানো দুপুর-বিকেলে মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে দেখা গেল বৃষ্টি। তবে আকাশের কান্না নয়, বোলারদের কাঁদিয়ে ছক্কা বৃষ্টি ঝরালেন দুই দলের ব্যাটসম্যানরা। ফরচুন বরিশাল ও মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীর ম্যাচটি ঠাঁই পেল রেকর্ড বইয়ে।
  • টি-টোয়েন্টিতে ছয় নম্বরে প্রথম সেঞ্চুরি
    আইসিসি সব দেশকে টি-টোয়েন্টি মর্যাদা দেওয়ার পর থেকে এই সংস্করণে হচ্ছে রেকর্ডের ছড়াছড়ি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট এবার দেখল নতুন এক বিশ্ব রেকর্ড; টি-টোয়েন্টিতে ছয় নম্বরে প্রথম সেঞ্চুরি। স্যাম বিলিংসকে ছাপিয়ে এই পজিশনে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়লেন বেলজিয়ামের শাহেরিয়ার বাট।
  • ম্যাকগ্রাকে ছুঁয়ে ছয়শর অপেক্ষায় অ্যান্ডারসন
    টেস্ট উইকেট সংখ্যায় বেশ আগেই গ্লেন ম্যাকগ্রাকে ছাড়িয়ে গেছেন জেমস অ্যান্ডারসন। এবার ৫ উইকেট শিকারির তালিকায় অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তিকে স্পর্শ করলেন ইংলিশ গ্রেট। আরেকটি মাইলফলক থেকে এখন মাত্র দুই ধাপ পেছনে অ্যান্ডারসন। ৬০০ টেস্ট উইকেটের ইতিহাস গড়তে তার প্রয়োজন আর কেবল দুটি উইকেট।
  • ৫১ বছর পুরোনো রেকর্ড ভাঙলেন ক্রলি
    অনেক প্রাপ্তির দিনে সম্ভবত একটি আক্ষেপই ছিল জ্যাক ক্রলির। হাতছানি দিয়েও হারিয়ে গেল ট্রিপল সেঞ্চুরি। তবে তার সেই হতাশাই মিশে গেছে একটি রেকর্ডে। আউট হওয়ার ধরনে ইংলিশ ব্যাটসম্যানের নাম লেখা হয়ে গেছে রেকর্ড বইয়ে। ২২ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান ভেঙে দিয়েছেন পাঁচ দশক পুরোনো এক রেকর্ড।
  • রূপকথাকে হার মানানো এক জুটির গল্প
    অগণিত জুটি দেখেছে টেস্ট ক্রিকেট। দ্রাবিড়-টেন্ডুলকার, জয়াবর্ধনে-সাঙ্গাকারা, হেইডেন-ল্যাঙ্গার, গ্রিনিজ-হেইন্সের মতো দারুণ সব জুটি। তবে জ্যাক হবস ও হার্বার্ট সাটক্লিফ মিলে জন্ম দিয়েছিলেন এমন এক গল্পের, যার ধারে কাছে যেতে পারেনি আর কোনোটি। তাদের জুটির কীর্তিগাথা চিরস্থায়ী জায়গা পেয়ে গেছে ক্রিকেটীয় রূপকথায়।
  • নানা রঙের ক্রিকেট
    ক্রিকেটকে বলা হয় রেকর্ডের খেলা। পরিসংখ্যানের সঙ্গে ক্রিকেটের মতো সম্পৃক্ততা সম্ভবত অন্য কোনো খেলার নেই। মাঠে পারফরম্যান্সে রাঙিয়ে তোলেন ক্রিকেটাররা আর রেকর্ড বইয়ে হয়ে যায় নানা আঁকিবুকি। সংখ্যার কোনো কোনো ছবি আবার চমকে দেয় প্রবলভাবে!
  • যখন জিততে ভুলে গিয়েছিল বাংলাদেশ
    সময়ের পরিক্রমায় বাংলাদেশের ক্রিকেট পেরিয়েছে অনেকটা পথ। স্বাভাবিকভাবেই বেড়েছে দলের কাছে প্রত্যাশাও। কয়েকটি ম্যাচে জয় না পেলে সমালোচনার তীব্র স্রোত নাড়িয়ে দেয় দলকে। অথচ একটা সময় ছিল, যখন হাহাকার ছিল কেবল একটি জয়ের জন্য!
  • অনাকাঙ্ক্ষিত যে রেকর্ডের চূড়ায় মাসুদ-হাবিবুল
    বাংলাদেশের ইতিহাসের সেরা ব্যাটসম্যান ও অধিনায়কদের একজন হাবিবুল বাশার। খালেদ মাসুদকে দেশের ইতিহাসের সেরা উইকেটকিপার বললে, দ্বিমত করার সুযোগ থাকবে সামান্যই। একটি আক্ষেপ থাকতে পারে দুজনেরই। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কখনোই ম্যাচ সেরা হতে পারেননি দুজনের কেউ। এই অপ্রাপ্তিই তাদের জায়গা করে দিয়েছে অনাকাঙ্ক্ষিত এক রেকর্ডের সবার ওপরে।
  • ‘হ্যাটট্রিক’ ৯৯, সেটিই প্রথম, সেটিই একমাত্র
    তিন অঙ্কের জাদুকরী সংখ্যাটির ছোঁয়া পেতে অপেক্ষা কেবল এক পদক্ষেপের। তখনই যদি থমকে যেতে হয়! প্রাপ্তির সম্ভাব্য উচ্ছ্বাস হারিয়ে যায় আক্ষেপের যন্ত্রণায়, যেটির আবহে মিশে থাকে, ‘এত কাছে, তবু কত দূরে!’ ক্রিকেটীয় পরিভাষায় বলা হয় ‘নার্ভাস নাইন্টি নাইন।’ কেউই পেতে চায় না এই তেতো স্বাদ, তবু পেতে হয়েছে অনেককেই। পাকিস্তানের দুই ক্রিকেটার যেমন একই ইনিংসে হয়েছিলেন এটির শিকার, সঙ্গে ইংল্যান্ডের একজন মিলে একই টেস্টে হয়েছিলেন তিন জন!
  • বোর্ডারের অনন্য কীর্তির ৪০ বছর
    চোয়ালবদ্ধ প্রতিজ্ঞার ব্যাটসম্যান। অনুপ্রেরণাদায়ী অধিনায়ক। ক্রিকেট ইতিহাসে অ্যালান বোর্ডার উজ্জ্বল হয়ে আছেন আপন মহিমায়। আশির দশকে তার হাত ধরেই শুরু হয়েছিল অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের পালাবদল। ব্যাটিংয়ে ও নেতৃত্বে গড়েছেন অনেক রেকর্ড। ব্যাট হাতে বোর্ডারের তেমনই এক কীর্তির ৪০ বছর পূর্ণ হলো সোমবার। এক টেস্টের দুই ইনিংসেই দেড়শ!
  • তামিমের রেকর্ডে বাংলাদেশের রেকর্ড
    আউট হওয়ার পর চোখেমুখে ফুটে উঠল বিরক্তি। ব্যাটের দিকেও তাকাচ্ছিলেন বারবার, বল লাগেনি ঠিক জায়গায়। হতাশ হয়ে ফিরছিলেন তামিম ইকবাল। অথচ ততক্ষণে তার নাম উঠে গেছে রেকর্ড বইয়ে! তুমুল সমালোচনা ও প্রচণ্ড চাপ সামলে তামিম খেললেন রেকর্ড গড়া ইনিংস। বাংলাদেশের রান আবারও উঠল রেকর্ড উচ্চতায়।
  • কাপালীকে টপকে রেকর্ড বইয়ে নাসিম
    বাংলাদেশি লেগ স্পিনার অলক কাপালীকে টপকে টেস্টে সবচেয়ে কম বয়সে হ্যাটট্রিকের রেকর্ড গড়েছেন পাকিস্তানি পেসার নাসিম শাহ।
  • সবচেয়ে কম বয়সে পঞ্চাশ ছুঁয়ে ইতিহাসে মাল্লা
    আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সবচেয়ে কম বয়সে ফিফটির রেকর্ড গড়েছেন নেপালের মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান কুসল মাল্লা।
  • দুবের চেয়ে খরুচে কেবল ব্রড
    দল পেল দারুণ এক জয়, নিউ জিল্যান্ড সফরে ৫-০ ব্যবধানে ঘরে তুলল সিরিজ। কিন্তু ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সের বিচারে ম্যাচটিকে হয়তো ভুলে যেতে চাইবেন শিবম দুমে। টি-টোয়েন্টির ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ খরুচে ওভার যে এই ম্যাচে করেছেন ডানহাতি এই পেসার।
  • এক ওভারে ৫ উইকেট!
    বল হাতে বিরল কীর্তি গড়েছেন অভিমন্যু মিঠুন। ভারতীয় এই ডান-হাতি পেসার এক ওভারে নিয়েছেন ৫ উইকেট, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এর আগে যা করতে পেরেছেন কেবল বাংলাদেশের পেসার আল-আমিন হোসেন।
  • মানরোর ছক্কার রেকর্ড ছুঁলেন ও'ব্রায়েন
    টি-টোয়েন্টিতে এক বছরে কলিন মানরোর সর্বোচ্চ ৩৫ ছক্কা হাঁকানোর রেকর্ড ছুঁয়েছেন আয়ারল্যান্ডের অলরাউন্ডার কেভিন ও'ব্রায়েন।
  • হেটমায়ারকে ছাড়িয়ে রোহিতের ছক্কার রেকর্ড
    মিডল অর্ডার থেকে ওপেনিং উঠে আসার পর থেকে রান বন্যা রোহিত শর্মার ব্যাটে। ওয়ানডে ঘরানার ছাপ স্পষ্ট ভারতের এই ডানহাতি ব্যাটসম্যানের ব্যাটিংয়ে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বিশাখাপত্নম টেস্টে এক ম্যাচে সবচেয়ে বেশি ছক্কা মারার রেকর্ড গড়েছিলেন। এবার গড়লেন এক সিরিজে সবচেয়ে বেশি ছক্কা হাঁকানোর রেকর্ড। ছাড়িয়ে গেলেন শিমরন হেটমায়ারের ১৫ ছক্কার রেকর্ডকে।
  • শচীন-শেবাগকে ছাড়িয়ে শীর্ষে কোহলি
    পুনে টেস্টের আগে এ বছর খেলা সাত ইনিংসে সেঞ্চুরি ছিল না একটিও। বছরে নিজের খেলা পঞ্চম টেস্টে এসে পেলেন সেঞ্চুরির দেখা। রূপ দিলেন ডাবল সেঞ্চুরিতে। শচীন টেন্ডুলকার ও বীরেন্দর শেবাগকে পেছনে ফেলে ভারতের হয়ে টেস্টে সবচেয়ে বেশি ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ড নিজের করে নিলেন বিরাট কোহলি।
  • মুরালিধরনের রেকর্ড ছুঁলেন অশ্বিন
    বিশাখাপত্নম টেস্টে প্রথম ইনিংসে সাত উইকেট নিয়ে মুত্তিয়া মুরালিধরনের পাশে বসার আশা জাগান রবিচন্দ্রন অশ্বিন। দ্বিতীয় ইনিংসে এক উইকেট নিয়ে সম্ভাবনাকে দিলেন পূর্ণতা। সবচেয়ে কম টেস্টে ৩৫০ উইকেট নিয়ে শ্রীলঙ্কার বোলিং কিংবদন্তির রেকর্ড স্পর্শ করলেন ভারতীয় অফ স্পিনার।
  • লারাকে ছাড়িয়ে রান চূড়ায় গেইল
    ২৪ বলে ১১ রানের ছোট্ট ইনিংস। কিন্তু এই ইনিংসের পথেও ব্যাট উঁচিয়ে ধরতে পারলেন ক্রিস গেইল। বিবর্ণ ইনিংসটির পথেই যে দেখা পেয়েছেন উজ্জ্বল দুটি মাইলফলকের! উঠে গেছেন ক্যারিবিয়ানদের হয়ে ও ক্যারিবিয়ান হিসেবে ওয়ানডে রানের চূড়ায়। দুটিতেই ছাড়িয়েছেন কিংবদন্তি ব্রায়ান লারাকে।
  • ৭ উইকেট নিয়ে টি-টোয়েন্টিতে অ্যাকারম্যানের বিশ্ব রেকর্ড
    টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সেরা বোলিংয়ের বিশ্ব রেকর্ড গড়েছেন কলিন অ্যাকারম্যান। প্রথম বোলার হিসেবে এই সংস্করণে সাত উইকেট নিয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকান অফ স্পিনার।
  • কোহলিকে ছাড়িয়ে, ব্র্যাডম্যানের পরে স্মিথ
    যখন নিষিদ্ধ করা হয়েছিল, নামের পাশে ছিল ২৩ টেস্ট সেঞ্চুরি। ফেরার টেস্টেই স্টিভেন স্মিথ করলেন জোড়া সেঞ্চুরি। নাম লেখালেন রেকর্ড বইয়ে। ডন ব্র্যাডম্যানের অবিশ্বাস্য রেকর্ড ছুঁতে পারেননি। তবে জায়গা করে নিয়েছেন তার পরেই। ২৫ টেস্ট সেঞ্চুরিতে ইতিহাসের দ্বিতীয় দ্রুততম স্মিথ।
  • টি-টোয়েন্টিতে ৩০৪ রানের রেকর্ড জয়
    মেয়েদের চার দেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে মালির বিপক্ষে রেকর্ড ভাঙা-গড়ার খেলা চলছেই। এবার ৩০৪ রানের বিশাল জয়ের ম্যাচে রেকর্ড বইয়ে উলট-পালট করে দিল উগান্ডা।
  • ৬ হাজার ছুঁয়ে নতুন রেকর্ডে সাকিব
    স্টেডিয়ামের লাউড স্পিকারে ঘোষণা করা হলো, ৬ হাজার রানের ঠিকানায় পা রেখেছেন সাকিব আল হাসান। টনটনের গ্যালারির তুমুল গর্জন স্বাগত জানাল এই মাইলফলককে। দারুণ সব অর্জনে সমৃদ্ধ ক্যারিয়ার আরেকটি রেকর্ডে রাঙালেন বাংলাদেশের অলরাউন্ডার।
  • রেকর্ড গড়ে ‘ডাবল’ ছুঁলেন সাকিব
    ব্যাটিংয়ে একটি রেকর্ড গড়া হয়েছিল ম্যাচের প্রথম ভাগেই। পরে বোলিংয়ে একটি উইকেট নেওয়া সাকিব আল হাসানের নাম আরেকবার রেকর্ড বইয়ে লেখা হলো অলরাউন্ড কীর্তিতে। ৫ হাজার রান ও ২৫০ উইকেটের ‘ডাবল’ স্পর্শ করলেন ওয়ানডে ইতিহাসে সবার চেয়ে কম ম্যাচ খেলে।
  • চারে চার সাকিব
    পোর্ট অব স্পেন থেকে শুরু। মিরপুর, ক্যানবেরা হয়ে এবার ওভাল। প্রতিটিতেই পঞ্চাশ ছুঁয়ে সাকিব আল হাসান গড়লেন অনন্য কীর্তি। টানা চার বিশ্বকাপে দলের প্রথম ম্যাচে ফিফটি করা একমাত্র ব্যাটসম্যান এখন বাংলাদেশের অলরাউন্ডার।
  • ডি ভিলিয়ার্সকে ছাড়িয়ে বিশ্বকাপে গেইলের ছক্কার রেকর্ড
    ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে প্রথম সুযোগেই এবি ডি ভিলিয়ার্সকে ছাড়িয়ে গেলেন ক্রিস গেইল। বিশ্বকাপের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ছক্কার রেকর্ড একার করে নিলেন এই ক্যারিবিয়ান ওপেনার।
  • হোপ-ক্যাম্পবেল জুটির বিশ্ব রেকর্ড
    ওয়ানডে ক্রিকেটে উদ্বোধনী জুটিতে সর্বোচ্চ রানের বিশ্ব রেকর্ড গড়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের শাই হোপ ও জন ক্যাম্পবেল। 
  • ব্যাটিং ঝড়ে ফরহাদের দ্রুততম ফিফটির রেকর্ড
    ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে এবার দুর্দান্ত ফর্মে আছেন ফরহাদ রেজা। সেই ধারাবাহিকতায় অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার নাম লেখালেন রেকর্ড বইয়ে। টর্নেডো ব্যাটিংয়ে গড়লেন লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে বাংলাদেশের কোনো ব্যাটসম্যানের দ্রুততম ফিফটির রেকর্ড।
  • ৬ উইকেটে রুবেলকে ছাড়িয়ে মাশরাফি
    ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সেরা বোলিংয়ের রেকর্ডটি যৌথভাবে এই দুজনের। আরেকটি জায়গাতেও এতদিন পাশাপাশিই ছিলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা ও রুবেল হোসেন। তবে এবার মাশরাফি এগিয়ে গেলেন এক ধাপ। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশিবার পেলেন ৬ উইকেট!
  • ৪০০ উইকেটে প্রথম রাজ্জাক
    প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৫০০ উইকেট পাওয়া বাংলাদেশের একমাত্র বোলার তিনি। এবার লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটেও বড় একটি মাইলফলক সবার আগে ছুঁলেন আব্দুর রাজ্জাক। দেশের প্রথম বোলার হিসেবে এই বাঁহাতি স্পিনার পা রাখলেন ৪০০ উইকেটের চূড়ায়।
  • টানা তিন সেঞ্চুরিতে আশরাফুলের পাশে এনামুল
    গত আসরের শেষ দিকে কীর্তিটা গড়েছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে করেছিলেন টানা তিন ম্যাচে সেঞ্চুরি। এবার আবাহনীর বিপক্ষে সেঞ্চুরি করে তার পাশে বসলেন এনামুল হক।
  • তামিমের রেকর্ড ছুঁলেন সৌম্য
    সৌম্য সরকারের রান তখন ৯২ বলে ৯৯। হাতছানি রেকর্ডের। কিন্তু টিম সাউদির শর্ট বলটি ঠিকমতো খেলতে পারলেন না। এলো না রান। গড়া হলো না রেকর্ডও। তবে রেকর্ড ছোঁয়ার সুযোগটি হাতছাড়া করলেন না সৌম্য। পরের বলেই সিঙ্গেল নিয়ে রেকর্ড বইয়ে বসলেন তামিম ইকবালের পাশে।
  • রান দেওয়ার ডাবল সেঞ্চুরিতে মিরাজের রেকর্ড
    ডাবল সেঞ্চুরি ছুঁয়ে যখন ইনিংস ঘোষণা করলেন কেন উইলিয়ামসন, সবচেয়ে বেশি হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন হয়তো মেহেদী হাসান মিরাজ। আরেকটু হলেই যে তার রান খরচ ছুঁতে চলেছিল আড়াইশ! অনাকাঙ্ক্ষিত এক রেকর্ডে অবশ্য এই অফ স্পিনারের নাম উঠে গেছে আগেই।
  • গেইলের ‘৫০০’
    শহিদ আফ্রিদির সমান ৪৭৬ ছক্কা নিয়ে সিরিজ শুরু করেছিলেন ক্রিস গেইল। দ্বিপাক্ষিক সিরিজে সর্বোচ্চ ২৪ ছক্কার বিশ্ব রেকর্ড গড়ে বিস্ফোরক এই বাঁহাতি ওপেনার প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে হাঁকিয়েছেন পাঁচশ ছক্কা।  
  • উইন্ডিজকে উড়িয়ে ইংল্যান্ডের ছক্কার রেকর্ড
    সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ইংলিশ বোলারদের তুলোধুনো করে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ছক্কার বিশ্ব রেকর্ড গড়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। চতুর্থ ওয়ানডেতে সফরকারী দল খুনে ব্যাটিংয়ে নিল তার বদলা। ক্যারিবিয়ানদের উড়িয়ে দিয়ে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ছক্কার রেকর্ড নিজেদের করে নিয়েছে ইংল্যান্ড।
  • মারতে মারতেই রেকর্ড হয়ে গেল: শুভাগত
    দ্রুত কিছু রান তোলার আশায় ছিলেন শুভাগত হোম চৌধুরী। নিজের ওপর আস্থা ছিল, মেটাতে পারবেন সময়ের দাবি। তবে পরিস্থিতি অনুযায়ী খেলতে গিয়ে যে রেকর্ড গড়ে ফেলবেন অতটা ভাবেননি এই অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার। জানালেন, দলের প্রয়োজনে মেরে খেলতে গিয়েই হয়ে গেছে টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের দ্রুততম ফিফটির রেকর্ড।
  • জাজাই ঝড়ে রেকর্ড বইয়ে উলট-পালট
    হজরতউল্লাহ জাজাইয়ের টর্নেডো ইনিংসে উলট-পালট হয়ে গেছে রেকর্ড বই। টি-টোয়েন্টির কযেকটি রেকর্ড নতুন করে লিখিয়েছেন আফগানিস্তানের বাঁহাতি এই ওপেনার।
  • ছক্কার রেকর্ডে আফ্রিদিকে ছাড়িয়ে চূড়ায় গেইল
    বাংলাদেশের বিপক্ষে গত জুলাইয়ে পাঁচ ছক্কা হাঁকিয়ে শহিদ আফ্রিদির পাশে বসেছিলেন ক্রিস গেইল। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ১২ ছক্কার প্রথমটি হাঁকিয়ে ছাড়িয়ে গেলেন পাকিস্তানের অলরাউন্ডারকে। ক্যারিবিয়ান বাঁহাতি ওপেনার নিজের করে নিলেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বোচ্চ ছক্কার রেকর্ড।
  • খুনে ব্যাটিংয়ে উইন্ডিজের ছক্কার রেকর্ড
    ওয়ানডেতে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ছক্কা হজমের রেকর্ড ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিকারে। সেই দলই এবার গড়ল সর্বোচ্চ ছক্কা হাঁকানোর রেকর্ড। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২৩ ছক্কা মেরে এই কীর্তি গড়ায় দলকে সামনে থেকে পথ দেখালেন ক্রিস গেইল।
  • তামিমের রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরি
    সেভাবে জ্বলে উঠছিল না তামিম ইকবালের ব্যাট। ভালো শুরুটা প্রায় সময়ই বড় করতে পারছিলেন না বাঁহাতি এই ওপেনার। সফল হলেন ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে বিপিএলের ফাইনালে। দাপুটে ব্যাটিংয়ে করলেন দারুণ এক সেঞ্চুরি। টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের কোনো ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ রানের ইনিংসের রেকর্ডে নিজেকেই ছাড়িয়ে গেলেন তামিম।
  • তিন হ্যাটট্রিকে তৃতীয় রাসেল
    ইনিংসের শেষ ওভারে হ্যাটট্রিক, ইনিংসে খুব বেশি প্রভাব হয়তো ফেলতে পারেনি। তবে ওই হ্যাটট্রিকেই আন্দ্রে রাসেল ছুঁয়েছেন একটি রেকর্ড। এর আগেও দুবার হ্যাটট্রিকের স্বাদ পেয়েছিলেন ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডার। টি-টোয়েন্টিতে তিনটি হ্যাটট্রিক করা মাত্র তৃতীয় বোলার রাসেল।
  • ছক্কার ফিফটিতে প্রথম সাব্বির
    পঞ্চাশ ছক্কার দুয়ারে দাঁড়িয়েই শুরু করেছিলেন বিপিএল। কিন্তু ছয় ইনিংস খেলেও যেতে পারছিলেন না প্রত্যাশিত ঠিকানায়। অবশেষে সেই মাইলফলকের দেখা পেলেন সাব্বির রহমান। বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে স্পর্শ করলেন বিপিএলে পঞ্চাশ ছক্কা।
  • আদ্যন্ত ব্যাটিংয়ে সর্বোচ্চ রানের বিশ্ব রেকর্ড ল্যাথামের
    ইংল্যান্ডের অ্যালেস্টার কুককে ছাড়িয়ে ‘ক্যারিং ব্যাট থ্রু আউট আ কমপ্লিটেড ইনিংস’ এ সর্বোচ্চ রানের বিশ্ব রেকর্ড গড়লেন নিউ জিল্যান্ডের বাঁহাতি ওপেনার টম ল্যাথাম।
  • শতরানের জুটিতে সবাইকে ছাড়িয়ে তামিম-মুশফিক
    লিটন দাসের চোট আর ইমরুল কায়েসের শূন্য রানে বিদায়ে শুরুতেই চাপে পড়া বাংলাদেশকে শতরানের জুটিতে পথ দেখালেন তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিম। দারুণ এই জুটিতে একটি জায়গায় সবার উপরে উঠে গেলেন তারা। ওয়ানডেতে দেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি তিন অঙ্ক ছোঁয়া জুটি গড়ার কীর্তি এখন এই দুই জনের।
  • উইকেটের পেছনে বিশ্বরেকর্ড ছুঁলেন পান্ত
    উইকেটের সামনেই তার সম্ভাবনা বেশি। ভয়ডরহীন ব্যাটিংয়ে প্রতিভার জানান দিচ্ছেন মাঝেমধ্যেই। তবে ছোট্ট ক্যারিয়ারে সবচেয়ে বড় কীর্তিটি রিশাভ পান্ত গড়লেন উইকেটের পেছনে। ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ টেস্টেই ছুঁলেন উইকেটকিপার হিসেবে এক টেস্টে সবচেয়ে বেশি ডিসমিসালের বিশ্ব রেকর্ড।
  • ইতিহাস গড়লেন ইয়াসির
    রবিচন্দ্রন অশ্বিনের সামনে হাতছানি ছিল। পারেননি শেষ পর্যন্ত। সম্ভাবনা জাগিয়েও পারেননি ডেল স্টেইন, ওয়াকার ইউনিস, স্টুয়ার্ট ম্যাকগিলরা। সময়ের পরিক্রমায় রেকর্ডটির বয়স ছুঁতে চলছিল ৮৩ বছর। অবশেষে সেই রেকর্ড ভাঙলেন ইয়াসির শাহ। সবচেয়ে কম টেস্টে ২০০ উইকেট নিয়ে পাকিস্তানের লেগ স্পিনার নাম লেখালেন ইতিহাসে।
  • স্পিনে ৪০ উইকেট, বাংলাদেশের ইতিহাস
    সিরিজের শুরুতে আলোচনা ছিল বাংলাদেশের ‘স্পিন কোয়ার্টেট’ নিয়ে। সিরিজ জুড়ে চলল তাদের রাজত্ব। সিরিজ শেষে সেই চার স্পিনারের সৌজন্যেই বাংলাদেশের নাম লেখা হয়ে গেল টেস্ট ইতিহাসে।
  • স্পিনে বোল্ড প্রথম পাঁচ, ইতিহাসে বাংলাদেশ
    ইনিংসের বয়স তখনও হয়নি এক ঘণ্টাও। কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজ হারিয়ে ফেলেছে ৫ ব্যাটসম্যানকে। ৫ জনই বোল্ড! ক্যারিবিয়ানদের টপ অর্ডার ধসিয়ে দিয়ে বাংলাদেশের স্পিনাররা গড়েছেন অনন্য কীর্তি।
  • অভিষেকে নাঈমের বিশ্ব রেকর্ড
    টেস্ট ক্যাপ পেয়েছেন ১৮ পূর্ণ হওয়ার আগেই। তবে শুধু বয়স দিয়েই নয়, নাঈম হাসান নজর কাড়লেন কীর্তিতেও। নাম লেখালেন ইতিহাসে। গড়লেন অভিষেকে সবচেয়ে কম বয়সে ৫ উইকেট নেওয়ার বিশ্বরেকর্ড।
  • তামিমকে ছাড়িয়ে, তামিমের পাশে মুমিনুল
    চট্টগ্রামে যখন এসেছেন, সেঞ্চুরি তো ধরাবাঁধাই ছিল! মুমিনুল হক রক্ষা করলেন জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে পঞ্চাশ পেরুলেই সেঞ্চুরি করার ধারাবাহিকতা। দারুণ সেঞ্চুরিতে একটি রেকর্ডে ছাড়িয়ে গেলেন তামিম ইকবালকে, ছুঁলেন আরেকটিতে।
  • এক রেকর্ড ছুঁয়ে আরও রেকর্ডে চোখ তাইজুলের
    একটি রেকর্ড ছুঁয়েছেন। হাতছানি আছে আরও কয়েকটির। রেকর্ড ছুঁয়ে ভালো লাগা আছে তাইজুল ইসলামের। চোখ রাখছেন সামনের সম্ভাবনায়ও। পাশাপাশি এটিও জানিয়ে দিলেন, তার সবচেয়ে বড় তৃপ্তি দল ভালো অবস্থানে থাকায়।
  • রেকর্ডের মালায় মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরি
    টেস্টে কিপার ব্যাটসম্যান হিসেবে তার খেলা দেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে আলোচিত ইস্যুগুলোর একটি। সেই ভূমিকাতেই মুশফিকুর রহিম গড়ে ফেললেন ইতিহাস। টেস্ট ইতিহাসের প্রথম কিপার ব্যাটসম্যান হিসেবে করলেন একাধিক ডাবল সেঞ্চুরি। অসাধারণ ইনিংসে আরও দারুণ কিছু কীর্তি দিয়ে মুশফিক সাজালেন রেকর্ডের মালা।
  • অনাকাঙ্ক্ষিত রেকর্ডে ইমরুল
    কাইল জার্ভিসের দারুণ ডেলিভারিতে রেজিস চাকাভার দুর্দান্ত ক্যাচ। টেস্ট ক্যারিয়ারে শূন্য রানে আউট হওয়ার স্বাদ ইমরুল কায়েস পেলেন চতুর্থবার। কিন্তু এই শূন্য তাকে এনে দিল এমন এক রেকর্ড, যেটি তিনি চাননি।
  • টেস্ট অভিষেকে মিঠুনের রেকর্ড
    ২০০৬ সালের নভেম্বরে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অভিষেক। অনেক পথ পেরিয়ে মোহাম্মদ মিঠুন টেস্ট ক্রিকেটে পা রাখলেন আরেক নভেম্বরে। মাঝে পার হয়ে গেছে এক যুগ। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে খেলেছেন ৮৮ ম্যাচ। টেস্ট ক্যাপ পেয়েই গড়ে ফেললেন একটি রেকর্ড।
  • ওভারে ৪৩ রান, পেছনে পড়ল আলাউদ্দিন বাবুর রেকর্ড
    আলাউদ্দিন বাবু এখন হয়তো একটু স্বস্তি পাবেন। তার দুঃস্বপ্ন মুছে যাচ্ছে না, তবে অস্বস্তির রেকর্ডটি থেকে তো মুক্তি পাচ্ছেন বাংলাদেশের অলরাউন্ডার! তাকে পেছনে ফেলে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে এক ওভারে সবচেয়ে বেশি রান দেওয়ার নতুন রেকর্ড গড়েছেন নিউ জিল্যান্ডের উইলেম লুডিক।
  • তাইজুল যেখানে সবার ওপরে
    প্রথম ইনিংসে ৬ উইকেট নিয়েছিলেন। কাজ তবু বাকি ছিল অনেক। ব্যাটিং ব্যর্থতার পর আবারও বোলারদের দিকে তাকিয়ে ছিল বাংলাদেশ। এবারও হতাশ করেননি তাইজুল ইসলাম। দ্বিতীয় ইনিংসে নিলেন ৫ উইকেট। বাংলাদেশের হয়ে তৃতীয় সেরা ম্যাচ ফিগারের পথে একটি জায়গায় উঠে গেলেন সবার ওপরে। তাইজুলের টেস্ট অভিষেক থেকে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি টেস্ট উইকেট তারই।
  • তামিমকে ছাড়িয়ে ইমরুল
    কিছু দিন আগেও ছিলেন দলের বাইরে। এশিয়া কাপের মাঝপথে বদলে গেল ক্যারিয়ারের মোড়। নতুন অধ্যায়ের দ্বিতীয় সিরিজেই ইমরুল কায়েস উঠলেন নতুন উচ্চতায়। ছাড়িয়ে গেলেন বাংলাদেশের সবাইকে। গড়লেন দ্বিপাক্ষিক সিরিজে বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি রানের রেকর্ড।
  • ইমরুল-সৌম্যর জুটির রেকর্ড
    ইনিংসের প্রথম বলেই আউট লিটন দাস। মাঠের রেকর্ড রান তাড়ায় শুরুতেই বড় ধাক্কা। কিন্তু পরের জুটিতেই চার-ছক্কার স্রোতে ভেসে গেল সব চাপ। ইমরুল কায়েস ও সৌম্য সরকারের জুটিতে গড়া হলো নতুন রেকর্ড। দ্বিতীয় উইকেটে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় জুটি এটিই।
  • ৫ পেসারে শুরু প্রথমবার
    বাংলাদেশের একাদশে তিনজনের বেশি পেসারই দেখা যায় কদাচিৎ। সেই দলের বোলিং আক্রমণের প্রথম ৫ বোলারই পেসার! জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডেতে অভাবনীয় এই নজির গড়ল মাশরাফি বিন মুর্তজার দল।
  • নিজেকে ছাড়িয়ে লিটনের দ্রুততম ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ড
    রেকর্ড গড়েছিলেন ৬ মাসও হয়নি। চোখধাঁধানো ব্যাটিংয়ে নিজের সে রেকর্ড গুঁড়িয়ে লিটন দাস গড়লেন নতুন রেকর্ড। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে দ্রুততম ডাবল সেঞ্চুরির কীর্তি উপহার দিলেন আগের রেকর্ডকে অনেকটা পেছনে ফেলে।
  • ৯৯ রানের আক্ষেপে প্রথম মুশফিক
    অপেক্ষা ছিল সপ্তম সেঞ্চুরির। ছিলেন স্রেফ এক পা দূরে। কিন্তু মুশফিকুর রহিম হয়ে গেলেন প্রথম। যে জায়গায় প্রথম হলেন, সেটি চায় না কোনো ব্যাটসম্যানই। বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আউট হলেন ৯৯ রানে!
  • দলের সবচেয়ে কম রানে সেঞ্চুরির রেকর্ড ছুঁলেন শাহজাদ
    যে উইকেটে ধুঁকছিলেন সতীর্থরা সেই উইকেটে ঝড় তুললেন মোহাম্মদ শাহজাদ। আফগান কিপার ব্যাটসম্যান যেন ব্যাট করছিলেন ভিন্ন উইকেটে। ভারতীয় বোলারদের ওপর তাণ্ডব চালিয়ে তুলে নিলেন সেঞ্চুরি। স্পর্শ করলেন দলের সবচেয়ে কম রানের সময় তিন অঙ্ক ছোঁয়ার বিশ্ব রেকর্ড।
  • ১০ রানে ৮ উইকেট নিয়ে নাদিমের বিশ্ব রেকর্ড
    ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের এশিয়া কাপের প্রস্তুতিতে সহায়তা করতে কদিন আগে সংযুক্ত আরব আমিরাতে ছিলেন শাহবাজ নাদিম। সেখান থেকে ফিরে বিজয় হাজারে ট্রফিতে খেলতে নেমে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে সেরা বোলিংয়ের বিশ্ব রেকর্ড গড়ে ফেললেন বাঁহাতি এই স্পিনার। ঝাড়খন্ডের হয়ে মাত্র ১০ রানে নিয়েছেন ৮ উইকেট।
  • ম্যাকগ্রাকে ছাড়িয়ে চূড়ায় অ্যান্ডারসন
    বোল্ড করে শুরু। বোল্ড করেই চূড়ায়! ২০০৩ সালে অভিষেক টেস্টে লর্ডসে জিম্বাবুয়ের মার্ক ভারমিউলেনকে বোল্ড করে শুরু হয়েছিল উইকেট শিকার অভিযান। মঙ্গলবার ওভালে মোহাম্মদ শামিকে বোল্ড করে পা রাখলেন সর্বোচ্চ উচ্চতায়। গ্লেন ম্যাকগ্রাকে ছাড়িয়ে টেস্ট ইতিহাসের সফলতম পেসার এখন জেমস অ্যান্ডারসন।
  • ২৯ বলে শূন্য করে রেকর্ড বইয়ে পান্ত
    মাত্র কদিন আগেই টেস্ট অভিষেকে দ্বিতীয় বলেই ছক্কা মেরে রানের খাতা খুলেছিলেন রিশাভ পান্ত। তরুণ ভারতীয় কিপার ব্যাটসম্যান এবার দেখলেন মুদ্রার উল্টো পিঠ। রান করতে পারেননি ২৯ বল খেলেও। আউট হয়ে নাম লিখিয়েছেন অনাকাঙ্ক্ষিত এক রেকর্ডে।
  • লর্ডসে অ্যান্ডারসনের একশ
    লর্ডসে সেঞ্চুরি করলেই নাম উঠে যায় বিখ্যাত অনার্স বোর্ডে। কত কত ব্যাটসম্যানের নাম খোদাই হয়ে আছে সেই বোর্ডে! তবে একটা জায়গায় কোনো সেঞ্চুরি ছিল না লর্ডসের। অনেক ইতিহাসের সাক্ষী থাকা মাঠে সেই শূন্যতা মেটালেন জিমি অ্যান্ডারসন। প্রথম বোলার হিসেবে পূরণ করেছেন ক্রিকেট তীর্থে উইকেটের শতক।
  • মুমিনুলের রেকর্ড গড়া ১৮২
    আয়ারল্যান্ড সফর তার জন্য ওয়ানডে দলে ফেরার দাবি জানানোর সুযোগ। প্রথম দুই ইনিংসে থিতু হয়েও বড় ইনিংস খেলতে পারেননি। কিন্তু এক ইনিংসেই যেন পুষিয়ে দিলেন মুমিনুল হক। খেললেন রেকর্ড গড়া বিধ্বংসী এক ইনিংস।
  • রেকর্ড গড়ে ৬ হাজারে রুট
    মাইলফলক কড়া নাড়ছিল দরজায়। টেস্ট সিরিজের প্রথম দিনেই জো রুটের ব্যাটে খুলে গেল সেই দুয়ার। ৬ হাজার টেস্ট রানে পৌঁছে গেলেন ইংলিশ অধিনায়ক। গড়লেন দারুণ এক রেকর্ডও। অভিষক থেকে দ্রুততম সময়ে ৬ হাজার টেস্ট রান!
  • সাদা আর রঙিনে মন্থরতম তামিম
    এক সময় তিনি ছিলেন দেশের সবচেয়ে আগ্রাসী ব্যাটসম্যানের একজন। সময় আর অভিজ্ঞতায় সেটা বদলেছে বটে, তার পরও তার ব্যাটে প্রায়ই ছোটে স্ট্রোকের ফোয়ারা। সেই তামিম ইকবালের ব্যাটেই এখন দুই সংস্করণে বাংলাদেশের সবচেয়ে ধীরগতির সেঞ্চুরির রেকর্ড!
  • ফখরের ব্যাটে রেকর্ডের বন্যা
    সেই ১৯৮০ সালে রেকর্ডটি গড়েছিলেন ভিভ রিচার্ডস। এরপর চার জন স্পর্শ করেছেন ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তিকে। ছাড়াতে পারছিলেন না কেউ। অবশেষে সেই রেকর্ড নতুন করে লেখালেন ফখর জামান। ওয়ানডেতে দ্রুততম ১ হাজার রানের রেকর্ড গড়ার ম্যাচটিতে পাকিস্তানি ওপেনার করেছেন আরও কিছু রেকর্ড। 
  • লঙ্কায় মহারাজের স্পিন-রাজত্ব
    শ্রীলঙ্কার একাদশে তিন স্পিনার, দক্ষিণ আফ্রিকার একাদশে কেন একটি? দিনের শুরুতে ওঠা প্রশ্ন আরও উচ্চকিত হয়েছে সময় গড়ানোর সঙ্গে। তবে দিন শেষে দক্ষিণ আফ্রিকান ম্যানেজমেন্ট বলতেই পারে, একজনেই কাজ হলে আরও কেন লাগবে! অসাধারণ বোলিংয়ে প্রথম দিনেই কেশভ মহারাজ নিলেন ৮ উইকেট।
  • ফখর-ইমাম জুটিতে বিশ্ব রেকর্ড
    আগের ম্যাচে প্রথম বলেই ভেঙেছিল উদ্বোধনী জুটি। এবার দারুণ ব্যাটিংয়ে উদ্বোধনী জুটিতে বিশ্ব রেকর্ড গড়লেন পাকিস্তানের দুই ওপেনার ফখর জামান ও ইমাম-উল-হক।
  • রফিকের রেকর্ড ছুঁলেন মিরাজ
    টেস্ট জগতে বাংলাদেশের শুরুর নায়কদের একজন মোহাম্মদ রফিক। ২০০৪ সালে গড়েছিলেন একটি রেকর্ড। প্রায় ১৪ বছর পর তার সেই রেকর্ড ছুঁলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। বাংলাদেশের হয়ে টেস্ট উইকেটের দ্রুততম ফিফটি!
  • বাংলাদেশের বিপক্ষেই ক্যালিসের রেকর্ড ছুঁলেন রোচ
    টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশ তখন হাঁটি হাঁটি পা পা। ২০০২ সালে পচেফস্ট্রুমে দুর্দান্ত এক স্পেলে বাংলাদেশের ব্যাটিং গুঁড়িয়ে দিয়েছিলেন জ্যাক ক্যালিস। গড়েছিলেন দারুণ এক রেকর্ড। এবার টেস্ট আঙিনায় দেড় যুগ কাটিয়ে দেওয়া বাংলাদেশের বিপক্ষেই সেই রেকর্ড স্পর্শ করলেন কেমার রোচ।
  • বিব্রতকর যত রেকর্ডে বাংলাদেশ
    আবু জায়েদ চৌধুরী সম্ভবত ইতিহাসই গড়ে ফেললেন। টেস্ট অভিষেকে প্রথম সকালেই ব্যাটিং-বোলিং দুটিই করার অভিজ্ঞতা আর কবে হয়েছে কার! রেকর্ড বই এই হিসাব হয়তো রাখে না। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে অ্যান্টিগা টেস্টে ৪৩ রানের ইনিংসটায় অনেক অনাকাঙ্ক্ষিত রেকর্ডে উঠে গেছে বাংলাদেশের নাম।
  • ফিঞ্চের বিস্ফোরক ইনিংসে অস্ট্রেলিয়ার রেকর্ডময় জয়
    আগের ম্যাচে ঝড় তুলেও থামতে হয়েছিল লক্ষ্য কম থাকায়। এবার আগে ব্যাটিংয়ের সুযোগ পেয়ে প্রায় ২০ ওভার জুড়েই অ্যারন ফিঞ্চ চালালেন তাণ্ডব। তাতে তছনছ জিম্বাবুয়ের বোলিং আর ওলট পালট রেকর্ডের পাতা। টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংসের নিজের রেকর্ডই নতুন করে গড়লেন ফিঞ্চ। অস্ট্রেলিয়া পেল নিজেদের সবচেয়ে বড় জয়।
  • টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড ফিঞ্চের
    টি-টোয়েন্টিতে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড নতুন করে গড়েছেন অ্যারন ফিঞ্চ। মঙ্গলবার ত্রিদেশীয় সিরিজে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৭৬ বলে ১৭২ রান করেন অস্ট্রেলিয়ার এই ব্যাটসম্যান।
  • অস্ট্রেলিয়াকে রেকর্ডে ভাসিয়ে ইংল্যান্ডের সিরিজ জয়
    ম্যাচের ফল নিয়ে কৌতুহল একরকম শেষ প্রথম ইনিংস শেষেই। ইংল্যান্ড যে গড়েছিল ওয়ানডে ইতিহাসের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড! তার পর কেবল দেখার ছিল অস্ট্রেলিয়া কতটা লড়াই করতে পারে। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা ব্যর্থ সেখানেও। রেকর্ড রান তুলে ইংল্যান্ড জিতেছে রেকর্ড ব্যবধানে।
  • ৩০০ ছুঁয়ে সাকিবের ডাবল
    ক্ষণ গণনা চলছিল। সেটিকে দীর্ঘায়িত করে টানা দুই ম্যাচে ছিলেন উইকেটশূন্য। অবশেষে অপেক্ষার অবসান। সাকিব আল হাসান স্পর্শ করলেন টি-টোয়েন্টিতে ৩০০ উইকেট। পূরণ করলেন অসাধারণ এক ডাবলও। টি-টোয়েন্টিতে ৪ হাজার রান করা ও ৩০০ উইকেট নেওয়া মাত্র দ্বিতীয় অলরাউন্ডার সাকিব।
  • এনামুলকে ছাড়িয়ে চূড়ায় রাজ্জাক
    বল হাতে নিয়েছিলেন একটু দেরিতে। তবে সাফল্য পেতে দেরি হয়নি। প্রথম ওভারেই মেডেন উইকেট। তৃতীয় ওভারে আরেকটি। এক প্রান্ত থেকে টানা বল করে গেলেন আব্দুর রাজ্জাক। দারুণ লাইন-লেংথে বোলিং করে যাওয়ার পুরস্কারও পেলেন অভিজ্ঞ এই বাঁহাতি স্পিনার। একার করে নিলেন বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশিবার ৫ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড। 
  • এবার তুষার ইমরানের জোড়া সেঞ্চুরি
    প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি রান ও সেঞ্চুরির রেকর্ড প্রতিদিনই নিয়ে যাচ্ছেন নতুন উচ্চতায়। গত মৌসুমে গড়েছিলেন এক মৌসুম সবচেয়ে বেশি রানের রেকর্ড। তুষার ইমরান এবার গড়লেন আরও একটি কীর্তি। ক্যারিয়ারে প্রথমবার করলেন এক ম্যাচে জোড়া সেঞ্চুরি।
  • রাহুলের ব্যাটে আইপিএলের দ্রুততম ফিফটি
    এবারের আইপিএলের প্রথম দিনে ঝড় তুলেছিলেন ডোয়াইন ব্রাভো। দ্বিতীয় দিনে লোকেল রাহুলের ব্যাটে উঠল টর্নেডো। কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের ওপেনার গড়লেন আইপিএলে দ্রুততম ফিফটি রেকর্ড।
  • মাশরাফির ছক্কার রেকর্ড ছুঁলেন সৌম্য
    টেস্ট ক্রিকেটে এক ইনিংসে সবচেয়ে বেশি ১২ ছক্কার বিশ্বরেকর্ড ওয়াসিম আকরামের। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানের এক ইনিংসে সবচেয়ে বেশি ছক্কার রেকর্ডও তেমনি এমন একজনের, যার মূল কাজ বোলিং। তবে মাশরাফি বিন মুর্তজার সেই রেকর্ড এবার ভাগ বসালেন একজন বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান। ১১ ছক্কার রেকর্ড ছুঁয়েছেন সৌম্য সরকার।
  • রেকর্ডটি কোনো পেসারের কাছেই হারাতে চান মাশরাফি
    যেভাবে ছুটছিলেন, রেকর্ডটি অবধারিতই ছিল। এক ম্যাচ আগে ছুঁয়েছিলেন, সোমবার শুধুই নিজের করে নিলেন। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ লিস্ট ‘এ’ মর্যাদা পাওয়ার পর এক মৌসুমে সর্বোচ্চ উইকেটের রেকর্ড গড়লেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। তবে তার চাওয়া, দ্রুতই ভেঙে যাক এই রেকর্ড। নতুন কীর্তি গড়ুক অন্য কোনো পেসার!
  • ডেসমন্ড হেইন্সের বিশ্ব রেকর্ড ছুঁলেন এলগার
    লম্বা সময় ব্যাট করাকে যেন অভ্যাসই বানিয়ে ফেলেছেন ডিন এলগার। যেটির পরিক্রমায় গড়ে ফেললেন দারুণ এক কীর্তি। ‘ক্যারিং দা ব্যাট থ্রু আ কমপ্লিটেড ইনিংস’ এর তৃতীয় নজির গড়ে ছুঁলেন ডেসমন্ড হেইন্সের রেকর্ড।
  • বৃষ্টির আগে উইলিয়ামসনের রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরি
    মাইলফলক ছিল হাতের নাগালেই। সকালে কাঙ্ক্ষিত সেই ঠিকানায় পৌঁছে গেলেন কেন উইলিয়ামসন। গড়লেন নিউ জিল্যান্ডের হয়ে সবচেয়ে বেশি টেস্ট সেঞ্চুরির রেকর্ড। তবে সারা দিনের প্রাপ্তি বলতে ওটুকুই। বৃষ্টি যে খেলাই হতে দিল না সেভাবে!
  • ৮ উইকেট নিয়ে আরাফাতের ইতিহাস
    প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অভিষেকে পাঁচ উইকেট নিয়ে নিজের সামর্থ্যটা জানান দিয়েছিলেন ইয়াসিন আরাফাত। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে নিজের দ্বিতীয় ম্যাচে গড়লেন ইতিহাস।
  • বাংলাদেশের ছক্কার রেকর্ড
    প্রথমবারের মতো কোনো টি-টোয়েন্টিতে দুই অঙ্কের ঘরে গেল বাংলাদেশের ছক্কার সংখ্যা। দলীয় রেকর্ডের দিনে দেশের হয়ে সর্বোচ্চ ছক্কার রেকর্ড স্পর্শ করেছেন লিটন দাস।
  • চার বলে চার উইকেটে মাশরাফির ইতিহাস
    সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি ছিলেন আগেই। উইকেট নিচ্ছিলেন মুড়ি-মুড়কির মত। মাশরাফি বিন মুর্তজা এবার নিজেকে ছাড়িয়ে গেলেন আবারও। আরও একবার ছাড়িয়ে গেলেন বাংলাদেশের সবাইকে। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে নিয়েছেন টানা চার বলে চার উইকেট। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে বাংলাদেশের প্রথম বোলার হিসেবে গড়লেন এই কীর্তি।
  • নিউ জিল্যান্ডকে উড়িয়ে অস্ট্রেলিয়ার রেকর্ড জয়
    মার্টিন গাপটিলের সেঞ্চুরিতে টি-টোয়েন্টিতে নিজেদের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড স্পর্শ করেও জিততে পারল না নিউ জিল্যান্ড। ডেভিড ওয়ার্নার ও ডার্চি শর্টের বিস্ফোরক ব্যাটিংয়ে টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ রান তাড়া করার রেকর্ড গড়ল অস্ট্রেলিয়া।
  • যে নজির বাংলাদেশের আগে ছিল মাত্র একবার
    প্রথম ওভার করলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। দ্বিতীয় ওভারে বোলিংয়ে আব্দুর রাজ্জাক। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মিরপুর টেস্টের প্রথম দিনে বাংলাদেশ বোলিং আক্রমণ শুরু করল দুই পাশেই স্পিন দিয়ে। গড়ল টেস্ট ইতিহাসে বিরল এক নজির!
  • জোড়া সেঞ্চুরিতে মুমিনুলের ইতিহাস
    লাকশান সান্দাকানের বলে কাভার-পয়েন্টে ঠেলে একটি রান। তিন অঙ্ক স্পর্শ। আরেকটি মাইলফলক, আবারও ব্যাট-হেলমেট উঁচিয়ে উদযাপন। সঙ্গে একটি অনির্বচনীয় স্বাদ! রেকর্ড বইয়ের এমন এক পাতায় লেখা হলো মুমিনুল হকের নাম, যেখানে আগে ছিল না বাংলাদেশের কেউ।
  • যে ডাবল সেঞ্চুরি চাননি তাইজুল
    বেশ ফ্লাইট দেওয়া বলটি ড্রাইভ করে একটি রান নিলেন দিলরুয়ান পেরেরা। ওই শটেই দুইশ স্পর্শ করল তাইজুল ইসলামের রান। তবে এটি এমন এক মাইলফলক, যেটি চান না কোনো বোলারই। তাইজুলের ডাবল সেঞ্চুরিটি যে রান দেওয়ার!
  • ২ হাজারে দ্রুততম মুমিনুল
    মাইলফলকটি খানিকটা দূরেই ছিল। প্রয়োজন ছিল ১৬০ রান। অসাধারণ ব্যাটিংয়ে সিরিজের প্রথম দিনেই কাঙ্ক্ষিত সেই ঠিকানায় পৌঁছে গেলেন মুমিনুল হক। রেকর্ড গড়ে ছুঁলেন ২ হাজার টেস্ট রান।
  • রেকর্ড গড়ে মুস্তাফিজের ৫০ উইকেট
    রেকর্ডটির হাতছানি ছিল তার সামনে বেশ কিছুদিন ধরেই। গত ম্যাচেও রেকর্ডটি ছোঁয়ার তাড়না থেকে নিজে থেকে চেয়ে নিয়েছিলেন বোলিং। তবে উইকেটের দেখা পাননি। শেষ পর্যন্ত মাইলফলক ছুঁলেন ফাইনালেই। বাংলাদেশের হয়ে ওয়ানডেতে দ্রুততম ৫০ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড গড়লেন মুস্তাফিজুর রহমান।
  • সবার আগে ৬ হাজারে তামিম
    বাংলাদেশের ব্যাটিং রেকর্ডের প্রায় সবই তার। আরেকটি মাইলফলকেও তামিম ইকবাল পৌঁছে গেলেন সবার আগে। দেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ানডেতে স্পর্শ করেছেন ৬ হাজার রান।
  • জয়াসুরিয়াকে ছাড়িয়ে তামিমের রেকর্ড
    দুটি মাইলফলকে চোখ রেখে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিলেন তামিম ইকবাল। প্রথমটি পেরিয়ে গেছেন তিনি। ওয়ানডেতে এক মাঠে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড এখন বাঁহাতি এই ওপেনারের।