• রাজ্জাকের ৭ উইকেট, আবার ব্যর্থ মাহমুদউল্লাহ
    এক পাশ থেকে যন্ত্রের মতো বোলিং করে পূর্বাঞ্চলের ব্যাটিংয়ে ধস নামালেন আব্দুর রাজ্জাক। ৭ উইকেট নিয়ে অভিজ্ঞ স্পিনার দলকে এনে দিলেন বড় লিড। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে অবশ্য ধুঁকছে রাজ্জাকের দল দক্ষিণাঞ্চল। তবে প্রথম ইনিংসের সৌজন্যেই এগিয়ে তারা অনেকটা। নাটকীয় এই দিনের আরেকটি উল্লেখযোগ্য ঘটনা, দ্বিতীয় ইনিংসেও রান পাননি মাহমুদউল্লাহ।
  • রনি-আরিফুলের লড়াই, রাজ্জাকের দারুণ বোলিং
    আগের দিন আগুন ঝরানো পেসার শফিউল ইসলামকে দ্বিতীয় দিন ঠিকঠাক সামলাতে পারলেন উত্তরাঞ্চলের ব্যাটসম্যানরা। অন্য পেসারদেরও সামলালেন দারুণভাবে। চট্টগ্রামের সবুজ উইকেটে ব্যাটসম্যানদের কঠিন পরীক্ষায় ফেললেন অভিজ্ঞ বাঁহাতি স্পিনার আব্দুর রাজ্জাক। রনি তালুকদার ও আরিফুল হকের লড়াকু ফিফটির পরও তাই দক্ষিণাঞ্চল পেল লিড।  
  • জাতীয় লিগে প্রথমবার সেরা রাজ্জাক-তাইবুর
    প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে তার সাফল্যের ধারে কাছে নেই বাংলাদেশের কোনো বোলার। দুই দশকের ক্যারিয়ারে গত এক দশকে তার ধারাবাহিকতা অসাধারণ। অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি, সেই আব্দুর রাজ্জাক জাতীয় লিগের শীর্ষ উইকেট শিকারী হলেন এই প্রথমবার। ঘরোয়া ক্রিকেটের আরেক নিয়মিত পারফরমার তাইবুর রহমান প্রথমবার হলেন সর্বোচ্চ রান স্কোরার।
  • ফরহাদ রেজার ৬ উইকেট, রাজ্জাকের ৪
    সকালে সুইং বোলিংয়ের দুর্দান্ত প্রদর্শনী মেলে ধরলেন ফরহাদ রেজা। দুপুরে স্পিন ভেল্কি দেখালেন আব্দুর রাজ্জাক। কিন্তু বিকেলে আর ঝলক দেখাতে পারলেন না কেউ। রোমাঞ্চের আভাস থাকলেও তাই শেষ পর্যন্ত জমে উঠল না লড়াই।
  • ভারত সফরের আগে ইমরুলের জোড়া ব্যর্থতা
    আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য প্রস্তুতি আদর্শ হলো না ইমরুল কায়েসের। ভারত সফরের টেস্ট দলে ফেরা ওপেনার জাতীয় লিগের ম্যাচে ব্যর্থ হলেন দুই ইনিংসেই। ম্যাচ অবশ্য জমে উঠেছে দারুণ। আব্দুর রাজ্জাকের অসাধারণ বোলিং ও মেহেদি হাসানের দুর্দান্ত অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের পরও নিশ্চিত নয় খুলনার জয়। সম্ভাবনায় সমান্তরালেই আছে রংপুর।
  • আবারও ৫ উইকেট রাজ্জাকের, ম্যাচে ১২
    প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৬০০ উইকেট ছোঁয়ার ম্যাচটি দারুণ বোলিংয়ে স্মরণীয় করে রাখলেন আব্দুর রাজ্জাক। প্রথম ইনিংসে ৭ উইকেটের পর দ্বিতীয় ইনিংসে এই বাঁহাতি স্পিনার নিয়েছেন ৫ উইকেট।
  • মেহেদির অবিশ্বাস্য সেঞ্চুরির পর রাজ্জাকের ১০
    মেহেদি হাসান যখন উইকেটে গেলেন, দল ততক্ষণে হারিয়ে ফেলেছে ৬ উইকেট। একটু পর আরও দুই উইকেট হারিয়ে রান দাঁড়াল ৮ উইকেটে ৮০। লিড পাওয়া তো বহুদূর, দলের একশ হওয়া নিয়েই টানাটানি। সেখান থেকে অসাধারণ এক সেঞ্চুরিতে খুলনাকে লিড এনে দিলেন তরুণ এই অলরাউন্ডার। পরে বল হাতে খুলনা অধিনায়ক আব্দুর রাজ্জাক পূর্ণ করলেন ম্যাচে ১০ উইকেট।
  • ৬০০ উইকেট ‘নট আ ম্যাটার অব জোক’
    দিনের খেলা তখন শেষ। ড্রেসিং রুম থেকে বেরিয়ে আব্দুর রাজ্জাক বলছিলেন, “কী আর এমন করেছি ভাই…!” তার মুখে তখন হাসি, বলছিলেন মজা করেই। নিজেও তো জানেন, তার কীর্তি কত বড়। পরে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে ইতিহাস গড়ার নায়ক বললেন তার তৃপ্তির কথা, গর্বের কথা। ৬০০ উইকেট, চাট্টিখানি কথা নয়!
  • মিরপুরে রাজ্জাকের রাজত্ব
    উইকেটে ঘাস আছে যথেষ্ট। প্রথম দেড় ঘণ্টা তাই পেসারদের দিয়েই চালিয়ে নিলেন খুলনা অধিনায়ক। সাফল্য মিলল সামান্য। বাধ্য হয়ে স্পিনার হয়েও নিজে এলেন বোলিংয়ে। কাজ হলো জাদুমন্ত্রের মতো। সেই জাদুর রেশ থাকল প্রায় দিনজুড়ে। ৬০০ উইকেটের উচ্চতায় ওঠার দিনটি ৭ উইকেট নিয়ে স্মরণীয় করে রাখলেন আব্দুর রাজ্জাক।
  • ৬০০ উইকেটের অনন্য উচ্চতায় রাজ্জাক
    ব্যাটসম্যানের ডিফেন্সকে ফাঁকি দিয়ে বল লাগল স্টাম্পে। আব্দুর রাজ্জাকের প্রতিক্রিয়ায় শুরুতে উচ্ছ্বাস দেখা গেল না। পরমুহূর্তেই হয়তো মনে পড়ল মাইলফলকের কথা। হাত উঁচিয়ে ধরলেন। ড্রেসিং রুমের দিকে ইঙ্গিতও করলেন। উদযাপনে যোগ দিলেন সতীর্থরা। রাজ্জাকের অসাধারণ অর্জনের স্বাক্ষী হয়ে থাকল মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়াম। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৬০০ উইকেট!
  • ফিটনেস নিয়ে ক্রিকেটারদের নির্বাচকের হুঁশিয়ারি
    দ্বিতীয় দফায় বিপ টেস্টে উন্নতি করেছেন ক্রিকেটাররা। এরপরও বেঁধে দেওয়া ১১ পর্যন্ত যেতে পারেননি সিনিয়র ক্রিকেটারদের অনেকেই। অন্যতম নির্বাচক হাবিবুল বাশার জানিয়েছেন, এবার হয়তো কিছুটা ছাড় পাবেন তারা। তবে ভবিষ্যতে ফিটনেস নিয়ে কোনো ছাড় থাকবে না কারোর জন্য।
  • ৪০০ উইকেটে প্রথম রাজ্জাক
    প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৫০০ উইকেট পাওয়া বাংলাদেশের একমাত্র বোলার তিনি। এবার লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটেও বড় একটি মাইলফলক সবার আগে ছুঁলেন আব্দুর রাজ্জাক। দেশের প্রথম বোলার হিসেবে এই বাঁহাতি স্পিনার পা রাখলেন ৪০০ উইকেটের চূড়ায়।
  • এনামুল, আল আমিন জুনিয়রের সেঞ্চুরি
    বিসিএলের ষষ্ঠ ও শেষ রাউন্ডে সেঞ্চুরি পেলেন এনামুল হক ও আল আমিন জুনিয়র। তাদের ব্যাটে উত্তরাঞ্চলের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে বড় লিডের আশা জাগিয়েছে দক্ষিণাঞ্চল।
  • আরিফুল ৯৮, রাজ্জাকের ৭ উইকেট
    মাত্র ২ রানের জন্য সেঞ্চুরি পাননি আরিফুল হক। তাকে থামিয়ে উত্তরাঞ্চলকে প্রথম ইনিংসে তিনশ রানের নিচে গুটিয়ে দিয়েছেন দক্ষিণাঞ্চলের অধিনায়ক আব্দুর রাজ্জাক। অভিজ্ঞ বাঁহাতি এই স্পিনার নিয়েছেন ৭ উইকেট। 
  • রাজ্জাকের ৬ উইকেট, এনামুলের ব্যাটে রান
    দ্রুত শেষ ৩ উইকেট তুলে নিয়ে উত্তরাঞ্চলকে চারশ রানের আগে থামালেন আব্দুর রাজ্জাক। দ্বিতীয় ইনিংসে ফিফটি করলেন এনামুল হক, মেহেদি হাসান ও আল আমিন জুনিয়র। অনুমিত ড্র হল উত্তরাঞ্চল ও দক্ষিণাঞ্চলের মধ্যে বিসিএলের তৃতীয় রাউন্ডের ম্যাচ। 
  • সবার ওপর রেকর্ড গড়া রাজ্জাক
    বছরের প্রথম টুর্নামেন্ট জাতীয় ক্রিকেট লিগটা খুব একটা ভালো কাটেনি আব্দুর রাজ্জাকের। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের সেই টুর্নামেন্টে সাদামাটা বোলিং করা বাঁহাতি এই স্পিনার স্বরূপে ফিরেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে। মৌসুমের শেষ টুর্নামেন্টে স্পিনের মায়াজালে তুলে নিয়েছেন ৪৩ উইকেট।
  • কঠিন সমীকরণ মিলিয়ে রাজ্জাক-নুরুলদের উচ্ছ্বাস
    দুই রাউন্ড বাকি থাকতে পয়েন্ট টেবিলে ছিল তারা তিনে। শেষ রাউন্ডের আগে দুইয়ে উঠলেও শীর্ষে থাকা উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে পয়েন্টের ব্যবধান ছিল ১৩। শেষ রাউন্ডে তাই শুধু জিতলেই যথেষ্ট হতো না, প্রয়োজন ছিল বোনাস পয়েন্টের। সেই চ্যালেঞ্জই দারুণ দাপটে জিতে নিয়েছে দক্ষিণাঞ্চল। শীর্ষে থাকা উত্তরাঞ্চলকে ইনিংস ব্যবধানে হারিয়ে জিতেছে শিরোপা। অধিনায়ক নুরুল হাসান ও অভিজ্ঞ স্পিনার আব্দুর রাজ্জাকের কণ্ঠে ফুটে উঠল তাই কঠিন চ্যালেঞ্জ জয়ের তৃপ্তি।
  • রাজ্জাকের স্পিনে উত্তরাঞ্চলকে গুঁড়িয়ে চ্যাম্পিয়ন দক্ষিণাঞ্চল
    প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট নেওয়া আব্দুর রাজ্জাক আরও উজ্জ্বল দ্বিতীয় ইনিংসে। তার দুর্দান্ত বোলিংয়ে উত্তরাঞ্চলকে উড়িয়ে দিয়ে বিসিএলের ষষ্ঠ আসরের শিরোপা ঘরে তুলেছে দক্ষিণাঞ্চল।
  • রাজ্জাকের সাফল্যের পেছনে অজেয় থাকার মানসিকতা
    চলতি মৌসুম দারুণ কাটছে আব্দুর রাজ্জাকের। একের পর এক সাফল্য ধরা দিচ্ছে তার মুঠোয়। প্রাপ্তির আনন্দে ভেসে যাচ্ছেন না বাঁহাতি এই স্পিনার। তার কাছে এ সবই কঠোর পরিশ্রমের ফসল।
  • রাজ্জাকের রেকর্ডের পর এনামুল, ইমরুলের দৃঢ়তা
    আব্দুর রাজ্জাকের চূড়ায় উঠার দিনে ব্যাটিংয়ে উজ্জ্বল এনামুল হক ও ইমরুল কায়েস। উত্তরাঞ্চলকে দুই সেশনে গুটিয়ে দেওয়া দক্ষিণাঞ্চলকে দৃঢ় ভিতরে ওপর দাঁড় করিয়েছেন দুই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান।  
  • এনামুলকে ছাড়িয়ে চূড়ায় রাজ্জাক
    বল হাতে নিয়েছিলেন একটু দেরিতে। তবে সাফল্য পেতে দেরি হয়নি। প্রথম ওভারেই মেডেন উইকেট। তৃতীয় ওভারে আরেকটি। এক প্রান্ত থেকে টানা বল করে গেলেন আব্দুর রাজ্জাক। দারুণ লাইন-লেংথে বোলিং করে যাওয়ার পুরস্কারও পেলেন অভিজ্ঞ এই বাঁহাতি স্পিনার। একার করে নিলেন বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশিবার ৫ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড। 
  • রাজ্জাকের রেকর্ড ছোঁয়ার দিনে সাদমানের ৭ রানের আক্ষেপ
    সেঞ্চুরির সম্ভাবনায় দিন শুরু করেছিলেন সাদমান ইসলাম। কিন্তু কাছে গিয়েও পেলেন না তিন অঙ্কের দেখা। বরং আব্দুর রাজ্জাকের দুর্দান্ত বোলিংয়ে লড়াইয়ে ফিরল দক্ষিণাঞ্চল।
  • ঢাকার উইকেট ‘আনপ্লেয়েবল’ নয়
    চট্টগ্রাম টেস্টে ৫ দিনে পড়েছিল ২৪ উইকেট, ঢাকা টেস্টের প্রথম দিন পড়েছে ১৪টি। প্রথম টেস্টের শেষ দিনেও বল অতটা টার্ন করেনি, মিরপুরে প্রথম থেকে যতটা করেছে। এমন উইকেটে ব্যাটসম্যানদের জন্য টিকে থাকা কঠিন। তবে স্পিন সহায়ক এই উইকেট থিলান সামারাবিরা ও আব্দুর রাজ্জাকের কাছে ‘আনপ্লেয়েবল’ কিছু নয়।
  • ভালো লাগা প্রকাশের ভাষা নেই রাজ্জাকের
    মুখে হাসি খুব বেশি দেখা গেল না। একটু-আধটু হাসলেও খুব চওড়া হলো না হাসি। তবে চেহারায় ভালো লাগার ছাপ স্পষ্ট। কিছু একটা জয় করতে পারার তৃপ্তি। আব্দুর রাজ্জাকের প্রতিক্রিয়াতেও ফুটে উঠল সেসব। মনের অনুভূতি ভাষায় প্রকাশের শব্দ খুঁজে পাচ্ছেন না অভিজ্ঞ স্পিনার।
  • আমাদের দুটি উইকেট বেশি পড়েছে: রাজ্জাক
    বোলিংয়ে ভালো করার আনন্দ মিলিয়ে গেছে টপ অর্ডারের ব্যাটিং ব্যর্থতায়। পঞ্চাশ ছোঁয়ার আগেই ফিরে গেছেন প্রথম চার ব্যাটসম্যান। আব্দুর রাজ্জাক মনে করছেন, এখান থেকে ঘুরে দাঁড়ানো সম্ভব।
  • ভালো পারফরম্যান্সকে জবাব বলছেন না রাজ্জাক
    ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে টেস্ট ক্রিকেটে ফেরা স্মরণীয় করে রেখেছেন আব্দুর রাজ্জাক। অভিজ্ঞ বাঁহাতি এই স্পিনার দারুণ এই পারফরম্যান্সকে এতদিন তাকে উপেক্ষার জবাব হিসেবে দেখছেন না।
  • চার বছর পর ফিরেই রাজ্জাকের চার
    ১৯৮৬ সালের ইংল্যান্ড-নিউ জিল্যান্ড ওভাল টেস্ট। গাজা সেবনের দায়ে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে মাঠে ফিরে ইয়ান বোথাম প্রথম বলেই আউট করলেন ব্রুস এডগারকে। স্পর্শ করলেন সেই সময়ের টেস্ট রেকর্ড ৩৫৫ উইকেট। ক্যাচটি নেওয়া গ্রাহাম গুচ তখন বলেছিলেন, “হু রাইটস ইয়োর ব্লাডি স্ক্রিপ্ট?” ক্রিকেট আখ্যানে স্থায়ী জায়গা পাওয়া কথাটি এখন বলা যায় আব্দুর রাজ্জাককেও, “কে লিখেছে এমন চিত্রনাট্য?” চার বছর পর টেস্ট দলে ফিরেই চার উইকেট!
  • বোলিংয়ের ভালো লাগা উধাও ব্যাটিংয়ে
    আব্দুর রাজ্জাকের উদ্ভাসিত ফেরা। তাইজুল ইসলামের যোগ্য সঙ্গত। টস জয়ী শ্রীলঙ্কা প্রথম দিনেই দুইশ পেরিয়ে শেষ। শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামের বাতাসে উড়ছিল যেন বাংলাদেশের সুখের রেণু। ব্যাটিংয়ে নামতেই পাল্টে গেল হাওয়া। দিনশেষে বাংলাদেশের ড্রেসিং রুমেই অস্বস্তির দাপাদাপি।
  • ‘রাজ্জাকের চেয়ে সানজামুলের ওপর বিশ্বাস ছিল বেশি’
    টেস্টের প্রথম সকালে যে প্রশ্ন ছিল, তৃতীয় দিনে এসে তা আরও উচ্চকিত। ১২৮ রান দিয়েও উইকেটশূন্য সানজামুল ইসলাম। আব্দুর রাজ্জাককে না খেলিয়ে কেন অভিষেক করানো হলো সানজামুলের? বাংলাদেশ দলের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ জানালেন, দলের আস্থা সানজামুলের ওপরই ছিল বেশি।
  • নির্বাচকদের চোখে অনভিজ্ঞ সানজামুলেই দলের আস্থা
    টেস্ট শুরুর একদিন আগেও সানজামুল ইসলামের ওপর ঠিক ভরসা রাখতে পারছিলেন না নির্বাচকরা। প্রধান নির্বাচকের মতে, “সানজামুল নতুন, একদম অনভিজ্ঞ।” অভিজ্ঞতার প্রয়োজন অনুভব করেই চার বছর পর ডাকা হয়েছিল আব্দুর রাজ্জাককে। কিন্তু একাদশে দেখা গেল সেই অনভিজ্ঞ সানজামুলকেই। নেই অভিজ্ঞ রাজ্জাক।
  • আমার ফেরা সবার জন্য দৃষ্টান্ত: রাজ্জাক
    আব্দুর রাজ্জাকের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের শেষ দেখে ফেলেছিলেন অনেকে। কিন্তু বাঁহাতি স্পিনার আশা ছাড়েননি। তিলে তিলে নিজেকে প্রস্তুত করে ফিরেছেন টেস্ট ক্রিকেটে। রাজ্জাক মনে করেন, জাতীয় দল থেকে বাদ পড়া ক্রিকেটারদের জন্য দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে তার এই ফেরা।
  • সাকিব নেই বলেই রাজ্জাক শরণ
    সাকিব আল হাসান ছিটকে যাওয়ার পরই বদলি হিসেবে নেওয়া হয়েছিল দুজনকে। কিন্তু পরদিন টিম ম্যানেজমেন্টের মনে হলো, সাকিবের অভিজ্ঞতার ঘাটতি পূরণ করবে কে? তাই আবার আলোচনা, আরও একজনকে ডাকা। মনে পড়ল প্রায় ভুলে বসা আব্দুর রাজ্জাককে। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন যা বললেন, তাতে রাজ্জাকের ডাক পাওয়ার প্রেক্ষাপট এমনই।
  • হাথুরুসিংহেকে দেখানোর কিছু নেই: রাজ্জাক
    প্রধান কোচ চন্দিকা হাথুরুসিংহের অধীনে বাংলাদেশের প্রথম পূর্ণাঙ্গ সিরিজের পরেই বাদ পড়েছিলেন আব্দুর রাজ্জাক। ঘটনাক্রমে কোচের বিদায়ের পর প্রথম সিরিজেই দলে ফিরলেন বাঁহাতি এই স্পিনার। প্রতিপক্ষ সেই হাথুরুসিংহের শ্রীলঙ্কা। তবে সাবেক কোচকে নিজের সামর্থ্য দেখানোর সুযোগ হিসেবে এই সিরিজকে নিচ্ছেন না রাজ্জাক।
  • ‘সাকিবের অভাব অপূরণীয়’
    সাকিব আল হাসান না থাকলে বাংলাদেশের জন্য ভারসাম্যপূর্ণ একাদশ গড়া কঠিন হয়ে যায়। চোটের জন্য বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার ছিটকে যাওয়ায় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেস্টে সেই কঠিন কাজটি করতে হবে স্বাগতিকদের। তবে যেভাবেই দল সাজানো হোক আব্দুর রাজ্জাকের কাছে সাকিবের অভাব সব সময়ই অপূরণীয়।
  • ছোট পরিকল্পনায় এগোনোর লক্ষ্য রাজ্জাকের
    সাড়ে তিন বছর পর এলেন জাতীয় দলে। তাই আব্দুর রাজ্জাক আগে জানতে চান, দলের পরিকল্পনা। বুঝে নিতে চান নিজের ভূমিকা। এরপর ঠিক করবেন রণ কৌশল।
  • রাজ্জাকের প্রত্যাবর্তনে নাঈমের শুরু
    নাঈম হাসান মাঠে নেমে গিয়েছিলেন বেশ আগেই। আব্দুর রাজ্জাক নামলেন আরেকটু পরে। তবে রোববার দুপুরে চট্টগ্রামে দলের অনুশীলনে দুজনের ঠিকানা হলো একই নেটে। বাংলাদেশ ক্রিকেটের দুটি প্রজন্মের মেলবন্ধনও যেন রচিত হলো জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। যেখানে প্রত্যাবর্তনের অপেক্ষায় ৩৫ বছর বয়সী রাজ্জাক, সেখানেই শুরুর অপেক্ষায় ১৭ বছর বয়সী স্বপ্নাতুর নাঈম।
  • ডাক পাওয়ার কথা ঘুণাক্ষরেও ভাবেননি রাজ্জাক
    কদিন আগেই প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৫০০ উইকেট নেওয়ার জন্য জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের কাছ থেকে সম্মাননা পেয়েছিলেন আব্দুর রাজ্জাক। তবে হঠাৎ করে যে জাতীয় দলে ডাক পড়তে পারে তা ঘুণাক্ষরেও ভাবেননি বাঁ-হাতি অভিজ্ঞ এই স্পিনার।
  • প্রথম টেস্টের দলে রাজ্জাক
    সাকিব আল হাসানের বদলে আগের রাতেই নেওয়া হয়েছিল তানবীর হায়দার ও সানজামুল ইসলামকে। রোববার যোগ হলেন আরও একজন। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেস্টের দলে ডাক পেয়েছেন অভিজ্ঞ বাঁহাতি স্পিনার আব্দুর রাজ্জাক।
  • রাজ্জাক, তুষারদের আশা দেখালেন প্রধান নির্বাচক
    ঘরোয়া ক্রিকেটে নিয়মিত পারফর্ম করে চলা আব্দুর রাজ্জাক, তুষার ইমরান, শাহরিয়ার নাফীস, রকিবুল হাসানদের আশা দেখালেন মিনহাজুল আবেদীন। প্রধান নির্বাচক জানালেন, লম্বা সময় ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বাইরে থাকা খেলোয়াড়েরাও আছেন তাদের বিবেচনায়। তবে শুধু ঘরোয়া ক্রিকেটে পারফর্ম করলেই হবে না, তাদের ‘এ’ দলের হয়ে প্রমাণ দিয়ে ফিরতে হবে জাতীয় দলে।
  • রাজ্জাক ও তুষারকে বাংলাদেশ দলের সম্মাননা
    বিসিবির কাছ থেকে কোনো সম্মাননা এখনও দেওয়া হয়নি তাদের। এমনকি অভিনন্দন জানিয়ে কোনো বার্তাও পাঠানো হয়নি সংবাদমাধ্যমে। তবে ক্রিকেটাররা তো জানেন, ১০ হাজার রান ও ৫০০ উইকেট কত বড় অর্জন! ক্রিকেটাররাই তাই তুষার ইমরান ও আব্দুর রাজ্জাককে দিলেন স্বীকৃতি। সুদৃশ্য ট্রফি দিয়ে দুজনকে সম্মাননা জানিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা।
  • জুনায়েদের সেঞ্চুরি, রাজ্জাকের ৬ উইকেট
    জুনায়েদের সেঞ্চুরি আর ধীমান ঘোষ ও তাইজুল ইসলামের ফিফটিতে প্রথম ইনিংসে চারশ ছাড়ানোর স্কোর গড়েছে উত্তরাঞ্চল। ৬ উইকেট নিয়েছেন দক্ষিণাঞ্চলের আব্দুর রাজ্জাক।
  • মিজানুরের সেঞ্চুরি, অপেক্ষায় জুনায়েদ
    টানা তিন সেঞ্চুরির পর মাঝে খানিকটা ছন্দ হারিয়েছিলেন মিজানুর রহমান। আবার পেলেন তিন অঙ্কের দেখা। সেঞ্চুরি পেয়ে ফিরে গেছেন এই ওপেনার, অপেক্ষায় আরেক ওপেনার জুনায়েদ সিদ্দিক।
  • রাজ্জাক, তুষারের অর্জনের ম্যাচ ড্র
    আব্দুর রাজ্জাক ও তুষার ইমরানের অনন্য উচ্চতায় ওঠার ম্যাচ অনুমিতভাবে ড্র হয়েছে। দক্ষিণাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলের ম্যাচের ফল হতে শেষ দিন নাটকীয় কিছু দরকার ছিল। তেমন কিছু হয়নি।
  • তুষার, রাজ্জাকের নিবেদন অনুকরণীয়: মাশরাফি
    বছরের পর বছর ঘরোয়া ক্রিকেটে নিবেদন দেখানো আব্দুর রাজ্জাক, তুষার ইমরানকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। তার কাছে এই দুই ক্রিকেটার বাংলাদেশের নতুন ও উঠতি ক্রিকেটারদের জন্য অনুকরণীয়।
  • তিন ফিফটিতে মধ্যাঞ্চলের জবাব
    আব্দুর রাজ্জাক-তুষার ইমরানের অনন্য অর্জনের ম্যাচে লিডের পথে প্রতিপক্ষ মধ্যাঞ্চল। টপ অর্ডার তিন ব্যাটসম্যানের ফিফটিতে দক্ষিণাঞ্চলের বিপক্ষে এগোচ্ছে দলটি।
  • ৫০০ উইকেটের অনন্য উচ্চতায় রাজ্জাক
    জাতীয় দলে উপেক্ষিত অনেক দিন ধরেই। তবে বরাবরই রাঙিয়ে যাচ্ছেন ঘরোয়া ক্রিকেট। সেই পথ ধরেই আব্দুর রাজ্জাক পৌঁছে গেলেন অনন্য এক উচ্চতায়। বাংলাদেশের প্রথম বোলার হিসেবে ছুঁয়েছেন প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৫০০ উইকেটে মাইলফলক।
  • ৪৯৯ উইকেট নিয়ে অপেক্ষায় রাজ্জাক
    নিশ্চিত ড্রয়ের পথে এগিয়ে যেতে থাকা ম্যাচে শেষ বিকেলে হঠাৎই উত্তেজনা। দ্রুত ৩ উইকেট নিয়ে নিলেন আব্দুর রাজ্জাক। তাতে ম্যাচে ফলের সম্ভাবনা জাগেনি। তবে জাগে দারুণ এক মাইলফলকের সম্ভাবনা। আরেকটি উইকেট নিলেই ক্যারিয়ারের ৫০০ উইকেট হয়ে যেত। কিন্তু শেষ পর্যন্ত এদিন আর হলো না।
  • রাজ্জাকের স্পিনে খুলনার বড় জয়
    জাতীয় দলে উপেক্ষিত অনেক দিন থেকেই। তবে ঘরোয়া ক্রিকেটে তিনি উইকেট নেন নামতা গুণে। বল হাতে আবারও তেমন পারফরম্যান্স দেখালেন আব্দুর রাজ্জাক। শেষ দিনে ৫ উইকেট নিয়ে বড় জয় এনে দিলেন খুলনাকে।
  • আরও উজ্জ্বল রাজ্জাক
    প্রিমিয়ার লিগ শুরু করেছিলেন চার উইকেট নিয়ে। পরের তিন ম্যচে নিয়েছেন আরও সাত উইকেট। এবার আব্দুর রাজ্জাকের শিকার পাঁচ উইকেট। বোলিংয়ের দাপট অবশ্য ছিল না শেখ জামালের ব্যাটিংয়ে। তবে শেষ পর্যন্ত জিতেছে রাজ্জাকের দল।
  • রাজ্জাকের স্পিনে শেখ জামালের নাটকীয় জয়
    শেষ ৩ ওভারে দরকার ছিল ২৫ রান, প্রাইম দোলেশ্বরের আশা হয়ে টিকে ছিলেন মার্শাল আইয়ুব। তাকে ফিরিয়েই ম্যাচ নিজেদের দিকে ঘুরিয়ে দেন আব্দুর রাজ্জাক। পরে বাকিটুকুও দারুণভাবে সেরেছেন বাঁহাতি এই স্পিনার, তাতে জয়ে ফিরেছে শেখ জামাল ধানমণ্ডি ক্লাব।
  • রাজ্জাক ঝড়ে দক্ষিণাঞ্চলের পুঁজি
    ম্যাচে শতক ও ১০ উইকেট নেওয়ার কৃতিত্ব দেখিয়েছেন শুভাগত হোম চৌধুরী। তারপরও স্বস্তিতে নেই তার দল। আব্দুর রাজ্জাকের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে লড়াইয়ের পুঁজি গড়েছে দক্ষিণাঞ্চল।
  • রাজ্জাকের স্পিনে দক্ষিণাঞ্চলের ইনিংস ব্যবধানে জয়
    প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে মুস্তাফিজুর রহমানের ফেরার ম্যাচে দারুণ জয় পেয়েছে দক্ষিণাঞ্চল। অধিনায়ক আব্দুর রাজ্জাকের স্পিনে তিন দিনেই পূর্বাঞ্চলকে ইনিংস ও ৪৪ রানে হারিয়েছে তারা।
  • মাহমুদের শতক, রাজ্জাকের ৫ উইকেট
    ক্যারিয়ারের প্রথম দ্বিশতকের পথে থাকা নাঈম ইসলামকে ফিরিয়েছেন আব্দুর রাজ্জাক। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে নিজের শততম ম্যাচে নিয়েছেন পাঁচ উইকেট। ফজলে মাহমুদের অপরাজিত শতকে উত্তরাঞ্চলের বড় সংগ্রহের জবাব দিচ্ছে দক্ষিণাঞ্চল।
  • সাইফের শতক, তুষারের ভরসায় খুলনা
    রকিবুল হাসানের পর শতক করেছেন সাইফ হাসান। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে তার প্রথম শতকে সাড়ে তিনশ’ ছাড়ানো ঢাকা লিডের আশা জাগিয়েছে। তবে খুলনার সম্ভাবনা এখনো বাঁচিয়ে রেখে ক্রিজে আছেন তুষার ইমরান।
  • ‘স্পিনারদের পার্থক্য গড়ে দিতে হবে’
    নেই কেবল একজন চায়নাম্যান স্পিনার, আর সব আছে চিটাগং ভাইকিংস দলে। প্রতিপক্ষকে চাপে ফেলতে স্পিনারদের ওপর অনেকখানি নির্ভর করতে পারেন তামিম ইকবাল। স্পিনাররা আপ্রাণ চেষ্টা করবে সেই প্রতিশ্রুতি এরই মধ্যে আব্দুর রাজ্জাকের কাছ থেকে পেয়েছেন অধিনায়ক।
  • রাজ্জাকের ঝড়ো ৯৭
    ঝড়ো এক ইনিংসে জাতীয় ক্রিকেট লিগের (এনসিএল) তৃতীয় দিন বরিশালের বিপক্ষে খুলনাকে প্রথম ইনিংসে লিড এনে দিয়েছেন আব্দুর রাজ্জাক। প্রথম ইনিংসে দলের সংগ্রহ চারশ’ ছাড়াতে চমৎকার এক ইনিংস খেলেছেন মেহেদি হাসান মিরাজও।