সোহরাওয়ার্দীর ৮ রানের আক্ষেপ

সোহরাওয়ার্দীর ৮ রানের আক্ষেপ

প্রথম তিন দিনে দুই দলের প্রথম ইনিংস শেষ না হওয়ায় ড্রই ছিল সম্ভাব্য ফল। শেষ দিনেও নাটকীয় কিছু ঘটল না। রান উৎসবের ম্যাচে এদিন আলো ছড়ালেন সোহরাওয়ার্দী শুভ। তবে সঙ্গীর অভাবে সেঞ্চুরি পেলেন না বাঁহাতি এই অলরাউন্ডার।

সাইফের সেঞ্চুরি, রনি-রকিবুলের ফিফটি

সাইফের সেঞ্চুরি, রনি-রকিবুলের ফিফটি

প্রথম রাউন্ডের সময় ছিলেন ‘এ’ দলের হয়ে শ্রীলঙ্কা সফরে। শেষ ম্যাচে সেঞ্চুরির স্মৃতি নিয়ে জাতীয় ক্রিকেট লিগে খেলতে নেমেই পেলেন তিন অঙ্কের দেখা। সঙ্গে রনি তালুকদার ও রকিবুল হাসানের ফিফটিতে রংপুরের বিপক্ষে শক্ত অবস্থানে রয়েছে ঢাকা।

ইমরুলময় খুলনা-রংপুর ম্যাচ ড্র

ইমরুলময় খুলনা-রংপুর ম্যাচ ড্র

প্রথম দিন ভেসে যাওয়ার পর দ্বিতীয় দিনের খেলাও পড়েছিল বৃষ্টির বাধায়। ফলে রংপুর ও খুলনার মধ্যকার ম্যাচে ফল নিয়ে আসলে তেমন কোনো উন্মাদনা ছিল না। নিরুত্তাপ ড্র ম্যাচের শেষ দিনে সব আলো কেড়ে নিলেন ইমরুল কায়েস। আসরে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে তুলে নেওয়া সেঞ্চুরিকে ডাবল সেঞ্চুরিতে রূপ দিয়ে থেকে গেছেন অপরাজিত।

রবিউল-ইমরানের ব্যাটে বড় সংগ্রহের পথে খুলনা

রবিউল-ইমরানের ব্যাটে বড় সংগ্রহের পথে খুলনা

জাতীয় ক্রিকেট লিগে প্রথমবারের মতো খেলতে নেমে নিজেকে মেলে ধরলেন ইমরানউজ্জামান। রবিউল ইসলাম রবিও পেলেন ফিফটির দেখা। সেঞ্চুরি জুটিতে দুই ওপেনার দলকে দাঁড় করালেন শক্ত ভিতের উপর। প্রথম ইনিংসে রংপুরকে দ্রুত গুটিয়ে দেওয়া খুলনা রয়েছে বড় সংগ্রহের পথে।

সুযোগ হাতছাড়া নাঈমের, ব্যর্থ নাসির

সুযোগ হাতছাড়া নাঈমের, ব্যর্থ নাসির

আল আমিন হোসেন ও আব্দুর রাজ্জাকের ছোবল এড়িয়ে দলকে টানছিলেন নাঈম ইসলাম। শেষ পর্যন্ত বড় ইনিংস খেলার সুযোগ হাতছাড়া করলেন এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। ব্যর্থ হয়েছেন অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার নাসির হোসেন।

রানার্সআপ রংপুর, প্রথম স্তরেই খুলনা

রানার্সআপ রংপুর, প্রথম স্তরেই খুলনা

আগের আসরের চ্যাম্পিয়ন, রেকর্ড ৬ বারের শিরোপাজয়ী। দলে জাতীয় তারকার ছড়াছড়ি। সেই খুলনাই শেষ দিন পর্যন্ত শঙ্কায় ছিল জাতীয় লিগের প্রথম স্তর থেকে ছিটকে যাওয়ার। শেষ পর্যন্ত অবশ্য টিকে গেছে তারা। খুলনার সঙ্গে ম্যাচ ড্র করা রংপুর হয়েছে রানার্সআপ।

খুলনার বিপক্ষে চাপে রংপুর

খুলনার বিপক্ষে চাপে রংপুর

শেষ দুই জুটির দৃঢ়তায় আড়াইশ ছাড়ানো সংগ্রহ পেয়েছে খুলনা। রান পাওয়া সহজ নয় এমন উইকেটে দ্রুত প্রথম চার ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে চাপে পড়েছে রংপুর।  

শুভাশিস-রবিউল সমানে সমান

শুভাশিস-রবিউল সমানে সমান

একজন সদ্য ১৯ পেরুনো তরুণ পেসার। আরেকজন টেস্ট ক্রিকেটের স্বাদ পাওয়া ঘরোয়া ক্রিকেটের অভিজ্ঞ পেসার। তবে উইকেট শিকারে দুইজন থাকলেন সমানে সমান। রবিউল হক ও শুভাশিস রায়, রংপুরের দুই পেসারের বোলিং তোপে গুটিয়ে গেল রাজশাহী।

নাঈমের ৮৯ ছাপিয়ে সানজামুলের ৭ উইকেট

নাঈমের ৮৯ ছাপিয়ে সানজামুলের ৭ উইকেট

সেঞ্চুরির আশায় দিন শুরু করেছিলেন নাঈম ইসলাম। তাকে থামতে হয়েছে ১১ রান দূরে। সানজামুল ইসলামের স্পিন ছোবলে নাঈমের দল রংপুরকেও থামতে হয়েছে প্রত্যাশিত স্কোরের অনেক পেছনে। 

রংপুরে ব্যাটে-বলের দারুণ লড়াই

রংপুরে ব্যাটে-বলের দারুণ লড়াই

রংপুরে জমে উঠেছে ব্যাটে-বলের লড়াই। রাকিন আহমেদের পর ফিফটি করেছেন নাঈম আহমেদ। তবে নিয়মিত উইকেট তুলে নিয়ে রংপুরকে দ্রুত রান তুলতে দেয়নি রাজশাহী।

মনিরের ৫ উইকেটের পর জমে উঠেছে লড়াই

মনিরের ৫ উইকেটের পর জমে উঠেছে লড়াই

প্রথম ইনিংসে দুই দলই ছিল সমতায়। লড়াই তুমুল জমে উঠেছে দ্বিতীয় ইনিংসেও। মনির হোসেনের দারুণ বোলিংয়ে লক্ষ্য নাগালের বাইরে যেতে দেয়নি বরিশাল। রংপুরও বাঁচিয়ে রেখেছে সম্ভাবনা। অপেক্ষা এখন শেষ দিনের নাটকীয়তার।

জ্বলে উঠলেন শুভাশিস, আবারও ব্যর্থ মোসাদ্দেক

জ্বলে উঠলেন শুভাশিস, আবারও ব্যর্থ মোসাদ্দেক

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের টেস্ট দল ঘোষণা হতে পারে যে কোনো সময়। তার আগে নির্বাচকদের বার্তা দিয়ে রাখলেন শুভাশিস রায়। জ্বলে উঠলেন জাতীয় লিগে। জাতীয় দলে জায়গা প্রত্যাশী আরেকজন ছিঁড়তে পারেননি ব্যর্থতার জাল। আবারও নিজেকে মেলে ধরতে ব্যর্থ মোসাদ্দেক হোসেন।

জ্বলে উঠলেন বোলার সোহাগ গাজী

জ্বলে উঠলেন বোলার সোহাগ গাজী

অফ স্পিনে তার কার্যকারিতাই প্রায় হারিয়ে যেতে বসেছিল। গত কিছুদিনে হয়ে উঠেছেন অলরাউন্ডার, যার বেশি সাফল্য ব্যাটিংয়ে। উইকেটও পেয়েছেন কিছু, তবে সেসব অনেক দামে কেনা। অবশেষে বল হাতে বলার মতো করে জ্বলে উঠতে পারলেন সোহাগ গাজী।

আরেকটি সেঞ্চুরিতে ১১ হাজার ছাড়িয়ে তুষার

আরেকটি সেঞ্চুরিতে ১১ হাজার ছাড়িয়ে তুষার

নিজেকে দিন দিন নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাচ্ছেন তুষার ইমরান। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান ও সেঞ্চুরির মালিক ছুঁলেন নতুন মাইলফলক। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে করলেন আরেকটি সেঞ্চুরি। প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে পৌঁছালেন ১১ হাজার রানে।

৫ উইকেটের পর সৌম্যর ফিফটি

৫ উইকেটের পর সৌম্যর ফিফটি

সৌম্য সরকারের দারুণ বোলিংয়ে প্রথম ইনিংসে লিডের আশা জাগিয়েছিল খুলনা। শেষ পর্যন্ত পারেনি তারা। তানবীর হায়দারের ব্যাটে লিড পেয়ে যায় রংপুর। ৫ উইকেট নিয়ে তাদের লিডটা ছোট রাখার পাশাপাশি ব্যাট হাতেও সফল সৌম্য। দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে করেছেন ফিফটি।

সাজেদুলের বোলিং ঝলকের পর জাভেদের ফিফটি

সাজেদুলের বোলিং ঝলকের পর জাভেদের ফিফটি

ঘরোয়া ক্রিকেটের অভিজ্ঞ পেসারদের একজন। রংপুরকেও নেতৃত্বও দিচ্ছেন মোটামুটি নিয়মিত। কিন্তু দারুণ কোনো পারফরম্যান্স ছিল না অনেকদিন। সেই খরা ঘোচালেন সাজেদুল ইসলাম। বাঁহাতি পেসারের দারুণ বোলিং বড় স্কোর গড়তে দিল না খুলনাকে। এরপর ওপেনার জাহিদ জাভেদের ফিফটিতে রংপুর এগোচ্ছে লিডের পথে।

বড় ইনিংসের সুযোগ হাতছাড়া এনামুল-সৌম্যর

বড় ইনিংসের সুযোগ হাতছাড়া এনামুল-সৌম্যর

জাতীয় দলের জায়গা হারিয়েছেন দুজন। আবার নির্বাচকদের মন জয় করতে চাই ধারাবাহিক ভাবে বড় ইনিংস। জাতীয় লিগের প্রথম রাউেন্ড দুজনই করেছিলেন সেঞ্চুরি। আবারও তাদের সামনে এসেছিল বড় ইনিংসের সুযোগ। কিন্তু সুযোগটা নিতে পারেননি এনামুল হক ও সৌম্য সরকার।

লিটনের ডাবল সেঞ্চুরিতে রংপুরের জবাব

লিটনের ডাবল সেঞ্চুরিতে রংপুরের জবাব

তিনশ ছাড়ানো উদ্বোধনী জুটি। নাজমুল হোসেন শান্ত ও মিজানুর রহমানের সেঞ্চুরি তো ছিলই, তৃতীয় দিনে শতক করলেন জুনায়েদ সিদ্দিকও, রাজশাহী উঠল রান পাহাড়ে। তবে পাহাড়সম লিডের চাপায় হাঁসফাঁস করেনি রংপুর। লিটন দাসের রেকর্ড গড়া ডাবল সেঞ্চুরিতে দ্বিতীয় ইনিংসে জবাবটা দিচ্ছে তারা দারুণ ভাবে।

নিজেকে ছাড়িয়ে লিটনের দ্রুততম ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ড

নিজেকে ছাড়িয়ে লিটনের দ্রুততম ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ড

রেকর্ড গড়েছিলেন ৬ মাসও হয়নি। চোখধাঁধানো ব্যাটিংয়ে নিজের সে রেকর্ড গুঁড়িয়ে লিটন দাস গড়লেন নতুন রেকর্ড। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে দ্রুততম ডাবল সেঞ্চুরির কীর্তি উপহার দিলেন আগের রেকর্ডকে অনেকটা পেছনে ফেলে।

মিজানুর-শান্তর সেঞ্চুরি, জুটির ট্রিপল সেঞ্চুরি

মিজানুর-শান্তর সেঞ্চুরি, জুটির ট্রিপল সেঞ্চুরি

আগের রাউন্ডেই ৩৫০ রানের রেকর্ড উদ্বোধনী জুটি গড়েছিলেন আব্দুল মজিদ ও রনি তালুকদার। সেই রেকর্ডকে হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছিলেন মিজানুর রহমান ও নাজমুল হোসেন শান্ত। শেষ পর্যন্ত রেকর্ড হয়নি, তবে রাজশাহীর দুই ওপেনারের তিনশ ছাড়ানো জুটিতে পিষ্ট হয়েছে রংপুরের বোলিং।

রংপুরের হয়ে লড়লেন কেবল নাঈম

রংপুরের হয়ে লড়লেন কেবল নাঈম

আগের রাউন্ডে করেছিলেন ৯২ ও ১০০। দারুণ ব্যাট করেছিল তার দলও। কিন্তু এবার লড়লেন কেবল নাঈম ইসলামই। ভেঙে পড়লেন বাকিরা। রংপুর তাই প্রথম দিনেই কোণঠাসা রাজশাহীর বিপক্ষে।

শেষ দিনে নাঈমের সেঞ্চুরি, মাহমুদের ৫ রানের আক্ষেপ

শেষ দিনে নাঈমের সেঞ্চুরি, মাহমুদের ৫ রানের আক্ষেপ

প্রথম দিন ৮ রানের জন্য সেঞ্চুরি না পাওয়ার আক্ষেপে পুড়েছিলেন নাঈম ইসলাম। চতুর্থ ও শেষ দিনে তিন অঙ্কের দেখা পেয়ে গেলেন রংপুরের এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। এর আগে মাত্র ৫ রানের জন্য ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি না পাওয়ার আক্ষেপে পুড়েন ফজলে মাহমুদ।

ফজলে মাহমুদ-সোহাগের সেঞ্চুরি

ফজলে মাহমুদ-সোহাগের সেঞ্চুরি

আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে সেঞ্চুরি করে ফিরে গেছেন সোহাগ গাজী। অপরাজিত সেঞ্চুরিতে দলকে টানছেন ফজলে মাহমুদ। দুই সেঞ্চুরিতে রংপুরের বড় সংগ্রহের জবাব দিচ্ছে বরিশাল।

ক্যারিয়ার সেরা ব্যাটিংয়ে আরিফুলের ডাবল সেঞ্চুরি

ক্যারিয়ার সেরা ব্যাটিংয়ে আরিফুলের ডাবল সেঞ্চুরি

আগের দিন সেঞ্চুরিতে পৌঁছানো আরিফুল হক পেলেন ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি। তার ব্যাটে ভর করে বরিশালের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে রানের পাহাড় গড়েছে রংপুর। জবাব দিতে নেমে শুরুটা খারাপ হয়নি বরিশালের।

আরিফুলের সেঞ্চুরি, নাঈমের ৮ রানের আক্ষেপ

আরিফুলের সেঞ্চুরি, নাঈমের ৮ রানের আক্ষেপ

বরিশালের বিপক্ষে জাতীয় ক্রিকেট লিগের ম্যাচে মাত্র ৮ রানের জন্য সেঞ্চুরি না পাওয়ার আক্ষেপে পুড়েছেন নাঈম ইসলাম। সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন আরিফুল হক। এই পেস বোলিং অলরাউন্ডারের ব্যাটে প্রথম ইনিংসে বড় সংগ্রহ গড়ছে রংপুর।

সালমান, মোসাদ্দেকের ফিফটিতে বরিশালের ড্র

সালমান, মোসাদ্দেকের ফিফটিতে বরিশালের ড্র

নাসির হোসেনের ক্যারিয়ার সেরা ব্যাটিংয়ে চাপে পড়ে যাওয়া ম্যাচে ড্র করেছে বরিশাল। দুই তরুণ সালমান হোসেন ও মোসাদ্দেক হোসেনের ফিফটিতে জাতীয় ক্রিকেট লিগের প্রথম স্তরে টিকে গেছে দলটি।

নাসিরের সামনে ট্রিপল সেঞ্চুরির হাতছানি

নাসিরের সামনে ট্রিপল সেঞ্চুরির হাতছানি

ক্যারিয়ার সেরা ব্যাটিংয়ে বরিশালকে পুড়িয়েছেন নাসির হোসেন ও আরিফুল হক। দুই জনের বিশাল জুটিতে প্রথম ইনিংসে রানের পাহাড় গড়ছে রংপুর। দেড়শ রানের ইনিংস খেলে ফিরে গেছেন আরিফুল, ক্যারিয়ারের প্রথম ট্রিপল সেঞ্চুরির হাতছানি নাসিরের সামনে।

নাসিরের সেঞ্চুরিতে রংপুরের লিডের আশা

নাসিরের সেঞ্চুরিতে রংপুরের লিডের আশা

বিপিএলে ব্যাটিংয়ে ব্যর্থ নাসির হোসেন জ্বলে উঠেছেন বড় দৈর্ঘ্যের ক্রিকেটে। অপরাজিত সেঞ্চুরিতে বরিশালের বিপক্ষে লিডের পথে রেখেছেন রংপুরকে।

সোহাগ গাজীর ১ রানের আক্ষেপ

সোহাগ গাজীর ১ রানের আক্ষেপ

বিপিএলে বল হাতে বড় ভূমিকা রেখেছেন রংপুরের শিরোপা জয়ে। তবে জাতীয় লিগে রংপুর তার প্রতিপক্ষ। বরিশালের হয়ে ব্যাট হাতে দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলে সোহাগ গাজী ভোগালেন রংপুরকেই। শেষ পর্যন্ত যদিও পুড়েছেন ১ রানের আক্ষেপে।

ঢাকা বিভাগকে টানলেন শুভাগত, মিনহাজ

ঢাকা বিভাগকে টানলেন শুভাগত, মিনহাজ

পিঠে বিশাল রানের বোঝা। তবে ম্যাচ বাঁচাতে ঢাকা বিভাগ এগোচ্ছে ধীরে চলো গতিতে। মন্থর দিনে অর্ধশতক করেছেন তিন জন। রংপুরের বিপক্ষে ড্রয়ের লক্ষ্যে ভালোমতোই আছে ঢাকা বিভাগ।

নাঈমের ডাবল সেঞ্চুরির পর আরিফুলের সেঞ্চুরি

নাঈমের ডাবল সেঞ্চুরির পর আরিফুলের সেঞ্চুরি

ডাবল সেঞ্চুরি তাকে হাতছানি দিয়েছিল আগেও। কিন্তু কাছে গিয়েও যেতে পারেননি সেই ঠিকানায়। আউট হয়েছিলেন ১৮৫ রানে। এবার অধরা সেই মাইলফলকের দেখা পেলেন নাঈম ইসলাম। ঘরোয়া লিগের রান মেশিন হয়ে ওঠা ব্যাটসম্যান করলেন ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি।

জোড়া সেঞ্চুরিতে নাঈম-শুভর আড়াইশ রানের জুটি

জোড়া সেঞ্চুরিতে নাঈম-শুভর আড়াইশ রানের জুটি

এবারের জাতীয় লিগ শুরু করেছিলেন সেঞ্চুরি দিয়ে। বৃষ্টিবিঘ্নিত পরের তিন রাউন্ডে ব্যাট করতে পেরেছেন মাত্র দুবার। পঞ্চম রাউন্ডে এসে আবার সেঞ্চুরি করলেন নাঈম ইসলাম। তার সঙ্গে সেঞ্চুরি করেছেন সোহরাওয়ার্দী শুভও।

জাভেদের সেঞ্চুরিতে রংপুরের লিড

জাভেদের সেঞ্চুরিতে রংপুরের লিড

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে প্রথম সেঞ্চুরির স্বাদ পেলেন জাহিদ জাভেদ। সাতে নেমে ওয়ানডের গতিতে দারুণ ইনিংস খেললেন ধীমান ঘোষ। খুলনার বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ৯৯ রানের লিড পেল রংপুর।

আরিফুল-শুভর ৪ উইকেট

আরিফুল-শুভর ৪ উইকেট

বৃষ্টির কারণে প্রথম দিনে খেলা হয়েছিল ২২.২ ওভার। দ্বিতীয় দিনে হলো ৩৬.২ ওভার। আরিফুল হক ও সোহরাওয়ার্দী শুভর বোলিংয়ে এর মধ্যেই অলআউট খুলনা।

নাসিরের ২৬ বলে ফিফটি

নাসিরের ২৬ বলে ফিফটি

বল করছিলেন অনিয়মিত বোলাররা। সেটিকে কাজে লাগিয়ে ঝড় তুললেন নাসির হোসেন। ড্রয়ের পথে এগোতে থাকা নিরুত্তাপ ম্যাচে যা একটু উত্তেজনা ছড়াল নাসিরের ব্যাটেই। জাতীয় লিগের ম্যাচে ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে রংপুরের হয়ে ২৬ বলে করলেন অর্ধশতক।

বৃষ্টির আগে মাশরাফি-ঝলক

বৃষ্টির আগে মাশরাফি-ঝলক

একটি ইনসুইং করছে তো আরেকটি আউট সুইং। লেংথ দুর্দান্ত। মাশরাফি বিন মুর্তজা ফিরে গিয়েছিলেন যেন সাদা পোশাকে তার সেরা সময়ে। কিন্তু বাধ সাধল বেরসিক বৃষ্টি। মাশরাফির আগুনে স্পেল থামল ৪ ওভারেই। ড্র হয়েছে খুলনা-রংপুর ম্যাচ।