• সময়ের থাবায় থমকে গেছে মোশাররফের সোনার হাসি
    সোনায় মোড়ানো দিনগুলি হারিয়ে গেছে সময়ের স্রোতে। পড়ে আছে কেবল অতীতের কঙ্কাল। একসময় বক্সিং রিং দাপিয়ে বেড়িয়েছেন মোশাররফ হোসেন। মুষ্ঠিবদ্ধ হাতের প্রতাপে লিখেছেন অর্জনের দারুণ সব গল্প। সময়ের থাবায় এখন তিনি নড়তে-চড়তে পারেন না ঠিকঠাক। পক্ষাঘাতগ্রস্ত হওয়ার পর লাঠিতে ভর করে কোনো রকমে চলছে জীবনের চাকা। বক্সার মোশাররফ হেরে গেছেন জীবনযুদ্ধে। ৩৫ বছর এসএ গেমসের সেই সোনাঝরা দিনগুলি এখনও তাকে ভালো লাগার দোলা দেয় বটে, তবে জাগায় প্রবল হাহাকারও।
  • বিসিএলের আগে বিপ টেস্টে সেরা রুয়েল-মাহিদুল
    জাতীয় ক্রিকেট লিগের মতো বিসিএলের আগেও হয়ে গেল ক্রিকেটারদের ফিটনেস পরীক্ষা- বিপ টেস্ট। বেঁধে দেওয়া ১১ পর্যন্ত যেতে পারেননি সিনিয়রদের অনেকেই। একশর বেশি ক্রিকেটারের মধ্যে ফিটনেস পরীক্ষায় সেরা হয়েছেন তরুণ পেসার রুয়েল মিয়া ও কিপার-ব্যাটসম্যান মাহিদুল ইসলাম।
  • ফিটনেস পরীক্ষা নিয়ে দুর্ভাবনায় ক্রিকেটাররা
    খেলা না থাকলে বাংলাদেশের বেশিরভাগ ক্রিকেটার চলে যান মাঠের বাইরে। সুযোগ-সুবিধা তেমন না থাকায় স্কিল কিংবা ফিটনেস নিয়ে খুব একটা কাজ করা হয়ে উঠে না। আবার খেলার আগে ঘাম ঝরিয়ে নিজেদের যতটা সম্ভব প্রস্তুত করে মাঠে নামেন তারা। এবার জাতীয় লিগের আগে তেমন প্রস্তুতিই নিচ্ছেন সবাই। এর মাঝে তারা শুনেছেন যে টুর্নামেন্টের আগে বাধ্যতামূলক 'বিপ টেস্ট' নামক ফিটনেস পরীক্ষায় পেতে হবে ১১ পয়েন্ট। প্রায় বিনা প্রন্তুতিতে এই পরীক্ষার সামনে দাঁড়িয়ে উৎকণ্ঠায় সিনিয়র ক্রিকেটাররা।
  • মোশাররফের পাশে বিসিবি
    মস্তিষ্কে টিউমারে আক্রান্ত বাঁহাতি স্পিনার মোশাররফ হোসেনের পাশে দাঁড়িয়েছে বিসিবি। প্রথম অধিনায়ক শামীম কবির ও প্রবীণ সাবেক ক্রিকেটার রামচাঁদ গোয়ালাকেও আর্থিক সহায়তা দেবে দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা।
  • এবাদত-মোশাররফের ছোবলের পর সাদমানের ঝলক
    আগের ম্যাচেই করেছিলেন ক্যারিয়ার সেরা বোলিং। নিজের সেরাকে এবার আরেকটু ছাড়িয়ে গেলেন এবাদত হোসেন। এই পেসারের মতো ৪ উইকেট নিলেন অভিজ্ঞ স্পিনার মোশাররফ হোসেনও। দুজনের বোলিং নৈপুণ্যের পর মধ্যাঞ্চলকে ব্যাট হাতে এগিয়ে নিলেন সাদমান ইসলাম।
  • প্রতীক্ষার অবসানে ফারুককে ছাড়িয়ে মোশাররফ
    ২০০৮ সালের ১৪ মার্চ খেলেছিলেন সবশেষ ওয়ানডে। মোশাররফ হোসেনের স্মৃতির পাতায় ধুলো জমে যাওয়ার কথা। বাঁহাতি স্পিনার পেলেন যেন নতুন অভিজ্ঞতা। সাড়ে ৮ বছর পর আবার খেলতে নামলেন ওয়ানডে ম্যাচ।
  • দলে নিয়মিত হতে চান মোশাররফ
    সিরিজ শুরুর আগে আশা ছিল ডাক পাওয়ার। সেটি হয়নি। দ্বিতীয় ওয়ানডের পর অপেক্ষায় ছিলেন ফোনকলের। এবার পূরণ হয়েছে আশা। প্রত্যাশিত ডাক পেয়েছেন মোশাররফ হোসেন রুবেল। বয়স ৩৫ ছুঁইছুঁই। তবু নিয়মিত হতে চান দলে।
  • সাড়ে ৮ বছর পর মোশাররফ
    এতগুলো দিন, এত বছরের অপেক্ষা। বছরের পর বছর ঘরোয়া ক্রিকেটে ধারাবাহিক পারফরম্যান্স। মোশাররফ হোসেনের জন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তবু ছিল দূরের বাতিঘর, দিন দিন যা সরে যাচ্ছিল আরও দূরে। হঠাৎ দেবদূত আবির্ভুত হলেন যেন ভেঙ্কটপতি রাজু। দৈববার্তা হয়ে এলো একটি ডাক!
  • রুবেলের বদলে দলে আরেক রুবেল
    আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডের বাংলাদেশ দলে পেসার রুবেল হোসেনের বদলে জায়গা পেয়েছেন বাঁহাতি স্পিনার মোশাররফ হোসেন রুবেল।