• ‘মাঠের মানুষ’ মুশফিক মুখিয়ে খেলায় ফিরতে
    কতগুলো ফিফটি-সেঞ্চুরি হাতছাড়া হয়ে যাচ্ছে, অন্যদের খেলা দেখেন আর ভাবেন মুশফিকুর রহিম। দীর্ঘশ্বাস আড়াল করে আবার মনোযোগ বাড়ান টিভির খেলায়। নতুন নিয়মে কীভাবে মানিয়ে নিচ্ছেন ক্রিকেটাররা, দেখেন খুটিয়ে খুটিয়ে। মনের খাতা উল্টে দেখেন, সামনে তার কী খেলা আছে।
  • দুঃস্থদের জন্য নিলামে মুশফিকের ইতিহাসগড়া ব্যাট
    নিজের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি, দেশেরও প্রথম। ইনিংসটি বিশেষ জায়গা করে নিয়েছে বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে আর মুশফিকুর রহিমের হৃদয়ে। যে ব্যাটে খেলেছিলেন ইতিহাসগড়া সেই ইনিংস, এতদিন সেটি রেখে দিয়েছিলেন সযত্নে। নিজের খুব প্রিয় সেই স্মারক এবার মানবসেবায় উৎসর্গ করে দিচ্ছেন দেশের অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। করোনাভাইরাস দুর্গতদের সহায়তায় নিলামে তুলবেন সেই ব্যাট।
  • মুশফিককে নিয়ে দোলাচলে ডমিঙ্গো
    নিরাপত্তা শঙ্কায় পাকিস্তান সফর থেকে নিজেকে সরিয়ে নেওয়া মুশফিকুর রহিম বাইরে থাকতে পারেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টে। মিডল অর্ডারের সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানের খেলা নিয়ে পরিষ্কার কোনো বার্তা দিতে পারেননি প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোও।  
  • মুশফিকের ব্যাটে দলের বিশ্বাস 
    বিশ্বকাপে চলছে সাকিব আল হাসান শো। অনন্য অলরাউন্ড কীর্তিতে স্মরণীয় করে চলেছেন বিশ্ব আসর। তবে আরেকজন কিন্তু নিজের কাজ ঠিকই করে চলেছেন। তার ব্যাটের চমক হয়তো চোখ ধাঁধিয়ে দিচ্ছে না, তবে দোলা দিচ্ছে হৃদয়ে। মুশফিকুর রহিম বিশ্বকাপেও পারফর্ম করে চলেছেন বরাবরের বিশ্বস্ততায়।
  • পরস্পরের চোখে মুশফিক-তামিম
    ২০১০ সালে তামিম ইকবাল করেছিলেন ১ হাজার ৬৪৬ রান। এক পঞ্জিকাবর্ষে যা ছিল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড। সদ্য সমাপ্ত বছরে তাকে ছাড়িয়ে মুশফিকুর রহিম করেছেন ১ হাজার ৬৫৭ রান। এই রেকর্ড কেবল একটি উপলক্ষ্য, আরও অনেক কিছুতেই দুজনকে মেলে একই বন্ধনীতে। বাংলাদেশের সবসময়ের সেরা দুই ব্যাটসম্যান মনে করা হয় দুজনকে, দুজনের সম্পর্কও দারুণ। বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে একসঙ্গে বসে দুজন কথা বললেন দুজনের ক্যারিয়ার, অর্জন, বন্ধুত্ব ও সম্পর্কের রসায়ন নিয়ে।
  • বড় জয়ে মান বাঁচাল বাংলাদেশ
    উদযাপনে আড়ম্বর খুব একটা দেখা গেল না। খানিকটা ‘হাই ফাইভ’ আর পরস্পরের পিঠ চাপড়ে দেওয়া। উচ্ছ্বাসের চেয়ে তাতে বেশি মিশে থাকল স্বস্তি। এই সিরিজ থেকে কিছু পাওয়ার প্রত্যাশা মাটিচাপা পড়েছিল সিলেটেই। মিরপুরে দায় ছিল মান বাঁচানোর। বড় জয়ে সেটুকু করতে পেরেছে বাংলাদেশ। সিরিজ শেষ করতে পেরেছে সমতায়।
  • মোসাদ্দেকের বোলিং ঝলক, রান পেলেন লিটন-মুশফিক
    ব্যাটিং তো বটেই, মোসাদ্দেক হোসেনের কাছে বোলিংয়েও প্রত্যাশা আছে দলের। প্রস্তুতি ম্যাচে সেই প্রত্যাশা পূরণের ইঙ্গিত দিয়ে রাখলেন মোসাদ্দেক। ১০ ওভারে মাত্র ১৪ রান দিয়ে নিয়েছেন ৪ উইকেট। বল হাতে নিজের দাবি জানিয়ে রাখলেন রুবেল হোসেন, ব্যাট হাতে লিটন দাস। রান পেয়েছেন মুশফিকুর রহিমও।
  • রশিদ খানের দাওয়াই খুঁজছেন মুশফিক
    আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের আগে যে কোনো দলের প্রস্তুতিতেই সবচেয়ে বেশি গবেষণা হয় এখন রশিদ খানকে সামলানো নিয়ে। বাংলাদেশের মূল দুর্ভাবনাও এই লেগ স্পিনারকে নিয়ে। দলের প্রস্তুতি এখনও শুরু হয়নি, তবে ব্যক্তিগতভাবে সবার ভাবনায় নাড়া পড়ে গেছে। মুশফিকুর রহিম যেমন ভাবছেন রশিদের কার্যকারিতা কমানোর উপায়।
  • ফল নিয়ে বোলারদের ভাবতে মানা মুশফিকের
    ফল নিয়ে বোলারদের ভাবতে মানা করেছেন মুশফিকুর রহিম। কি হবে এ নিয়ে না ভেবে প্রতিটি বলে নিজেদের উজাড় করে দিতে বলেছেন অধিনায়ক। দেখতে চান, প্রক্রিয়া যেন ঠিক রাখে তার সতীর্থরা।
  • ড্রয়ের জন্য খেলবে না বাংলাদেশ
    এক সময়ে ড্রয়ের জন্য টেস্ট খেলত বাংলাদেশ। সে সময়ে ওই পরিকল্পনার জন্য সবচেয়ে মানানসই উইকেট পাওয়া যেত চট্টগ্রামে। মন্থর উইকেটে মন্থর টার্ন, ব্যাটসম্যান চাইলে কাটিয়ে দিতে পারে সারাদিন। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে তেমন উইকেটের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছেন মুশফিকুর রহিম।
  • ম্যাচের আগেই একটি জয় দেখছেন মুশফিক
    ব্যাট-বলের লড়াই শুরুই হয়নি। তার আগেই চট্টগ্রাম টেস্টে একটি জয় পেয়ে গেছে বাংলাদেশ!
  • বন্যার্তদের মুখে হাসি ফোটাতে চান মুশফিক
    জাতীয় ক্রিকেট দলকে ছুঁয়ে গেছে বন্যার্তদের কষ্ট। অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম জানিয়েছেন, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে ভালো খেলে খানিকটা হলেও হাসি ফোটাতে চান তাদের মুখে। সিরিজ শেষে দাঁড়াতে চান বন্যার্তদের পাশে। 
  • ‘আমাদের দলে তো কোনো কোহলি নেই’
    পঞ্চম দিনের ভারতীয় উইকেট বিবেচনায় ব্যাটিংয়ের জন্য তা ছিল বেশ ভালো। স্রেফ ‘বেসিক’ মেনে খেললেই টিকে থাকতে পারত বাংলাদেশ। সংবাদ সম্মেলনে স্বয়ং বিরাট কোহলি বলে গেলেন এই কথা। একটু পর মুশফিকুর রহিম সেই কথা শুনে বললেন, “আমাদের দলে তো কোনো বিরাট কোহলি নেই!”
  • মুশফিক বীরত্বে চারশর কাছে বাংলাদেশ
    রচিন্দ্রন অশ্বিনের রেকর্ডটি শেষ পর্যন্ত হলো। মুশফিকুর রহিমও আউট হলেন। তবে অশ্বিনের উচ্ছ্বাস দেখা গেল না। মুশফিকের চেহারায় অনেকটাই স্বস্তির ছাপ। অসাধারণ এক সেঞ্চুরি করেছেন। তার চেয়েও বড় কথা, প্রায় লাঞ্চ পর্যন্ত টেনেছেন দলকে। তাতে ফলো অন এড়ানো না গেলেও ভারত আবার নেমেছে ব্যাটিংয়ে।
  • মুশফিক থাকলে ওয়ানডে-টি-টোয়েন্টিও অন্যরকম হতো: টেইলর
    চোখের অস্ত্রোপচারের কারণে খেলতে পারেননি ওয়ানডে সিরিজে। টি-টোয়েন্টি সিরিজে পাননি সুযোগ। রঙিন পোশাকের সিরিজটি দেখেছেন বাইরে থেকে। টেস্টে তো মাঠে থেকেই দেখলেন। বাংলাদেশের পারফরম্যান্সে মুগ্ধ রস টেইলর। কিউই ব্যাটসম্যানের মতে, মুশফিকুর রহিম থাকলে অন্যরকম হতে পারত সীমিত ওভারের সিরিজও।
  • প্রয়োজন হলে ব্যাটিং করতে পারবেন মুশফিক
    দুই আঙুলের চোটে ওয়েলিংটন টেস্টের তৃতীয় দিনে কিপিং করতে পারেননি মুশফিকুর রহিম। এই ম্যাচে তার কিপিং গ্লাভস হাতে গলানোর সম্ভবনা আছে সামান্যই। তবে প্রয়োজন হলে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে পারবেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।
  • মুশফিকের কয়েন রহস্য!
    সেঞ্চুরি ছুঁতেই আনন্দ চিৎকার, ছোট্ট একটি লাফ, ব্যাট উঁচিয়ে ধরা, হেলমেট খোলা, পরিচিত সব উদযাপনই ছিল। এরপরই মুশফিকুর রহিমের হাত চলে গেল পকেটে। হাতড়ে কিছু একটা বের করে এনেই উঁচিয়ে ধরলেন ড্রেসিং রুমের দিকে। মুখে হাসি, কিন্তু হাতে কি? কয়েন? নাকি অন্য কিছু! লকেট?
  • জুটির চূড়ায় সাকিব-মুশফিক
    দৃঢ় পায়ে এগিয়ে চলা, একটু একটু করে উপরে ওঠা। চূড়ায় ওঠার পথে শেষ পদক্ষেপটা হলো রাজকীয়। কেন উইলিয়ামসনকে ডাউন দ্য উইকেটে এসে মুশফিকুর রহিমের ছক্কা। সাকিব আল হাসানের সঙ্গে মিলে গড়লেন নতুন ইতিহাস। টেস্টে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় জুটি!
  • একদিন স্বপ্নের দিন!
    ভোরের সোনা রোদে মিলিয়ে গেল যেন প্রকৃতির রুদ্ররূপ। আগের দিনের কালো মেঘ আর তীব্র বাতাস উধাও। ঝকঝকে নীলাকাশ, সাদা মেঘদলের ওড়াওড়ি আর মৃদুমন্দ বাতাসে মন ভাল করে দেওয়া সকাল। প্রভাতের সূর্যই নাকি দেয় দিনের পূর্বাভাস। কে জানত, ওয়েলিংটনের সকাল আসলে ইঙ্গিত দিচ্ছিল বাংলাদেশ ক্রিকেটের অদ্ভুত এক সুন্দর দিনের!
  • ফিল্ডিংয়ে ভালো করার তাগিদ মুশফিকের
    আফগানিস্তান, ইংল্যান্ডের পর নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষেও বাজে ফিল্ডিং খুব ভোগাচ্ছে বাংলাদেশ দলকে। টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে সতীর্থদের প্রতিটি সুযোগ কাজে লাগানোর তাগিদ দিয়েছেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম।
  • মিরাজের ব্যাপারে মুশফিকের অনুরোধ
    প্রত্যাশার বিপুল চাপ যেন মেহেদী হাসান মিরাজকে ছুঁতে না পারে তার জন্য আগে থেকেই সতর্ক মুশফিকুর রহিম। বাংলাদেশের অধিনায়ক তরুণ অফ স্পিন অলরাউন্ডারের কাছ থেকে বেশি প্রত্যাশা না করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।
  • সকালের ব্যাটিং নিয়ে ব্যাখ্যা মুশফিকের
    তৃতীয় দিনের সকালে শুরু থেকেই ইংলিশ বোলারদের ওপর চড়াও হয় বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। নিয়মিত উইকেট পড়লেও শট খেলা থামাননি স্বাগতিকরা। অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম জানিয়েছেন, তাদের এই ব্যাটিং পরিকল্পিতই ছিল। 
  • এমন ধস ভাবেননি মুশফিকও
    বিনা উইকেটে ইংল্যান্ডের স্কোর শতরান স্পর্শ করলেও আশা ছাড়েননি মুশফিকুর রহিম। বিশ্বাস ছিল, একটা উইকেট পেলেই খেলাটা ঘুরে যাবে। কিন্তু এক সেশনেই যে ইংল্যান্ড গুঁড়িয়ে যাবে অতটা ভাবতে পারেননি তিনিও।
  • মাইলফলকের সামনে রোমাঞ্চিত মুশফিক
    প্যাড-গ্লাভস পরে ড্রেসিং রুম থেকে বেরিয়ে কিপিং অনুশীলনে যাচ্ছিলেন মুশফিকুর রহিম। এগিয়ে গিয়ে ‘অভিনন্দন’ বলে হাত বাড়িয়ে দিতেই অধিনায়ক তাকালেন জিজ্ঞাসু দৃষ্টিতে। ‘হাফ সেঞ্চুরি করতে যাচ্ছেন, পঞ্চাশ টেস্ট…!’ শুনে এবার হাসলেন মুশফিক, “হ্যাঁ, মনে আছে।”
  • ‘রিভার্স সুইং শেখার সুযোগ কোথায়?’
    স্পিনারদের দাপটের মধ্যেই চট্টগ্রাম টেস্টে পার্থক্য গড়ে দিয়েছেন ইংল্যান্ডের পেসাররা। আরও নির্দিষ্ট করে বললে তাদের রিভার্স সুইং। পুরানো বল যেভাবে ব্যবহার করেছেন বেন স্টোকস, স্টুয়ার্ট ব্রড তার ধারে কাছেও যেতে পারেননি শফিউল ইসলাম-কামরুল ইসলাম রাব্বি। বাংলাদেশ অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম মনে করছেন, এর কারণ খুঁজতে হবে বাংলাদেশের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে।
  • ‘অনেক কষ্ট করে রান করতে হয়েছে’
    শতক তো নয়ই, নিজের ক্যারিয়ার রেকর্ডে যোগ হয়নি একটি অর্ধশতকও। স্কোরকার্ড বলছে দুই ইনিংসে রান ৪৮ ও ৩৯। সেখানে লেখা নেই, দুই ইনিংসেই কতটা অসাধারণ ব্যাট করছিলেন মুশফিকুর রহিম। বাংলাদেশ অধিনায়ক জানালেন, এই টেস্টে রান করতে কষ্ট হয়েছে অনেক।
  • ‘হারই শেষ কথা নয়’
    চট্টগ্রাম টেস্টে হারই শেষ কথা নয় মুশফিকুর রহিমের কাছে। বাংলাদেশের অধিনায়ক মনে করছেন, অনেক প্রাপ্তি আছে ২২ রানে হারা প্রথম টেস্টে।
  • প্রথমবার চাওয়া মত উইকেট পেয়েছেন মুশফিক!
    জয়ের কাছে গিয়েও হারের যন্ত্রণায় পুড়তে হয়েছে আরেকবার। তবু চট্টগ্রাম টেস্টে একটি তৃপ্তির জায়গা আছে মুশফিকুর রহিমের। ক্যারিয়ারে প্রথমবার এমন উইকেটে পেয়েছিলেন, যেমনটি ছিল দলের চাওয়া!
  • ব্যবধান গড়েছে প্রথম ইনিংস: মুশফিক
    চট্টগ্রাম টেস্ট শুরুর আগেই মুশফিকুর রহিম ধারণা করেছিলেন, প্রথম ইনিংস খুব গুরুত্বপূর্ণ হবে। হয়েছেও তা-ই। বাংলাদেশ অধিনায়ক মনে করছেন, দুই দলের প্রথম ইনিংসই পার্থক্য গড়ে দিয়েছে। 
  • খারাপ লাগছে, তবে হতাশ নই: মুশফিক
    ম্যাচ শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের প্রতিক্রিয়ায় একদমই ম্রিয়মান লাগছিল কণ্ঠ। তবে মাঠ পেরিয়ে সংবাদ সম্মেলন কক্ষে আসতে আসতে একটু স্বাভাবিক হয়েছেন মুশফিকুর রহিম। সংবাদকর্মীদের অভিনন্দন, সান্ত্বনায় হাসলেন। দীর্ঘ সংবাদ সম্মেলনে তার কথায়ও হতাশার চেয়ে বেশি থাকল প্রাপ্তির আর ভালো লাগার ছোঁয়া।
  • মাসুদকে ছাড়িয়ে শীর্ষে মুশফিক
    মেহেদী হাসান মিরাজের বলে উইকেটের পেছনে মুশফিকের রহিমের ক্যাচ, স্টুয়ার্ট ব্রডের উইকেট ইতি টানল ইংল্যান্ডের ইনিংস। ওই ক্যাচই মুশফিককে নিয়ে গেল সবার ওপরে!
  • কুক ১৩৪*, মুশফিক ৪৯*
    ‘ক্যাপ্টেন’… সংবাদ সম্মেলনের শুরুতে প্রশ্নকর্তার সম্বোধন শুনে হাসলেন মুশফিকর রহিম। “অনেক দিন পর শুনলাম যে কেউ ক্যাপ্টেন বলল। ভালোই লাগল”। আক্ষেপ করে হোক বা মজা, বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়কের কথাতেই মিশে থাকল বাস্তবতা।
  • মুশফিকের নজর ধারাবাহিকতায়
    এক টেস্ট জিতলেই বাংলাদেশ বিশ্বের সেরা দল হয়ে যাবে না, এক হারে সব শেষ হয়ে যাবে না। তাই জয়-পরাজয়কে পাশে রেখে অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের নজর ধারাবাহিকতায়। 
  • অধিনায়ক বলছেন, অসম্ভব নয়
    অনভ্যস্ততা তো আছেই, থাকতে পারে অস্বস্তিও। মাঠে নামার আগে পেছনে থেকে টানছে এই বাস্তবতা। তবে মানসিক শক্তি দিয়ে সেই বাধা দূর করতে চান বাংলাদেশ অধিনায়ক। দীর্ঘদিন পর মাঠে নামার চ্যালেঞ্জ জিততে প্রস্তুত বাংলাদেশ, বলছেন মুশফিকুর রহিম।
  • কিপিং গ্লাভস হাতে ফেরার অপেক্ষায় মুশফিক
    বাংলাদেশের সবশেষ তিন টেস্টে ভূমিকা ছিল নেতৃত্ব আর ব্যাটিং। তবে নতুন মৌসুমে আবার পুরানো তিন ভূমিকাতেই ফিরতে চান মুশফিকুর রহিম। চট্টগ্রাম টেস্ট থেকেই সম্ভবত গ্লাভস হাতে উইকেটের পেছনে ফিরছেন বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক।
  • মুশফিকের ৪ হাজার
    প্রথম দুই বলেই দুটি চার; খানিক পর একটি ডাবল। পানি পানের বিরতির পর দুটি সিঙ্গেল। মুশফিকুর রহিম পৌঁছে গেলেন চার হাজারের ঠিকানায়।
  • হঠাৎ প্রস্তুতি ম্যাচে মুশফিক
    ব্যাটিং-কিপিংয়ে ছন্দ হারিয়ে ফেলা মুশফিকুর রহিম খেলছেন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে।
  • মুশফিককে নিয়ে ‘মোর দ্যান হ্যাপি’ মাশরাফি
    মুশফিকুর রহিমকে নিয়ে প্রশ্নগুলো তীর হয়ে ছুটে যাচ্ছে একের পর এক। কিন্তু এই উইকেট-কিপার ব্যাটসম্যানকে সে সব বিদ্ধ করছে সামান্যই। ঢাল হয়ে সব সামলাচ্ছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। আফগানিস্তান সিরিজের শেষ ওয়ানডের আগে আবারও বাংলাদেশ অধিনায়ক জানালেন, মুশফিককে নিয়ে দুর্ভাবনা নেই দলের।
  • ‘কোনো কারণে মুশফিক মিস করে ফেলেছে’
    গুরুত্বপূর্ণ সময়ে আবারও মুশফিকুর রহিমের গ্লাভস থেকে বেরিয়ে গেছে বল, হাতছাড়া করেছেন স্টাম্পিংয়ের সুযোগ। তাতে বেরিয়ে গেছে ম্যাচও। মুশফিক তবু পাশে পাচ্ছেন তার অধিনায়ককে। হারের দায় মুশফিকের কিপিংকে দিচ্ছেন না মাশরাফি বিন মুর্তজা।
  • আফগান ফাঁদে ধরা পড়েছিলেন মুশফিক
    মুশফিকুর রহিমের সবচেয়ে পছন্দের শটের একটি স্লগ সুইপ। এই শটে প্রচুর রান আছে বাংলাদেশের অন্যতম নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানের। তার সেই স্লগ সুইপ খেলার প্রবণতা মাথায় রেখেই প্রথম ওয়ানডেতে ফাঁদ পেতেছিল আফগানিস্তান।
  • অনুজ্জ্বল টপ অর্ডার, মাহমুদউল্লাহ-মুশফিকের ব্যাটে রান
    প্রস্তুতি ম্যাচে রান পাননি টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানরা। লাল ও সবুজ- দুই দলে ভাগ হয়ে খেলা এই ম্যাচে দারুণ দুটি ইনিংস খেলেছেন মিডল অর্ডারের দুই ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ ও মুশফিকুর রহিম।