• ভারত সফর বুঝিয়ে দিল বাংলাদেশ ক্রিকেটের বাস্তবতা
    বলা হয়, শেষ ভালো যার সব ভালো তার। কিন্তু বাংলাদেশের ভারত সফরে ভালো খুঁজতে যেতে হচ্ছে সেই শুরুতে! সময় যত গড়িয়েছে, ততই খারাপ হয়েছে পারফরম্যান্স। বিশেষ করে টেস্ট সিরিজ এতটাই বাজে কেটেছে যে সফরের শুরুতে টি-টোয়েন্টির সাফল্য মনে হচ্ছে যেন সেই কবেকার ঘটনা! বাংলাদেশের ক্রিকেট এখন কোথায় দাঁড়িয়ে, সেই চিত্রই যেন ফুটিয়ে তুলেছে এবারের ভারত সফর।  
  • গাভাস্কারের সমালোচনা মেনে নিলেন মুমিনুল
    সুনীল গাভাস্কারের কঠোর সমালোচনা মেনে নিয়েছেন মুমিনুল হক। একই সঙ্গে এই সিরিজের শিক্ষা কাজে লাগিয়ে পরের সিরিজে উন্নতির প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।
  • দলকে কক্ষপথে ফেরাতে সময় চান অধিনায়ক
    দুই ম্যাচেই বাজেভাবে হেরে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে শুরুটা হলো যেন দুঃস্বপ্নের মতো। মুমিনুল হকের কোনো সন্দেহ নেই, ঘুরে দাঁড়াবে দল। তবে পথে ফিরতে সময় চাইলেন ভারতের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেওয়া এই ব্যাটসম্যান।
  • বাংলাদেশকে টেস্টে উন্নতির পথ দেখালেন কোহলি
    বিস্তারিত না জানলেও বাংলাদেশের ক্রিকেট সম্পর্কে জানাশোনা আছে বিরাট কোহলির। সেই ধারণা থেকেই টেস্টে উন্নতির জন্য কিছু পরামর্শ দিলেন ভারত অধিনায়ক। জানালেন নিজের অভিজ্ঞতা। কিভাবে আর্থিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করে টেস্ট খেলোয়াড়দের কেবল খেলার দিকে মনোযোগী রেখেছে ভারত।
  • সুড়ঙ্গের শেষে আলো দেখছেন মুমিনুল
    দেশের বাইরে শেষ ১১ ইনিংসে স্রেফ ৭৬ রানের বাজে রেকর্ড নিয়ে ভারত সফর শুরু করা মুমিনুল হক আবারও ব্যর্থ। ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো গড় নেমে এসেছে ৪০-এর নিচে। বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যানের আশা, শিগগির কাটবে দুঃসময়, আবার হাসবে তার ব্যাট।
  • বিসিবি সভাপতির অভিযোগ নিয়ে ‘চুপ’ মুমিনুল
    অধিনায়ক হিসেবে প্রথম সিরিজটা ভীষণ কঠিন কেটেছে মুমিনুল হকের। নিজের ব্যাটে নেই রান। দল দুই ম্যাচেই হেরেছে বাজেভাবে। এরই মাঝে নাজমুল হাসান অভিযোগ করেন, কলকাতা টেস্টে টস জিতে বোলিং নেওয়ার কথা থাকলেও ব্যাটিং নিয়েছে বাংলাদেশ। এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি মুমিনুল হক।
  • দেশের বাইরে খেলা শিখতে হবে বাংলাদেশকে: রবি শাস্ত্রি
    বাংলাদেশের সাম্প্রতিক টেস্ট পারফরম্যান্স ভয়াবহ। তবু দেশের মাটিতে তাদেরকে শক্তিশালী দল বলে মনে করেন রবি শাস্ত্রি। ভারতীয় কোচের মতে, দেশের বাইরে ভালো খেলা শিখতে হবে বাংলাদেশকে। এজন্য ম্যাচ খেলতে হবে আরও বেশি।
  • ইতিহাস গড়ল বিরাট কোহলির ভারত
    একের পর এক টেস্টে প্রতিপক্ষকে গুঁড়িয়ে দেওয়ার পালায় নতুন উচ্চতায় উঠল ভারত। টানা ইনিংস ব্যবধানে জয়ের রেকর্ড গড়ল বিরাট কোহলির দল।
  • ইনিংস হার এড়াতে পারল না বাংলাদেশ
    মাহমুদউল্লাহ ব্যাট করতে না পারায় ইনিংস ব্যবধারে হার এড়ানো প্রায় অসম্ভব হয়ে গিয়েছিল। দেখার ছিল লোয়ার অর্ডারের ব্যাটসম্যানকে নিয়ে কতটা লড়াই করতে পারেন মুশফিকুর রহিম। খুব একটা পারেননি, প্রথম ঘণ্টাতেই গুটিয়ে গেছে বাংলাদেশ।
  • অর্ডিনারি টেকনিক ও নিবেদন, অর্ডিনারি দল বাংলাদেশ: গাভাস্কার
    মুরালি কার্তিকের সঙ্গে টিভি দর্শকদের জন্য পিচ রিপোর্ট করতে নেমেছিলেন সুনীল গাভাস্কার। তবে তাদের কথোপকথনে পিচ নিয়ে কথা প্রায় থাকলই না। গাভাস্কার তো রাখঢাক না রেখেই বললেন, পিচ নিয়ে কথা বলারই কারণ নেই। বাংলাদেশ এতটাই সাধারণ দল যে, খেলা শেষ হবে দ্রুতই।
  • ৪৭ মিনিটেই শেষ বাংলাদেশের লড়াই
    ম্যাচের ভাগ্য নিয়ে কৌতূহলের বাকি ছিল না মোটেও। দেখার ছিল কেবল বাংলাদেশ ইনিংস পরাজয় এড়াতে পারে কিনা। পারেনি তারা। কলকাতা টেস্টের তৃতীয় দিনে সকালে ৪৭ মিনিটেই গুটিয়ে গেছে দলটি। হেরেছে ইনিংস ও ৪৬ রানে।
  • ‘ব্যাটিংয়ের জন্য সেরা সময় দিনের প্রথম সেশন’
    কলকাতা টেস্টে বাংলাদেশের প্রথম লক্ষ্য প্রতিপক্ষকে আবার ব্যাটিংয়ে পাঠানো। আর ভারত চায়, যত দ্রুত সম্ভব ম্যাচ শেষ করে দিতে। কাজটা খুব সহজ নাও হতে পারে। চেতেশ্বর পুজারা মনে করেন, গোলাপি বলের এই টেস্টে ব্যাটিংয়ের সেরা সময় দিনের প্রথম সেশন।
  • তাইজুলের ক্যাচের পর বদলে যায় বাংলাদেশ
    আগের টেস্টে শূন্য রানে ফেরা বিরাট কোহলি সেঞ্চুরি ছুঁয়ে এগোচ্ছিলেন দ্রুত। বোলারদের চেপে ধরে রান করছিলেন প্রায় ওয়ানডের গতিতে। সময়ের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানকে অসাধারণ এক ক্যাচে ফেরান তাইজুল ইসলাম। আল আমিন হোসেন জানালেন, সেই ক্যাচের পর উজ্জ্বীবিত হয়ে ওঠে দল।
  • টস জিতে ফিল্ডিং নেওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশের!
    টস জিতে বাংলাদেশ কেন ব্যাটিং নিলো, অনেক সময় নিয়ে তার ব্যাখ্যা দিয়েছেন রাসেল ডমিঙ্গো। পরদিন ঠিক তার উল্টো কথা বললেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। বাংলাদেশের প্রধান কোচ ও অধিনায়ক মুমিনুল হক নাকি বলেছিলেন, টস জিতলে ফিল্ডিং নেবেন তারা!
  • ‘বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের টেকনিকে ভুল নেই’
    প্রথম দিনে লিটন দাস ও নাঈম হাসানের হেলমেটে লেগেছিল বল। দ্বিতীয় দিন মোহাম্মদ মিঠুন ও মুশফিকুর রহিমের হেলমেটে আঘাত হানে বল। চেতেশ্বর পুজারা মনে করছেন, ব্যাটসম্যানদের টেকনিকের ভুল নয়, গোলাপি বলের জন্যই এমনটা ঘটছে।
  • মাহমুদউল্লাহকে ব্যাটিংয়ে পাওয়ার আশা
    মাহমুদউল্লাহ কি ব্যাটিং করবেন? সংবাদ সম্মেলনে দলের প্রতিনিধি হয়ে আসা আল আমিন হোসেনের কথা শুরুর আগেই প্রশ্ন ছুটে গেল বিসিবির মিডিয়া ম্যানেজার রাবীদ ইমামের কাছে। তিনি জানালেন, এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানকে তৃতীয় দিন পাওয়ার আশা করছে দল।  
  • ইনিংস পরাজয় এড়াতে লড়ছে বাংলাদেশ
    দ্বিতীয় নতুন বলে দারুণ বোলিংয়ে দলকে আনন্দের একটা উপলক্ষ এনে দিয়েছিলেন বোলাররা। টপ অর্ডারের ব্যর্থতায় সেটাও উবে যেতে বসেছিল। শঙ্কা জেগেছিল দুদিনেই ম্যাচ হারের। কোণঠাসা অবস্থা থেকে মুশফিকুর রহিমের ব্যাটে কিছুটা ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ। তবে ইনিংস পরাজয় এড়াতে এখনও কঠিন পথ পাড়ি দিতে হবে সফরকারীদের।
  • প্রথমবার চল্লিশের নিচে মুমিনুল
    তার পছন্দ নয় বটে, তবে নিজের পারফরম্যান্স দিয়েই ‘টেস্ট স্পেশালিস্ট’ তকমাটা পেয়েছেন মুমিনুল হক। বাংলাদেশের প্রথম দিবা-রাত্রির টেস্টে সেই মুমিনুলই খুলতে পারলেন না রানের খাতা। প্রথম ইনিংসের পর দ্বিতীয় ইনিংসেও ফিরলেন শুন্য রানে। আর ‘পেয়ার’ পাওয়ার ম্যাচে প্রথমবারের মতো তার টেস্ট গড় নেমে গেল চল্লিশের নিচে।
  • কোহলির সেঞ্চুরি, দ্বিতীয় নতুন বলে উজ্জ্বল বাংলাদেশ
    আগের ম্যাচে শূন্য রানে ফেরা বিরাট কোহলি তুলে নিলেন সেঞ্চুরি। অধিনায়কের দৃঢ়তায় বিশাল লিডের সম্ভাবনা জাগিয়েছিল ভারত। তবে দ্বিতীয় নতুন বলে আলো ছড়ালেন বাংলাদেশের বোলাররা। অনেক বড় সংগ্রহের আশা জাগিয়েও তাই ততদূর যেতে পারেনি স্বাগতিকরা।
  • বাংলাদেশের ব্যাটিং গুঁড়িয়ে দেওয়ার রহস্য জানালেন ইশান্ত
    গোলাপি বলে প্রথম তিন ওভারের বোলিং দেখে আলাদা কিছু মনে হয়নি। বাড়তি সুইং ছিল না। ব্যাটসম্যানদের ভাবাতে পারছিলেন না বোলাররা। নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে লেংথ পাল্টে ফেলেন ভারতীয় পেসাররা। আর তাতেই ধরাশায়ী বাংলাদেশের নড়বড়ে ব্যাটিং।
  • ‘কনকাশন সাব’ বাংলাদেশের ভাবনাতেই ছিল না
    দলে কে আসছে?-সাইফ হাসান ছিটকে যাওয়ার পর প্রশ্ন উঠেছিল। তরুণ ওপেনারের জায়গায় কাউকে ডাকেনি বাংলাদেশ। এই প্রসঙ্গে রাসেল ডমিঙ্গো যা বললেন, তাতে দাঁড়ায় ডাকার প্রয়োজনই বোধ করেননি তারা।
  • বোলিংয়ে অধারাবাহিক, ব্যাটিংয়ে নেই আত্মবিশ্বাস
    প্রতিপক্ষের ঠিক উল্টো অবস্থানে বাংলাদেশ। ভারতের ইতিহাসে সেরা সময় কাটাচ্ছে তাদের পেস আক্রমণ। স্পিনাররা নিজেদের দায়িত্ব পালন করছেন ঠিকঠাক। কম যাচ্ছেন না ব্যাটসম্যানরাও। এসবের যোগফলে দেশের মাটিতে প্রায় অজেয় হয়ে উঠেছে বিরাট কোহলির দল। অন্যদিকে, বাংলাদেশ খুঁজে ফিরছে আলোর রেখা। ধারাবাহিকতার বড্ড অভাব বোলারদের, ব্যাটসম্যানদের নেই আত্মবিশ্বাস।
  • পাঁচে ব্যাট করে খুশি মুশফিক!
    কিপিং ছেড়ে খেলছেন বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান হিসেবে। তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসানের অনুপস্থিতিতে দলকে পথ দেখানোর বাড়তি দায়িত্ব তার কাঁধে। তারপরও গুরুত্বপূর্ণ চার নম্বর পজিশনে ব্যাট করছেন না মুশফিকুর রহিম। বাংলাদেশ কোচ রাসেল ডমিঙ্গো জানালেন, পাঁচ নম্বরে ব্যাট করে খুশি এই ডান হাতি ব্যাটসম্যান।
  • ‘বাংলাদেশের জন্য ভয়ানক দিন’
    ৩১ ওভারের মধ্যে গুটিয়ে গেল ইনিংস। দুই খেলোয়াড়ের হেলমেটে বল লাগায় নামাতে হলো তাদের ‘কনকাশন সাব’। প্রথম দিনেই প্রতিপক্ষ এগিয়ে গেছে ৬৮ রানে। এসবের সারমর্ম টেনে প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো বললেন, গোলাপি বলে বাংলাদেশের দিনটি ছিল খুব বাজে।
  • গোলাপি উৎসবে ধূসর বাংলাদেশ
    দেশের মাটিতে প্রথম দিবা-রাত্রির টেস্টকে স্মরণীয় করতে ভারতের কত না আয়োজন। ইডেন গার্ডেন্স ঘিরে যেন চলছে উৎসব। ইতিহাসের নতুন এ অধ্যায়ে নিজেদের মেলে ধরল বিরাট কোহলি ও তার সতীর্থরা। অন্যদিকে, ব্যর্থতার বৃত্তেই ঘুরপাক খেল বাংলাদেশ। ভারতের দ্যূতির বিপরীতে যেন আঁধারে ডুবে থাকল মুমিনুল হকের দল।
  • বাংলাদেশের দুই ‘কনকাশন সাব’
    প্রায় বিনা প্রস্তুতিতে গোলাপি বলে ম্যাচ খেলতে নামার যেন মাশুল দিচ্ছে বাংলাদেশ। দিশাহীন ব্যাটিংয়ে প্রথম ইনিংসে গুটিয়ে গেছে একশ পেরিয়েই। দুই ক্রিকেটার ছিটকে গেছেন ম্যাচের মাঝ পথেই। লিটন দাসের পর নাঈম হাসানেরও ‘কনকাসন সাব’ নিতে হয়েছে তাদের।
  • স্কোয়াডে বাড়তি ব্যাটসম্যান না রাখার মাশুল দিল বাংলাদেশ
    কলকাতা টেস্টে আর খেলা হচ্ছে না লিটন দাসের। হেলমেটে বল লাগার পর তার জায়গায় ‘কনকাশন সাব’ হিসেবে ব্যাটিংয়ে নামেন অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ।
  • গোলাপি বলের লড়াইয়ে শঙ্কা-সম্ভাবনার দোলাচলে বাংলাদেশ
    ভারতের পর অনুশীলন করে চলে গেছে বাংলাদেশ দলও। কিন্তু নেভেনি ইডেন গার্ডেন্সের বাতি। পরদিনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানকে ঘিরে চলছে একের পর এক মহড়া। শুধু ইডেন নয়, ম্যাচকে ঘিরে ব্যস্ততা পুরো কলকাতা জুড়ে। উপমহাদেশে প্রথমবারের মতো হতে যাচ্ছে দিবা-রাত্রির টেস্ট। ভারতের সামনে আরেকটি সিরিজ জয়ের হাতছানি। শক্তিতে অনেক পিছিয়ে থাকা বাংলাদেশ রয়েছে শঙ্কা আর সম্ভাবনার দোলাচলে।
  • ভাগ্য বদলাতে মুমিনুলের মন্ত্র
    গোলাপি বল আরও বেশি আঁটসাঁট টেকনিকের দাবি করে বলে মনে করেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। মুমিনুল হক এর সঙ্গে যোগ করলেন শট নির্বাচন, ধৈর্য ও প্রতিটি বলে শতভাগ মনোযোগ। বাংলাদেশ অধিনায়কের বিশ্বাস, ভাগ্য বদল করতে এই ব্যাপারগুলো ঠিকঠাক থাকলেই হবে।
  • সাইফের জন্য মুমিনুলের আক্ষেপ
    আগের টেস্টে দুই ওপেনারের ব্যর্থতায় দুয়ার খুলে গিয়েছিল সাইফ হাসানের জন্য। কলকাতা টেস্টে হতে পারতো অভিষেক। চোটের জন্য ছিটকে যাওয়া এই তরুণ ওপেনারের জন্য আক্ষেপ ঝরল মুমিনুল হকের কণ্ঠে।
  • দিবা-রাত্রির টেস্ট: ভারতের প্রস্তুতি আর অনুরোধে বাংলাদেশের ঢেঁকি গেলা
    ‘বিমানে ওঠার দুই দিন আগে হুট করে একটা দিবা-রাত্রির টেস্ট খেলতে বললে তো আমরা খেলব না’-অস্ট্রেলিয়ায় গোলাপি বলে টেস্ট খেলার প্রস্তাব খারিজ করে দেওয়া নিয়ে বলছিলেন বিরাট কোহলি। এবার বাংলাদেশের বাস্তবতাও একইরকম। অনেকটা আচমকাই দিন-রাতের টেস্ট খেলতে প্রস্তাব দেয় ভারত। সেবার অস্ট্রেলিয়ার প্রস্তাবে ভারত প্রত্যাখান করলেও এবার ভারতের প্রস্তাবে রাজি হয়ে যায় বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সম্মতির কথা জানায় দল দেশ ছাড়ার আগের সন্ধ্যায়!
  • দিনের শেষ সেশনে চোখ ভেটোরির
    দিবা-রাত্রির টেস্টে দিনের প্রথম দুই সেশনে স্পিনারদের ভূমিকা রাখার যথেষ্ট সুযোগ দেখেন ড্যানিয়েল ভেটোরি। তারপরও বাংলাদেশের স্পিন বোলিং কোচ তাকিয়ে আছেন আরেক সেশনের দিকে। নিউ জিল্যান্ডের সাবেক অলরাউন্ডার মনে করছেন, খুব আকর্ষণীয় হবে দিনের শেষ সেশনের খেলা।
  • ‘গোলাপি বল কিপার-স্লিপ ফিল্ডারদের জন্যও চ্যালেঞ্জিং’
    আমি তো স্লিপের পাশেই থাকি, ওদের জন্য যদি চ্যালেঞ্জিং হয়, আমার জন্যও হবে-পুরানো গোলাপি বলে ক্যাচ ধরা কঠিন হতে পারে বলে মনে করছেন ঋদ্ধিমান সাহা। ভারতীয় কিপার-ব্যাটসম্যানের মতে, গোলাপি বলে সুবিধা কেবল পেসারদের জন্য, বাকি সবার জন্য হাজির হবে একেক রকম চ্যালেঞ্জ নিয়ে।
  • গোলাপি বলের টেস্টে নানা রঙের ছটা, রোমাঞ্চিত সৌরভ
    এক মুহূর্ত যেন অবসর নেই সৌরভ গাঙ্গুলীর। ভারতের মাটিতে হতে যাওয়া প্রথম দিবা-রাত্রির টেস্ট উদ্বোধনের সময় যত ঘনিয়ে আসছে ততই বাড়ছে ব্যস্ততা। এরই মধ্যে এলেন ম্যাচের ভেন্যু ইডেন গার্ডেন্সে। জানালেন, বাংলাদেশ ও ভারতের গোলাপি বলের ম্যাচ নিয়ে নিজের রোমাঞ্চের কথা।
  • গোলাপি বলে তাইজুলদের কাছে যা চাইছেন ভেটোরি
    বাইরের স্পিনারদের জন্য ভারত সফর অনেক সময়ই হয়ে ওঠে দুঃস্বপ্ন। এমনকি শেন ওয়ার্ন, মুত্তিয়া মুরালিধরনরা পর্যন্ত হালে পানি পাননি ভারতে গিয়ে। চিরায়ত সেই চ্যালেঞ্জের সঙ্গে এবার যোগ হয়েছে গোলাপি বল আর দিন-রাতের খেলা। স্পিনারদের কাজ আরও কঠিন। কলকাতা টেস্টে তাই বাংলাদেশের স্পিনারদের কাছে খুব বেশি প্রত্যাশা না করাই ভালো, আগেই ইঙ্গিত দিয়ে রাখলেন বাংলাদেশের স্পিন কোচ ড্যানিয়েল ভেটোরি।
  • ইডেনে স্পোর্টিং উইকেট হবে: কিউরেটর
    লাল বল আর গোলাপি বলের উইকেট কিংবা আউটফিল্ড আলাদা হয় নাকি কখনও?-পাল্টা প্রশ্ন ছুঁড়ে দিলেন সুজন মুখার্জি। ইডেন গার্ডেন্সের প্রধান কিউরেটর পরে জানালেন, দিবা-রাত্রির টেস্টের জন্য উইকেটে একটু বাড়তি ঘাস রাখা হয়েছে, সঙ্গে আউটফিল্ডের ঘাস একটু বেশি ছাটা হয়েছে।  
  • মাথায় চোটের পর শঙ্কামুক্ত নাঈম
    সাইফ হাসানের ছিটকে যাওয়ার দিনে আরেকটি ধাক্কা খেয়েছে বাংলাদেশ। অনুশীলনের সময় মাথায় চোট পেয়েছেন নাঈম হাসান। তবে আশার খবর, গুরুতর নয় তরুণ এই অফ স্পিনারের চোট।
  • কলকাতায় বিশেষজ্ঞ দেখানো হবে সাইফকে
    আঙুলের চোটে ভারত সফরের দ্বিতীয় টেস্ট থেকে ছিটকে যাওয়া ব্যাটসম্যান সাইফ হাসানকে কলকাতাতেই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দেখানো হবে। এরপর চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে শুরু হবে পুনর্বাসন প্রক্রিয়া।
  • কলকাতা টেস্ট থেকে ছিটকে গেলেন সাইফ
    আঙুলের চোটের কারণে ভারত সফরের দ্বিতীয় টেস্টের দল থেকে ছিটকে গেছেন অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান সাইফ হাসান।
  • গোলাপি বলে আসলেই কি সমতায় বাংলাদেশ-ভারত?
    দিবা-রাত্রির টেস্ট খেলেনি ওরা, আমরাও না, তাই সমবস্থানে উভয় পক্ষ-কলকাতা টেস্ট নিয়ে বাংলাদেশ দলের প্রায় সবার একই কথা। হ্যাঁ, ভারত দল গোলাপি বলে খেলেনি ঠিকই, কিন্তু তাদের খেলোয়াড়রা? স্কোয়াডের ১০ জনের আছে এই অভিজ্ঞতা। বাংলাদেশ দলের ক্ষেত্রে যা শূন্য। ভুল ভাবনায় প্রতিপক্ষকে সমতায় দেখছে না তো রাসেল ডমিঙ্গোর দল?
  • ইডেন গার্ডেন্স, ঐতিহাসিক টেস্ট আর গোলাপি বলের রোমাঞ্চ
    ইডেন গার্ডেন্সে খেলা, রোমাঞ্চের জন্য স্রেফ এটুকুই যথেষ্ট ছিল। তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে প্রথম দিবা-রাত্রির টেস্ট। সঙ্গে গোলাপি বলের রহস্য উন্মোচনের হাতছানি। মাঠে নেমে পড়তে যেন তর সইছে না ক্রিকেটারদের। আল আমিন হোসেন জানালেন, ঐতিহাসিক টেস্টের অংশ হতে মুখিয়ে আছেন দলের সবাই।
  • ইনিংস বড় করতে হবে : মিরাজকে মুশফিক
    অনুশীলনের ফাঁকে অনেকটা সময় ধরে মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে কথা বলতে দেখা গেল মেহেদী হাসান মিরাজকে। কি কথা বলছিলেন তারা? অনুশীলন শেষে মিরাজ জানালেন, কিভাবে ইনিংস বড় করা যায়, সে ব্যাপারে তাকে পরামর্শ দিচ্ছিলেন মুশফিক।  
  • গোলাপি বলে স্পিনারদেরও ভূমিকা দেখছেন মিরাজ
    বাড়তি সুইং, আচমকা বাউন্স, বেশি গতি… গোলাপী বল নিয়ে আলোচনার সবটুকু যেন পেস বোলিং নিয়ে। স্পিনারদের সাফল্যের পথ তাহলে কি? মেহেদী হাসান মিরাজের বিশ্বাস, দিবা-রাত্রির টেস্টে ভূমিকা থাকবে স্পিনারদেরও। স্কিড,টার্ন আর বাউন্স মিলিয়ে গোলাপি বলে তারাও হতে পারেন কার্যকর।
  • দিবা-রাত্রি টেস্টের প্রস্তুতি শুরু বাংলাদেশ-ভারতের
    তিন দিনেই ইন্দোর টেস্ট শেষ হয়ে যাওয়ায় বাড়তি পাওয়া দুটি দিন দিবা-রাত্রির টেস্টের প্রস্তুতির জন্য কাজে লাগাচ্ছে বাংলাদেশ ও ভারত। গোলাপি বলের আচরণ বুঝে নেওয়ার চেষ্টা করছেন দুই দলের খেলোয়াড়রা।
  • সিম পজিশন নিয়ে আবু জায়েদের শামির শরণ
    শেখার জন্য প্রতিপক্ষের দুয়ারে যেতে আপত্তি নেই আবু জায়েদ চৌধুরির। নিজেকে আরও ধারাল করতে, বোলিংয়ে নতুন অস্ত্র যোগ করতে ভারতীয় পেসারদের সঙ্গে যত বেশি সম্ভব কথা বলছেন এই তরুণ। বোলিংয়ের ধরণ অনেকটা এক রকম বলে মোহাম্মদ শামির সঙ্গেই সময় কাটাচ্ছেন বেশি। সিম পজিশন নিয়ে কথা বলছেন প্রচুর।
  • আবু জায়েদের স্বপ্নের উইকেট কোহলি
    প্রথম দিনের শেষ বেলায় পেয়েছিলেন রোহিত শর্মার উইকেট। পরের দিন সকালে মিলে আরও বড় শিকার। বিরাহ কোহলিকে ফেরান শূন্য রানে। আবু জায়েদ চৌধুরি জানালেন, ভারত অধিনায়কের উইকেটটি তার স্বপ্নের উইকেট।
  • গোলাপি বলের রোমাঞ্চ ছুঁয়ে যাচ্ছে মুমিনুল-কোহলিকে
    কলকাতা টেস্ট দিয়ে নতুন অধ্যায় শুরু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ও ভারতের ক্রিকেটে। প্রথমবারের মতো দিবা-রাত্রির টেস্ট খেলতে যাচ্ছে দেশ দুটি। গোলাপি বলে খেলার অপেক্ষায় উন্মুখ মুমিনুল হক ও বিরাট কোহলি।
  • ইন্দোর টেস্টের আয়নায় বাংলাদেশের ক্রিকেট
    ১৯ বছরে কতটা এগিয়েছে দেশের ক্রিকেট? টেস্টের প্রতি ক্রিকেটারদের নিবেদন কতখানি? আগ্রহভরে কি খেলেন প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট, কতটা উন্মুখ তারা নিজেদের মেলে ধরতে? ইন্দোর টেস্টে মুমিনুল হকের দলের যাচ্ছেতাই পারফরম্যান্সে এমন নানা প্রশ্ন উঠে আসছে। জাগছে মান নিয়ে প্রশ্ন। ১৯ বছর পরও যে সেই শুরুর সময়ের বাংলাদেশেরই দেখা মিলল।
  • চার পেসার খেলানোর ভাবনা ভারতের
    সময়টা দারুণ কাটছে ভারতের পেস আক্রমণের। স্পিন স্বর্গ ভারতে এখন রাজত্ব করছেন স্বাগতিক পেসাররা। কার্যকারিতার দিক থেকে তারা ছাড়িয়ে গেছে স্পিনারদের। দেশের মাটিতে চার পেসার খেলানোর এটাই কি সেরা সময়? বোলিং কোচ ভারত অরুন জানালেন, কন্ডিশন মিলে গেলে চার পেসার খেলানোর ভাবনা আছে তাদের।
  • ‘এর চেয়ে বেশি সুইং কিভাবে সম্ভব’
    গোলাপি বল তো অনেক বেশি সুইং করবে, কিভাবে সামলাবেন?-প্রশ্ন শুনে হতাশার মাঝেও হাসি ফুটল মুমিনুল হকের মুখে। ইন্দোরে লাল বলে যে সুইং করিয়েছেন ভারতের তিন পেসার, কলকাতায় এর চেয়ে খুব বেশি হবে না বলেই বিশ্বাস তার। বাংলাদেশ অধিনায়ক মনে করেন, ইন্দোরে শামি-ইশান্ত-উমেশকে খেলেই ভালো প্রস্তুতি হয়ে গেছে তাদের। 
  • ভুলে ভরা ম্যাচে বিব্রতকর হার
    দুই দলের প্রথম ইনিংস শেষেই ইন্দোর টেস্টের ফল নিয়ে বাস্তবিক সব অনিশ্চয়তা কেটে গিয়েছিল। শুধু দেখার ছিল বাংলাদেশ লড়াই করতে পারে কতটা, ব্যবধান কতখানি কমাতে পারে। দেখা মেলেনি তাদের চোয়ালবদ্ধ প্রতিজ্ঞার, পারেনি লড়াইয়ের মানিসকতা দেখাতেও। আবারও ব্যাটিং ব্যর্থতায় মুমিনুল হকের দল তিন দিনেই হেরেছে ইনিংসে ব্যবধানে।
  • বাংলাদেশকে যেন মূল্য দিতে হয়, ভাবছিলেন মায়াঙ্ক
    সুযোগ পেলে কিভাবে কাজে লাগাতে হয়, সেটাই যেন দেখালেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল। প্রথম দিনে তার সহজ ক্যাচ পড়েছিল। জীবন পেয়ে ভারতীয় ওপেনার দ্বিতীয় দিনে তুলে নিলেন ডাবল সেঞ্চুরি। দিন শেষে জানালেন, সুযোগ পাওয়ার পর বাংলাদেশকে এর মূল্য বুঝিয়ে দেওয়ার চিন্তা এসেছিল তার মাথায়।
  • গোলাপি বলে আল আমিন-মুস্তাফিজের প্রস্তুতি
    বাংলাদেশ রক্ষণাত্মক কৌশল থেকে বেরিয়ে আসতে পারলে দুই জনের একজন খেলতে পারতেন ইন্দোর টেস্টে। তবে পরের ম্যাচে মিলতে পারে সুযোগ। একাদশে জায়গা না পাওয়া আল আমিন হোসেন ও মুস্তাফিজুর রহমানকে দেখা যেতে পারে কলকাতা টেস্টে। দুই পেসার গোলাপি বলে অনুশীলন করে প্রস্তুত করছেন নিজেদের।
  • কাঠামোয় পরিবর্তন না আনলে হারতেই থাকবে বাংলাদেশ: ডমিঙ্গো
    ইন্দোর টেস্ট যেন এক আয়না, যেখানে বাংলাদেশের ক্রিকেটের শক্তি-দুর্বলতা স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। আর যা ফুটে উঠছে তা মোটেও ভালো লাগার নয়। বাংলাদেশ কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর মতে, তলানিতে পড়ে থাকতে না চাইলে টেস্ট দলের কাঠামোতে পরিবর্তন আনতে হবে।
  • আবু জায়েদের দ্যুতির পরও আঁধারে বাংলাদেশ
    সকালে অসাধারণ বোলিং করলেন আবু জায়েদ চৌধুরি। ফিরিয়ে দিলেন চেতেশ্বর পুজারা ও বিরাট কোহলিকে। দ্বিতীয় নতুন বলে অজিঙ্কা রাহানেকে ফিরিয়ে ভাঙলেন ১৯০ রানের জুটি। তার ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ের পরও ইন্দোর টেস্টে ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি বাংলাদেশ। দারুণ এক ডাবল সেঞ্চুরিতে ভারতকে বিশাল সংগ্রহের পথে নিয়ে গেছেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল।
  • আবু জায়েদ-ইবাদতের বোলিংয়ে বাড়ল আক্ষেপ
    চেতেশ্বর পুজারার আউটের পর যেন খুশিই হলেন হলকার স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় দিনের খেলা দেখতে আসা কিছু দর্শক। বিক্ষিপ্ত কিছু হাততালিও শোনা গেল। ব্যাটিংয়ে যে আসছেন বিরাট কোহলি! কিন্তু ভারত অধিনায়ক টিকলেন স্রেফ দুই বল। তাকে শূন্য রানে ফিরিয়ে নিজের তৃতীয় উইকেট নিলেন আবু জায়েদ চৌধুরি। বাড়ালেন আক্ষেপ, এই উইকেটে কেন তিন পেসার নিয়ে খেলছে না বাংলাদেশ।
  • বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথমবার ‘শূন্য’ কোহলি
    আউট হয়ে ভ্রু কুঁচকে ড্রেসিং রুমে ফিরছিলেন বিরাট কোহলি। মনে হচ্ছিল, কিছুটা বিস্মিত, নিজের ওপর কিছুটা বিরক্তও। ড্রেসিং রুমে ফিরেই অ্যানালিস্টের ল্যাপটপের সামনে গিয়ে দাঁড়ালেন। দেখলেন নিজের আউটের রিপ্লে। টিভি ক্যামেরায় ধরা পড়ল সেই দৃশ্য। নিজের ভুলটা তাৎক্ষণিক দেখে নিলেন ভারতীয় অধিনায়ক। তবে এই ইনিংসের বাস্তবতা আর পাল্টানোর সুযোগ নেই। শূন্য রানে আউট কোহলি!
  • ভারতীয় ব্যাটিংয়ে পিষ্ট বাংলাদেশের বোলিং
    ইন্দোর টেস্টের প্রথম দিনে বল হাতে বাংলাদেশকে গুঁড়িয়ে দেওয়ার পর দ্বিতীয় দিনে ব্যাটিংয়ে ভারত নিয়েছে বিশাল লিড।
  • বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্তে অবাক ভারত
    উইকেটে ঘাসের ছোঁয়া। তারওপর আবার বেশ স্যাঁতসেঁতে। প্রতিপক্ষ দলে তিনজন পেসার। শুরুতে দারুণ সুবিধাও পাবেন পেসাররা। এমন কন্ডিশনে টস জিতে কেন কোনো দল ব্যাটিং নেবে, বুঝতে পারছেন না রবিচন্দ্রন অশ্বিন। ভারতের এই অফ স্পিনার জানান, তারা ভেবেছিলেন টস জিতে ফিল্ডিং নেবে বাংলাদেশ।  
  • সাংবাদিকদের প্রশ্নও মুমিনুলদের জন্য চাপ!
    ব্যাট-বলের লড়াইয়ের প্রবল চাপ তো আছেই, মাঠের বাইরেও তা একেবারে কম নয়। বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের অসংখ্য চাপের একটি নাকি আসে সাংবাদিকদের প্রশ্ন থেকে! তবে অধিনায়ক মুমিনুল হক মনে করছেন, সব ধরনের চাপ কাটিয়ে উঠতে তাদের মানসিক দৃঢ়তা বাড়াতে হবে।
  • ছবিতে ভারত-বাংলাদেশ টেস্টের প্রথম দিন
    দৃষ্টিকটু ব্যাটিংয়ে দেড়শর আগেই গুটিয়ে গেল বাংলাদেশ। ফিফটি করতে পারলেন না কেউ। জবাবে শুরুতে রোহিত শর্মাকে হারালেও মায়াঙ্ক আগারওয়াল ও চেতেশ্বর পুজারার ব্যাটে প্রথম দিন শেষে ভালো অবস্থায় ভারত। ছবি: বিসিবি
  • ‘মুস্তাফিজে বিশ্বাস হারায়নি বাংলাদেশ’
    মুস্তাফিজুর রহমান খেলবেন কি না, জানতে টসের আগ পর্যন্ত অপেক্ষার কথা বলেছিলেন মুমিনুল হক। শেষ পর্যন্ত একাদশে জায়গা হয়নি বাঁহাতি এই পেসারের। তাহলে কি তার ওপর আস্থা নেই দলের? অধিনায়ক জানালেন, তরুণ পেসারের ওপর বিশ্বাস আছে আগের মতোই।
  • প্রথম দিনেই হাল ছেড়ে দিল বাংলাদেশ!
    সংবাদ সম্মেলন জুড়ে মানসিক শক্তি বাড়ানোর কথা বললেন মুমিনুল হক। তবে তার কথায়ও মিলল ভেঙে পড়ার সুর। প্রথম ইনিংসে ভরাডুবির পর ইন্দোর টেস্টে নিজেদের প্রতিপক্ষের চেয়ে অনেক পেছনে দেখছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।
  • তিন পেসার না খেলানোর ব্যাখ্যায় মুমিনুল
    বাড়তি ব্যাটসম্যান খেলানোর প্রবণতা থেকে বেরিয়ে আসতে পারেনি বাংলাদেশ। উইকেট পেস সহায়ক হওয়ার পরও ইন্দোরে তারা খেলছে দুই পেসার নিয়ে। মুমিনুল হক জানালেন, বাড়তি ব্যাটসম্যান খেলাতে গিয়ে একাদশে তিন পেসার নিতে পারেননি তারা।
  • ‘উইকেট আনপ্লেয়েবল ছিল না’
    বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের আসা-যাওয়ার মাঝে উইকেট পুরোপুরি ‘বোলিং সহায়ক’ বলে মনে হচ্ছিল। ব্যাটসম্যানরা যেন আউট হতে পারেন যে কোনো বলে। এতোটা আনপ্লেয়েবল কি ছিল ইন্দোরের উইকেট? জবাবে মুমিনুল হক জানালেন, উইকেট অতটা কঠিন ছিল না। তবে বিশ্বের সেরা বোলিং আক্রমণের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে কিছু ভুল সিদ্ধান্তেই অল্পতে গুটিয়ে গেছে দল। 
  • সব দায় নিলেন মুমিনুল
    টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত কেন? উইকেট কি আনপ্লেয়েবল ছিল? এই উইকেটেও তিন পেসার খেলানোর সাহস নেই! নেতৃত্বের অভিষেকের দিন শেষে সংবাদ সম্মেলনে এমন সব প্রশ্নের তীর ছুটল মুমিনুল হকের দিকে। সতীর্থদের ব্যর্থতা আড়াল করে সব দায় নিলেন নিজের কাঁধে।
  • প্রথম দিনেই বেহাল বাংলাদেশ
    ইন্দোরে আগে ব্যাটিং নিয়ে ‘সাহস’ দেখালেও ২২ গজে বুক চিতিয়ে লড়াইটাও করতে পারল না বাংলাদেশের কেউ। ফিল্ডিংয়ে ভারতের বাজে দিনের পরও ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় তাই দেড়শ রানেই শেষ তাদের প্রথম ইনিংস। বল হাতেও করতে পারেনি দুর্দান্ত কিছু। সব মিলে প্রথম দিনে বিবর্ণ মুমিনুল হকের দল, দারুণ অবস্থানে ভারত।
  • বাংলাদেশের ওপর জেতার ‘চাপ নেই’
    ভারত সফরে দক্ষিণ আফ্রিকা যেভাবে বিধ্বস্ত হয়েছিল তেমন কিছু না হলেই চলবে-বাংলাদেশের জন্য ব্যাপারটা যেন এমন। সাকিব আল হাসান-তামিম ইকবালবিহীন দলকে নিয়ে ভারতের বিপক্ষে নেই খুব একটা প্রত্যাশা। জিততে হবে-এমন কোনো চাপ দেখছেন না নতুন অধিনায়ক মুমিনুল হক।
  • নেট নিয়ে কোহলির আক্ষেপ ও ভালো লাগা
    জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা ছিলেন ধরা ছোঁয়ার বাইরে। রঞ্জি ট্রফির ক্রিকেটারদের নেট সেশন দেখতে পারাও ছিল বড় ব্যাপার। এখন তো সব অনেক সহজলভ্য হয়ে গেছে। ছোটবেলার কথা মনে করে আক্ষেপ ঝরল বিরাট কোহলির কণ্ঠে। কিশোর-তরুণ ক্রিকেটাররা যে এখন সুযোগ পাচ্ছেন সেটা ভালো লাগছে ভারত অধিনায়কের।  
  • ‘সব চ্যালেঞ্জের জন্য প্রস্তুত বাংলাদেশ’
    দেশের মাটিতে ভারতীয় স্পিনারদের রেকর্ড অসাধারণ। তবে সবশেষ সিরিজে কার্যকারিতার দিক থেকে যেন তাদের ছাড়িয়ে গেছেন পেসাররা। উইকেট বলছে বাংলাদেশের সামনে অপেক্ষা করছে উমেশ যাদব-মোহাম্মদ শামিদের আগুনে গোলা। মুমিনুল হক জানালেন, পেসারদের সঙ্গে রবিচন্দ্রন অশ্বিন-রবীন্দ্র জাদেজাদের স্পিনের জন্যও প্রস্তুত তার দল।
  • বাংলাদেশের বিপক্ষে তিন পেসারের ভারত
    সেরা তিনের একটি? বিরাট কোহলির মনে তেমন কোনো সংশয় নেই। নিজেদের পেস আক্রমণকে ভারত অধিনায়ক মনে করেন বিশ্বসেরা। সেই পেস আক্রমণের তেজ দেখা যাবে বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম টেস্টেও। তিন পেসার নিয়ে বোলিং আক্রমণ সাজাবে ভারত, ইঙ্গিত দিয়ে রাখলেন কোহলি।
  • নতুন অধ্যায়ের শুরুতে রোমাঞ্চিত মুমিনুল
    দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার সুযোগ পেয়ে বেশ উপভোগ করছেন মুমিনুল হক। কোনোরকম চাপ নয়, বরং দেশকে আরও বেশি দেওয়ার তাগিদ অনুভব করছেন তিনি।
  • ‘সাকিব-তামিম নেই মানে তিন জন নেই’
    ম্যাচে একজন কম নিয়ে খেলার অনুভূতি হচ্ছে মুমিনুল হকের। সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল না থাকায় বাংলাদেশ অধিনায়কের মনে হচ্ছে, একসঙ্গে তিন খেলোয়াড় হারিয়েছেন তিনি।
  • বাংলাদেশকে হারাতে যা ভাবছেন কোহলি
    ভারতে এসে দাঁড়াতেই পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা। আইসিসি টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ দল ভারতকে কি তাদের ডেরায় এসে চ্যালেঞ্জ জানাতে পারবে বাংলাদেশ? সরাসরি উত্তর না দিয়ে বিরাট কোহলি বলেছেন, জয়ের জন্য প্রক্রিয়া ঠিক রেখে এগোনোর কথা।
  • আমাদের জন্য হুমকি হবে মুস্তাফিজ: কোহলি
    সময়টা মোটেও ভালো যাচ্ছে না মুস্তাফিজুর রহমানের। টি-টোয়েন্টি সিরিজে দেদার রান বিলিয়ে ছিলেন উইকেটশূন্য। সবশেষ টেস্টেও ছিলেন নিজের ছায়া হয়ে। ছন্দ ফিরে পেতে সংগ্রাম করা বাঁহাতি পেসার টেস্ট সিরিজে হুমকি হয়ে উঠতে পারেন বলে সতীর্থদের সতর্ক করেছেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি।
  • কেমন হবে ইন্দোরের উইকেট?
    একটা সময় ছিল, ভারতে টেস্ট মানেই স্পিন সহায়ক উইকেট ও স্পিনারদের রাজত্ব। প্রেক্ষাপট বদলেছে। সবশেষ সিরিজেই যেমন, ভারতীয় পেসারদের তোপে নাকাল হলো দক্ষিণ আফ্রিকা। বাংলাদেশের বিপক্ষে শুরু হতে যাওয়া টেস্ট সিরিজেও উইকেট পেস সহায়ক বা স্পোর্টিং হলে অবাক হওয়ার মতো কিছু হবে না। মধ্য প্রদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান কিউরেটর সামান্দার সিং চৌহানও স্পোর্টিং উইকেটের ইঙ্গিত দিলেন।
  • পরিকল্পনায় ভুল করছে না তো বাংলাদেশ?
    প্রথম টেস্টের উইকেট কেমন হতে পারে, তা নিয়ে বলার সময় এখনও আসেনি। যে কোনো উইকেটে বড় পরিবর্তন আনার জন্য দুই দিন কম সময় নয়। তবে এখন পর্যন্ত উইকেট যেমন তাতে পেসারদের জিভে জল আসতেই পারে। বাংলাদেশ দলের অবশ্য ধারণা, শেষ পর্যন্ত ভারতে বরাবরের মতো স্পিন সহায়ক উইকেট মিলবে। তাই স্পিন সামলাতে দিচ্ছে বাড়তি গুরুত্ব। অনুশীলনের যা চিত্র, তাতে ভারতের পেসারদের একটু কম গুরুত্ব দিচ্ছে বাংলাদেশ।
  • মুখে না বললেও ভারতের ভাবনায় গোলাপি বল
    “গোলাপি বল নয়, আমরা ভাবছি লাল বলের কথা। জানি না আজ গোলাপি বলে আমরা অনুশীলন করব কি না”, অনুশীলন শুরুর আগে সংবাদ সম্মেলনে বলে গেলেন অজিঙ্কা রাহানে। অথচ অনুশীলনে দেখা গেল বাংলাদেশের ছেড়ে যাওয়া দুই নেটে গোলাপি বলে ব্যাটিং করছেন বিরাট কোহলি, চেতেশ্বর পুজারা, রোহিত শর্মারা। লাল বল নিয়ে ভাবনার কথা বললেও ভারতীয়দের মনের কোনে ঠিকই খেলা করছে গোলাপি বল!
  • ‘ভারতের ২০ উইকেট নেওয়া সম্ভব’
    যে কোনো টেস্ট সিরিজের আগে ঘুরে-ফিরে আসে প্রশ্নটা, প্রতিপক্ষের ২০ উইকেট কি নিতে পারবে বাংলাদেশ? এলো এবারও। সাকিব আল হাসানের অনুপস্থিতিতে বোলিংয়ে শক্তি হারানো দলটি কি ভারতের মাটিতে পারবে বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মাদের কঠিন পরীক্ষায় ফেলতে? মোহাম্মদ মিঠুন আত্মবিশ্বাসী, ভারতকে দুইবার অলআউট করার সামর্থ্য আছে তাদের।
  • মুশফিক-মুমিনুলদের স্পিন সামলানোর শিক্ষা ম্যাকেঞ্জির
    স্পিনাররা যে নেটে বোলিং করছেন, সেখানে আম্পায়ারের জায়গায় দাঁড়ানো নিল ম্যাকেঞ্জি। নতুন ব্যাটসম্যানের খেলা প্রথম কয়েকটি বল নিজের ক্যামেরায় রেকর্ড করে নিচ্ছেন। পরে বিশ্লেষণ করবেন। কিছুক্ষণ সেখানে দাঁড়িয়েই ব্যাটসম্যানকে দিলেন নির্দেশনা। পরে গিয়ে দাঁড়ালেন কিপারের জায়গায়। কোনো ভুল শট খেললেই বলছেন, কোথায় কি ভুল হচ্ছে। এভাবেই টেস্ট দলের সঙ্গে কাজ শুরু হলো বাংলাদেশের ব্যাটিং কোচের।
  • দিবা-রাত্রির টেস্ট নিয়ে শঙ্কার চোরা স্রোত
    গোলাপী বল কেমন জানা নেই অধিনায়ক মুমিনুল হকের। ইমরুল কায়েস কিছুটা অনুশীলনের সুযোগ পেয়েছেন মিরপুরে। স্কোয়াডের কোনো খেলোয়াড় কখনও গোলাপী বলে ম্যাচ না খেলায় শঙ্কার চোরা স্রোত বাংলাদেশ দলে। রাসেল ডমিঙ্গো মনে করেন, একটা প্রস্তুতি ম্যাচ পেলে ক্রিকেটাররা কিছুটা ধারণা পেতেন সামনে ঠিক কী অপেক্ষা করছে।
  • দলকে জেতাতে না পারার আক্ষেপ পোড়াচ্ছে নাঈমকে
    আর দুই ওভার ক্রিজে থাকলে সেঞ্চুরি পেয়ে যেতেন-মন্তব্যটা যেন আগের দিনে ফিরিয়ে নিয়ে গেল মোহাম্মদ নাঈম শেখকে। কী দুর্দান্ত এক ইনিংসই না খেলেছেন তরুণ এই ওপেনার। তবে পারেননি দলকে জেতাতে। সেঞ্চুরি হাতছাড়া হয়ে যাওয়া নিয়ে খুব একটা ভাবছেন না। দলকে জেতাতে না পারাটা পোড়াচ্ছে বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যানকে। 
  • অধিনায়কের চোখে সিরিজে প্রাপ্তি
    সিরিজ কারো কাটলো দুর্দান্ত, সারা জীবন মনে রাখার মতো। কেউবা ছিলেন নিজের ছায়া হয়ে। চাইবেন, যত দ্রুত সম্ভব ভুলে যেতে। মাহমুদউল্লাহর চোখে কেমন ছিল সতীর্থদের পারফরম্যান্স? ভারতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে বাংলাদেশের প্রাপ্তি, অপ্রাপ্তি নিয়ে নিজের মতো করে বললেন অধিনায়ক।
  • হারের কারণ জানা, সমাধান অজানা
    জেতার মতো অবস্থা থেকেও দল কিভাবে হেরে গেল, নানা দিক নানাভাবে বিশ্লেষণ করে ব্যাখ্যা দিলেন মাহমুদউল্লাহ। কিন্তু বারবার এমন হারের পুনরাবৃত্তি এড়ানোর পথ জানা নেই বাংলাদেশ অধিনায়কের।
  • আক্ষেপের সিরিজ হতে পারতো প্রাপ্তির
    সফর শুরুর আগে টি-টোয়েন্টি সিরিজে একটি জয়ের কথা বললে হয়তো খুশিই হতো বাংলাদেশ। কিন্তু ভারতে এসে যেমন খেলল দল, তাতে আক্ষেপই বাড়ছে। একটু হিসেবি, আরেকটু পরিণত ক্রিকেট খেললে হয়তো আক্ষেপের জায়গায় প্রাপ্তির হতে পারতো এই সিরিজ।
  • পারিবারিক কারণে দেশে ফিরছেন মোসাদ্দেক
    টেস্ট সিরিজের জন্য সতীর্থরা যাচ্ছেন ইন্দোর আর দেশে ফিরে আসতে হচ্ছে মোসাদ্দেক হোসেনকে।
  • সুযোগ ছিল, আমরাই হারিয়েছি: মাহমুদউল্লাহ
    সিরিজ শুরুর আগের বাস্তবতায় ভারতের মাটিতে বাংলাদেশের একটি ম্যাচ জয়ও অনেকের কাছে ছিল অভাবনীয়।  সেদিক থেকে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খারাপ কাটেনি খর্ব শক্তির দলটির। কিন্তু সুযোগ ছিল যে সিরিজ জয়ের। নিজেদের ব্যর্থতায় তা হারানোই পোড়াচ্ছে মাহমুদউল্লাহকে।
  • নাঈম বীরত্বেও হতাশায় শেষ বাংলাদেশের
    বড় রান তাড়ায় দলের বাজে শুরুর পরও দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে আশা জাগিয়েছিলেন মোহাম্মদ নাঈম শেখ। তরুণ এই ওপেনারের বীরত্বের পরও ভারতের বিপক্ষে পেরে ওঠেনি বাংলাদেশ। শেষের দিকের তালগোল পাকানো ব্যাটিং আর দীপক চাহারের অসাধারণ বোলিংয়ে সফরকারীরা হেরেছে ম্যাচ, সেই সঙ্গে সিরিজও। 
  • সম্ভাবনা জাগিয়েও পারল না বাংলাদেশ
    বাংলাদেশকে তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে ৩০ রানে হারিয়ে সিরিজ ২-১ এ জিতল ভারত।
  • শেষ ম্যাচে তাইজুল ও মিঠুন
    সতীর্থরা যখন নেটে প্রস্তুতি নিচ্ছেন মহাগুরুত্বপূর্ণ লড়াইয়ের তখন ড্রেসিংরুমের সামনে মন খারাপ করে বসে ছিলেন মোসাদ্দেক হোসেন। ওয়ার্মআপের সময় কুঁচকিতে চোট পাওয়ায় ব্যাটিং-বোলিং কিছুই করতে পারেননি এই অলরাউন্ডার। তার জায়গায় সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে দলে আসতে পারেন মোহাম্মদ মিঠুন। স্পিনে শক্তি বাড়াতে শফিউল ইসলামের জায়গায় খেলতে পারেন তাইজুল ইসলাম।  
  • শেষ সুযোগ কাজে লাগাতে মরিয়া বাংলাদেশ
    ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের সবশেষ অবস্থা কি? অনুশীলনের মাঝে খবর রাখছিলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। মহাবিপদ সঙ্কেত দেখাতে বলা হয়েছে শুনে তাদের চোখে-মুখে দুশ্চিন্তার ছাপ। সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় টি-টোয়েন্টি যেন ক্ষণিকের জন্য হয়ে গেল গৌণ। খানিক পরেই অবশ্য মনোযোগ ফিরল প্রস্তুতিতে। ব্যাটিং-বোলিং ব্যর্থতায় হাতছাড়া হয়ে গেছে সিরিজ জয়ের প্রথম সুযোগ। যেভাবেই হোক কাজে লাগাতে হবে দ্বিতীয় ও শেষ সুযোগটি।
  • বাংলাদেশের পছন্দের উইকেট মিলবে নাগপুরে?
    সিরিজ জিততে নাগপুরে রাজকোটের মতো ব্যাটিং সহায়ক উইকেট চেয়েছে ভারত। বিপরীতে, স্বাভাবিকভাবে বাংলাদেশ চায় দিল্লির মতো বোলারদের জন্য সহায়ক উইকেট। চাওয়া পূরণ হয়ে যেতে পারে সফরকারীদের। ঐতিহাসিকভাবেই যে বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামের উইকেটে সহায়তা থাকে বোলারদের জন্য।
  • বিবর্ণ আফিফ-মোসাদ্দেকের পাশে বাংলাদেশ কোচ
    ওপেনারদের ভালো শুরুর শক্ত ভিতের উপর দাঁড়িয়েও দলকে বড় সংগ্রহ এনে দিতে না পারায় সমালোচনার মুখে পড়েছেন আফিফ হোসেন ও মোসাদ্দেক হোসেন। বাংলাদেশ কোচ রাসেল ডমিঙ্গো পাশে দাঁড়িয়েছেন দুই তরুণ অফ স্পিনিং অলরাউন্ডারের। মনে করিয়ে দিলেন, তাদের সাম্প্রতিক সাফল্যের কথা।
  • পরাজয়ে ভেঙে পড়া দল চান না ডমিঙ্গো
    ম্যাচের আগের দিনের অনুশীলন দেখে অনেক সময়ই পাওয়া যায় সম্ভাব্য একাদশের ধারণা। মাঠের সেন্টার উইকেটে লম্বা সময় ধরে তাইজুল ইসলামকে নিয়ে কাজ করতে দেখা গেল ড্যানিয়েল ভেটোরিকে। তাহলে কি একাদশে ফিরছেন বাঁহাতি স্পিনার? প্রশ্নটা উড়িয়ে দিয়ে রাসেল ডমিঙ্গো জানালেন, স্রেফ হারের জন্য একাদশে কোনো পরিবর্তন আনতে চান না তিনি।
  • ‘বাজে সিদ্ধান্তে আউট হচ্ছে সৌম্য-লিটন’
    শুরুটা ভালো করেও বারবার আউট হয়ে যাচ্ছেন হুট করে। থিতু হওয়ার পরও লিটন দাস ও সৌম্য সরকারের ইনিংস বড় করতে না পারার পেছনে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে বাজে সিদ্ধান্ত অন্যতম প্রধান কারণ বলে মনে করেন রাসেল ডমিঙ্গো।
  • আঁটসাঁট সূচির ফাঁদে বাংলাদেশ
    প্রস্তুতি ম্যাচ কি প্রয়োজন ছিল? প্রেস কনফারেন্স থেকে বেরিয়ে যাওয়ার মুখে প্রশ্নটা শুনে থামলেন রাসেল ডমিঙ্গো। বাংলাদেশের প্রধান কোচ ছোট্ট করে দিলেন উত্তর, “অবশ্যই।”
  • ম্যাচেই ঘুরে দাঁড়ানোর পথ খুঁজছিলেন ৩ পেসার
    কি করা যায়?-এক পেসার জিজ্ঞেস করছিলেন আরেক জনকে। প্রায় প্রতি ওভার শেষে নিজেদের মধ্যে কথা বলতে দেখা যাচ্ছিল আল আমিন হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান ও শফিউল ইসলামকে। ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের ঝড় থামিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর পথ খুঁজছিলেন তিন পেসার।
  • ছোট ছোট ভুল এড়াতে পারলে সিরিজ জিতব: শফিউল
    রাজকোটে হারের পর যতটা দেখাচ্ছে ততটা বাজে অবস্থায় নেই বাংলাদেশ, ব্যাটিং সহায়ক উইকেটে তাদের বোলিং যত দুর্বল দেখাচ্ছে আসলে ততটা নয়-এমনটাই দাবি শফিউল ইসলামের। এই পেসার মনে করেন, ছোট ছোট ভুলগুলো এড়াতে পারলে পাল্টে যাবে পরিস্থিতি। নাগপুরে নিজেদের ঠিকঠাক মেলে ধরতে পারলে সিরিজ জিতবে বাংলাদেশ।
  • রোহিত-ঝড়ে উড়ে যায়নি মনোবল
    রাজকোটে বড় ব্যবধানে হারলেও নিজেদের সামর্থ্য নিয়ে কোনো দ্বিধা তৈরি হয়নি বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের মধ্যে। রোহিত শর্মার ঝড়ো ইনিংসে উড়ে যায়নি মনোবল।পেসার শফিউল ইসলাম জানালেন,পরের ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানোর চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে উন্মুখ তারা।
  • কোহলির মাঠে শুরু, রোহিতের মাঠে শেষ?
    অরুণ জেটলি স্টেডিয়াম, বিরাট কোহলির ঘরের মাঠ। বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়াম, রোহিত শর্মার শহরের মাঠ। কোহলির মাঠে জিতে সিরিজে এগিয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ। রাজকোটে জিতে সমতা এনেছে ভারত। রোহিতের মাঠে জিতে সিরিজ ঘরে তুলতে চান মাহমুদউল্লাহ।