• ছবিতে বিপিএল: ঢাকা প্লাটুন-খুলনা টাইগার্স
    শেষ দিকে আসিফ আলির ঝড়ো ব্যাটিংয়ে চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ল ঢাকা প্লাটুন। রান তাড়ায় একমাত্র লড়লেন মুশফিকুর রহিম। খুলনা টাইগার্স অধিনায়ককে থামিয়ে গুরুত্বপূর্ণ জয় তুলে নিল মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। ছবি: বিসিবি
  • ছবিতে বিপিএল: খুলনা টাইগার্স-রাজশাহী রয়্যালস
    দারুণ বোলিংয়ে খুলনা টাইগার্সকে অল্প রানে বেঁধে রাখেন অধিনায়ক আন্দ্রে রাসেল। পরে ব্যাট হাতেও রাখেন অবদান। সঙ্গে লিটন দাসের দারুণ ব্যাটিংয়ে নিজেদের তৃতীয় জয় তুলে নেয় রাজশাহী রয়্যালস। ছবি: সুমন বাবু
  • ছবিতে বিপিএল: কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স-ঢাকা প্লাটুন
    ভানুকা রাজাপাকসার ঝড়ো ব্যাটিংয়ে লড়াইয়ের পুঁজি পায় কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স। চট্টগ্রামে শেষ ওভারে গড়ানো ম্যাচে ঢাকা প্লাটুন নিজেদের তৃতীয় জয় তুলে নেয় তরুণ ব্যাটসম্যান মেহেদি হাসানের ব্যাটে ভর করে। ছবি: সুমন বাবু
  • রেকর্ড গড়ে চ্যাম্পিয়ন রাজ্জাক-সোহানের খুলনা
    শিরোপার আভাস পাওয়া গিয়েছিল আগের দিনই। বাধা হয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন রকিবুল হাসান। ঢাকা বিভাগের সেই বাধা ভেঙে জাতীয় লিগের শিরোপা পুনরুদ্ধার করেছে খুলনা বিভাগ।
  • সোহানের দুর্দান্ত দেড়শ, শিরোপার কাছে খুলনা
    অনেকটা একার লড়াইয়ে দলকে বড় লিড এনে দিলেন নুরুল হাসান। নিয়মিত অধিনায়ক আব্দুর রাজ্জাকের অনুপস্থিতিতে খুলনার নেতৃত্ব পাওয়া এই কিপার-ব্যাটসম্যান খেললেন অপরাজিত ১৫০ রানের দুর্দান্ত ইনিংস। এরপর জিয়াউর রহমানের দারুণ এক স্পেলে টালমাটাল ঢাকার দ্বিতীয় ইনিংস। দুইয়ে মিলে জাতীয় লিগে আবার শিরোপার সুবাস পাচ্ছে খুলনা।
  • অভিষেক-ফরহাদের ফিফটি, আরিফুলের ৩ উইকেট
    শেষ বেলায় দ্রুত তিন উইকেট নিয়ে রংপুরকে কিছুটা লড়াইয়ে ফিরিয়েছেন আরিফুল হক। তবে অভিষেক মিত্র ও ফরহাদ হোসেনের ফিফটিতে প্রথম ইনিংসে লিড নেওয়ার পথেই রয়েছে রাজশাহী।
  • তুষার-সোহানের ব্যাটে লিডের পথে খুলনা
    ম্যাচের প্রথম পাঁচ সেশনে লড়াই হলো সমানে-সমান। ষষ্ঠ সেশনে দুর্দান্ত জুটি গড়ে খুলনাকে এগিয়ে নিলেন তুষার ইমরান ও নুরুল হাসান সোহান। ঢাকার বোলারদের দারুণভাবে সামলে ফিফটি করে অপরাজিত রয়েছেন দুই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান।
  • তাইবুরের সেঞ্চুরি, হালিমের ৫ উইকেট
    জাতীয় ক্রিকেট লিগের শিরোপা নির্ধারনী ম্যাচের লড়াই জমে উঠেছে প্রথম দিনেই। ঢাকার হয়ে সেঞ্চুরি করেছেন তাইবুর রহমান। ফিফটি করেছেন আরও দুই জন। তারপরও খুলনার তরুণ পেসার আব্দুল হালিমের দারুণ বোলিংয়ে খুব বড় সংগ্রহ গড়তে পারেনি ঢাকা।
  • নাসিরের দেড়শর পর রকিবুলের দৃঢ়তা
    আগের দিন সেঞ্চুরি করে অপরাজিত থাকা নাসির হোসেনের দেড়শো ছাড়ানো ইনিংসে প্রতিপক্ষকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছিল রংপুর। দ্রুত উইকেট হারানোয় রান তাড়া করার চ্যালেঞ্জটা নিতে পারেনি ঢাকা। রকিবুলের অপরাজিত ফিফটিতে ম্যাচ বাঁচিয়েছে রাজধানীর দলটি।
  • নাসিরের দুর্দান্ত সেঞ্চুরি
    টানা দুই ইনিংসে সেঞ্চুরির আশা জাগিয়েও পারেননি। সে হতাশা কাটিয়ে অবশেষে তিন অঙ্কের দেখা পেলেন নাসির হোসেন। প্রথম ইনিংসের মত এবারও রংপুরের ইনিংসের মূল কারিগর এই মিডল অর্ডার। সঙ্গে তরুণ পেসার মুকিদুল ইসলামের ৫ উইকেটে ঢাকার বিপক্ষে শক্ত অবস্থানে আছে রংপুর।
  • অপুর ৫ উইকেটের পর মজিদ-রকিবুলের ফিফটি
    নাসির হোসেন ও তানবীর হায়দারের ব্যাটে বড় সংগ্রহের পথে ছিল রংপুর। দারুণ বোলিংয়ে তা হতে দেননি নাজমুল ইসলাম অপু। পাঁচ উইকেট নিয়ে গুঁড়িয়ে দিয়েছেন প্রতিপক্ষকে। আব্দুল মজিদ ও রকিবুল ইসলামের ফিফটিতে ঢাকার শুরুটা ভালো হলেও শেষ বিকেলে দ্রুত উইকেট হারিয়ে স্বস্তিতে নেই তারাও।
  • মেঘলা দিনে সোহরাওয়ার্দীর ফিফটি
    ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাব পড়েছে জাতীয় লিগে। বৃষ্টির বাধার মাঝে বগুড়ায় প্রথম দিন যতটুকু খেলা হয়েছে তাতে ছড়ি ঘুরিয়েছেন ঢাকার বোলাররা। রংপুরের প্রাথমিক ধস সামলে দারুণ এক ফিফটি করেছেন অলরাউন্ডার সোহরাওয়ার্দী শুভ।
  • তাইবুর-শুভাগতর ব্যাটে ঢাকার লিড
    আগের দিন বোলিংয়ে আলো ছড়ানোর পর ব্যাটিংয়ে দারুণ পারফরম্যান্স উপহার দিলেন শুভাগত হোম চৌধুরী। অন্যপাশে সঙ্গী হিসেবে পেলেন তাইবুর রহমানকে। মিডল অর্ডারে এই দুই ব্যাটসম্যানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে রাজশাহীর বিপক্ষে লিড নিয়েছে ঢাকা।
  • শান্ত-মুক্তারের ফিফটি
    টপ অর্ডারে দুই সঙ্গীর ব্যর্থতার দিনে রান পেলেন নাজমুল হোসেন শান্ত। মিডল অর্ডারে অপরাজিত ফিফটি এলো মুক্তার আলীর ব্যাট থেকে। কিন্তু ইনিংস বড় হলো না কারোরই। ঢাকার বিপক্ষে রাজশাহীর প্রথম ইনিংসও তাই থামল আড়াইশর আগেই।
  • নাজমুল-সুমনের দৃঢ়তায় হার এড়ালো ঢাকা
    প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান এনামুল হক এবার খেললেন অপরাজিত দেড়শ রানের ইনিংস। সঙ্গে নুরুল হাসান সোহানের ফিফটিতে ঢাকাকে বিশাল লক্ষ্য দিল খুলনা। মেহেদি হাসানের স্পিনে জয়ের আশাও জাগাল দলটি। তবে শেষ বিকেলে নাজমুল ইসলাম অপু ও সুমন খানের দৃঢ়তায় হার এড়িয়েছে ঢাকা।
  • সাইফ-রকিবুলের পর এনামুল-ইমরানের ফিফটি
    সাইফ হাসান ও রকিবুল হাসানের ফিফটিতে ভালোই জবাব দিচ্ছিল ঢাকা। কিন্তু মেহেদি হাসান আর আব্দুর রাজ্জাকের স্পিনে ধ্বসে পড়ল সেই প্রতিরোধ। পরে এনামুল হক ও ইমরানউজ্জামানের ফিফটিতে বড় লিডের পথে রয়েছে খুলনা।
  • রনি-জয়রাজের ফিফটির পর সাইফ-রকিবুলের দৃঢ়তা
    খুলনার সাড়ে তিনশ ছাড়ানো সংগ্রহের জবাব ভালোভাবেই দিচ্ছে ঢাকা। রনি তালুকদার ও জয়রাজ শেখের দুর্দান্ত শুরুর পর রাজধানীর দলকে এগিয়ে নিচ্ছেন সাইফ হাসান ও রকিবুল হাসান।
  • এনামুলের সেঞ্চুরি, তুষারের ফিফটি
    দারুণ ব্যাটিংয়ে সেঞ্চুরি তুলে নিলেন এনামুল হক। তুষার ইমরান পেলেন আসরের প্রথম ফিফটির দেখা। ঝড়ো ইনিংস এল মোহাম্মাদ মিঠুনের ব্যাট থেকে। তিন ব্যাটসম্যানের দৃঢ়তায় ঢাকার বোলারদের দারুণভাবে সামলে বড় সংগ্রহের পথে রয়েছে খুলনা।
  • সোহরাওয়ার্দীর ৮ রানের আক্ষেপ
    প্রথম তিন দিনে দুই দলের প্রথম ইনিংস শেষ না হওয়ায় ড্রই ছিল সম্ভাব্য ফল। শেষ দিনেও নাটকীয় কিছু ঘটল না। রান উৎসবের ম্যাচে এদিন আলো ছড়ালেন সোহরাওয়ার্দী শুভ। তবে সঙ্গীর অভাবে সেঞ্চুরি পেলেন না বাঁহাতি এই অলরাউন্ডার।
  • সাইফের সেঞ্চুরি, রনি-রকিবুলের ফিফটি
    প্রথম রাউন্ডের সময় ছিলেন ‘এ’ দলের হয়ে শ্রীলঙ্কা সফরে। শেষ ম্যাচে সেঞ্চুরির স্মৃতি নিয়ে জাতীয় ক্রিকেট লিগে খেলতে নেমেই পেলেন তিন অঙ্কের দেখা। সঙ্গে রনি তালুকদার ও রকিবুল হাসানের ফিফটিতে রংপুরের বিপক্ষে শক্ত অবস্থানে রয়েছে ঢাকা।
  • তাইজুলের ৫ উইকেটের পর জহুরুলের দৃঢ়তা
    প্রথম ইনিংসে চার উইকেট নেওয়া তাইজুল ইসলাম এবার নিলেন পাঁচটি। এরপরও তাইবুর রহমানের জোড়া ফিফটিতে চালকের আসনে ছিল ঢাকা। দ্রুত তিন উইকেট নিয়ে ম্যাচ জমিয়ে তুলেছিল তারা। শেষ পর্যন্ত জহুরুল ইসলামের দৃঢ়তায় ম্যাচ বাঁচিয়েছে রাজশাহী।
  • সুমনের ৫ উইকেটের পর রাকিবুল-তাইবুরের দৃঢ়তা
    সকালে ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো পাঁচ উইকেট নিয়ে প্রথম ইনিংসে দলকে লিড এনে দিলেন সুমন খান। প্রথম ইনিংসে দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলা তাইবুর রহমান দাঁড়িয়ে গেলেন এবারও। দারুণ সঙ্গ পেলেন রকিবুল হাসানের। তাদের দৃঢ়তায় রাজশাহীকে চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য দেওয়ার পথে রয়েছে ঢাকা।
  • মুশফিকের ব্যাটে রান, ব্যর্থ সাব্বির
    দিনের শুরুতে একার লড়াইয়ে ঢাকাকে আড়াইশর কাছে নিয়ে গেলেন তাইবুর রহমান। দ্রুত তিন উইকেট হারানোর পর রাজশাহীকে পথ দেখালেন অধিনায়ক জহুরুল ইসলাম ও মুশফিকুর রহিম। দ্রুত ফিরলেন রানের জন্য সংগ্রাম করা সাব্বির রহমান।
  • রনির ফিফটির পর তাইজুল-শফিউলের ছোবল
    ফতুল্লায় দাপট দেখালেন তাইজুল ইসলাম ও শফিউল ইসলাম। তাদের ছোবলে প্রথম ইনিংসে ঢাকাকে কম রানে থামানোর আশা জাগিয়েছে রাজশাহী।
  • এনসিএলের দ্বিতীয় স্তরের সেরা ঢাকা
    মন্থর ব্যাটিংয়ে চতুর্থ ও শেষ দিন কাটিয়ে দিয়েছে সিলেট। রাজিন সালেহর পর ফিফটি করেছেন জাকের আলী ও শাহানুর রহমান। অনুমিত ড্র হয়েছে ঢাকার সঙ্গে তাদের ষষ্ঠ ও শেষ রাউন্ডের লড়াই।
  • এনামুল হক জুনিয়রের হ্যাটট্রিক
    রাজিন সালেহর বিদায়ী ম্যাচে হ্যাটট্রিক করলেন এনামুল হক জুনিয়র। বাঁহাতি এই স্পিনার আরও একবার ধরে ফেললেন আব্দুর রাজ্জাককে। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশিবার পাঁচ উইকেট নেওয়ার রেকর্ড এখন যৌথভাবে দুই স্পিনারের।
  • মজিদের সেঞ্চুরি
    রাজিন সালেহর বিদায়ী ম্যাচে দ্বিতীয় দিন বেশিক্ষণ টিকলো না সিলেটের প্রথম ইনিংস। তাদের দ্রুত থামিয়ে দিয়ে ওপেনার আব্দুল মজিদের সেঞ্চুরির ওপর ভর করে বড় লিড নেওয়ার আশা জাগিয়েছে ঢাকা।
  • মেট্রোকে ইনিংস ব্যবধানে হারাল ঢাকা
    ব্যাটিংয়ে আবারও ব্যর্থ ঢাকা মেট্রো। দ্বিতীয় ইনিংসেও দলকে টানতে পারেননি কেউ, গড়তে পারেননি বড় কোনো জুটি। তাইবুর রহমান, মোশাররফ হোসেনদের বাঁহাতি স্পিনে তিন দিনে ইনিংস ব্যবধানে জিতেছে ঢাকা বিভাগ।
  • শুভাগতর সেঞ্চুরি, সৈকতের ৪ উইকেট
    যে উইকেটে ধুঁকেছে ঢাকা মেট্রোর ব্যাটিং, সেখানেই শুভাগত হোমের ব্যাটে স্ট্রোকের ফোয়ারা। দুর্দান্ত সেঞ্চুরির পথে ছক্কা মারলেন পাঁচটি। রান পেলেন তাইবুর রহমান, আব্দুল মজিদরাও। ঢাকা বিভাগ পেল বড় লিড।
  • ৫৯ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা ঢাকা মেট্রোর
    বোলিংয়ে ঢাকা বিভাগের বোনাস পয়েন্ট কম রাখতে অভাবনীয় কাজ করেছে ঢাকা মেট্রো। এনসিএলের পঞ্চম রাউন্ডে ৫৯ রানে ৮ উইকেট হারানোর পর প্রথম ইনিংস ঘোষণা করেছে মার্শাল আইয়ুবের দল।
  • টেস্টের আগে মুমিনুলের সেঞ্চুরি
    কখনও ফিরছিলেন শূন্য রানে, কখনও থিতু হয়েও খেলতে পারছিলেন না বড় ইনিংস। জিম্বাবুয়ের বিপেক্ষ টেস্ট সিরিজের আগে অবশেষে নিজের ইনিংস বড় করতে পারলেন মুমিনুল হক। তার সেঞ্চুরিতে চট্টগ্রাম সহজেই হারিয়েছে ঢাকাকে।
  • মুমিনুলের ব্যাটে জয়ের আশায় চট্টগ্রাম
    ব্যাটিং ব্যর্থতায় দ্বিতীয় ইনিংসেও গুঁড়িয়ে গেল ঢাকা। বারবার রঙ পাল্টানো ম্যাচে বাজে শুরুর পর মুমিনুল হক ও তাসামুল হকের দারুণ ব্যাটিংয়ে জয়ের আশা জাগিয়েছে চট্টগ্রাম।
  • ঢাকার বিপক্ষে আবার ব্যর্থ মুমিনুল
    ঢাকার বিপক্ষে আবার ব্যাটিংয়ে ব্যর্থ মুমিনুল হক। চট্টগ্রামের তিন মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান ইয়াসির আলী, মাহিদুল ইসলাম ও ইফতেখার সাজ্জাদ ফিরেছেন থিতু হয়ে। বোলারদের নৈপুণ্যে প্রথম ইনিংসে লিড পাওয়ার আশা জাগিয়েছে নাদিফ চৌধুরীর দল।
  • ৮ উইকেট নিয়ে ঢাকাকে গুঁড়িয়ে দিলেন নাঈম
    ঢাকা মেট্রোর বিপক্ষে আগের ম্যাচে নিয়েছিলেন ৬ উইকেট। এবার নিজেকে তুললেন নতুন উচ্চতায়। ৮ উইকেট নিয়ে প্রথম ইনিংসে ঢাকা বিভাগকে গুঁড়িয়ে দিলেন চট্টগ্রাম বিভাগের নাঈম হাসান।
  • রাজিনের ৪ রানের আক্ষেপ
    বৃষ্টিতে প্রথম দুই দিনের খেলা ভেসে যাওয়ার পর তৃতীয় দিন মন্থর ব্যাটিংয়ে পার করে দেয় সিলেট। চতুর্থ ও শেষ দিনে ইনিংস ঘোষণা করে বড় দেরিতে। অনুমিত ড্র হয়েছে ঢাকার সঙ্গে তাদের ম্যাচ। চার রানের জন্য সেঞ্চুরি না পাওয়ার হতাশায় পুড়েছেন রাজিন সালেহ।
  • কক্সবাজারে জাকির, রাজিনের ফিফটি
    দলকে দৃঢ় ভিতের ওপর দাঁড় করিয়েছেন জাকির হাসান ও রাজিন সালেহ। তাদের ব্যাটে ঢাকার বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে বড় সংগ্রহ গড়ছে সিলেট।
  • সাদমানের ১১ রানের আক্ষেপ
    ঢাকা মেট্রোকে প্রথম ইনিংসে বড় লিড এনে দেওয়া সাদমান ইসলাম ফিরেছেন আক্ষেপ নিয়ে। ১১ রানের জন্য ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি পাননি তিনি। জবাব দিতে নেমে দ্বিতীয় ইনিংসে দুই ওপেনারকে দ্রুত হারিয়েছে ঢাকা বিভাগ।
  • প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির হাতছানি সাদমানের সামনে
    প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে সময়টা দারুণ কাটছে সাদমান ইসলামের। আগের ম্যাচে ক্যারিয়ারের প্রথম দেড়শ ছোঁয়া ইনিংস খেলা তরুণ এই ওপেনার দাঁড়িয়ে আছেন প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির দুয়ারে। তার ব্যাটে ঢাকার বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে বড় লিড নেওয়ার পথে ঢাকা মেট্রো।
  • সানির স্পিনে বিধ্বস্ত ঢাকা
    ঢাকা মেট্রোর স্পিনের সামনে দাঁড়াতে পারল না ঢাকা বিভাগ। আরাফাত সানির দারুণ বোলিংয়ে নাদিফ চৌধুরীর দলকে প্রথম দিনে গুঁড়িয়ে দিয়েছে মেট্রো।
  • নাজমুল, শাহাদাতের নৈপুণ্যে চট্টগ্রামকে হারাল ঢাকা
    জয়ের জন্য চতুর্থ ও শেষ দিনে চট্টগ্রামের প্রয়োজন ছিল ৩৪৭ রান। ম্যাচ বাঁচাতে ৭ উইকেট নিয়ে কাটিয়ে দিতে হত পুরো একটি দিন। তার কোনোটারই ধারে কাছে যেতে পারেনি মুমিনুল হকের দল। নাজমুল ইসলাম অপু ও শাহাদাত হোসেনের দারুণ বোলিংয়ে এক সেশনেই জয় তুলে নিয়েছে ঢাকা।
  • রনির ডাবল সেঞ্চুরি, মজিদের সেঞ্চুরি
    ক্যারিয়ারের তৃতীয় ডাবল সেঞ্চুরি তুলেন রনি তালুকদার। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে টানা দ্বিতীয় ম্যাচে শতক পেলেন আব্দুল মজিদ। তাদের রেকর্ড গড়া সাড়ে তিনশ রানের উদ্বোধনী জুটির ওপর ভর করে চট্টগ্রামকে বড় লক্ষ্য দিল ঢাকা।
  • শাহাদাতের দাপটের পর রনির সেঞ্চুরি
    আগের দিন শেষ বেলায় দুই উইকেট নেওয়া শাহাদাত হোসেন ছোবল দিলেন দ্বিতীয় দিনও। সঙ্গে জ্বলে উঠলেন ঢাকার স্পিনাররা। প্রথম ইনিংসে দ্রুত গুটিয়ে গেল চট্টগ্রাম। দ্বিতীয় ইনিংসে শতরানের অবিচ্ছিন্ন উদ্বোধনী জুটিতে ঢাকাকে চালকের আসনে বসিয়েছেন রনি তালুকদার ও আব্দুল মজিদ।
  • জুবায়েরের ৫ উইকেট
    জুবায়ের হোসেনের লেগ স্পিন আর নাঈম হাসানের অফ স্পিনের সামনে টিকতে পারলেন না ঢাকার ব্যাটসম্যানরা। দুই স্পিনারের ঘূর্ণিতে বিভ্রান্ত হয়ে প্রথম ইনিংসে গুটিয়ে গেছে ২৩৮ রানে। জবাব দিতে নেমে স্বস্তিতে নেই চট্টগ্রামও।
  • ঢাকাকে উড়িয়ে দিয়ে চ্যাম্পিয়ন খুলনা
    ইনিংস ব্যবধানে জয় দিয়ে শিরোপা উৎসব করেছে খুলনা। ম্যাচে ১০ উইকেট নিয়ে ঢাকাকে গুঁড়িয়ে দিয়েছেন তরুণ অফ স্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ।
  • এনামুলের আরেকটি ডাবল সেঞ্চুরি
    জাতীয় ক্রিকেট লিগে এবারের আসরের আগে এনামুল হকের ডাবল সেঞ্চুরি ছিল না একটিও। তরুণ এই ওপেনার এক আসরে করে ফেললেন দুটি ডাবল সেঞ্চুরি। তার ২০২ রানের ওপর ভর করে ইনিংস ব্যবধানে জয়ের আশা জাগিয়েছে খুলনা। 
  • এনামুল-মেহেদির সেঞ্চুরিতে খুলনার রানের পাহাড়
    আগের রাউন্ডেই শিরোপা প্রায় নিশ্চিত করে ফেলা খুলনাকে প্রথম ইনিংসে বিশাল সংগ্রহের দিকে নিয়ে যাচ্ছেন এনামুল হক ও মেহেদি হাসান। টপ অর্ডারের দুই ব্যাটসম্যানের অপরাজিত সেঞ্চুরিতে ঢাকার বিরুদ্ধে বড় লিড নিচ্ছে খুলনা।
  • মিরাজের ৭ উইকেটে বিধ্বস্ত ঢাকা
    বিপিএল কেটেছে তার ভালো-মন্দ মিলিয়ে। তবে পছন্দের সংস্করণে ফিরতেই আপন আলোয় উদ্ভাসিত মেহেদি হাসান মিরাজ। খুলনার হয়ে লাল বলে দেখালেন অফ স্পিনের ভেল্কি। তাতে বিধ্বস্ত ঢাকা বিভাগ।
  • মন্থর ব্যাটিংয়ে ঢাকা বিভাগের ড্র
    ঢাকা বিভাগের চ্যালেঞ্জ ছিল টিকে থাকার। সেই চ্যালেঞ্জে তারা উতরে গেছে দারুণভাবে। মন্থর কিন্তু দৃঢ়তাপূর্ণ ব্যাটিংয়ে বাঁচিয়েছে ম্যাচ।
  • ঢাকা বিভাগকে টানলেন শুভাগত, মিনহাজ
    পিঠে বিশাল রানের বোঝা। তবে ম্যাচ বাঁচাতে ঢাকা বিভাগ এগোচ্ছে ধীরে চলো গতিতে। মন্থর দিনে অর্ধশতক করেছেন তিন জন। রংপুরের বিপক্ষে ড্রয়ের লক্ষ্যে ভালোমতোই আছে ঢাকা বিভাগ।
  • নাঈমের ডাবল সেঞ্চুরির পর আরিফুলের সেঞ্চুরি
    ডাবল সেঞ্চুরি তাকে হাতছানি দিয়েছিল আগেও। কিন্তু কাছে গিয়েও যেতে পারেননি সেই ঠিকানায়। আউট হয়েছিলেন ১৮৫ রানে। এবার অধরা সেই মাইলফলকের দেখা পেলেন নাঈম ইসলাম। ঘরোয়া লিগের রান মেশিন হয়ে ওঠা ব্যাটসম্যান করলেন ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি।
  • জোড়া সেঞ্চুরিতে নাঈম-শুভর আড়াইশ রানের জুটি
    এবারের জাতীয় লিগ শুরু করেছিলেন সেঞ্চুরি দিয়ে। বৃষ্টিবিঘ্নিত পরের তিন রাউন্ডে ব্যাট করতে পেরেছেন মাত্র দুবার। পঞ্চম রাউন্ডে এসে আবার সেঞ্চুরি করলেন নাঈম ইসলাম। তার সঙ্গে সেঞ্চুরি করেছেন সোহরাওয়ার্দী শুভও।
  • শুভাগতর দারুণ বোলিংয়েও বরিশালের লিড
    শুভাগত হোম চেষ্টা করলেন। তবে আটকাতে পারলেন না বরিশালকে। শামসুল আলমের ব্যাটে লিড পেল বরিশাল। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমেও খুব সুবিধা করতে পারেনি ঢাকা।
  • রনির পর লড়ছেন শরিফ
    শুরু থেকে প্রায় দ্বিতীয় নতুন বল পর্যন্ত লড়ে গেছেন রনি তালুকদার। মাঝে তাকে খানিকটা সঙ্গ দিলেন তাইবুর পারভেজ। দিনের শেষ ভাগে লড়লেন মোহাম্মদ শরিফ। প্রথম দিনে ঢাকা বিভাগের প্রথম ইনিংসের গল্প এই।
  • তুষারদের ব্যাটিং দৃঢ়তায় খুলনার ড্র
    শেষ দিনে চ্যালেঞ্জ ছিল টিকে থাকার। খুলনার ব্যাটসম্যানরা সেটি করলেন চেয়ালবদ্ধ প্রতিজ্ঞতায়। ফলো অনে পড়লেও দৃঢ়তাপূর্ণ ব্যাটিংয়ে ড্র করলো ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে।
  • জিয়ার সেঞ্চুরিতেও ফলো অনে খুলনা
    বল হাতে নিলেন ২ উইকেট। পরে ব্যাট হাতে ওয়ানডের গতিতে দারুণ এক সেঞ্চুরি। কিন্তু জিয়াউর রহমানের এমন অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের পরও বিপদে তার দল খুলনা। ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে ফলো অনে পড়ার পর শেষ দিনে তাদের লড়াই ম্যাচ বাঁচানোর।
  • নাদিফের ১৬৬, সেঞ্চুরির অপেক্ষায় মোশাররফ
    নেমেছিলেন সাত নম্বরে। সেখান থেকেই নাদিফ চৌধুরী খেললেন ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস। ৯৯ ম্যাচের প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারে প্রথমবার পেলেন দেড়শ রানের স্বাদ। দ্বিতীয় সেঞ্চুরি থেকে দুই রান দূরে দিন শেষ করেছেন মোশাররফ হোসেন।
  • নাসিরের ২৬ বলে ফিফটি
    বল করছিলেন অনিয়মিত বোলাররা। সেটিকে কাজে লাগিয়ে ঝড় তুললেন নাসির হোসেন। ড্রয়ের পথে এগোতে থাকা নিরুত্তাপ ম্যাচে যা একটু উত্তেজনা ছড়াল নাসিরের ব্যাটেই। জাতীয় লিগের ম্যাচে ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে রংপুরের হয়ে ২৬ বলে করলেন অর্ধশতক।