• করোনাভাইরাস: এবার আক্রান্ত ইরফান পাঠান
    ভারতের সাবেক ক্রিকেটারদের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা বেড়েই চলেছে। শচিন টেন্ডুলকার, ইউসুফ পাঠান ও এস বদ্রিনাথের পর এবার আক্রান্ত হয়েছেন ইরফান পাঠান।
  • করোনাভাইরাস: টেন্ডুলকার-ইউসুফের পর আক্রান্ত বদ্রিনাথ
    দুই দিনের মধ্যে ভারতের তিন জন সাবেক ক্রিকেটারের শরীরে শনাক্ত হয়েছে করোনাভাইরাস। শচিন টেন্ডুলকার, ইউসুফ পাঠানের পর এবার আক্রান্ত হলেন এস বদ্রিনাথ।
  • সাবেকদের টুর্নামেন্টের শিরোপা ভারতের
    এক বছর ক্রিকেটের বাইরে থেকে এক মাস আগে নিয়েছেন অবসর। সাবেকদের টুর্নামেন্ট দিয়ে আবার খেলার সুযোগ পেয়ে ইউসুফ পাঠান মেলে ধরলেন নিজেকে। ফাইনালের মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ব্যাট হাতে ঝড় তোলার পর বল হাতেও রাখলেন অবদান। রোমাঞ্চকর ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে রোড সেফটি ওয়ার্ল্ড সিরিজের প্রথম আসরের শিরোপা ঘরে তুলল ভারত।
  • ক্রিকেটকে বিশ্বকাপজয়ী ইউসুফ পাঠানের বিদায়
    জাতীয় দলের হয়ে শেষ খেলেছেন ৯ বছর আগে। ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলেন না এক বছর হলো। পারফরম্যান্সে ভাটার টান। সব মিলিয়ে ইউসুফ পাঠানের উপলব্ধি, ইতি টানার সময় হয়ে গেছে। ভেবেচিন্তে নিয়ে ফেললেন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত, ভারতের হয়ে দুটি বিশ্বকাপ জয়ী এই অলরাউন্ডার বিদায় বলে দিলেন সব ধরনের ক্রিকেটকে।
  • টেন্ডুলকারদের ব্যাটিং লাইন-আপ ভালো নাকি কোহলিদের?
    বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা, চেতেশ্বর পুজারা, অজিঙ্কা রাহানেরা এখন এগিয়ে নিচ্ছেন ভারতীয় দলকে। এই প্রজন্মের আগে দীর্ঘদিন ভার বয়েছেন শচিন টেন্ডুলকার, রাহুল দ্রাবিড়, ভিভিএস লক্ষ্নণ, সৌরভ গাঙ্গুলি, বিরেন্দর শেবাগরা। এই দুই প্রজন্মের ব্যাটিং লাইন-আপের মধ্যে পাকিস্তানি গ্রেট মোহাম্মদ ইউসুফ এগিয়ে রাখলেন টেন্ডুলকারদের।
  • মিসবাহকে নিয়ে সুর পাল্টালেন ইউসুফ
    মিসবাহ-উল-হকের কড়া সমালোচকদের একজন ছিলেন মোহাম্মদ ইউসুফ। কিন্তু পিসিবির চাকরি পাওয়ার পর এখন তার গলায় ভিন্ন সুর। সাবেক এই ব্যাটসম্যান ভুলে যেতে চান অতীত। দেশের ক্রিকেটের উন্নতির লক্ষ্যে মিসবাহর সঙ্গে কাজ করতে সমস্যা নেই জানালেন তিনি।
  • শোয়েবকে মুরালিধরনের আঙুল ভেঙে দিতে বলেছিলেন ইউসুফ
    শোয়েব আখতারের গতি অনেক বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যানের জন্যই ছিল আতঙ্ক জাগানিয়া। লোয়ার অর্ডারদের অবস্থা সেখানে বলাই বাহুল্য! খেলোয়াড়ি জীবনের মজার এক স্মৃতি মনে করলেন পাকিস্তানের সাবেক এই ফাস্ট বোলার। মুত্তিয়া মুরালিধরন ব্যাটিংয়ে নেমে শোয়েবকে বলতেন আস্তে বল করতে। মোহাম্মদ ইউসুফ তখন মজা করে শোয়েবকে বলতেন, এই লঙ্কান স্পিন কিংবদন্তির আঙুল ভেঙে দিতে।