• কোভিড পজিটিভ হেড, শঙ্কায় দলে নেওয়া হলো তিনজনকে
    চলতি অ্যাশেজ সিরিজে কোভিডের থাবা চলছেই। মেলবোর্ন থেকে অস্ট্রেলিয়া দলের সিডনি উড়াল দেওয়ার আগ মুহূর্তে জানা গেছে, কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন ট্রাভিস হেড। পিছিয়ে গেছে তাই গোটা দলের যাত্রা। আরও কোভিড আক্রান্ত হওয়ার শঙ্কায় কাভার হিসেবে অস্ট্রেলিয়া দলে যুক্ত করা হয়েছে মিচেল মার্শ, নিক ম্যাডিনসন ও জন ইংলিসকে।
  • ইংলিশ চ্যালেঞ্জের জন্য প্রস্তুত ইংলিস
    ইংল্যান্ডে তার শেকড়। জন্ম, বেড়ে ওঠা ও ক্রিকেটের হাতেখড়ি সবই সেখানে। কিন্তু জশ ইংলিস এখন অপেক্ষায় অস্ট্রেলিয়ার হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা রাখার। এই কিপার-ব্যাটসম্যান বললেন, আসছে অ্যাশেজ সিরিজের দলে সুযোগ পেলে জন্মভূমির বিপক্ষে নিজেকে মেলে ধরতে আত্মবিশ্বাসী তিনি।
  • ইংল্যান্ড নয়, ইংলিসের ‘ঘর’ এখন অস্ট্রেলিয়া
    জন্ম, বেড়ে ওঠা ও ক্রিকেটের পাঠ শুরু ইংল্যান্ডে। কিন্তু সময়ের পরিক্রমায় জশ ইংলিস এখন আর ইংলিশ নন, একজন অস্ট্রেলিয়ান। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের অস্ট্রেলিয়া দলে ঠাঁই হয়েছে তার। যদিও ইংল্যান্ডে তার শেকড় এবং এখনও ইংল্যান্ডের ঘরোয়া ক্রিকেটে তিনি নিয়মিত মুখ, তবু দ্বৈত সত্ত্বার কোনো টানাপোড়েন নিজের ভেতরে নেই তার। এই কিপার-ব্যাটসম্যান জানিয়ে দিলেন, অস্ট্রেলিয়াই তার আপন হয়ে থাকবে আজীবন।
  • ইংল্যান্ডে ঝড় তুলে অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ দলে ইংলিস
    বেশ কিছুদিন ধরেই জাতীয় দলের দুয়ারে কড়া নাড়ছিলেন জশ ইংলিস। সেই দুয়ার খুলে গেল বিশ্বকাপ দিয়ে। অস্ট্রেলিয়ার বিশ্বকাপ স্কোয়াডে জায়গা পেয়ে গেলেন সাম্প্রতিক সময়ে তুমুল আলোচিত এই আগ্রাসী কিপার-ব্যাটসম্যান।