• ‘ফ্ল্যাট পিচে বল করতে না পারলে খেলা ছেড়ে দাও’
    কন্ডিশন কিংবা পিচ যেমনই হোক, নিজেদের মেলে ধরতে জানতে হবে স্পিনারদের। বুদ্ধিদীপ্ত বোলিংয়ে ঘায়েল করতে হবে প্রতিপক্ষকে। সব পরিস্থিতিতে বোলিং করতে না জানলে স্পিনার হওয়ার কোনো কার্যকারিতা দেখেন না সাঈদ আজমল। ব্যাটিং সহায়ক উইকেটে বল করতে না পারলে, তাদের ক্রিকেট ছেড়ে দিতে বললেন পাকিস্তানের এই সাবেক স্পিনার।
  • আসিফ আলি পাকিস্তানের ‘নতুন আফ্রিদি’
    পাকিস্তান ক্রিকেটে আগ্রাসন আর ছক্কার প্রতিশব্দ যেন শহিদ আফ্রিদি। তার মতো ছক্কাপ্রীতি তো আর কারও ছিল না! এখন সেই তাড়না দেখা যাচ্ছে আসিফ আলির ব্যাটে। বিশ্বকাপে আলোড়ন তোলা এই ব্যাটসম্যানের ব্যাটিংয়ে আফ্রিদিকে খুঁজে পাচ্ছেন পাকিস্তানের সাবেক অফ স্পিনার সাঈদ আজমল।
  • ‘কোচকে সরিয়ে দিতে বলার অধিকার আমিরের নেই’
    পাকিস্তানের বর্তমান টিম ম্যানেজমেন্ট সরে দাঁড়ালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন মোহাম্মদ আমির। অভিমানে অবসর নেওয়া বাঁহাতি এই পেসারের এমন চাওয়া একদমই পছন্দ হয়নি সাইদ আজমলের। সাবেক এই স্পিনারের মতে, কোচদের সরিয়ে দেওয়ার দাবি করার অধিকার নেই কোনো ক্রিকেটারেরই।
  • আজমলের দুসরা যেদিন গুঁড়িয়ে দিয়েছিলেন কোহলি
    বিশ্বসেরাদের কাতারে ওঠার পথে বিরাট কোহলিকে এগিয়ে দিয়েছিল ২০১২ এশিয়া কাপের একটি ইনিংস। ১৪৮ বলে ১৮৩ রানের স্মরণীয় এক ইনিংস খেলে ভারতকে জিতিয়েছিলেন পাকিস্তানের বিপক্ষে। সেদিন অদ্ভূত এক কৌশল নিয়ে সাঈদ আজমলকে তুলোধুনা করে দিয়েছিলেন কোহলি। পেছন ফিরে তাকিয়ে সেই গল্প শোনালেন এখনকার ভারতীয় অধিনায়ক।