শ্রীলঙ্কার আরও তিন ক্রিকেটার কোভিড পজিটিভ

সিরিজের প্রথম টেস্টে মাঠের ক্রিকেটে ছন্নছাড়া শ্রীলঙ্কা এবার মাঠের বাইরে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে দ্বিতীয় টেস্টের আগে। একসঙ্গে কোভিড পজিটিভ হয়েছেন তাদের তিন ক্রিকেটার ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা, আসিথা ফার্নান্দো ও জেফ্রি ভ্যান্ডারসে।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 July 2022, 04:20 AM
Updated : 7 July 2022, 08:31 AM

নিয়ম অনুযায়ী তাদেরকে এখন অন্তত ৫ দিন আইসোলেশনে থাকতে হবে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে গলে দ্বিতীয় টেস্টে একজনকেও পাবে না শ্রীলঙ্কা।

এই তিনজনই খেলেছিলেন গলে সিরিজের প্রথম টেস্টে। ধনাঞ্জয়া ও আসিথার খেলা নিশ্চিত ছিল পরের টেস্টেও। শ্রীলঙ্কার জন্য তাই এটি বড় ধাক্কা।

এই তিন জনের আগে কোভিড পজিটিভ হয়েছেন প্রাভিন জয়াবিক্রমা। দ্বিতীয় টেস্টে খেলার কথা ছিল তারও।

এতজনকে না পাওয়ার ভীড়ে তাদের কিছুটা স্বস্তি অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসকে ফিরে পাওয়া। প্রথম টেস্টের মাঝপথে কোভিড পজিটিভ হওয়া অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান আইসোলেশন শেষে যোগ দিয়েছেন দলে।

পজিটিভ হওয়া তিন ক্রিকেটারই অসুস্থ বোধ করায় দলকে জানান। পরে কোভিড পরীক্ষা করানো হয় গোটা দলের। তাতে পজিটিভ আসে ওই তিনজনেরই।

জয়াবিক্রমা পজিটিভ হওয়ার পরই শ্রীলঙ্কা দলে যোগ করে আরও তিন স্পিনার মাহিশ থিকসানা, দুনিথ ওয়েল্লালাগে ও লাকশিথা মানাসিংহেকে। পরে দলে যুক্ত করা হয় বাঁহাতি স্পিনার প্রবাথ জয়াসুরিয়াকেও। নতুন করে তিন জন আক্রান্ত হওয়ার পর বাঁহাতি রিস্ট স্পিনার লাকশান সান্দাক্যানকেও দলে নিয়েছে তারা।

প্রথম টেস্টে পারফর্ম করতে না পারা বাঁহাতি স্পিনার লাসিথ এম্বুলদেনিয়াকে দল থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে এর মধ্যেই। ভ্যান্ডারসে ও এম্বুলদেনিয়ার বদলে টেস্ট অভিষেক এখন একরকম নিশ্চিত বলা যায় সীমিত ওভারের ক্রিকেটের নিয়মিত স্পিনার মাহিশ থিকসানা ও তরুণ স্পিনিং অলরাউন্ডার ওয়েল্লালাগের।

আগের টেস্টে একমাত্র পেসার হিসেবে একাদশে ছিলেন আসিথা ফার্নান্দো। গত মে মাসে বাংলাদেশ সফরে মিরপুর টেস্টে ১০ উইকেট নেওয়ার পর তিনি এই সিরিজে প্রথম টেস্টে নেন ২ উইকেট। তার জায়গায় এখন একাদশে আসবেন কাসুন রাজিথা।

লঙ্কানদের সঙ্গে একই হোটেলে আছেন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটাররাও। প্রতিদিন কোভিড পরীক্ষা করানো হচ্ছে তাদেরও। তবে পজিটিভ হননি কেউ।

প্রথম টেস্টে ১০ উইকেটে হেরে সিরিজে পিছিয়ে আছে লঙ্কানরা। তাদের সিরিজ বাঁচানোর লড়াই শুরু শুক্রবার।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক