বেয়ারস্টোর আরেকটি সেঞ্চুরি, আবারও ব্যর্থ কোহলি

এজবাস্টন টেস্টের তৃতীয় দিনে কিছুটা বাড়তি উত্তাপ ছড়াল বিরাট কোহলি ও জনি বেয়ারস্টোর কথার লড়াই। বাইশ গজে দ্বিতীয় জন দাপট দেখালেও আরেক জন থাকলেন ম্রিয়মান। দুর্দান্ত পথচলায় বেয়ারস্টো করলেন আরেকটি সেঞ্চুরি। আড়াই বছর ধরে তিন অঙ্ক ছুঁতে না পারা কোহলি ব্যর্থ হলেন আরও একবার। ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ অবশ্য এখনও তার দলের হাতেই।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 July 2022, 06:57 PM
Updated : 3 July 2022, 06:57 PM

ইংল্যান্ডকে ২৮৪ রানে থামানোর পর রোববার দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৩৫ রান। প্রথম ইনিংসের ১৩২ রানের লিডসহ সফরকারীরা এগিয়ে আছে ২৫৭ রানে।   

ফিফটি করে খেলছেন চেতেশ্বর পুজারা। উইকেটে তার সঙ্গী প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান রিশাভ পান্ত।

ইংলিশরা ৫ উইকেটে ৮৩ রানের নড়বড়ে অবস্থান থেকে তিনশর কাছাকাছি যেতে পারে মূলত বেয়ারস্টোর সৌজন্যে। টানা তৃতীয় সেঞ্চুরিতে ১৪০ বলে ১৪ চার ও ২ ছক্কায় তিনি খেলেন ১০৬ রানের ঝকঝকে ইনিংস।

৪ উইকেট নিয়ে ভারতকে বড় লিড এনে দিতে অগ্রণী ভূমিকা রাখেন পেসার মোহাম্মদ সিরাজ।

উইকেট থেকে পেসাররা পেয়েছেন কিছুটা মুভমেন্ট। সঙ্গে বাড়তি বাউন্স। ব্যাটিংয়ের জন্য যদিও তেমন কঠিন কিছু নয়।

ইংল্যান্ড তৃতীয় দিন শুরু করে ৫ উইকেটে ৮৪ রান নিয়ে। আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান বেয়ারস্টো ও বেন স্টোকস পঞ্চাশোর্ধ জুটিতে গড়েন প্রতিরোধ। দুজনে কাটিয়ে দেন প্রায় দিনের প্রথম ঘণ্টা।

মাঝে কোহলি ও বেয়ারস্টোর ওই কথার লড়াই। সেটিই যেন তাতিয়ে দেয় ইংলিশ ব্যাটসম্যানকে। তখন তার রান ছিল ৬১ বলে ১৩, সেখান থেকে পঞ্চাশে যেতে লাগে কেবল ২০ বল!

পানি পানের বিরতির আগে স্টোকসের (৩৬ বলে ২৫) বিদায় ভাঙে ৬৬ রানের জুটি। শার্দুল ঠাকুরের আগের বলে যেখানে ইংলিশ অধিনায়কের ক্যাচ মুঠোয় জমাতে ব্যর্থ হন জাসপ্রিত বুমরাহ, সেই মিড-অফেই পরের বলে বাঁ দিকে ঝাঁপিয়ে চমৎকার ক্যাচ নেন এই ম্যাচের ভারত অধিনায়ক।

বেয়ারস্টো যথারীতি এগিয়ে যান আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে। ফিফটি থেকে পরের পঞ্চাশ করতে তার লাগে আর কেবল ৩৮ বল। বৃষ্টির কারণে লাঞ্চ বিরতি নেওয়া হয় আগেভাগে। বিরতি থেকে ফেরার পরপরই বেয়ারস্টো ক্যারিয়ারের একাদশ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ১১৯ বলে।

২০২২ সালের আগের দুই বছরে ১৯ টেস্টে তার ছিল না কোনো সেঞ্চুরি। সেখানে এই বছর ৮ টেস্টেই সেঞ্চুরি করলেন ৫টি! যার তিনটি সবশেষ ৪ ইনিংসে।

বেয়ারস্টোকে সঙ্গ দিয়ে যান স্যাম বিলিংস। ১০৫ বলে ইনিংস সর্বোচ্চ ৯২ রানের জুটি ভাঙে বেয়ারস্টোর বিদায়েই। আক্রমণে ফিরেই তাকে থামান মোহাম্মদ শামি। স্লিপে দারুণ ক্যাচ নেন কোহলি।

এরপর একে একে স্টুয়ার্ট ব্রড, বিলিংস ও ম্যাথু পটসকে ফিরিয়ে তিনশর আগে ইংল্যান্ডের ইনিংস গুটিয়ে দেন সিরাজ।

কিপার-ব্যাটসম্যান বিলিংস ৫৭ বলে ৩৬ ও পটস ১৮ বলে ১৯ রান করেন।

দ্বিতীয় ইনিংসে নেমে তৃতীয় বলে উইকেট হারায় ভারত। একটি চার মেরেই বিদায় নেন শুবমান গিল। জেমস অ্যান্ডারসনের বাড়তি বাউন্সে স্লিপে ধরা পড়েন ডানহাতি ওপেনার।

অনেকটা সময় উইকেটে কাটিয়ে ইনিংস বড় করতে পারেননি হনুমা বিহারি। চা-বিরতির পরপর ব্রডের বলে তিনিও ক্যাচ দেন স্লিপে (৪৪ বলে ১১)।

কোহলি শুরুটা করেন আশা জাগানিয়া। প্রথম ৮ বলে চার মারেন তিনটি। কিন্তু ইনিংস লম্বা করতে পারেননি এবারও। প্রথম ইনিংসে ১১ রানের পর এবার তার রান ৪০ বলে ২০।

আউট হওয়া বলটিতে যদিও তার করার ছিল সামান্যই। স্টোকসের লেংথ থেকে আচমকা লাফিয়ে ওঠা বল তার ব্যাট ছুঁয়ে যায় উইকেটের পেছনে। কিপার বিলিংস বল গ্লাভসে জমাতে পারেননি, পাশেই প্রথম স্লিপে থাকা জো রুট ক্যাচ নেন এক হাতে।

২৩ রানে পুজারা একবার জীবন পান বিলিংস ক্যাচ নিতে না পারায়। অবশ্য বেশ কঠিন ছিল সেটি।

এরপর আর সুযোগ দেননি পুজারা। ফেরার টেস্টে তার প্রথম ইনিংস ১৩ রানে থামলেও এবার ১৩৯ বলে ৫ চারে ৫০ রানে অপরাজিত আছেন। ৪৬ বলে ৪টি চারে ৩০ রানে খেলছেন পান্ত। দুজনের অবিচ্ছিন্ন জুটির রান ৫০।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ভারত ১ম ইনিংস: ৪১৬

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ৬১.৩ ওভারে ২৮৪ (আগের দিন ৮৪/৫) (বেয়ারস্টো ১০৬, স্টোকস ২৫, বিলিংস ৩৬, ব্রড ১, পটস ১৯, অ্যান্ডারসন ৬*; বুমরাহ ১৯-৩-৬৮-৩, শামি ২২-৪-৭৮-২, সিরাজ ১১.৩-২-৬৬-৪, শার্দুল ৭-০-৪৮-১, জাদেজা ২-০-৩-০)

ভারত ২য় ইনিংস: ৪৫ ওভারে ১২৫/৩ (শুবমান ৪, পুজারা ৫০*, বিহারি ১১, কোহলি ২০, পান্ত ৩০*; অ্যান্ডারসন ১৪-৫-২৬-১, ব্রড ১২-১-৩৮-১, পটস ৮-২-২০-০, লিচ ১-০-৫-০, স্টোকস ৭-০-২২-১, রুট ৩-১-৭-০)

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক