মুস্তাফিজকে ডিউক বলের ধারাপাত শেখালেন ডোনাল্ড

টেস্ট সিরিজের আগে একটিই প্রস্তুতি ম্যাচ। ডিউক বলের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার সুযোগ। সেই ম্যাচে বল হাতে ছুটলেন ইবাদত হোসেন, সৈয়দ খালেদ আহমেদ ও রেজাউর রহমান রাজা। কিন্তু এই সিরিজের স্কোয়াডে যাকে নিয়ে সবচেয়ে বেশি আলোচনা, সেই মুস্তাফিজুর রহমানকেই দেখা গেল না দ্বিতীয় দিনে! কৌতূহলের জবাব মিলল পরে। বোলিং কোচ অ্যালান ডোনাল্ডের সঙ্গে নেটে আলাদা করে ডিউক বলের ‘অ আ ক খ’ শিখলেন বাংলাদেশের বাঁহাতি পেসার।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 June 2022, 06:03 AM
Updated : 12 June 2022, 08:23 AM

সীমিত ওভারের ক্রিকেটে সব জায়গায় কুকাবুরা বলে খেলা হলেও টেস্টের ব্যাপারটি ভিন্ন। সাদা পোশাকের ক্রিকেটে কোথাও ‘কুকাবুরা’, কোথাও ‘এসজি টেস্ট’ বলে খেলা হয়। ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে এই সংস্করণে খেলা হয় ‘ডিউক’ বলে।

এই বলগুলির মৌলিক পার্থক্য সিম বা সেলাইয়ে। ডিউক বলের সিম বেশি খাড়া ও টেকে লম্বা সময়। খুব সহজে বসে যায় না। তাই এটি সুইং করে বেশি ও দীর্ঘ সময় ধরে। কুকাবুরা বলে সিম অতটা উঁচু নয়, বরং বলের সঙ্গে অনেকটাই মিশে থাকে। খেলা গড়ানোর সঙ্গে এটি দ্রুত বসে যায়। তাই শুরুতে সুইং করলেও পরে এতটা করে না। এসজি বলের সিম কুকাবুরার চেয়ে একটু বেশি খাড়া থাকে বটে। তবে এটিও বসে যায় বেশ দ্রুত।

বাংলাদেশে টেস্ট ক্রিকেটে বেশির ভাগ সময়ই খেলা হয় কুকাবুরা বলে। কখনও কখনও হয় এসজি টেস্ট বলে। ডিউক বলে মানিয়ে নেওয়ার ব্যাপারটি তাই খালেদ-ইবাদতদের জন্য চ্যালেঞ্জিং।

তবে চ্যালেঞ্জটা সবচেয়ে বেশি হয়তো মুস্তাফিজের। প্রথমত, দীর্ঘদিন পর তিনি ফিরছেন লাল বলের ক্রিকেটে। দ্বিতীয়ত, ডিউক বলের সঙ্গে তার পরিচয় হলো এই প্রথম। আগে যে কখনোই ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজে বড় দৈর্ঘ্যের ক্রিকেটে খেলেননি তিনি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোর্ড প্রেসিডেন্ট একাদশের সঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচের দ্বিতীয় দিনে শনিবার বাংলাদেশ ৬৬ ওভার বোলিং করলেও মাঠে নামেননি মুস্তাফিজ। ওই সময়টায় তিনি নেটে আলাদা করে কাজ করেন ডোনাল্ডের সঙ্গে।

ডিউক বল কীভাবে সামলাতে হয়, তা ডোনাল্ডের জানা আছে ভালো মতোই। ইংল্যান্ডে ৮ টেস্ট খেলে ৪৫ উইকেট তার, ওয়েস্ট ইন্ডিজে ৫ টেস্টে ২০টি। কাউন্টি ক্রিকেটে তিনি কিংবদন্তি, ব্যাটসম্যানদের জন্য ছিলেন আতঙ্ক। টেস্ট অভিষেকের ৫ বছর আগে থেকেই খেলেন তিনি ওয়ারউইকশায়ারের হয়ে। এই কাউন্টির হয়ে এক যুগের বেশি খেলে ১৪১ ম্যাচে উইকেট ৫৩৬টি!

মুস্তাফিজের সঙ্গে বোলিং সেশন শেষে বিসিবির ভিডিও বার্তায় ডোনাল্ড খানিকটা ধারণা দিলেন ডিউক বল নিয়ে।

“কুকাবুরা থেকে এবার ডিউক বলের পালা। যে বলের সঙ্গে আমি খুব ভালোভাবেই পরিচিত। ওয়ারউইকশায়ারের হয়ে কাউন্টি ক্রিকেটে ও ইংল্যান্ডে টেস্ট ম্যাচে খেলেছি এই বলে। এই বলের সিম বেশ উঁচু। অনেক কাজ করতে হবে এটিতে মানিয়ে নিতে হলে, আগেও যেমন আমরা দেখেছি।”

ডিউক বল নিয়ে কাজ করাটা মুস্তাফিজ উপভোগ করছেন বলেই জানালেন বোলিং কোচ। প্রস্তুতি ম্যাচটি অন্য সবার জন্যও কাজে লাগবে বলে ধারণা তার।

“মাত্রই একটি সেশন হলো ফিজের সঙ্গে। আইপিএলের পর প্রথম বোলিং করল সে। বল নিয়ে কিছুটা ধারণা দিলাম তাকে। ডিউক বলে এটি তার প্রথম অভিজ্ঞতা। খুব সূক্ষ্ম পরিবর্তন করেছি তার গ্রিপে। তার মনে হচ্ছে, বেশ ভালোভাবে হাত থেকে বেরোচ্ছে বল।”

“ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রেসিডেন্ট একাদশের প্রথম দফায় বোলিং হলো। এই বলে অভ্যস্ত হতে এটা ভালোভাবে কাজে লাগবে বলেই মনে হচ্ছে।”

আইপিএলে মুস্তাফিজ শেষ ম্যাচটি খেলেছেন গত ১ মে। এরপর প্রায় দেড় মাস তিনি ম্যাচের বাইরে। লাল বলে সবশেষ ম্যাচ খেলেছেন তিনি গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষেই চট্টগ্রাম টেস্টে। ২০১৮ সালের নভেম্বরের পর এই সাড়ে তিন বছরে প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেছেন তিনি মোটে ৬টি। ডিউক বলে নেটে অনুশীলনের পাশাপাশি ম্যাচ অনুশীলনও তার জরুরি। প্রস্তুতি ম্যাচের শেষ দিনে রোববার হয়তো তাকে দেখা যাবে বোলিংয়ে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক