জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করে বাংলাদেশের কাছে আফগানিস্তান

রায়ান বার্লের শর্ট বল এক পা পেছনে নিয়ে মিডউইকেট দিয়ে ছক্কায় উড়িয়ে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দিলেন মোহাম্মদ নবি। শেষটায় ফুটে উঠল আফগানিস্তানের দাপটের ছবি। বল হাতে আধিপত্য দেখায় তারা, জিম্বাবুয়েকে গুটিয়ে দেয় দেড়শর আগেই। তবে ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ভালোই বেগ পেতে হয়েছে আফগানদের।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 June 2022, 03:19 PM
Updated : 9 June 2022, 03:19 PM

হারারেতে বৃহস্পতিবার সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে আফগানিস্তানের জয় ৪ উইকেটে। টানা তিন জয়ে এই সংস্করণে জিম্বাবুয়েকে প্রথমবার হোয়াইটওয়াশ করল তারা। 

রশিদ খান, নবিদের দারুণ বোলিংয়ে জিম্বাবুয়েকে ১৩৫ রানেই গুটিয়ে দেয় আফগানরা। স্বাগতিকদের অল্পতে থামিয়ে দেওয়ার স্বস্তি যেন উবে যায় রান তাড়ায়। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যাওয়া দলটিকে কাঙ্ক্ষিত ঠিকানায় পৌঁছাতে খেলতে হয় ৩৮ ওভার পর্যন্ত।

৩১ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন রশিদ। অলরাউন্ড নৈপুণ‍্যে আলো ছড়ান নবি। ২১ রান দিয়ে ২ উইকেট নেওয়ার পর ৩৪ রানে অপরাজিত থেকে দলের জয় সঙ্গে নিয়ে ফেরেন তিনি।

এই জয়ে ইংল‍্যান্ডকে (৯৫) পেছনে ফেলে ক্রিকেট বিশ্বকাপ সুপার লিগে দুই নম্বরে উঠে এসেছে আফগানিস্তান (১০০)। তাদের চেয়ে এগিয়ে কেবল বাংলাদেশ (১২০)। 

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা জিম্বাবুয়েকে শুরুতেই চেপে ধরে আফগানিস্তান। পরপর দুই ওভারে ফিরে যান ওয়েসলি মাধেভেরে ও ক্রেইগ আরভিন। ইনোসেন্ট কাইয়া ফিরতে পারতেন পরের ওভারেই। ১২ রানে থাকা এই ব্যাটসম্যানের ক্যাচ মুঠোয় জমাতে পারেননি দ্বিতীয় স্লিপে থাকা নবি।

কাইয়াকে যখন এলবিডব্লিউ করে ফেরালেন মুজিব উর রহমান, ৪২ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে কাঁপছে জিম্বাবুয়ে। পরের ব্যাটসম্যানরাও পারেননি দলের হাল ধরতে। একশর আগেই সাজঘরে ফেরেন তাদের ৬ ব্যাটসম্যান।

জিম্বাবুয়ের হয়ে ২ চারে সর্বোচ্চ ৩৮ রানের ইনিংস খেলেন সিকান্দার রাজা। ২০ রান পার করতে পারেন আর কেবল বার্ল, করেন ২ চারে ২১।

রান তাড়ায় দুই অঙ্কেই যেতে পারেননি আফগানদের দুই ওপেনার। আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান ইব্রাহিম জাদরান অনেকটা সময় উইকেটে কাটিয়ে করেন ৮। পরপর দুই ম্যাচে সেঞ্চুরির দুয়ার থেকে ফেরা রহমত শাহ এদিন করেন স্রেফ ১৭। তিন ম‍্যাচ মিলিয়ে সর্বোচ্চ ১৯৮ রান করে তিনি জেতেন সিরিজ সেরার পুরস্কার।

নাজিবউল্লাহ জাদরানকেও দ্রুত হারিয়ে বিপদে পড়ে যায় সফরকারীরা। ৬০ রানে ৪ উইকেট হারানো দলের হাল ধরেন অধিনায়ক হাশমতউল্লাহ শাহিদি ও নবি। ৪৫ রানের জুটি গড়ে আফগানদের জয়ের পথে এগিয়ে নেন তারা।

৫ চারে ৩৮ রান করা হাশমতউল্লাহর বিদায়ের পর টিকতে পারেননি আজমতউল্লাহ ওমরজাইও। চাপে পড়া দলকে আর বিপদে পড়তে দেননি নবি ও রশিদ। ম্যাচজয়ী ছক্কা ও দুই চারে ৩৪ রান করে অপরাজিত থাকেন নবি।

আগামী শনিবার শুরু আফগানিস্তান-জিম্বাবুয়ের তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে: ৪৪.৫ ওভারে ১৩৫ (কাইয়া ১৬, মাধেভেরে ৫, আরভিন ০, মেয়ার্স ৩, রাজা ৩৮, চাকাভা ১৫, বার্ল ২১, শুম্বা ১১, চাতারা ১,  মুজারাবানি ০, চিভাঙ্গা ৬*; ফারুকি ৮-০-২৫-২, ফরিদ ৬-১-৯-১, মুজিব ১০-১-২৩-১, আজমতউল্লাহ ৫-০-১৭-১, রশিদ ৭.৫-০-৩১-৩, নবি ৮-৩-২১-২)

আফগানিস্তান: ৩৭.৪ ওভারে ১৩৭/৬ (রহমানউল্লাহ ৭, ইব্রাহিম ৮, রহমত ১৭, হাশমতউল্লাহ ৩৮, নাজিবউল্লাহ ৯, নবি ৩৪*, আজমতউল্লাহ ৯, রশিদ ৬*; মুজারাবানি ১০-৩-১৮-২, চাতারা ১০-৩-২১-২, চিভাঙ্গা ৬-০-৩৫-০, রাজা ৪-১-১৩-০, মাধেভেরে ৩-০-৮-১, মেয়ার্স ২.৪-০-১৩-১)

ফল: আফগানিস্তান ৪ উইকেটে জয়ী

সিরিজ: তিন ম্যাচের সিরিজ ৩-০ তে জয়ী আফগানিস্তান

ম্যান অব দা ম্যাচ:  রশিদ খান

ম্যান অব দা সিরিজ: রহমত শাহ

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক