‘মুক্ত আবহে’ ক্রিকেটারদের আনন্দময় ঈদ

দিন দুয়েক আগে ফেইসবুকে একটি ছবি পোস্ট করেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। আড়াই বছর বয়সী সন্তানকে কোলে নিয়ে তিনি লঞ্চের সারেংয়ের কক্ষে। পরের দিন পোস্ট করেছেন আরও দুটি ছবি। নদীর পাড়ে তিনি দাঁড়িয়ে, পরনে লুঙ্গি, মাথায় বাঁধা গামছা। ছবির সঙ্গে জুড়ে দিয়েছেন নিজের মনের কথা, “আমার দেশ, আমার গ্রাম, আমার শান্তির নীড়।”

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 May 2022, 07:16 AM
Updated : 3 May 2022, 07:16 AM

বাবার কাজের সুবাদের মিরাজের বেড়ে ওঠা খুলনায়। তবে বাপ-দাদার ভিটে তার বরিশালের বাখেরগঞ্জে। পরিবারের সবাইকে নিয়ে তিনি এবার ঈদ করছেন সেখানেই। ডানহাতের কনিষ্ঠায় যদিও ব্যান্ডেজ করা এখনও। আঙুলের এই চোটের কারণে খেলতে পারবেন না সামনেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টে। তবে এই হতাশার মধ্যেও তার মনে বাড়তি আনন্দের দোলা দিয়েছে এবারের ঈদ।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে এই অলরাউন্ডার বললেন, অনেকদিন পর এবার ঈদ আনন্দে ভরিয়ে দিয়েছেন তার মন।

“গত দুই বছর তো সেভাবে ঈদ করতে পারিনি। এবার মুক্ত পরিবেশে ঈদ করতে পেরে খুব ভালো লাগছে। ইনজুরির কারণে যদিও মনটা খারাপ ছিল। তবে বাড়ি এসে খুব ভালো লাগছে। পরিবারের সবাই আছে। খুব মজা করছি। আঙুলে ব্যান্ডেজ না থাকলে মাছ ধরতে নেমে যেতাম নদীতে। মাছ ধরতে আমার খুব ভালো লাগে।”

বাবার সঙ্গে ঈদের দিনে তাসকিন আহমেদ। ছবি: তাসকিনের ফেইসবুক পাতা।

এই ‘মুক্ত আবহে’ ঈদ করার আনন্দ এবার ক্রিকেটাদের প্রায় সবার। কোভিড মহামারী যদিও শেষ হয়নি এখনও। তবে ভয়ের সময়টা আপাতত শেষ। বিধি-নিষেদের বেড়াজাল আর নেই। মুক্ত বাতাসে তাই যেন ডানা মেলে দিচ্ছেন সবাই।

চোটের থাবায় আপাতত মাঠের বাইরে তাসকিন আহমেদও। মিরাজের মতো তিনি খেলতে পারছেন না সামনের টেস্টে। চিকিৎসক দেখাতে শুক্রবার লন্ডন যাবেন তিনি। তবে তার চোটের হতাশা আপাতত চাপা পড়েছে পারিবারিক প্রাপ্তির আড়ালে। মাত্র পাঁচ দিন আগেই দ্বিতীয় সন্তানের বাবা হয়েছেন এই ফাস্ট বোলার।

সাড়ে তিন বছর বয়সী ছেলে আর সদ্যোজাত মেয়েকে নিয়ে এবার তাসকিনের ঈদ এসেছে যেন পূর্ণতার আনন্দে।

“গত দুই বছরে ঠিকভাবে ঈদের আনন্দ করা যায়নি। এবার সেরকম কোনো বাধা নেই, আগের মতো করেই ঈদ করতে পারছি আমরা। আমার মেয়ের জন্ম আমাদের পরিবারে বাড়তি খুশির উপলক্ষ এনে দিয়েছে। ছেলেও এখন ঈদ বুঝতে শিখছে। সব মিলিয়ে ভালো সময় কাটছে। ইনজুরিটা না থাকলে আরও ভালো লাগত। তবে পরিবারের সবার সঙ্গে থাকলে অন্য কিছু আর মনেই হয় না।”

টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক ঈদ উদযাপন করছেন নিজ শহর কক্সবাজারে। কদিন পরই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ। তাই উৎসবের খুশির মধ্যেও তার ভাবনায় থাকছে ক্রিকেট।

“গত দুই বছরে রোজার ঈদে কক্সবাজার আসতে পারিনি। এবার কোভিডের টেনশন নেই, খোলা মনে ঈদ পালন করতে পারছি। পরিবারের সবাই আছে, ভালো সময় কাটছে।”

“ঈদ হোক আর যে কোনো উৎসব, সামনে খেলা থাকলে সেই ভাবনা মাথায় আসেই। টেস্ট সিরিজে কীভাবে কী করা উচিত, সেসব ভাবনা অটোমেটিক চলে আসে। সিরিজটি আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। দেশবাসীর কাছে দোয়া চাই যেন আমরা ভালো করতে পারি।” 

ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবালের মা দেশের বাইরে। মায়ের সঙ্গে ঈদ করতে না পারার আক্ষপ তার কিছুটা আছে। তবে আরেকটি প্রাপ্তিতে তার মন ভরে গেছে, বললেন অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটার।

স্ত্রীর সঙ্গে এই ছবিতে ঈদের শুভেচ্ছা জানান টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক। ছবি: মুমিনুলের ফেইসবুক পাতা।

“এবার কোভিডের যন্ত্রণা নেই। ছেলের সঙ্গে বাইরে গিয়ে জামাতে ঈদের নামাজ পড়তে পেরেছি, আমার জন্য অনেক বড় ব্যাপার এটি। বিকেল থেকে ঈদের আসল আনন্দ শুরু হবে। বেশ কিছু প্ল্যান আছে। কালকে আমার বাসায় পরিবারের সবার ও বন্ধুদের দাওয়াত। সব মিলিয়ে এবার ঈদ খুব ভালোভাবে কাটবে আশা করি।”

টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ ঈদ উদযাপন করছেন নিজের শহর ময়মনসিংহে। আপাতত সামনে কোনো খেলা নেই তার। ঈদ উৎসব এবার তিনিও উপভোগ করছেন পুরোপুরি।

“অনেক দিন পর পরিবারের সবাই একসঙ্গে ঈদ করছি নিজের শহরে। খুব ভালো লাগছে। এখন তো আমরা বলা যায় স্বাভাবিক সময়ে ফিরেছি প্রায়। নিজেরা যেমন আনন্দ করছি, চারপাশের উৎসব দেখতেও ভালো লাগছে।”

আরেক অভিজ্ঞ ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সবার প্রতি আহবান জানালেন, এই উৎসবকে উপলক্ষ করে নতুন ভাবে সামনে তাকাতে।

“এই ঈদ বয়ে আনুক আমাদের সকলের হৃদয়ে খুশি ও সহমর্মিতার অনুভূতি। সকল ব্যর্থতা ভুলে চলুন এই ঈদে সকলে এগিয়ে যাই সম্ভাবনাময় ভবিষ্যতের দিকে। পবিত্র ঈদুল ফিতরের অনেক অনেক শুভেচ্ছা, ঈদ মুবারক!”

এছাড়াও ঈদ উৎসবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরব ও প্রাণবন্ত উপস্থিতি ক্রিকেটারদের অনেকের। দুই বছরের রাখঢাক আর চাপা দুর্ভাবনার সময় পেরিয়ে ‘স্বাভাবিক’ ঈদের আনন্দে ডুব দেওয়ার তৃপ্তি সবার। 

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক