ডি কক-রাবাদা-মিলারদের নিয়েই বাংলাদেশের অপেক্ষায় দক্ষিণ আফ্রিকা

আইপিএল ও বাংলাদেশ সিরিজের সূচি সাংঘর্ষিক হওয়ায় দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটাররা পড়েছেন অগ্নিপরীক্ষায়। প্রথম ধাপে আপাতত দেশের প্রতি আনুগত্যই দেখালেন তারা। ঘরের মাঠে আসছে ওয়ানডে সিরিজের জন্য তাই পূর্ণ শক্তির দল সাজাতে পেরেছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 March 2022, 09:42 AM
Updated : 8 March 2022, 11:17 AM

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের জন্য মঙ্গলবার ১৬ সদস্যের দল ঘোষণা করে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা। ফিটনেসের কারণে দলে জায়গা হয়নি আনরিক নরকিয়া ও সিসান্ডা মাগালার।

আগামী ১৮ মার্চ শুরু হয়ে সিরিজটি শেষ হবে ২৩ মার্চ। এর তিন দিন পরই শুরু আইপিএলের পঞ্চদশ আসর। এমন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলার বিষয়টি ক্রিকেটারদের ওপর ছেড়ে দিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকার বোর্ড।

বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডে দলে আছেন আইপিএলে দল পাওয়া দেশটির আট ক্রিকেটার- কাগিসো রাবাদা, লুঙ্গি এনগিডি, রাসি ফন ডার ডাসেন, ডেভিড মিলার, কুইন্টন ডি কক, এইডেন মারক্রাম, ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস ও মার্কো ইয়ানসেন। ফলে অন্তত টুর্নামেন্টের প্রথম দিকে এই ক্রিকেটারদের না পাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর।

কেননা, আইপিএলের জৈব-সুরক্ষা বলয়ে প্রবেশের আগে তিন দিন বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে সব দলকে। যদি ক্রিকেটাররা আরেকটি জৈব সুরক্ষা বলয় থেকে আসে তাহলে এই নিয়ম শিথিল করা হবে। কিন্তু বাংলাদেশ ও দক্ষিণ আফ্রিকার সিরিজটি হচ্ছে ‘ম্যানেজড জৈব-সুরক্ষা’ বলয়ে।

ভারতের বিপক্ষে গত জানুয়ারির ওয়ানডে সিরিজে বিশ্রাম পাওয়া রাবাদা ফিরেছেন দলে। এছাড়া সবশেষ সিরিজের দল থেকে আর তেমন কোনো পরিবর্তন নেই।

চোট কাটিয়ে দলে ফিরেছেন এনগিডি। ফেব্রুয়ারিতে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে খেলতে পারেননি এই পেসার। বাংলাদেশের বিপক্ষে তাকে ফিট পাওয়ার আশা দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ডের।

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজটি আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ সুপার লিগের অংশ। ম্যাচগুলো হবে আগামী ১৮, ২০ ও ২৩ মার্চ। এরপর আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দুটি ম্যাচ খেলবে দুই দল। আগামী ৩১ মার্চ শুরু প্রথম টেস্ট, পরেরটি ৮ এপ্রিল।

ওয়ানডে সিরিজে খেলতে সায় দিলেও লাল বলের ক্রিকেটে নিয়মিত ক্রিকেটারদের পাবে কিনা দক্ষিণ আফ্রিকা, এমন প্রশ্ন জাগছে। সিএসএ’র নির্বাচক কমিটির আহবায়ক ভিক্টর এমপিটসাং ইএসপিএনক্রিকইনফোকে বলেন, বিষয়টি কয়েকদিনের মধ্যে পরিষ্কার হয়ে যাবে।

“ওয়ানডে দলের যারা টেস্ট খেলছে না তারা সিরিজ শেষের পর হয়তো আইপিএলে যোগ দিবে। (আইপিএলে দল পাওয়া) টেস্ট দলের (নিয়মিত) ছয় খেলোয়াড়ের বিষয়ে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে আমরা আরও পরিষ্কার হব।”

দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট পরিকল্পনায় থাকা এই ছয় ক্রিকেটার হলেন-রাবাদা, এনগিডি, ফন ডার ডাসেন, ইয়ানসেন, মারক্রাম ও নরকিয়া। সবশেষ ভারত ও নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে চোটের কারণে খেলতে পারেননি নরকিয়া। গত নভেম্বরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর আর মাঠে নামেননি গতিময় এই পেসার।

দক্ষিণ আফ্রিকা ওয়ানডে দল: টেম্বা বাভুমা (অধিনায়ক), কেশভ মহারাজ (সহ-অধিনায়ক), কুইন্টন ডি কক (উইকেটরক্ষক), জুবাইর হামজা, মার্কো ইয়ানসেন, ইয়ানেমান মালান, এইডেন মারক্রাম, ডেভিড মিলার, লুঙ্গি এনগিডি, ওয়েন পারনেল, আন্দিলে ফেলুকওয়ায়ো, ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস, কাগিসো রাবাদা, তাবরাইজ শামসি, রাসি ফন ডার ডাসেন, কাইল ভেরেইনা

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক