শেষ ওভারের রোমাঞ্চে হোয়াইটওয়াশ এড়াল শ্রীলঙ্কা

কেন রিচার্ডসনের শর্ট বল স্কয়ার লেগ দিয়ে গ্যালারিতে ফেলে রান সমতায় নিলেন দাসুন শানাকা। লঙ্কান শিবিরে তখন স্বস্তির হাওয়া। কিন্তু পরের বলে স্কুপ খেলে অধিনায়ক হয়ে গেলেন বোল্ড! ম্যাচে ছড়াল কিছুটা উত্তেজনা, শেষ দুই বলে এক রানের সমীকরণেও তো হতে পারে যেকোনো কিছু! শেষ পর্যন্ত অবশ্য জয় তুলে নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হোয়াইটওয়াশ এড়াতে পারল সফরকারীরা।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 Feb 2022, 10:00 AM
Updated : 20 Feb 2022, 11:56 AM

মেলবোর্ন ক্রিকেট মাঠে রোববার পঞ্চম ও শেষ টি-টোয়েন্টিতে ৫ উইকেটে জিতেছে লঙ্কানরা। অস্ট্রেলিয়ার দেওয়া ১৫৫ রানের লক্ষ্যে তারা পৌঁছে গেছে এক বল বাকি থাকতে।

পাঁচ ম‍্যাচের টি-টোয়েন্টির সিরিজে টেস্ট খেলুড়ে দেশগুলোর মধ্যে প্রথমবার প্রতিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশ করার সুযোগ এসেছিল অস্ট্রেলিয়ার সামনে। কিন্তু শেষ ম্যাচে জ্বলে উঠে তা ভেস্তে দিল সফরকারীরা।

লঙ্কানদের এই বিব্রতকর রেকর্ডের অংশ হওয়া থেকে বাঁচান কুসল মেন্ডিস। ইনিংস শুরু করতে নেমে দলের জয় সঙ্গে নিয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি ৬৯ রান করে। ম্যাচ সেরা হওয়া এই কিপার-ব্যাটসম্যানের ৫৮ বলের ইনিংসে ৫ চারের সঙ্গে ছক্কা একটি।

শেষ ওভারে ৯ রানের সমীকরণে ছক্কা ও আউট ছাড়াও ছিল আরেকটি ঘটনা। হ্যামস্ট্রিংয়ে টান লাগায় চার বল করে মাঠ ছাড়েন কেন রিচার্ডসন। শেষ দুই বলে অভাবনীয় কিছু করার দায়িত্ব পেয়ে পারেননি ড্যানিয়েল স্যামস।

দিনটি অবশ্য শুরু থেকেই মনে হচ্ছিল শ্রীলঙ্কার। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা অস্ট্রেলিয়াকে তারা চাপে রাখে প্রথম বল থেকেই। প্রতিপক্ষের দুর্দান্ত বোলিংয়ে রান তোলার পথই যেন খুঁজে পাচ্ছিল না স্বাগতিকরা। পাওয়ার প্লেতে কেবল তোলে ২২ রান, সঙ্গে হারায় দুই ওপেনারকে।

গত দুই ম্যাচে তিনে খেলা অ্যারন ফিঞ্চ ওপেনিংয়ে ফিরেও ছিলেন ব্যর্থ। দুশমন্থ চামিরার স্লোয়ারে ক্যাচ দেন মিড-অনে। অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক সিরিজে এই নিয়ে তিনবার ফিরলেন দুই অঙ্ক ছোঁয়ার আগে।

পরের ওভারেই বিদায় নেন ম্যাকডারমট। গোল্ডেন ডাক থেকে বেঁচে যাওয়া ব্যাটসম্যান ৩ রান করতে খেলেন ১৩ বল। পাওয়ার প্লের শেষ দুই বলে গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের টানা দুটি চারে ইনিংসে প্রথম বাউন্ডারির মুখ দেখে অস্ট্রেলিয়া।

ব্যাটিং অর্ডারে তিনে সুযোগ পেয়ে ম্যাক্সওয়েলের সঙ্গে দলের হাল ধরেন জশ ইংলিস। দুইজনে গড়েন ২৭ বলে ৪৩ রানের জুটি। ইংলিসের বিদায়ে দশম ওভারে ভাঙে তাদের প্রতিরোধ।

চামিকা করুনারত্নেকে ছক্কায় উড়িয়ে ডানা মেলার আভাস দেওয়া মার্কাস স্টয়নিসও টিকতে পারেননি। শর্ট বলে থার্ডম্যান সীমানায় ক্যাচ দেন ২ চার ও এক ছক্কায় ২৯ করা ম্যাক্সওয়েল। দুই ব্যাটসম্যানই লাহিরু কুমারার শিকার।

৫ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা দলকে টানেন ম্যাথু ওয়েড। থিকশানাকে টানা দুই চারের পর ছক্কা হাঁকান কুমারাকে। ওই ওভারে পরপর দুই চার মারেন স্যামস।

তাদের দুইজনের ব্যাটে দেড়শর কাছে পৌঁছে যায় অস্ট্রেলিয়া। ৩৬ বলে ৬৪ রানের জুটি ভাঙে স্যামস বিদায় নিলে। ওয়েড অপরাজিত থাকেন দুটি করে ছক্কা-চারে ২৭ বলে ৪৩ রান করে।

রান তাড়ায় দেখেশুনে খেলতে থাকা শ্রীলঙ্কা চতুর্থ ওভারে হারায় জোড়া উইকেট। কেন রিচার্ডসনের বলে ম্যাক্সওয়েলের হাতে ক্যাচ দেন পাথুম নিসানকা। দুই বল পর রান আউটে কাটা পড়েন অভিষিক্ত কামিল মিশারা।

মুখোমুখি হওয়া প্রথম বলে চার মেরে রানের খাতা খোলা চারিথ আসালাঙ্কা পরে ছক্কায় ওড়ান স্যামসকে। পাওয়ার প্লেতে দুই উইকেট হারিয়ে শ্রীলঙ্কা তুলে ফেলে ৫৪ রান।

সপ্তম ওভারের প্রথম বলেই অ্যাশটন অ্যাগারকে স্কুপ খেলে আসালাঙ্কা বল টেনে আনেন স্টাম্পে। আরেক অভিষিক্ত জানিথ লিয়ানাগেও রান আউটের শিকার।

ভালো শুরুর পর পথ হারাতে বসা দলকে দিশায় রাখেন মেন্ডিস ও শানাকা। তাদের দারুণ ব্যাটিংয়ে লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যেতে থাকে শ্রীলঙ্কা। দুইজনে মিলে জুটি গড়েন ৬৪ বলে ৮৩ রানের।

৪৩ বলে ফিফটি স্পর্শ করেন মেন্ডিস, দেড় বছর ও ১১ ইনিংস পর যা তার প্রথম। ডানহাতি এই ব্যাটসম্যানের সবশেষ পঞ্চাশ ছিল ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে, নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে।

শানাকা ও মেন্ডিসের জুটিতেই শেষ করতে পারত শ্রীলঙ্কা। কিন্তু দল যখন জয় থেকে স্রেফ এক রান দূরে, কেন রিচার্ডসনের অফ স্টাম্পের বাইরের বল স্কুপ খেলে বোল্ড হন শানাকা। করেন ২ ছক্কায় ৩৫ রান। পরের বলেই অবশ্য দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন করুনারত্নে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

অস্ট্রেলিয়া: ২০ ওভারে ১৫৪/৪ (ফিঞ্চ ৮, ম্যাকডারমট ৩, ইংলিস ২৩, ম্যাক্সওয়েল ২৯, স্টয়নিস ১৭, ওয়েড ৪৩*, স্যামস ১৮, অ্যাগার ৪*; থিকশানা ৪-০-২৭-০, কুমারা ৪-০-৩৪-২, চামিরা ৪-০-৩০-২, জয়াবিক্রমা ৪-০-২৯-১, করুনারত্নে ৪-০-৩২-১)

শ্রীলঙ্কা: ১৯.৫ ওভারে ১৫৫/৫ (নিসানকা ১৩, মেন্ডিস ৬৯*, মিশারা ১, আসালাঙ্কা ২০, লিয়ানাগে ৮, শানাকা ৩৫, করুনারত্নে ১*; স্টয়নিস ২-০-১৩-০, স্যামস ২.১-০-২২-০, জাই রিচার্ডসন ৪-০-৩৮-০, কেন রিচার্ডসন ৩.৪ -০-২৮-২, অ্যাগার ৪-০-১৯-১, জ্যাম্পা ৪-০-৩৩-০)

ফল: শ্রীলঙ্কা ৫ উইকেটে জয়ী

সিরিজ: পাঁচ ম্যাচের সিরিজ ৪-১ ব্যবধানে জিতেছে অস্ট্রেলিয়া

ম্যান অব দা ম্যাচ: কুসল মেন্ডিস

ম্যান অব দা সিরিজ: গ্লেন ম্যাক্সওয়েল

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক