ইতিহাস গড়ার ম্যাচ জয়ে রাঙাল ভারত

সাম্প্রতিক ব্যর্থতা ঝেড়ে ফেলতে সবার আগে খেলতে হবে পুরো ৫০ ওভার, অধিনায়কের এই আহ্বানে সাড়া দিতে পারলেন না ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব‍্যাটসম‍্যানরা। দলকে সামনে থেকে পথ দেখাতে পারলেন না কাইরন পোলার্ড নিজেও, ফিরে গেলেন প্রথম বলেই। যুজবেন্দ্র চেহেল ও ওয়াশিংটন সুন্দরের স্পিনের সামনে মুখ থুবড়ে পড়ল দলটির ব্যাটিং লাইনআপ। প্রতিপক্ষকে অল্পতে গুটিয়ে দিয়ে সহজ জয় তুলে নিল ভারত।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 6 Feb 2022, 02:33 PM
Updated : 6 Feb 2022, 03:36 PM

ইতিহাসের প্রথম দল হিসেবে এক হাজারতম ওয়ানডে খেলতে নামা ভারত অনায়াস জয়ে স্মরণীয় করে রাখল উপলক্ষটি। রোববার ক্যারিবিয়ানদের ৬ উইকেটে হারিয়ে এগিয়ে গেল তিন ম্যাচের সিরিজে।

অস্ট্রেলিয়া এখন পর্যন্ত খেলেছে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৯৫৮টি ওয়ানডে, পাকিস্তান ৯৩৬টি।

গত মাসে ঘরের মাঠে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে হারা সিরিজের কোনো ম‍্যাচেই সব ওভার খেলতে পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ভারতে এসে প্রথম ম্যাচে ৪৩.৫ ওভারে ১৭৬ রান করে গুটিয়ে গেল তারা। স্বাগতিকরা সেই রান পেরিয়ে গেল ১৩২ বল হাতে রেখেই।

পূর্ণ মেয়াদে সাদা বলের নেতৃত্ব পাওয়ার পর প্রথম ওয়ানডে খেলতে নেমে ব্যাট হাতে সামনে থেকে দলকে পথ দেখান রোহিত শর্মা। চোট কাটিয়ে ফেরা এই ওপেনার ১০ চার ও এক ছক্কায় করেন ৬০ রান।

আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামের উইকেটে এদিন মিলেছে অসমান বাউন্স, স্পিনাররা পেয়েছেন টার্ন। যা কাজে লাগিয়ে প্রতিপক্ষের ব্যাটিং গুঁড়িয়ে দিয়েছেন ওয়াশিংটন ও চেহেল। ভারতীয় দুই স্পিনারের শিকার ৭ উইকেট।

২০১৭ সালে ওয়ানডেতে অভিষিক্ত ওয়াশিংটন নিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ৩০ রান দিয়ে নেন ৩ উইকেট। ৪৯ রান দিয়ে ৪ উইকেট নেওয়া লেগ স্পিনার চেহেল হন ম্যাচ সেরা।

ক্যারিবিয়ান শিবিরে অবশ্য শুরুতে আঘাত হানেন মোহাম্মদ সিরাজ। দারুণ দুটি শটে এই পেসারকে টানা দুই চার মারা শেই হোপ পরের বলেও চেয়েছিলেন বাউন্ডারি হাঁকাতে। কিন্তু হালকা সুইং করে ভেতরে ঢোকা বল তার ব্যাটের কানায় লেগে এলোমেলো করে দেয় স্টাম্প।

ব্র্যান্ডন কিং ও ড্যারেন ব্রাভোর জুটি গড়ার চেষ্টা থামান ওয়াশিংটন। দুই জনকেই এক ওভারে ফেরান এই অফ স্পিনার।

চেহেলকে সুইপ করে ব্যাটে-বলে করতে পারেননি নিকোলাস পুরান। এলবিডব্লিউর আবেদনে আম্পায়ার সাড়া না দিলে তাকে রিভিউ নিয়ে ফেরায় ভারত। এরই সঙ্গে ওয়ানডেতে একশ উইকেটের ক্লাবে পা রাখেন চেহেল। পরের বলেই তার গুগলি বোকা বানিয়ে ছোবল দেয় পোলার্ডের স্টাম্পে। হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা জাগলেও শেষ পর্যন্ত তা হয়নি।

এদিন একের পর এক রিভিউ নিয়ে সফল হওয়া ভারত শামারা ব্রুকসকেও ফেরায় আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে। চেহেলের লেগ স্পিনে কট বিহাইন্ডের আবেদন করে ভারত। আম্পায়ার সাড়া না দিলে রিভিউ নিয়ে দেখা যায়, ব্যাট ছুঁয়ে কিপারের গ্লাভসে জমা পড়ে বল। এরপর রানের খাতা খোলার আগেই ফেরেন আকিল হোসেন।

৭৯ রানে ৭ উইকেট হারানো ওয়েস্ট ইন্ডিজ তখন একশর আগেই গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কায়। ফ্যাবিয়ান অ্যালেনকে নিয়ে দলের রান দেড়শ পার করেন জেসন হোল্ডার। অষ্টম উইকেটে তাদের জুটি ৭৮ রানের।

২৯ রান করা অ্যালেনের ফিরতি ক্যাচ নিয়ে তাদের প্রতিরোধ ভাঙেন ওয়াশিংটন। ৫৮ বলে ফিফটি করা হোল্ডারকে বেশিদূর যেতে দেননি প্রসিধ কৃষ্ণা। ৪ ছক্কায় ৫৭ রান করে কট বিহাইন্ড হন হোল্ডার। এই ইনিংসের পথে ওয়ানডেতে দুই হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন তিনি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইনিংসে কেবল হোল্ডারই ছুঁতে পেরেছেন পঞ্চাশ। আরও কেউ করতে পারেনি ৩০ রানও।

রান তাড়ায় ভারতকে দুর্দান্ত শুরু এনে দেন রোহিত। তাকে সঙ্গ দেন ইশান কিষান। দুইজনে মিলে গড়েন ৮৪ রানের উদ্বোধনী জুটি। যেখানে অগ্রণী ছিলেন রোহিতই।

আত্মবিশ্বাসী ব্যাটিংয়ে দলের রান বাড়াতে থাকেন তিনি। নিজের জোনে পেলেই বল পাঠিয়েছেন বাউন্ডারিতে। দারুণ সব শট খেলে রোহিত ফিফটি স্পর্শ করেন ৪২ বলে।

পঞ্চাশের পর ইনিংস বড় করতে পারেননি তিনি। আলজারি জোসেফের বলে হন এলবিডব্লিইউ। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি ভারত অধিনায়ক।

মুখোমুখি হওয়া প্রথম দুই বলেই জোসেফকে চার মারেন বিরাট কোহলি। কিন্তু ক্যারিবিয়ান পেসারের বাউন্সারে হুক করে ধরা পড়েন বাউন্ডারিতে। এক ওভারেই ভারতের বর্তমান অধিনায়ক ও সাবেক অধিনায়ককে ফেরান জোসেফ।

আকিল হোসেনকে স্লগ সুইপ করে কিষান ধরা পড়েন ডিপ স্কয়ার লেগ বাউন্ডারিতে। দুর্ভাগ‍্যজনক রানআউট হন রিশাভ পান্ত। সূর্যকুমার যাদবের স্ট্রেট ড্রাইভ পা দিয়ে থামানোর চেষ্টা করেন বোলার জোসেফ। তার পায়ে হালকা ছুঁয়ে বল আঘান হানে নন-স্ট্রাইক প্রান্তের স্টাম্পে, সেসময় দাগের বাইরে ছিলেন পান্ত।

হুট করেই ব্যাটিং ধসে পড়ে ৩২ রান তুলতেই ৪ উইকেট হারায় ভারত। তবে এরপর আর দলকে বিপদে পড়তে দেননি সূর্যকুমার ও দিপক হুডা। তাদের ৬৩ বলে ৬২ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় দলটি।

কোহলির কাছ থেকে ভারতের ক্যাপ নিয়ে জাতীয় দলের হয়ে প্রথমবার খেলতে নামা হুডা অপরাজিত ছিলেন ২ চারে ২৬ রান করে। ৫ চারে ৩৪ রান করেন সূর্যকুমার।

আগামী বুধবার সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মুখোমুখি হবে দুই দল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ৪৩.৫ ওভারে ১৭৬ (হোপ ৮, কিং ১৩, ব্রাভো ১৮, ব্রুকস ১২, পুরান ১৮, পোলার্ড ০, হোল্ডার ৫৭, আকিল ০, অ্যালেন ২৯, জোসেফ ১৩, রোচ ০*; সিরাজ ৮-২-২৬-১, প্রসিধ ১০-০-২৯-২, ওয়াশিংটন ৯-১-৩০-৩, শার্দুল ৭-০-৩৮-০, চেহেল ৯.৫-০-৪৯-৪)

ভারত: ২৮ ওভারে ১৭৮/৪ (রোহিত ৬০, কিষান ২৮, কোহলি ৮, পান্ত ১১, সূর্যকুমার ৩৪*, হুডা ২৬*; রোচ ৫-০-৪১-০, হোল্ডার ৫-০-২৯-০, জোসেফ ৭-০-৪৫-২, আকিল ৯-০-৪৬-১, অ্যালেন ২-০-১৪-০)

ফল: ভারত ৬ উইকেটে জয়ী

সিরিজ: তিন ম্যাচে সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে ভারত

ম্যান অব দা ম্যাচ: যুজবেন্দ্র চেহেল

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক