ট্রফি ধরে রাখার অভিযানে মাঠে নামছে যুবারা

কখনও ‘ডার্ক হর্স’ হিসেবে, কখনও সম্ভাবনাময় দল, নানা সময়ে নানাভাবে বিভিন্ন বৈশ্বিক আসর শুরু করেছে বাংলাদেশ। এবার হতে যাচ্ছে ভিন্ন এক অভিজ্ঞতা। একটি টুর্নামেন্টের পথচলা শুরু হচ্ছে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হিসেবে। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে শিরোপা ধরে রাখার অভিযানে প্রথম লড়াইয়ে মাঠে নামছে বাংলাদেশ।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Jan 2022, 04:00 AM
Updated : 16 Jan 2022, 11:25 AM

গ্রুপের সম্ভাব্য সবচেয়ে কঠিন প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ডকেই সবার আগে সামনে পাচ্ছে বাংলাদেশ। সেন্ট কিটসে ম্যাচ শুরু বাংলাদেশ সময় রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়।

বয়সভিত্তিক পর্যায়ে বাংলাদেশ বরাবরই রোমাঞ্চ জাগানিয়া দল ছিল। তবে গত কয়েক বছরে দেশের বয়সভিত্তিক ক্রিকেট স্পর্শ করেছে নতুন উচ্চতায়। ২০১৬ সালে দেশের মাঠে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে তৃতীয় হয় মেহেদী হাসান মিরাজের নেতৃত্বাধীন দল। এরপর ২০২০ যুব বিশ্বকাপে ধরা দেয় এখনও পর্যন্ত দেশের ইতিহাসের একমাত্র বৈশ্বিক শিরোপা। আকবর আলির দল দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ট্রফি নিয়ে ফেরে দেশে। এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজে সেই ট্রফি ধরে রাখার চ্যালেঞ্জ রকিবুল হাসানের দলের সামনে।

গত আসরের শিরোপাজয়ী দলটিরই গুরুত্বপূর্ণ অংশ ছিলেন রকিবুল। ওই টুর্নামেন্টের আগে যে ধরনের প্রস্তুতি ছিল দলটির, এই বাঁহাতি স্পিনার জানেন তা খুব ভালো করেই। সেই দলের সঙ্গে এবারের দলের বড় পার্থক্য যেখানে।

গত বিশ্বকাপের আগে দেড় বছরে ৩০টি যুব ওয়ানডে খেলে দক্ষিণ আফ্রিকায় গিয়েছিল বাংলাদেশ দল। প্রস্তুতি ছিল তাই দুর্দান্ত। এবার কোভিডের কারণে প্রক্রিয়া শুরু করতেই সময় লেগে যায় অনেকটা। দল গোছাতে বেগ পেতে হয় যথেষ্ট। অনুশীলন শুরু করার পরও ম্যাচ খেলানোর জন্য বিদেশি প্রতিপক্ষ পাওয়া হয়ে যায় কঠিন।

তবে একই বাস্তবতা ছিল সব দলের জন্যই। প্রস্তুতির ঘাটতি নিয়ে খেলতে গেছে তাই সব দলই। গত কয়েক মাসে বিসিবি তবু ১২টি যুব ওয়ানডে খেলার ব্যবস্থা করতে পেরেছে এই দলের জন্য। গত যুব বিশ্বকাপের পর এবারের বিশ্বকাপের আগ পর্যন্ত বাংলাদেশের চেয়ে বেশি যুব ওয়ানডে খেলেছে কেবল শ্রীলঙ্কা, ১৩টি।

ম্যাচ আগেরবারের চেয়ে কম খেললেও তাই অন্য দলগুলির তুলনায় প্রস্তুতিতে ঠিকই এগিয়ে বাংলাদেশ। ম্যাচ অনুশীলনের পাশাপাশি অনুশীলন ক্যাম্প তো ছিলই।

টুর্নামেন্ট শুরুর আগের দিন তাই প্রস্তুতি নিয়ে সন্তুষ্টির কথাই বললেন অধিনায়ক রকিবুল।

“খুব ভালো প্রস্তুতি নিয়েই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামব। এখানে আসার পর আমরা অনুশীলন করেছি, প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছি। এখানকার উইকেট-কন্ডিশন সম্পর্কে খুব ভালো ধারণা হয়েছে আমাদের। এখন আমাদের পরিকল্পনা ও প্রক্রিয়া অনুযায়ী আমরা যদি শতভাগ দিয়ে খেলতে পারি এবং সেরাটা দিতে পারি, তাহলে ভালো ফল পাব আশা করি।”

‘এ’ গ্রুপে ইংল্যান্ড ছাড়া বাংলাদেশের অন্য দুই প্রতিপক্ষ কানাডা ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। প্রতি গ্রুপ থেকে দুটি করে দল উঠবে কোয়ার্টার-ফাইনালে। রকিবুলদের জন্য গ্রুপ পর্ব উতরানো তাই তেমন কোনো সমস্যাই হওয়ার কথা নয়। বাংলাদেশ অধিনায়ক অবশ্য বেশি দূরে না তাকিয়ে একটি করে ধাপ পেরিয়ে এগিয়ে যেতে চান সামনে।

“আপাতত আমাদের মনোযোগ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে। এটির পর আমরা এক এক করে সামনে তাকাব এবং আশা করি ভালো ফল নিয়ে পরের রাউন্ডে যাব।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক