নিউ জিল্যান্ড সফরে সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি ‘বিশ্বাস’

ব্যর্থতার বৃত্ত কাটানো জয়ের সঙ্গে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ১২ পয়েন্ট। নিউ জিল্যান্ডে প্রথমবারের মতো কোনো সিরিজে হার এড়ানো। মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্টে পেসারদের বোলিং, ক্রাইস্টচার্চে লিটন দাসের সেঞ্চুরি। বছরের প্রথম সিরিজে বাংলাদেশের প্রাপ্তি আছে বেশ কিছু। তবে এসব ছাপিয়ে মুমিনুল হকের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মনে হচ্ছে, দেশের বাইরে জেতার বিশ্বাস।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 11 Jan 2022, 09:17 AM
Updated : 11 Jan 2022, 09:17 AM

দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে তিন দিনেই ইনিংস ব্যবধানে হেরে গেছে বাংলাদেশ। এই ম্যাচে পাত্তা না পেলেও সফরকারীদের অর্জনের মাহাত্ম্য কমছে না। ১-১ ব্যবধানে সিরিজ ড্র করেছে বাংলাদেশ।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে মুমিনুল বলেন, আমরাও পারি এই বিশ্বাস নিয়ে দেশে ফিরছেন তারা।

“আমাদের টেস্ট দল নিয়ে তো কাজের অনেক বাকি আছে। উন্নতির তো অনেক কিছুই বাকি আছে, অনেক কিছু করা যাবে। আপনারা জানেন, আমি খুব কঠিন সময়ে নেতৃত্ব পেয়েছিলাম। তখন তো আমি স্বপ্ন দেখতাম বড় দলের বিপক্ষে ম্যাচ জেতার। মানুষ কোনো কিছু বিশ্বাস করে সেটা করে দেখানোর জন্য। আমাদের বিশ্বাস করার জন্য একটা ফল দরকার ছিল, অন্তত সবাই বিশ্বাস করবে যে, আমরা পারি।”

“আমার মনে হয়, প্রথম টেস্ট জেতা খুবই দরকার ছিল। এখন সবাই বিশ্বাস করতে পারছি, আমাদের সামর্থ্য আছে। বিদেশে গিয়ে টেস্ট ম্যাচ জেতা যায়। এখন একটা টেস্ট জিতলাম, পরে আরেকটা টেস্ট জিতব, এভাবে এক সময় আমরা সিরিজ জিতব। তো ওই বিশ্বাসটা মনে হয়, সবার ভেতরে আনা খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল। প্রথম টেস্ট জেতাতে মনে হয় ওই বিশ্বাসটা সবার ভেতরে এসেছে।”

প্রাপ্তি বেশি প্রথম টেস্টেই। তবে হতাশায় মোড়ানো দ্বিতীয় টেস্টেও কিছু আশার ঝিলিক দেখেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

“ইতিবাচক তো অনেক কিছুই আছে। প্রথম টেস্ট যদি দেখেন, আমি সবসময় সংবাদ সম্মেলনে বলি, আমাদের দলীয় ফল তখনই ভালো হয়, যখন আমরা সম্মিলিতভাবে ভালো খেলি। সেটা ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিং যাই বলেন। আমার মনে হয়, এটা একটা ইতিবাচক ব্যাপার ছিল।”

“দ্বিতীয় টেস্টে প্রথম ইনিংসে আমার মনে হয়, আমরা খুব বাজে ব্যাটিং করেছি। আমরা যতটা আশা করেছিলাম, বোলিংটাও তেমন করতে পারিনি। এরপরও প্রথম ইনিংসে ভালো (ব্যক্তিগত) ইনিংস ছিল। রাব্বির ফিফটি ছিল, সোহান ৪১ এর মতো করেছে। আমার মনে হয়, সিনিয়র খেলোয়াড় হিসেবে, অধিনায়ক হিসেবে আমার আরও ভালো করা উচিত ছিল। দ্বিতীয় ইনিংসে লিটনের সেঞ্চুরি অসাধারণ একটা ইনিংস। সোহানও খুব ভালো করছিল।”

পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে ভরাডুবির পর কে ভাবতে পেরেছিল, বাংলাদেশ সিরিজ ড্র করে ফিরবে। নিজেদের ইতিহাসের সেরা জয়ে সেটাই হয়েছে বাস্তব। ক্রাইস্টচার্চে বাজে হারের পরও তাই মুমিনুল দেখেছেন প্রাপ্তির পাল্লা ভারী।

“এটা আমাদের জন্য অসাধারণ এক অর্জন। দেশের বাইরে আমরা তেমন ভালো করি না। সেদিক থেকে এই জয়টা আমাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমরা এই মোমেন্টাম ধরে রাখতে চাই।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক