২ উইকেটের সঙ্গে একটি সুযোগ হাতছাড়ার আক্ষেপ

প্রথম ইনিংসে ভালো বল করেও উইকেটশূন্য থাকা তাসকিন আহমেদের হাত ধরে এলো প্রথম সাফল্য। গতিময় বোলিংয়ে ইবাদত হোসেন নিলেন আরেকটি। উইকেট পেতে পারতেন মেহেদী হাসান মিরাজও। তবে সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি লিটন দাস। তাই নিউ জিল্যান্ডের দুই উইকেটের সঙ্গে একটি সুযোগ হাতছাড়ার আক্ষেপ নিয়ে চা-বিরতিতে গেছে বাংলাদেশ। 

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 Jan 2022, 03:09 AM
Updated : 4 Jan 2022, 08:16 AM

মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্টের চতুর্থ দিনের দ্বিতীয় সেশন শেষে নিউ জিল্যান্ডের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৬৮ রান। বাংলাদেশকে আবার ব্যাটিংয়ে পাঠাতে এখনও ৬২ রান চাই স্বাগতিকদের।

৯৩ বলে চারটি চারে ৩২ রানে ব্যাট করছেন ওপেনার উইল ইয়াং। বে ওভালে নিজের সবশেষ টেস্ট ইনিংসে ৪ রানে খেলছেন রস টেইলর।

১৩০ রানে পিছিয়ে থেকে মঙ্গলবার দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করা নিউ জিল্যান্ডকে সহজে রান দেননি বাংলাদেশের বোলাররা। নতুন বলে তাসকিন ও শরিফুল ইসলাম অস্বস্তিতে রাখেন ব্যাটসম্যানদের।

অসমান বাউন্সের জন্য ব্যাটসম্যানদের জন্য কাজটা সহজ ছিল না। কখনও নিচু হচ্ছিল, কখনও বাড়তি বাউন্স করছিল। কিউই পেসারদের চেয়ে অনেকটাই বেশি গতিতে বল করছিলেন বাংলাদেশের দুই পেসার।

তাসকিনের গতি ও বাড়তি বাউন্সেই মেলে প্রথম উইকেট। কেন উইলিয়ামসনের এই সিরিজে স্বাগতিকদের নেতৃত্ব দেওয়া টম ল্যাথাম ব্যর্থ এবারও। ছেড়ে দিতে পারতেন এমন বাড়তি লাফানো বল আড়াআড়ি ব্যাটে ডিফেন্স করার চেষ্টায় তিনি টেনে আনেন স্টাম্পে।

ইয়াং ও প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান ডেভন কনওয়ে ছিলেন সাবধানী। রান করার চেয়ে উইকেটে পড়ে থাকার দিকেই ছিল তাদের বেশি মনোযোগ। এক প্রান্তে ব্যাটসম্যানদের বেঁধে রাখেন অফ স্পিনার মিরাজ। আরেক প্রান্তে ইবাদতের স্টাম্প তাক করে করা বোলিং পরীক্ষায় ফেলে ব্যাটসম্যানদের।

প্রথম ইনিংসের মতো লাইন ও লেংথে অধারাবাহিক ছিলেন না ইবাদত। তার বলে হওয়া কয়েকটি বাউন্ডারি একটু এদিক-সেদিক হলে হতে পারতো ক্যাচও। তিনিই কনওয়েকে বিদায় করে ভাঙেন দ্বিতীয় উইকেট জুটির প্রতিরোধ।

গুড লেংথ বল ডিফন্সে করার চেষ্টায় ঠিক মতো পারেননি কনওয়ে। আম্পায়ার এলবিডব্লিউ কিংবা কোচ কোনোটার আবেদনেই সাড়া দেননি। বাংলাদেশ রিভিউ নিলে দেখা যায়, ব্যাট কানা ছুঁয়ে প্যাডে লেগে আসা ক্যাচ সামনের দিকে ঝাঁপিয়ে মুঠোয় জমান সাদমান ইসলাম। ম্যাচে এটি তার পঞ্চম ক্যাচ, প্রথম ইনিংসে নিয়েছিলেন চারটি।

বাংলাদেশের সফল রিভিউ ও সাদমানের দুর্দান্ত ক্যাচের পর তুমুল করতালির মধ্যে ক্রিজে আসেন টেইলর। তাকে বেশ ভোগান ইবাদত।

এর মাঝেই মিরাজের বলে ইয়াংয়ের ব্যাটের বাইরের কানা ছুঁয়ে আসা ক্যাচ গ্লাভসে নিতে পারেননি লিটন। সে সময় ৩১ রানে ছিলেন কিউই ওপেনার।

৮ ওভারে কেবল ৮ রান দিয়েছেন মিরাজ। ৯ ওভারের স্পেলে ২৩ রান দিয়েছেন নিয়মিত ঘণ্টা প্রতি ১৪০ কিলোমিটার গতিতে বোলিং করা ইবাদত। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

নিউ জিল্যান্ড ১ম ইনিংস: ৩২৮

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৪৫৮

নিউ জিল্যান্ড ২য় ইনিংস: (চা-বিরতি পর্যন্ত) ২৯ ওভারে ৬৮/২ (ল্যাথাম ১৪, ইয়াং ৩২*, কনওয়ে ১৩, টেইলর ৪*; তাসকিন ৫-১-১২-১, শরিফুল ৭-০-২১-০, মিরাজ ৮-২-৮-০, ইবাদত ৯-২-২৩-১)

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক