২২২ রানের জয়ে সেমির পথে বাংলাদেশের যুবারা

ইনিংস শুরু করতে নেমে দারুণ এক সেঞ্চুরি উপহার দিলেন মাহফিজুল ইসলাম। সঙ্গে মেহরব হাসানের ঝড়ো ইনিংসে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল পেল বড় পুঁজি। পরে বোলারদের নৈপুণ্যে কুয়েত অনূর্ধ্ব-১৯ দলকে সহজেই হারাল রকিবুল হাসানের দল। টানা দুই জয়ে এক পা দিয়ে রাখল যুব এশিয়া কাপের সেমি-ফাইনালে।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 Dec 2021, 09:40 AM
Updated : 25 Dec 2021, 12:22 PM

শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শনিবার বাংলাদেশের জয় ২২২ রানে। ২৯২ রানের লক্ষ্য তাড়ায় কুয়েতের যুবারা গুটিয়ে যায় ৬৯ রানেই। 

ওপেনার মাহফিজুল ১১৯ বলে খেলেন ১১২ রানের ইনিংস। ১২ চার ও ৪ ছক্কায় গড়া তার ইনিংসটি। ২৪ বলে ৪২ রান করেন মেহরব। বোলিংয়ে ৮ ওভারে স্রেফ ১০ রানে ৩ উইকেট নিয়ে দলের সফলতম বোলার রিপন মন্ডল।

আসরে বাংলাদেশের প্রথম দুই ম‍্যাচেই হলো সেঞ্চুরি। আগের দিন নেপালের বিপক্ষে ১৫৪ রানে জয়ের ম্যাচে তিনে নেমে ১১২ বলে অপরাজিত ১২৭ রানের ইনিংস খেলেছিলেন প্রান্তিক নওরোজ নাবিল।

কুয়েতের বিপক্ষে ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশের শুরুটা ভালো হয়নি। তৃতীয় ওভারে মির্জা আহমেদের বলে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন ইফতেখার হোসেন।

আইচ মোল্লাকে সঙ্গে নিয়ে দলকে এগিয়ে নেন মাহফিজুল। সাবধানী শুরু করা ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান প্রথম ১১ বলে করেন স্রেফ ১ রান। পরে রানের গতিতে দম দেন তিনি। ৮৪ রানের জুটি ভাঙে আইচের বিদায়ে। কট বিহাইন্ড হন তিনি ৩৯ বলে ৩ চারে ২০ রান করে।

বাউন্ডারি মেরে মাহফিজুল ফিফটি পূর্ণ করেন ঠিক ৫০ বলে। আরিফুল ইসলাম বড় করতে পারেননি ইনিংস, বোল্ড হন ২৪ বলে ২৩ রান করে। তাহজিবুল ইসলামের সঙ্গে জুটি বেঁধে সেঞ্চুরিতে পা রাখেন মাহফিজুল। ১০৭ বলে স্পর্শ করেন তিন অঙ্ক।

তিনটি ছক্কায় ঝড় তোলার ইঙ্গিত দেন তাহজিবুল। তবে ইনিংস টেনে নিতে পারেননি তিনি, ১৯ বলে করেন ২৫ রান। তাকে ফেরানোর পর নিজের পরের ওভারে মাহফিজুলকেও থামান মুহাম্মাদ উমর। ক্যাচ দিয়ে থামেন বাংলাদেশের সেঞ্চুরিয়ান।

এরপর মেহরবের আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে বাড়তে থাকে রান। আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান নাবিল এ দিন নামেন সাত নম্বরে। ভালো করতে পারেননি যদিও, এলবিডব্লিউ হন ৫ রান করে।

মেহরবের ঝড় থামান আব্দুল সাদিক। ক্যাচ দিয়ে শেষ হয় ৫ চার ও একটি ছক্কায় তার ২৪ বলে ৪২ রানের ইনিংস। এরপর অধিনায়ক রকিবুল হাসানের ২১ ও মুশফিক হাসানের অপরাজিত ১৩ রানের সৌজন্যে তিনশর কাছাকাছি যায় দলের সংগ্রহ।

সেঞ্চুরিয়ান মাহফিজুল ইসলাম। ছবি: এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল  

রান তাড়ায় শুরু থেকে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় কুয়েত। তাদের হয়ে দুই অঙ্কে যেতে পারেন কেবল দুই জন। অধিনায়ক মিত ভাবসার ইনিংস শুরু শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন সর্বোচ্চ ৪৩ রানে।

পঞ্চম ওভারে জন সালদানহাকে নিজের ফিরতি ক্যাচে বিদায় করে বাংলাদেশকে প্রথম সাফল্য এনে দেন মুশফিক হাসান। পরের ওভারে সাদিক ও উমরকে ফিরিয়ে দেন রিপন।

৭ রানে ৩ ও ৩৪ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে পঞ্চাশের আগেই গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কায় পড়েছিল কুয়েত। ভাবসার ব্যাটে তা এড়াতে পারলেও বড় পরাজয় আটকাতে পারেনি তারা।

রিপনের ৩টি ছাড়া মেহরব ও রকিবুল নেন ২টি করে উইকেট।

আগামী মঙ্গলবার গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হবে বাংলাদেশের যুবারা। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল: ৪৯.২ ওভারে ২৯১ (মাহফিজুল ১১২, ইফতেখার ২, আইচ ২০, আরিফুল ২৩, তাহজিবুল ২৫, মেহরব, ৪২, নাবিল ৫, নাইমুর ১০, রকিবুল ২১, মুশফিক ১৩*, রিপন ৮; মির্জা ৬-১-২৯-১, জিশান ৬-২-২১-০, হাবিয়ের ৩-০-২৯-০, ফারুক ৭-১-৩৩-১, উমর ৭-০-৪৫-২, জহির ৩-০-২০-০, সাদিক ৮.২-০-৪-৩, থমাস ৭-০-৪৮-৩, বাসতাকি ২-০-২৪-১)

কুয়েত অনূর্ধ্ব-১৯ দল: ২৫.৩ ওভারে ৬৯ (ভাবসার ৪৩, সালদানহা ২, সাদিক ১, উমর ০, জহির ২, বাসতাকি ১, ফারুক ০, থমাস ১, মির্জা ১১, জিশান ০, হাবিয়ের ০; মুশফিক ৭-০-১৯-১, রিপন ৮-৩-১০-৩, নাইমুর ৪-১-১৫-১, মেহরব ৫-১-১৪-২, রকিবুল ১.৩-০-১১-২)

ফল: বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল ২২২ রানে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: মাহফিজুল ইসলাম।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক