হৃদয়ের প্রথম সেঞ্চুরির দিনে অমিতের ১৩১

প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারে ৮ ম্যাচ, ফিফটি চারটি। ভালো শুরু পাচ্ছিলেন, কিন্তু বড় করতে পারছিলেন না ইনিংস। এবার তৌহিদ হৃদয় ছুঁতে পারলেন তিন অঙ্কের সীমানা। তার প্রথম সেঞ্চুরির দিনে শতকের দেখা পেলেন অমিত হাসানও।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 21 Dec 2021, 12:55 PM
Updated : 21 Dec 2021, 12:55 PM

নিশ্চিত ড্রয়ের পথে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে (বিসিবি) বিসিবি উত্তরাঞ্চল ও বিসিবি দক্ষিণাঞ্চলের ম‍্যাচ। তিন দিনেও দুই দলের একটি করে ইনিংস শেষ হয়নি।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে মঙ্গলবার তৃতীয় দিনের খেলা শেষে ৩ উইকেটে ৩৫০ রান করেছে দক্ষিণাঞ্চল। প্রথম ইনিংসে ৩৮৫ রান করা উত্তরাঞ্চল থেকে তারা এখনও পিছিয়ে ৩৫ রান।

২ উইকেটে ১১২ রান নিয়ে খেলতে নামা দক্ষিণাঞ্চলের এদিন কেবল একটি উইকেটই ফেলতে পেরেছে উত্তরাঞ্চল। ইস্পাত কঠিন দৃঢ়তায় দারুণ প্রতিরোধ গড়ে দলকে শক্ত অবস্থায় নিয়ে যান অমিত ও হৃদয়। তারা গড়েন ২৫৮ রানে জুটি।

১২ চারে ১৩১ রান করে অমিত ফিরলেও হৃদয় খেলছেন এখনও। তিনি অপরাজিত আছেন ১৫৯ রানে। তার ২৮৬ বলের ইনিংসটি সাজানো ৩ ছক্কা ও ১৩ চারে।

দিনের শুরুতে সাবধানী ছিলেন আগের দিনের অপরাজিত দুই ব্যাটসম্যান অমিত ও হৃদয়। এরপর সময়ের সঙ্গে রান বাড়াতে থাকেন দুইজন। ৩১ রান নিয়ে খেলতে নামা অমিত ফিফটি তুলে নেন ১৩৯ বলে। ৩৯ রান নিয়ে দিন শুরু করা হৃদয়ের পঞ্চাশ আসে ৮৮ বলে।

তাদের জুটির রান একশ পূর্ণ হয় ২১৩ বলে। অমিত প্রথম শ্রেণিতে নিজের চতুর্থ সেঞ্চুরি স্পর্শ করেন ২৯১ বলে। আর হৃদয় বহু আকাঙ্ক্ষিত শতকে পা রাখেন ১৭৬ বলে।

হৃদয়-অমিতের ব্যাটে প্রথম দুই সেশন কাটিয়ে দেয় দক্ষিণাঞ্চল। তৃতীয় সেশনও পার করে দেওয়ার পথে ছিলেন এই দুইজন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত হলো না তা।

দিনের খেলা শেষের ১০ ওভার আগে অমিতকে ফেরান শরিফুল্লাহ। কট বিহাইন্ড হয়ে শেষ হয় অমিতের ৩৭৩ বলের ইনিংস।

২৭৫ বলে দেড়শ ছুঁয়ে খেলছেন হৃদয়। ১৭ রান নিয়ে তার সঙ্গে উইকেটে আছেন জাকির হাসান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

উত্তরাঞ্চল ১ম ইনিংস: ৩৮৫

দক্ষিণাঞ্চল ১ম ইনিংস: (আগের দিন ১১২/২) ১২৯ ওভারে ৩৫০/৩ (অমিত ১৩১, হৃদয় ১৫৯*, জাকির ১৭*; সানজামুল ৪৫-১১-১১-০, শফিকুল ১৭-৩-৫১-১, আরিফুল ৬-০-১৭-০, শরীফুল্লাহ ৪০-৯-১০১-১, নোমান ১৬-২-৫৮-১, নাঈম ৫-২-১১-০)।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক