নতুন বলে তাসকিন-ইবাদত জুটির অপেক্ষায় কোচ

চট্টগ্রামে প্রথম নতুন বলে কোনো ইনিংসেই উইকেট পায়নি বাংলাদেশ। দুবারই পাকিস্তানের উদ্বোধনী জুটি দলকে এনে দেয় ভালো শুরু। বাংলাদেশের অন্তর্বর্তীকালীন ফিল্ডিং কোচ মিজানুর রহমান বাবুলের ধারণা, মিরপুর টেস্টে তাসকিন আহমেদ ফিরলে বাংলাদেশ কাজে লাগাতে পারবে নতুন বল। এই কোচ মুখিয়ে আছেন দুই গতিময় পেসার তাসকিন ও ইবাদত হোসেনের জুটি দেখতে। 

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 Dec 2021, 12:00 PM
Updated : 1 Dec 2021, 12:00 PM

চট্টগ্রাম টেস্টে নতুন বলে বিন্দুমাত্র প্রভাভ ফেলতে পারেনি বাংলাদশ। পাকিস্তানের ৮ উইকেটে জয়ী টেস্টে আবিদ আলি ও আব্দুল্লাহ শফিক গড়েন ১৪৬ ও ১৫১ রানের দুটি উদ্বোধনী জুটি।

পাকিস্তানের পেসারদের চিত্র আবার ছিল উল্টো। ব্যাটিং সহায়ক উইকেটেও আগুন ঝরা বোলিং করেন শাহিন শাহ আফ্রিদি ও হাসান আলি। এমনকি পেস বোলিং অলরাউন্ডার ফাহিম আশরাফও ছিলেন বেশ কার্যকর।

বাংলাদেশের দুই পেসার ইবাদত ও আবু জায়েদ চৌধুরি স্কিল ও কার্যকারিতায় ছিলেন না পাকিস্তানি পেসারদের ধারেকাছে। ইবাদত তবু খারাপ করেননি, আবু জায়েদ ছিলেন পুরোপুরি বিবর্ণ। ব্যাটসম্যানদের একেবারেই ভাবাতে পারেননি তিনি।

হাতের চোটের কারণে তাসকিনকে চট্টগ্রাম টেস্টে পায়নি বাংলাদেশ। তবে মিরপুর টেস্টের স্কোয়াডে আছেন এই ফাস্ট বোলার। পুরো ফিট হয়ে উঠলে তাকে একাদশে দেখা যাবে নিশ্চিতভাবেই। তার সঙ্গে নতুন বলে ইবাদতের জুটি দেখতে উন্মুখ মিজানুর।

“নতুন বলে যদি বলি, ইবাদত ভালো করছে, পাশাপাশি তাসকিন যদি খেলে, তাহলে নতুন বলের জুটিটা খুব ভালো হবে। মিরপুরে টি-টোয়েন্টিতে তাসকিন খুব ভালো বোলিং করেছে, এর আগে বিশ্বকাপেও ভালো করেছে। সে ভালো শেপে আছে। নতুন বলের সুবিধাটা আমরা হয়তো তাসকিনকে দিয়ে নিতে পারি।”

চোট কাটিয়ে তাসকিনের মতো ফিরেছেন সাকিবও। এতে দলের ভারসাম্য যেমন ভালো হবে, তেমনি মাঠে প্রয়োজনের সময় বড় এক ছাতার আশ্রয় মিলবে বলেও মনে করেন সাবেক পেসার মিজানুর।

“সাকিব এসেছে, তাইজুল (ইসলাম) ও (মেহেদী হাসান) মিরাজের ওপর যে দায়িত্বটা থাকে, সেটা সাকিবও ভাগাভাগি করে নিতে পারবে। তাই বোলিং ইউনিট আমাদের খুবই ভালো হবে। একজন অভিজ্ঞ ব্যাটারও আমরা পাব। মুশফিকুর রহিমের পাশাপাশি সাকিবও টিমকে গাইড করতে পারবে। টিমের জন্য খুবই ভালো সংযুক্তি।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক