ক্যারিবিয়ান স্পিনে বিধ্বস্ত লঙ্কান ব্যাটিং

শতরানের উদ্বোধনী জুটি, ২ উইকেট হারিয়ে রান দেড়শ ছাড়িয়ে, সেই দলই কিনা গুটিয়ে গেল দুইশ পেরিয়েই! ওয়েস্ট ইন্ডিজের দুই বাঁহাতি স্পিনার ভিরাসামি পেরমল ও জোমেল ওয়ারিক্যানের দারুণ বোলিং আর কিছু বাজে শটে হুড়মুড় করে ভেঙে পড়ল শ্রীলঙ্কার ব্যাটিং লাইনআপ। ওপেনারদের দৃঢ়তায় ক্যারিবিয়ানরা পেল শক্ত ভিত।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 Nov 2021, 01:18 PM
Updated : 30 Nov 2021, 01:18 PM

গল আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে প্রথম দিনের মতো দ্বিতীয় দিনেও বাগড়া দিয়েছে বৃষ্টি। খেলা হয়েছে দুই সেশনের মতো। তাতে দাপট দেখিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। প্রথম ইনিংসে শ্রীলঙ্কাকে ২০৪ রানে থামিয়ে সফরকারীরা দিন শেষ করেছে ১ উইকেটে ৬৯ রানে। পিছিয়ে আছে কেবল ১৩৫ রানে।  

লঙ্কানরা মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিন শুরু করেছিল ১ উইকেটে ১১৩ রান নিয়ে। অলআউট হয়ে যায় তারা প্রথম সেশনেই। ৬৫ রানের মধ্যে হারায় শেষ ৯ উইকেট। ৬১ রানে দিন শুরু করে ৭৩ রানে থামেন ওপেনার পাথুম নিসানকা।

স্বাগতিকদের ১০ উইকেটই নিয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্পিনাররা। ছয় বছরের বেশি সময় পর টেস্ট খেলতে নেমে ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে ৩৫ রানে ৫ উইকেট নিয়েছেন পেরমল। ৩২ বছর বয়সী স্পিনার সাত টেস্টের ক্যারিয়ারে এই স্বাদ পেলেন প্রথমবার।

ওয়ারিক্যান ৪০ রানে নিয়েছেন ৪ উইকেট। অফ স্পিনে অন্য উইকেটটি নিয়েছেন রোস্টন চেইস।

উইকেট থেকে সহায়তা পেয়েছেন স্পিনাররা। তবে লাইন-লেংথ ধরে রেখে সঠিক জায়গায় বল করে যাওয়াটাও তো জরুরি! সেই কাজটা দারুণভাবে করেছেন পেরমল-ওয়ারিক্যানরা।

দিনের শুরুটা শ্রীলঙ্কার জন্য ছিল আশা জাগানিয়া। দারুণ দুটি বাউন্ডারি মারেন ওশাদা ফার্নান্দো। এরপরই বাজে শটে উইকেট বিলিয়ে আসেন তিনি (১৮)। ওয়ারিক্যানের অফ স্টাম্পের বাইরের বল জায়গায় দাঁড়িয়ে কাট করার চেষ্টায় তিনি ধরা পড়েন কিপারের গ্লাভসে।

নিসানকাকে থামিয়ে শিকার ধরেন পেরমল। দারুণ এক ডেলিভারিতে এলবিডব্লিউ হন ডানহাতি ব্যাটসম্যান। এক বল পরই পেরমল উইকেট পান আরেকটি। আলগা শটে কিপারকে ক্যাচ দেন ধনঞ্জয়া ডি সিলভা।

অভিষিক্ত চারিথ আসালাঙ্কা রানের খাতা খোলেন রিভার্স সুইপে চার মেরে। তবে ইনিংস টেনে নিতে পারেননি। পেরমলের বলে ধরা পড়েন শর্ট লেগ ফিল্ডারের হাতে (১০)। পরের ওভারে ওয়ারিক্যানকে সুইপ করার চেষ্টায় এলবিডব্লিউ হন দিনেশ চান্দিমাল।

ওয়ারিক্যানের বলেই বাজে শটে শর্ট কাভারে ক্যাচ দেন রমেশ মেন্ডিস। দারুণ ডেলিভারিতে লাসিথ এম্বুলদেনিয়াকে বোল্ড করে দেন পেরমল। তখন ১৮৭ রানে নেই ৮ উইকেট।

শুরুতে একবার জীবন পাওয়ার পর অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস মাঝে মাঠ ছাড়েন পেশিতে টান লাগায়। এম্বুলদেনিয়ার বিদায়ের পর আবার ব্যাটিংয়ে নামেন তিনি। ওয়ারিক্যানকে ম্যাথিউসের পরপর দুই ছক্কাতেই দুইশ ছাড়ায় স্কোর।

সুরঙ্গা লাকমলকে ফিরিয়ে পেরমল পূর্ণ করেন পাঁচ উইকেট। ২৯ রান করা ম্যাথিউসকে বোল্ড করে লঙ্কানদের ইনিংস গুটিয়ে দেন ওয়ারিক্যান।

জবাবে লাঞ্চের আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দুই ওপেনার ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট ও জার্মেইন ব্ল্যাকউড কাটিয়ে দেন চার ওভার। পরে দুজনের ব্যাটে দলের স্কোর ছাড়ায় পঞ্চাশ।

৬২ রানের শুরুর জুটি ভাঙে প্রাভিন জয়াবিক্রমার বলে ব্ল্যাকউড এলবিডব্লিউ হলে। ৯৯ বলে ৫টি চারে তিনি করেন ৪৪ রান। এর একটু পরই নামে বৃষ্টি। শেষ সেশনে একটি বলও খেলা হয়নি।

ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক ব্র্যাথওয়েট ৭৭ বলে ২২ রানে অপরাজিত আছেন। ১ রানে খেলছেন এনক্রুমা বনার।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংস: ৬১.৩ ওভারে ২০৪ (আগের দিন ১১৩/১) (নিসানকা ৭৩, ওশাদা ১৮, ম্যাথিউস ২৯, ধনাঞ্জয়া ২, আসালঙ্কা ১০, চান্দিমাল ২, মেন্ডিস ৫, লাকমল ১২, এম্বুলদেনিয়া ১, জয়াবিক্রমা ০*; রোচ ৬-২-১২-০, হোল্ডার ৮-২-২৩-০, মেয়ার্স ২-০-১৩-০, পেরমল ১৩-৩-৩৫-৫, চেইস ১৪-০-৬৪-১, ওয়ারিক্যান ১৮.৩-৫-৬০-৪)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনিংস: ২৯.৪ ওভারে ৬৯/১ (ব্র্যাথওয়েট ২২*, ব্ল্যাকউড ৪৪, বনার ১*; লাকমল ৪-০-১-৪৬-০, এম্বুলদেনিয়া ১৪-৪-৩৫-০, মেন্ডিস ৩-০-৭-০, জয়াবিক্রমা ৮.৪-২-১১-১)।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক