বাংলাদেশের কোচ হিসেবে যেখানে হতাশ ডমিঙ্গো

ভালো পর্যায়ে থাকা একটি দলকে নতুন উচ্চতায় তুলে নেওয়া একরকম চ্যালেঞ্জ। তলানিতে থাকা দলকে টেনে তোলার চেষ্টা করা আরেক চ্যালেঞ্জ। রাসেল ডমিঙ্গো এখন তা অনুভব করতে পারছেন। দক্ষিণ আফ্রিকার কোচের দায়িত্বে বেশ কিছু সাফল্য সঙ্গী হয়েছে তার। বাংলাদেশে এসে তার উপলব্ধি, দলটা জিততেই জানে না!

ক্রীড়া প্রতিবেদকচট্টগ্রাম থেকে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 Nov 2021, 03:41 PM
Updated : 29 Nov 2021, 03:41 PM

বাংলাদেশের কোচের দায়িত্বে দুই বছরের মেয়াদে খুব বেশি সাফল্য পাননি ডমিঙ্গো। রাখতে পারেননি তেমন কোনো ছাপ। তারপরও সম্প্রতি তার সঙ্গে দুই বছরের নতুন চুক্তি করে বিসিবি।

সেই চুক্তির পর বিশ্বকাপে বাংলাদেশ ব্যর্থ হয়েছে চরমভাবে। বিশ্বকাপের পর চলতি পাকিস্তান সিরিজেও নেই আশার আলো। টি-টোয়েন্টি সিরিজে হোয়াইটওয়াশড হতে হয়েছে। টেস্টে প্রথম তিন দিন তুমুল লড়াই হলেও চতুর্থ দিনে ম্যাচ থেকে একরকম ছিটকেই গেছে বাংলাদেশ।

চতুর্থ দিনের খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে ডমিঙ্গো তার গত দুই বছরের দায়িত্বে ফিরে তাকিয়ে বললেন একটি হতাশার কথা।

“আমি সত্যিই উপভোগ করেছি (গত ২ বছরে)। কোনো সংশয় নেই, বিশাল সব চ্যালেঞ্জ ছিল। দক্ষিণ আফ্রিকা দলে ছিলাম আমি, যারা অনেক টেস্ট জিতেছে। এটা খুবই হতাশার, যখন মনে হয় আমরা (বাংলাদেশ) জিততেই জানি না।”

বাংলাদেশের ক্রিকেট সংস্কৃতির একটি জায়গা নিয়েও প্রশ্ন তুললেন ডমিঙ্গো। সেখানে পরামর্শও দিলেন বিসিবিকে।

“টেস্ট সংস্কৃতির উন্নতি প্রয়োজন। আমি সবসময়ই বিশ্বাস করেছি, টেস্ট দল ভালো হলে, সাদা বলের ক্রিকেটেও দল ভালো হবে। বাংলাদেশে সম্ভবত টেস্টের চেয়ে সাদা বলের ক্রিকেটই বেশি গুরুত্বপূর্ণ।”

“দারুণ রোমাঞ্চকর কিছু ক্রিকেটার উঠে আসছে বটে। তবে আন্তর্জাতিক পর্যায়ের মান থেকে তারা অনেক দূরে আছে। ঘরোয়া ক্রিকেটে, ‘এ’ দলে তারা যত খেলবে, জাতীয় দলের জন্যও তত ভালো হবে। এখন ঘরোয়া ক্রিকেট থেকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ের ব্যবধান অনেক বেশি। খেলাটায় প্রভাব রাখতে এবং পায়ের নিচে জমিন খুঁজে পেতে বেশি সময় না নিতে চাইলে এখানে বিসিবির মনোযোগ দেওয়া উচিত।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক