নিভতে বসেছে বাংলাদেশের আশার প্রদীপ

লাঞ্চের পর ব‍্যাটিংয়ে দিক হারানো বাংলাদেশ বোলিংয়েও ভালো করতে পারেনি। ৩৩ ওভারে ভাঙতে পারেনি পাকিস্তানের শুরুর জুটি। অর্ধেকর বেশি কাজ সেরে ফেলেছেন আবিদ আলি ও আব্দুল্লাহ শফিক। দুই ব‍্যাটসম‍্যানই অপরাজিত পঞ্চাশ ছুঁয়ে। পঞ্চম দিনে অভাবনীয় কিছু ছাড়া বাংলাদেশের জয় প্রায় অসাধ‍্য।

অনীক মিশকাতবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 Nov 2021, 04:05 AM
Updated : 29 Nov 2021, 11:02 AM

পাকিস্তান দ্বিতীয় ইনিংস: (লক্ষ‍্য ২০২) ৩৩ ওভারে ১০৯/০

বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস: ৫৬.২ ওভারে ১৫৭

পাকিস্তান প্রথম ইনিংস: ২৮৬

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ৩৩০

পাকিস্তানের চাই ৯৩ রান, বাংলাদেশের ১০ উইকেট

নিজেদের ইতিহাসে স্রেফ দ্বিতীয়বারের মতো দুই ইনিংসেই শতরানের উদ্বোধনী জুটি পেল পাকিস্তান। আবিদ আলি ও আব্দুল্লাহ শফিকের এই কীর্তিতে চট্টগ্রাম টেস্ট জয়ের পথে অনেকটাই এগিয়ে গেছে পাকিস্তান।

২০২ রানের লক্ষ‍্য তাড়ায় বিনা উইকেটে ১০৯ রানে চতুর্থ দিন শেষ করেছে পাকিস্তান। জয়ের জন‍্য শেষ দিনে আর ৯৩ রান চাই তাদের।

১০৫ বলে ৬ চারে ৫৬ রানে খেলছেন আবিদ। ৯৩ বলে ৬ চার ও ১ ছক্কায় শফিকের রান ৫৩।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ৩৩০

পাকিস্তান প্রথম ইনিংস: ২৮৬

বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস: ১৫৭

পাকিস্তান দ্বিতীয় ইনিংস: ৩৩ ওভারে ১০৯/০ (আবিদ ৫৬*, শফিক ৫৩*;  তাইজুল ১৬-৩-৩৭-০, ইবাদত ৫-১-২৩-০, মিরাজ ১০-২-৩৬-০, আবু জায়েদ ২-০-১৩-০)

আবারও ছক্কায় শফিকের ফিফটি

আবিদ আলির পর ফিফটি পেলেন উদ্বোধনী জুটিতে তার সঙ্গী আব্দুল্লাহ শফিকও। অভিষিক্ত এই ওপেনার প্রথম ইনিংসের মতো এবারও পঞ্চাশে গেলেন ছক্কা মেরে।

আগেরবার মেরেছিলেন মুমিনুল হককে। এবার মেহেদী হাসান মিরাজকে ওড়িয়ে ৮৮ বলে স্পর্শ করলেন ফিফটি। এক ছক্কার পাশে তার ইনিংসে চার ছয়টি।

সেঞ্চুরির পর আবিদের ফিফটি

আগের ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান আবিদ আলি এবারও দাঁড়িয়ে গেছেন। আব্দুল্লাহ শফিকের সঙ্গে চমৎকার জুটিতে দলেক ভালো শুরু এনে দেওয়া এই ব‍্যাটসম‍্যান করেছেন ফিফটি।

৯২ বলে পঞ্চাশ ছোঁয়ার পথে তিনি মেরেছেন ছয়টি চার।

বাংলাদেশের ব‍্যর্থ রিভিউ

পাকিস্তানের শুরুর জুটি ভাঙার চেষ্টায় রিভিউ নিয়ে ব‍্যর্থ হয়েছে বাংলাদেশ। ২৬ ওভারের মধ‍্যে স্বাগতিকরা হারিয়েছে দুটি রিভিউ।

মিডল স্টাম্পে পড়ে তাইজুল ইসলামের ভেতরে ঢোকা বল ব‍্যাটে খেলতে পারেননি আব্দুল্লাহ শফিক। আম্পায়ার জোরালো আবেদনে সাড়া না দিলে রিভিউ নেন মুমিনুল হক। বল ট্র‍্যাকিংয়ে দেখা যায়, বল যেত লগ স্টাম্পের বেশ বাইরে দিয়ে। এর আগে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে আবিদ আলির বিপক্ষে কট বিহাইন্ডের রিভিউ নিয়ে ব‍্যর্থ হয় বাংলাদেশ।

শুরুর জুটিতে পাকিস্তানের পঞ্চাশ

প্রথম ইনিংসের মতো এবারও পাকিস্তানকে ভালো শুরু এনে দিয়েছেন দুই ওপেনার আবিদ আলি ও আব্দুল্লাহ শফিক।

সাবধানী ব‍্যাটিংয়ে এগোচ্ছেন শফিক। সাবলীল ব‍্যাটিং করছেন প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান আবিদ। তাদের জুটি পঞ্চাশ ছুঁয়েছে ১০৪ বলে।

বাংলাদেশের হতাশার সেশন

ব‍্যাটিং ও বোলিংয়ে হতাশার এক সেশন কাটলো বাংলাদেশের। আরও বড় লক্ষ‍্য দেওয়ার সম্ভাবনা জাগিয়েও স্রেফ চার রানে শেষ চার উইকেট হারিয়ে থমকে গেল ১৫৭ রানে।

পরে বোলিংও খুব একটা ভালো হলো না। লাইন, লেংথে ধারাবাহিক থাকতে পারলেন না তাইজুল ইসলাম, ইবাদত হোসেন ও মেহদী হাসান মিরাজ।

২০২ রানের লক্ষ‍্য তাড়ায় ১২ ওভারে ৩৮ রান যোগ করেছেন দুই ওপেনার আবিদ আলি ও আব্দুল্লাহ শফিক।

৩৬ বলে ২০ রানে খেলছেন আবিদ। ৩৬ বলে শফিকের রান ১৮। জয়ের জন‍্য শেষ চার সেশনে ১৬৪ রান চাই পাকিস্তানের।

১৫৭ রানে শেষ বাংলাদেশ

নুরুল হাসান সোহানের বিদায়ের পর মাত্র ৪ রান যোগ করতে পারল বাংলাদেশ।

লিটন দাস ও আবু জায়েদ চৌধুরির মতো তাইজুল ইসলাম ফিরলেন ১৫৭ রানে। সাজিদ খানের বল বেরিয়ে এসে খেলার চেষ্টায় স্টাম্পিং হন বাঁহাতি এই ব‍্যাটসম‍্যান। তিনি অফ স্পিনার সাজিদের তৃতীয় শিকার।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ৩৩০

পাকিস্তান প্রথম ইনিংস: ২৮৬

বাংলাদেশ ২য় ইনিংস: (আগের দিন ৩৯/৪) ৫৬.২ ওভারে ১৫৭ ( মুশফিক ১৬, ইয়াসির আহত অবসর ৩৬, লিটন ৫৯, মিরাজ ১১, সোহান ১৫, তাইজুল ০, আবু জায়েদ ০, ইবাদত*; আফ্রিদি ১৫-৮-৩২-৫, হাসান ১১-০-৫২-২, ফাহিম ৮-৩-১৬-০, নুমান ৯-৩-২৩-০, সাজিদ ১৩.২-১-৩৩-৩)

লিটন-আবু জায়েদকে ফিরিয়ে আফ্রিদির পাঁচ

নুরুল হাসান সোহানের বিদায়ের পর বেশিক্ষণ টিকলেন না লিটন দাস। শাহিন শাহ আফ্রিদির চমৎকার ডেলিভারিতে ফিরে গেলেন এলবিডিব্লিউ হয়ে। দুই বল পর আবু জায়েদ চৌধুরিকে ফিরিয়ে নিজের পঞ্চম উইকেট নিলেন আফ্রিদি।

ওভারের শুরু থেকে রাউন্ড দা উইেকেটে বোলিং করা বাঁহাতি এই পেসারের ভেতরে ঢোকা বল লিটনের ব‍্যাটের কানা এড়িয়ে ছোবল দেয় প‍্যাডে। রিভিউ নিয়েছিলেন ব‍্যাটসম‍্যান কিন্তু কাজ হয়নি।

৮৯ বলে ৬ চারে ৫৯ রান করেন লিটন।

আফ্রিদির শর্ট বল আবু জায়েদের গ্লাভস ছুঁয়ে জমা পড়ে মোহাম্মদ রিজওয়ানের গ্লাভসে। সঙ্গে ক‍্যারিয়ারে চতুর্থবারের মতো ইনিংসে পাঁচ উইকেট পেলেন তিনি।

তৃতীয় রিভিউও হারাল পাকিস্তান

উইকেটের জন‍্য যেন মরিয়া পাকিস্তান। সেই চেষ্টাতেই তাইজুল ইসলামের প‍্যাডে বল লাগতেই রিভিউ নিল সফরকারীরা। আবারও ব‍্যর্থ হলো তারা, হারাল তৃতীয় ও শেষ রিভিউ।

শাহিন শাহ আফ্রিদির অ‍্যাঙ্গেলে ভেতরে ঢোকা বল ব‍্যাটে খেলতে পারেননি তাইজুল। বল ট‍্র‍্যাকিংয়ে দেখা গেছে বল যেত লেগ স্টাম্পের বেশ বাইরে দিয়ে।

ছক্কার চেষ্টায় আউট সোহান

কোনো দরকার ছিল না এমন কোনো শটের। লিড প্রায় দুইশ রানের। লিটনের সঙ্গে জমে গেছে জুটি। নুরুল হাসান সোহানের দরকার ছিল স্রেফ সতীর্থকে সঙ্গ দিয়ে যাওয়া। সেটি না করে ছক্কার চেষ্টায় ফিরলেন তিনি।

সাজিদ খানের সাদামাটা এক ডেলিভারিতে লং অনে ধরা পড়েন সোহান। ইয়াসির আলি চৌধুরির কনকাশন সাব হিসেবে নামা ডানহাতি এই ব‍্যাটসম‍্যান ৩৩ বলে তিন চারে করেন ১৫ রান।

তার বিদায়ে ভাঙল ৬১ বল স্থায়ী ৩৮ রানের সম্ভাবনাময় জুটি।

ক্রিজে লিটনের সঙ্গী তাইজুল ইসলাম।

ইয়াসির-লিটনের ব‍্যাটে বাংলাদেশের সেশন

অনেকটা দ্বিতীয় দিনের মতোই শুরু হয়েছিল। শুরুতেই সেবার উইকেট হারানো বাংলাদেশ এক সেশনেই গুটিয়ে গিয়েছিল। এবার তেমন কিছু হতে দেননি ইয়াসির আলি চৌধুরি ও লিটন দাস। তাদের দৃঢ়তায় প্রথম সেশন কাটিয়ে দিয়ে দুইশ রানের লিডের দিকে ছুটছে বাংলাদেশ।

মধ‍্যাহ্ন-বিরতিতে যাওয়ার সময় বাংলাদেশের স্কোর ৬ উইকেটে ১১৫। প্রথম ইনিংসে ৪৪ রানে এগিয়ে থাকা স্বাগতিকদের লিড ১৫৯ রান। দুই উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ এই সেশনে যোগ করেছে ৭৬ রান।

তিন চারে ৬২ বলে ৩২ রানে ব‍্যাট করছেন লিটন। একবার স্টাম্পিংয়ের হাত থেক বেঁচে যাওয়া এই কিপার-ব‍্যাটসম‍্যান আরেকবার বাঁচেন রিভিউ নিয়ে।

হেলমেটে বল লাগায় মাঠ ছাড়েন সাবলীল ব‍্যাটিং করা ইয়াসির আলি। স্ক‍্যানের জন‍্য তাকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে হাসপাতালে। তার কনকাশন সাব নুরুল হাসান সোহান ৯ বলে খেলছেন শূন‍্য রানে। লাঞ্চের এক বল আগে তাকে ফেরাতে রিভিউ নিয়ে ব‍্যর্থ হয় পাকিস্তান। তাদের আর একটি রিভিউ বাকি।

দিনের প্রথম ওভারে মুশফিককে হারানো বাংলাদেশ আরেকটা ধাক্কা খায় প্রথম ঘণ্টার শেষ দিকে। শাহিন শাহ আফ্রিদির বল লাগে ইয়াসিরের হেলমেটে। এক ওভার খেলে পানি পানের বিরতির সময় মাঠ ছাড়েন তিনি। লিটনের সঙ্গে জুটি গড়ার চেষ্টায় সফল হননি মেহেদী হাসান মিরাজ।

এলবিডব্লিউ হয়ে ফিরলেন মিরাজ

ইয়াসির আলি মাঠ ছাড়ার পর রানের গতি কমলেও লিটন দাসের সঙ্গে একটি জুটি গড়ার আভাস দিয়েছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। প্রথম ইনিংসে দারুণ দৃঢ়তা দেখানো এই অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার এবার টিকলেন না বেশিক্ষণ। ফিরে গেলেন এলবিডব্লিউ হয়ে।

অফ স্পিনার সাজিদ খান একটু ভোগাচ্ছিলেন ব‍্যাটসম‍্যানদের। তার হাত ধরেই এসেছে উইকেট। তীক্ষ্ণ বাঁক নিয়ে ভেতরে ঢোকা বল পিছিয়ে গিয়ে খেলার চেষ্টা করেন মিরাজ। ব‍্যাটে খেলতে পারেননি। আম্পায়ার আউট দিলে রিভিউ নেন তিনি। তার সঙ্গে রিভিউও হারায় বাংলাদেশ।

ভাঙ্গে ৬৯ বল স্থায়ী ২৫ রানের জুটি। ৪৪ বলে ১ চারে ১১ রান করেন মিরাজ।

ক্রিজে লিটনের সঙ্গী কিপার-ব‍্যাটসম‍্যান নুরুল হাসান সোহান। ইয়াসিরের কনকাশন সাব হওয়ায় এই ম‍্যাচে তিনি খেলছেন বিশেষজ্ঞ ব‍্যাটসম‍্যান হিসেবে। এই ম‍্যাচে কিপিং করতে পারবেন না তিনি।

ইয়াসিরের কনকাশন সাব সোহান

দুর্ভাগ‍্যজনকভাবে শেষ হলো ইয়াসির আলি চৌধুরির চমৎকার ইনিংস। অভিষক টেস্টে দ্বিতীয় ইনিংসে ফিফটির পথে ছিলেন তিনি। শাহিন শাহ আফ্রিদির বল হেলমেটে লাগার পর আরও এক ওভার খেলেন। এরপর আর চালিয়ে যেতে পারেননি। পানি পানের বিরতির সময় ছাড়েন মাঠ।

স্ক‍্যানের জন‍্য তাকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে হাসপাতালে। এই মিডল অর্ডার ব‍্যাটসম‍্যানের জায়গায় কনকাশন সাব হিসেবে কিপার-ব‍্যাটসম‍্যান নুরুল হাসান সোহানকে নিয়েছে বাংলাদেশ।

সোহান তার তিন টেস্টের সবশেষটি খেলেছন ২০১৮ সালে। একমাত্র ফিফটিতে করেন ৬৪ রান।

ইয়াসির ৬ চারে ৭২ বলে করেন ৩৬ রান।

রিভিউ নিয়ে বাঁচলেন লিটন

সাজিদ খানের বল ঠিক মতো খেলতে পারেননি লিটন দাস। প‍্যাডে লেগে আসা বল ঝাঁপিয়ে মুঠোয় জমান শর্ট লেগের ফিল্ডার। আম্পায়ার আউট দিলে রিভিউ নেন বাংলাদেশের কিপার-ব‍্যাটসম‍্যান।

আল্ট্রা এজে দেখা গেছে লিটনের ব‍্যাট স্পর্শ করেনি বল। আর বল ট্র‍্যাকিংয়ে দেখা গেছে বল যেত লেগ স্টাম্পের বাইরে দিয়ে। বেঁচে যান লিটন। সে সময় ২৬ রানে ছিলেন তিনি।

বাংলাদেশের একশ

২৫ রানে নেই চার উইকেট। পঞ্চাশের আগেই ফিরলেন মুশফিকুর রহিম। সাবলীল ব‍্যাটিং করা ইয়াসির আলি চৌধুরিও ফিরে গেলেন হেলমেট বল লাগার পর। এর মধ‍্যই  ৩৫তম ওভারে লিটন দাস ও মেহেদী হাসান মিরাজ দলকে নিয়ে গেলেন একশ রানে। লিডও পৌঁছে গেল দেড়শ রানের কাছে।

মাঠ ছাড়লেন ইয়াসির

পানি পানের বিরতির এক ওভার আগে শাহিন শাহ আফ্রিদির বল লাগে ইয়াসির আলির হেলমেট। তিনি যতটা ভেবেছিলেন অতোটা ওঠেনি বাঁহাতি পেসার আফ্রিদির বাউন্সার। শেষ সময়ে চোখ সরিয়ে নেওয়ায় বলের লাইন থেক সরেও যেতে পারেননি ইয়াসির।

ফিজিও আসার পর তার সঙ্গে কথা বলে খেলা চালিয়ে যান এই মিডল অর্ডার ব‍্যাটসম‍্যান। পানি পানের বিরতির সময় ফিজিওর সঙ্গে মাঠ ছাড়েন তিনি।

লিটন দাসের সঙ্গে ক্রিজে আছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

মুশফিককেও হারিয়েও প্রথম ঘণ্টা বাংলাদেশের

দিনের তৃতীয় বলেই বোল্ড মুশফিকুর রহিম। অমন বড় ধাক্কার কোনো প্রভাব পড়তে দেননি ইয়াসির আলি চৌধুরি ও লিটন দাস। তাদের দৃঢ়তায় প্রথম ঘণ্টায় ৫১ রান যোগ করেছে বাংলাদেশ।

পানি পানের বিরতির সময় বাংলাদেশের স্কোর ৩১ ওভারে ৫ উইকেটে ৯০। অভিষিক্ত ইয়াসির ৬ চারে ৭২ বলে খেলছেন ৩৬ রানে। ৩১ বলে দুই চারে লিটনের রান ১৮।

ভালোভাবেই পাকিস্তানের বোলারদের সামাল দিচ্ছেন এই দুই ব‍্যাটসম‍্যান। বাজে বল পেলেই মারছেন বাউন্ডারি। তাদের জুটিতে রান আসছে ওভার প্রতি চার করে।

রিজওয়ানের ব‍্যর্থতায় বাঁচলেন লিটন

আগের বলে একটুর জন‍্য ক‍্যাচ যায়নি শর্ট লেগের ফিল্ডারের হাতে। পরের বলে বেরিয়ে এসে নুমান আলির উপর চড়াও হতে চাইলেন লিটন দাস। ব‍্যাটে-বলে করতে পারলেন না। তার ভাগ‍্য ভালো, কিপার মোহাম্মদ রিজওয়ান গ্লাভসে জমাতে পারেননি বল। নষ্ট হয় স্টাম্পিংয়ের সুযোগ। সে সময় ৮ রানে ছিলেন লিটন।

এর আগের ওভারেই হাসান আলির বলে বোল্ড হতে হতে বেঁচে যান ইয়াসির আলি চৌধুরি। বল তার ব‍্যাটের কানায় লেগে লেগ স্টাম্প ঘেঁষে চলে যায় বাউন্ডারিতে।

এই শট বাদ দিলে বেশ আস্থার সঙ্গে খেলছেন ইয়াসির। সোজা ব‍্যাটে খেলছেন। বাজে বল পেলেই মারছেন বাউন্ডারি। দ্রুত রান তোলার দিকে মনোযোগী লিটন।

বল ছেড়ে দিয়ে বোল্ড মুশফিক

দিনের প্রথম ওভারেই উইকেট হারাল বাংলাদেশ। প্রথম বলে চার মেরে দারুণ শুরু করেছিলেন মুশফিকুর রহিম। তবে তিনি ফিরে গেলেন এক বল পরেই।

হাসান আলির বল ছিল অফ স্টাম্পের বাইরে। বলে চোখ রেখে শট না খেলে ছেড়ে দেন মুশফিকর। তার প্রত‍্যাশার চেয়ে বেশি সুইং করে ছোবল দেয় অফ স্টাম্পে!  অতো কাছের বল ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত ঠিক ছিল কি না সেই প্রশ্ন থাকছেই।

৩৩ বলে দুই চারে ১৬ রান করেন মুশফিক। ৪৩ রানে ৫ উইকেট হারাল বাংলাদেশ।

ক্রিজে ইয়াসির আলি চৌধুরির সঙ্গী প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান লিটন দাস।

সারাদিন ব‍্যাট করার লক্ষ‍্যে নেমেছে বাংলাদেশ

বোলিংয়ে ভালো করার স্বস্তি হারিয়ে যেতে বসেছে দ্বিতীয় ইনিংসে শুরুর ব‍্যাটিং ব‍্যর্থতায়। আগের দিন শেষ বেলায় প্রতিরোধ গড়া মুশফিকুর রহিম ও ইয়াসির আলি চৌধুরির সামনে অপেক্ষা করছে কঠিন চ‍্যালেঞ্জ। চট্টগ্রাম টেস্টে আগের তিন দিনের যা চিত্র তাতে দিনের প্রথম সেশনেই বোলারদের জন‍্য সহায়তা সবচেয়ে বেশি থাকে। এই সময়টা যেভাবেই হোক কাটিয়ে দিতে হবে বাংলাদেশ।

দ্বিতীয় দিন সকাল ৪ উইকেট নিয়ে শুরু করেছিল। সেদিন প্রথম সেশনেই গুটিয়ে যায় তারা। যোগ করতে পারে কেবল ৭৭ রান।  তৃতীয় দিনের খেলা শেষ তাইজুল ইসলাম জানান, তিনি আশাবাদী ব‍্যাটিংয়ে পুরো দিন কাটিয়ে দিতে পারবেন তারা।

১৯ ওভারে ৪ উইকেটে ৩৯ রানে দিন শেষ করেছে বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসে ৪৪ রানের লিড নেওয়া স্বাগতিকরা এগিয়ে ৮৩ রানে। ৩০ বলে ১২ রানে খেলছেন মুশফিক। ইয়াসিরের রান ৩৪ বলে ৮। দুই জনেই মেরেছন একটি করে চার।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (তৃতীয় দিন শেষে):

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ৩৩০

পাকিস্তান প্রথম ইনিংস: ২৮৬

বাংলাদেশ ২য় ইনিংস: ১৯ ওভারে ৩৯/৪ (সাদমান ১, সাইফ ১৮, শান্ত ০, মুমিনুল ০, মুশফিক ১২*, ইয়াসির ৮*; আফ্রিদি ৬-৪-৬-৩, হাসান ৫-০-১৯-১, ফাহিম ৩-১-৬-০, নুমান ৪-১-৭-০, সাজিদ ১-০-১-০)

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক