যুব বিশ্বকাপে খেলবে না নিউ জিল্যান্ড

দেশে ফিরে অপ্রাপ্তবয়স্ক ক্রিকেটারদের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে বলে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছে নিউ জিল্যান্ড। তাদের জায়গায় সুযোগ পেয়েছে স্কটল্যান্ড।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 Nov 2021, 10:57 AM
Updated : 18 Nov 2021, 11:26 AM

যুবা ক্রিকেটারদের মানসিক স্বাস্থ্যের কথা বিবেচনা করে এমন ‘কঠিন’ সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা জানায় নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেট। এবারই প্রথম যুব বিশ্বকাপে দেখা যাবে না নিউ জিল্যান্ডকে।

অন্য দেশ থেকে নিউ জিল্যান্ডে ফেরা ব্যক্তিদের ১৪ দিন বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হতো। গত ১৪ নভেম্বর থেকে যদিও তা কমিয়ে ৭ দিন করা হয়। নবম দিনে কোডিভ টেস্টের নেগেটিভ ফল না আসা পর্যন্ত সেলফ-আইসোলেশনে থাকতে হবে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজে হতে যাওয়া আসর থেকে নিজেদের সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত হতাশাজনক হলেও সঠিক বলে মনে করছেন নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেটের ‘হেড অব কমিউনিকেশন’ রিচার্ড বুক।

“অনূর্ধ্ব-১৯ দলের এই ছেলেদের কেউ কেউ ১৬ বছরের কম বয়সী হতে পারে। এই ছেলেদের আইসোলেশনে ও কোয়ারেন্টিনে থাকতে বাধ্য করাকে আমরা উপযুক্ত মনে করিনি।”

যুব বিশ্বকাপের চতুর্দশ আসরের জন্য বুধবার রাতে গ্রুপিং ও সূচি ঘোষণা করেছে আইসিসি। ৫০ ওভারের এই প্রতিযোগিতা আগামী ১৪ জানুয়ারি থেকে চলবে ৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। চার গ্রুপে ভাগ হয়ে খেলবে ১৬ দল।

তুলনামূলক সহজ গ্রুপে পড়েছে গতবারের চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ। ‘এ’ গ্রুপে তাদের সঙ্গী ইংল্যান্ড, কানাডা ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। ‘বি’ গ্রুপে আছে ভারত, আয়ারল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা ও উগান্ডা। ‘সি’ গ্রুপে পড়েছে পাকিস্তান, আফগানিস্তান পাপুনা নিউ গিনি ও জিম্বাবুয়ে। আর ‘ডি’ গ্রুপে স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে আছে অস্ট্রেলিয়া, শ্রীলঙ্কা ও স্কটল্যান্ড।

অ্যান্টিগা অ্যান্ড বার্বুডা, গায়ানা, সেন্ট কিটস ও ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগোর ১০টি ভেন্যুতে হবে খেলা। টুর্নামেন্টে ম্যাচ হবে মোট ৪৮টি। ১৪ জানুয়ারি উদ্বোধনী দিনে মুখোমুখি হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও অস্ট্রেলিয়া এবং শ্রীলঙ্কা ও স্কটল্যান্ড।

গ্রুপ পর্বের ম্যাচগুলো হবে টেস্ট ভেন্যু কুইন্স পার্ক ওভাল ও ওয়ার্নার পার্কে। মূল নকআউট পর্ব হবে অ্যান্টিগা অ্যান্ড বার্বুডায়। স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস স্টেডিয়ামে প্রথম সেমি-ফাইনাল হবে ১ ফেব্রুয়ারি। পরদিন কুলিজ ক্রিকেট গ্রাউন্ডে হবে শেষ চারের অপর ম্যাচ। ভিভিয়ান রিচার্ডস স্টেডিয়ামে ফাইনাল ৫ ফেব্রুয়ারি। ৯ থেকে ১২ জানুয়ারি হবে ১৬টি ওয়ার্ম-আপ ম্যাচ।

আগের আসরগুলোর মতো প্রতি গ্রুপের শীর্ষ দুই দল সুপার লিগ নকআউট পর্বে উঠবে। এরপর হবে সেমি-ফাইনাল। সুপার লিগে উঠতে না পারা প্রতি গ্রুপের বাকি দুই দল খেলবে প্লেট চ্যাম্পিয়নশিপে।

১৬ দলের ১০টি সরাসরি বিশ্বকাপে জায়গা পেয়েছে। প্রাথমিকভাবে বাদ পড়া স্কটল্যান্ড সুযোগ পেয়েছে নিউ জিল্যান্ডের জায়গায়। বাকি পাঁচ দল এসেছে আঞ্চলিক বাছাইপর্ব পেরিয়ে।

আগামী ১৬ জানুয়ারি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শিরোপা ধরে রাখার অভিযান শুরু করবে বাংলাদেশ। ২০ জানুয়ারি কানাডা ও ২২ জানুয়ারি আরব আমিরাতের মুখোমুখি হবে তারা।

এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ চারবার যুব বিশ্বকাপ জিতেছে ভারত। অস্ট্রেলিয়া তিনবার, পাকিস্তান দুইবার, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা ও বাংলাদেশ জিতেছে একবার করে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক