ইংল্যান্ডের অ্যাশেজ দলে নেই স্টোকস, আছেন বাটলার

শঙ্কা জেগেছিল সফর বাতিল বা মূল ক্রিকেটারদের না পাওয়ার। তবে সংশয়ের মেঘ কাটিয়ে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় অ্যাশেজের জন্য প্রায় পূর্ণ শক্তির দলই পাচ্ছে ইংল্যান্ড। ক্রিকেট থেকে অনির্দিষ্টকালের বিরতিতে যাওয়া অলরাউন্ডার বেন স্টোকস অবশ্য ফিরছেন না এই সিরিজেও।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 Oct 2021, 01:14 PM
Updated : 10 Oct 2021, 01:14 PM

অ্যাশেজ পুনরুদ্ধারের লড়াইয়ে রোববার ১৭ সদস্যের দল ঘোষণা করে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)।

স্টোকসের না থাকা অবশ্য অনেকটা অনুমিতই ছিল। মানসিক স্বাস্থ্যের দিকে নজর দিতে গত জুলাই থেকে ক্রিকেটের বাইরে তিনি। সম্প্রতি তার আঙুলে দ্বিতীয় দফায় অস্ত্রোপচারও হয়।

দলে থাকার মতো আরও দুজন অস্ট্রেলিয়ায় যেতে পারছেন না চোটের কারণে। কনুইয়ের সমস্যায় ফাস্ট বোলার জফ্রা আর্চার ছিটকে গিয়েছেন বেশ আগেই। আইপিএলে পাওয়া স্ট্রেস ফ্র্যাকচারের কারণে বিবেচিত হননি পেস বোলিং অলরাউন্ডার স্যাম কারানও।

ইংল্যান্ডের দল ঘোষণায় অ্যাশেজ নিয়ে অনিশ্চয়তা কেটে গেল আরও। সাম্প্রতিক সময়ে গুঞ্জন ছিল, টানা জৈব সুরক্ষা বলয়ে থাকার ধকল ও অস্ট্রেলিয়ার কঠোর কোয়েরেন্টিন বাধ্যবাধকতার জন্য সফর থেকে সরে দাঁড়াতে পারেন মূল দলের অনেকে। খেলা নিয়ে নিশ্চিত ছিলেন না এমনকি অধিনায়ক জো রুটও।

সবচেয়ে বেশি শঙ্কা ছিল জস বাটলারকে নিয়ে। কঠোর কোয়ারেন্টিনে সফর না করার কথা প্রকাশ্যেই কয়েক দফায় বলেছেন তিনি। তবে শেষ পর্যন্ত বাটলার কিংবা অন্য কেউ সরে দাঁড়াননি সুরক্ষা-বলয়ের কারণে।

গত শুক্রবার ইসিবি জানায়, সাম্প্রতিক সময়ে ইতিবাচক আলোচনার ভিত্তিতে তারা নির্ধারিত সময়েই অস্ট্রেলিয়া সফরের জন্য সম্মত। তবে সেখানে উল্লেখ ছিল, বেশ কিছু শর্ত মেনেই দেশটিতে যাবেন তারা।

ইংল্যান্ডের প্রধান কোচ এবং নির্বাচক ক্রিস সিলভারউড উচ্ছ্বসিত তারকা খেলোয়াড়দের সবাইকে দলে পেয়ে। দুই দলের মধ্যে একটি রোমাঞ্চকর সিরিজের প্রত্যাশা করছেন তিনি।

"ইংল্যান্ডের টেস্ট ক্রিকেটার হিসেবে অস্ট্রেলিয়া সফর হল চূড়ান্ত ধাপ। আমি আনন্দিত যে আমাদের সম্ভাব্য সেরা খেলোয়াড়দের সবাই এই সফরের জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।”

"আমাদের স্কোয়াডের অর্ধেকেরও বেশি সদস্য এর আগে অ্যাশেজ সফরে অংশ নেয়নি, যার মানে আমরা সতেজ থাকব এবং ক্রিকেট ও বিশ্বের অন্যতম সেরা জায়গা ভ্রমণের রোমাঞ্চকে সাদরে গ্রহণ করতে চাই।”

টপ অর্ডারে জায়গা ধরে রেখেছেন ভারত সিরিজের দলে থাকা ররি বার্নস, হাসিব হামিদ ও জ্যাক ক্রলি। ব্যাটিং লাইন আপে সঙ্গে থাকছেন অধিনায়ক জো রুট ও ভারত সিরিজ দিয়েই দলে ফেরা বাঁহাতি ব্যাটসম্যান দাভিদ মালান। মিডল অর্ডারের দায়িত্ব সামলাবেন অলি পোপ, ড্যান লরেন্স, জনি বেয়ারস্টো ও বাটলার।

সম্প্রতি টেস্ট ক্রিকেট থেকে মইন আলি অবসর নেওয়ায় দুই স্পেশালিস্ট স্পিনার হিসেবে দলে ডাক পেয়েছেন জ্যাক লিচ ও ডমিনিক বেস।

দলে আছেন দুই অভিজ্ঞ পেসার জেমস অ্যান্ডারসন ও স্টুয়ার্ট ব্রড। সম্মিলিতভাবে দুজন মিলে টেস্টে উইকেট নিয়েছেন এক হাজার ১৫৬ টি। পেসারদের মধ্যে এই সংস্করণে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি অ্যান্ডারসনের জন্য এটি হতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে পঞ্চম অ্যাশেজ, তার পেস জুটির সঙ্গী ব্রডের জন্য চতুর্থ।

ব্রড সম্প্রতি জানান, ডান পায়ের পেশির চোট থেকে তার ‘দারুণ অগ্রগতি’ হচ্ছে এবং আগামী সপ্তাহে বোলিংয়ে ফিরবেন।

পেস বোলিংয়ে তাদের সঙ্গে থাকছেন ক্রিস ওকস, মার্ক উড, ক্রেইগ ওভারটন ও অলি রবিনসন। ঠাঁই হয়নি চোট কাটিয়ে ফেরার লড়াইয়ে থাকা অলি স্টোনের।

ইংল্যান্ডের দেওয়া শর্তগুলো পূরণ হলে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে না থাকা ক্রিকেটাররা আগামী ৪ নভেম্বর দেশ ছাড়বেন। গোল্ড কোস্টে কোয়ারেন্টিনে থেকে তারা অনুশীলন করতে পারবেন বলে আশা করা হচ্ছে। বিশ্বকাপ দলের সদস্যরা দলে যোগ দেবেন আসর শেষে।

ইংলিশ ক্রিকেটাদের মূল আপত্তির জায়গা ছিল তাদের পরিবারের সদস্যদের কঠোর কোয়ারেন্টিনে ঠেলে দেওয়া নিয়ে। তবে ভিক্টোরিয়ায় তাদের জন্যও শিথিল কোয়ারেন্টিনের সুযোগ থাকবে বলে আশা করা হচ্ছে।

এবারের অ্যাশেজ শুরু আগামী ৮ ডিসেম্বর, ব্রিজবেন টেস্ট দিয়ে।

ইংল্যান্ড  দল: জো রুট (অধিনায়ক), ররি বার্নস, হাসিব হামিদ, জ্যাক ক্রলি, দাভিদ মালান, অলি পোপ, ড্যান লরেন্স, জনি বেয়ারস্টো, জস বাটলার, জেমস অ্যান্ডারসন, স্টুয়ার্ট ব্রড, জ্যাক লিচ, ডমিনিক বেস,  ক্রিস ওকস, মার্ক উড, ক্রেইগ ওভারটন, অলি রবিনসন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক