শেষ ওভারে হারল বাংলাদেশের যুবারা

শেষ ম্যাচেও ভালো কিছু করতে পারলেন না বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ব্যাটসম্যানরা। মিলিত চেষ্টায় কোনো মতে ইনিংস পার হলো দেড়শ। স্বল্প পুঁজি নিয়েও দারুণ লড়াই করলেন বোলাররা। তবে শেষরক্ষা করতে পারলেন না। স্নায়ু চাপ ধরে রেখে শেষ ওভারে জয়ের বন্দরে পৌঁছে গেল আফগানিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 19 Sept 2021, 12:10 PM
Updated : 19 Sept 2021, 01:33 PM

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে রোববার পঞ্চম ও শেষ যুব ওয়ানডেতে বাংলাদেশের হার ৩ উইকেটে। ১৫৬ রানের লক্ষ্য আফগানরা ছুঁয়ে ফেলে ৩ বল বাকি থাকতে।

জিততে শেষ ওভারে সফরকারীদের প্রয়োজন ছিল ৭ রান। প্রথম বলেই আশিকুর জামান দেন ফুলটস। ছক্কা মেরে দুই দলের স্কোর সমতায় নিয়ে আসেন ইজহারুল হক নাভিদ। এক বল পর সিঙ্গেল নিয়ে সারেন বাকিটা। বল হাতে ২ উইকেটের সঙ্গে অপরাজিত ২৯ রান করে তিনিই হন ম্যাচ সেরা।

টানা তিন ম্যাচ জয়ে সিরিজ নিশ্চিতের পর বাংলাদেশ হারল পরপর দুই ম্যাচ। পাঁচ ওয়ানডের সিরিজ শেষ করল ৩-২ ব্যবধানে জিতে।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা বাংলাদেশের শুরুটা ছিল ভালোই। উদ্বোধনী জুটিতে তারা পেয়ে যায় ৪৮ রান। জমে যাওয়া এই জুটি ভাঙে মাহফিজুল ইসলামের বিদায়ে। ১১ রান করে তিনি এলবিডব্লিউ নানগেয়ালিয়া খারোটের বলে।

বিলাল সামি পরপর তিন ওভারে ধরেন শিকার। দুই অঙ্কে যেতে দেননি আরিফুল ইসলাম ও আইচ মোল্লাকে। ওপেনার ইফতিখার হোসেন ৩ চার ও এক ছক্কায় ২৬ করে হন কট বিহাইন্ড।

অধিনায়ক মেহরব হাসানকে দ্রুত ফিরিয়ে দেন নাভিদ। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকা দলের হাল ধরতে ব্যর্থ তাহজিবুল ইসলামও। নাভিদের বলে ১৫ রান করে তিনি ধরা পড়েন কিপারের গ্লাভসে।

এক প্রান্ত আগলে রেখে লড়াই করেন আব্দুল্লাহ আল মামুন। কিন্তু ইনিংস বড় করতে পারেননি তিনিও। থামেন একটি করে ছক্কা-চারে ইনিংস সর্বোচ্চ ৩৭ রান করে।  ১ রানে শেষ ৩ উইকেট হারানো বাংলাদেশের ইনিংস থমকে যায় ১৪ বল বাকি থাকতেই।

রান তাড়ায় শুরুটা ভালো হয়নি আফগানদের। ২৪ রানের মধ্যে হারায় দুই উইকেট। পরপর দুই ওভারে সাবাউন বানুরি ও সুলিমান আরবজাইকে ফিরিয়ে দেন আশিকুর।

পথ হারাতে বসা দলের হাল ধরেন ইশহাক জাজাই। তাকে সঙ্গে দিয়ে যান মোহাম্মদউল্লাহ নাজিবউল্লাহ। তাদের ৪৯ রানের জুটি ভাঙে ৫০ বলে ১১ রান করা নাজিবউল্লাহ রান আউট হলে। এরপর বিলাল আহমাদকে বোল্ড করে দ্রুত ফেরত পাঠান নাইমুর। স্বস্তি ফিরে বাংলাদেশ শিবিরে।

দারুণ খেলতে থাকা জাজাই ৬৯ বলে তুলে নেন ফিফটি। তাকে এরপর আর বেশিদূর যেতে দেননি আশিকুর। ডিপ মিডউইকেটে ধরা পড়েন জাজাই, ২ ছক্কা ও ৫ চারে ৫২ রান করে।

খারোটেকে বোল্ড করেন আইচ। কিন্তু আফগানদের লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে নেন অধিনায়ক ইজাজ আহমাদ ও নাভিদ। ৩২ রান করে ইজাজ ফিরে গেলেও বাকিটা ঠিক মতোই সারেন নাভিদ।

আগামী বুধবার শুরু হবে দুই দলের একমাত্র চারদিনের ম্যাচ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল: ৪৭.৪ ওভারে ১৫৫ (মাহফিজুল ১১, ইফতিখার ২৬, আরিফুল ১, আইচ ২, মেহরাব ৮, তাহজিবুল ১৫, মামুন ৩৭, কিবরিয়া ১৩, নাইমুর ১৬, আশিকুর ০*, মুশফিক ০; সামি ১০-১-৩৩-৩, জাদরান ৯-১-২৬-০, খোরাটে ৯.৪-০-২৭-৩, নাভিদ ১০-২-২৯-২, হাসানি ৮-১-২৫-২, নাজিবউল্লাহ ১-০-৮-০)।

আফগানিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দল: ৪৯.৩ ওভারে ১৫৬/৭ (বানুরি ৭, আরবজাই ১৪, জাজাই ৫২, নাজিবউল্লাহ ১১, বিলাল ২, ইজাজ ৩২, খারোটে ৩, নাভিদ ২৯*, সামি ০*; আশিকুর ৯.৩-১-৩৭-৩, মুশফিক ১০-০-৩২-১, আরিফুল ৫-১-১১-০, কিবরিয়া ২-০-১১-০, নাইমুর ১০-২-২৫-১, মেহরাব ৬-১-১৮-০, আইচ ৭-২-২১-১)।

ফল: আফগানিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দল ৩ উইকেটে জয়ী।

সিরিজ: ৫ ম্যাচের সিরিজ ৩-২ ব্যবধানে জয়ী বাংলাদেশের যুবারা।

ম্যান অব দা ম্যাচ: ইজহারুল হক নাভিদ।

ম্যান অব দা সিরিজ: আইচ মোল্লা।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক