‘বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়াকে আটকানো কঠিন হবে’

বিশ্বকাপ রেকর্ড হতাশাজনক। এই বছরের পারফরম্যান্স যাচ্ছেতাই। তবু আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার সম্ভাবনা নিয়ে দারুণ আশাবাদী গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। আগ্রাসী এই ব্যাটসম্যানের মতে, ম্যাচ জেতানোর মতো ক্রিকেটার দিয়ে ঠাসা তাদের দল।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 Sept 2021, 08:01 AM
Updated : 15 Sept 2021, 08:45 AM

ওয়ানডে বিশ্বকাপের সফলতম দল অস্ট্রেলিয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিততে পারেনি একবারও। ২০১০ বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলাই তাদের সেরা সাফল্য এই সংস্করণে। এই বছর ১৫টি টি-টোয়েন্টি খেলে তারা জিততে পেরেছে মোটে ৪টি। বিশ্বকাপের আগে দুটি সিরিজে তারা ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও বাংলাদেশে হেরে গেছে ৪-১ ব্যবধানে।

তবে এই সিরিজগুলোয় নিজেদের সেরা ক্রিকেটারদের পায়নি অস্ট্রেলিয়া। বিশ্বকাপে আছেন সম্ভাব্য সেরাদের প্রায় সবাই। আইসিসির ওয়েবসাইটের সঙ্গে আলাপচারিতায় ম্যাক্সওয়েল বললেন, কার্যকর ক্রিকেটার দলে অনেক বলেই তার আশাও বেশি।

“আমাদের লাইন-আপের দিকে তাকান, ম্যাচ জেতানোর মতো ক্রিকেটার দিয়ে ভরা একটি দল। এমন সব ক্রিকেটার আছে, নিজেদের দিনে যারা প্রতিপক্ষের কাছ থেকে ম্যাচ কেড়ে নিতে পারে। প্রতিটি দিনই আমাদের একেকজন ক্রিকেটারের সুযোগ দলকে জেতানোর। আমরা যদি তা নিতে পারি (সুযোগ), তাহলে আমাদেরকে থামানো যে কোনো দলের জন্য কঠিন হবে।”

ম্যাক্সওয়েলের মতে, শুরুটা ভালো করতে পারা দল টুর্নামেন্টে দৃঢ়পায়ে এগিয়ে যেতে পারবে।

“এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ হবে, দারুণভাবে শুরু করা। টুর্নামেন্টের শুরুতে যে দল যত দ্রুত ভালো শুরু করতে পারবে… গোটা দুই ব্যাটসম্যানের বিস্ফোরক শুরু, খুব ভালো ফর্ম, বোলারদের দ্রুত উইকেট নেওয়া…এসবই দলের জয়ের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।”

বিশ্বকাপের আগে আইপিএলে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর হয়ে খেলবেন ম্যাক্সওয়েল। সব দলেরই বিশ্বকাপ স্কোয়াডে জায়গা পাওয়া আরও অনেক ক্রিকেটার সংযুক্ত আরব আমিরাতে খেলবেন এবারের আইপিএলে। বিশ্বকাপও হবে সেখানেই। সব দলই এতে লাভবান হবে বলে মনে করেন ম্যাক্সওয়েল।

“আইপিএল যেহেতু সংযুক্ত আরব আমিরাতে হচ্ছে, সবার জন্যই এটা সুষম প্রতিযোগিতার সুযোগ করে দিচ্ছে (বিশ্বকাপে)। স্বাগতিকের সুবিধা খুব বেশি থাকবে না বলে সবার কাজই খানিকটা সহজ হবে। অনেক আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার খেলবে আইপিএলে। বিশ্বকাপে তাই সবাই কিছুটা হলেও কাছাকাছি থাকার সুযোগ পাবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক