রোহিতের সেঞ্চুরির পর বাড়ছে ভারতের লিড

আট বছরের টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথম সাত সেঞ্চুরির সবগুলোই ঘরের মাটিতে। দেশের বাইরে কোনোভাবেই তিন অঙ্ক ছুঁতে পারছিলেন না রোহিত শর্মা। অনেক প্রহর পেরিয়ে অবশেষে পেলেন সেই অনির্বচনীয় স্বাদ। এই ওপেনারের দারুণ ইনিংসের পর ইংল্যান্ডকে চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য দেওয়ার পথে ছুটছে ভারত।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 Sept 2021, 05:28 PM
Updated : 4 Sept 2021, 06:36 PM

সিরিজের চতুর্থ টেস্টে তৃতীয় দিন আলোকস্বল্পতায় আগেভাগে খেলা শেষে ভারতের রান ৩ উইকেটে ২৭০। ৭ উইকেট হাতে রেখে সফরকারীরা এগিয়ে আছে ১৭১ রানে। উইকেটে অধিনায়ক বিরাট কোহলির সঙ্গী রবীন্দ্র জাদেজা।

দুর্দান্ত স্কিল আর টেম্পারামেন্টের প্রদর্শনীতে রোহিত ২৫৬ বলে খেলেন ১২৭ রানের ইনিংস। একই সঙ্গে গড়েন অনন্য এক কীর্তি; ইংল্যান্ডে ওপেনিংয়ে নেমে তিন সংস্করণে সেঞ্চুরি করা প্রথম সফরকারী ব্যাটসম্যান যে তিনিই।

রোহিতের সঙ্গে দেড়শ ছাড়ানো জুটি গড়া চেতেশ্বর পুজারার ব্যাট থেকে আসে ৬১ রান। লোকেশ রাহুল ৪ রানের জন্য পাননি ফিফটি।

দা ওভালে আগের দিনের মতো শনিবার সকালেও আকাশ ছিল মেঘলা। দিনের অনেকটা সময়ই দেখা গেছে একই চিত্র। তবে উইকেট ছিল ব্যাটিং সহায়ক।

ভারত দিন শুরু করে বিনা উইকেটে ৪৩ রান নিয়ে। প্রথম ওভারেই জেমস অ্যান্ডারসনকে স্ট্রেইট ড্রাইভে দারুণ এক চার মারেন রোহিত। ক্রিস ওকসের বাড়তি বাউন্সে কিছুটা অস্বস্তিতে ছিলেন রাহুল। এই পেসারের বলে একবার তাকে এলবিডব্লিউও দিয়েছিলেন আম্পায়ার। রিভিউ নিয়ে বাঁচেন ভারত ওপেনার।

পানি পানের বিরতির আগে আউট হতে পারতেন রোহিত। অলি রবিনসনের বলে স্লিপে ক্যাচ নিতে পারেননি ররি বার্নস। রোহিতের রান ছিল তখন ৩১। আগের দিন ৪ রানেও তার ক্যাচ ফেলেছিলেন বার্নস।

রাহুলকে ফিরিয়ে ৮৩ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন অ্যান্ডারসন। উইকেটটা যদিও আসে রিভিউ নিয়ে। কট বিহাইন্ডের জোরালো আবেদনে সাড়া দেননি আম্পায়ার। আল্ট্রা এজে ব্যাটে বলের স্পর্শের প্রমাণ মেলে। ১০১ বলে ৬ চার ও এক ছক্কায় রাহুল ফেরেন ৪৬ করে।

এরপর রোহিত ও পুজারা এগিয়ে নেন দলকে। স্বভাববিরুদ্ধ ব্যাটিংয়ে লাঞ্চ বিরতির পর রোহিত ফিফটি পূর্ণ করেন ১৪৫ বলে, টেস্টে যা তার মন্থরতম ফিফটি। পরে রানের গতিতে দম দেন তিনি। পরের পঞ্চাশ আসে কেবল ৫৯ বলে। ৯৪ থেকে মইন আলিকে লং অনের ওপর দিয়ে ছক্কায় উড়িয়ে পা রাখেন তিন অঙ্কের কাঙ্ক্ষিত ঠিকানায়।

দেশের বাইরে ২৪তম টেস্টে এসে প্রথম সেঞ্চুরি পেলেন রোহিত। তিন অঙ্ক ছোঁয়ার আগেই এই সংস্করণে তিনি পূর্ণ করেন তিন হাজার রান।

পুজারার ফিফটি করতে লাগে ১০৩ বলে। দ্বিতীয় নতুন বলে রবিনসনের প্রথম ওভারেই ফেরেন দুই সেট ব্যাটসম্যান।

শর্ট বল পুল করে লং লেগে ওকসের হাতে ধরা পড়েন রোহিত। ১৪ চার ও এক ছক্কায় গড়া তার ১২৭ রানের ইনিংস। ভাঙে ১৫৩ রানের জুটি। পুজারা ক্যাচ দেন স্লিপে। আম্পায়ার যদিও শুরুতে আউট দেননি। রিভিউ নিয়ে সফল হয় ইংল্যান্ড।

শুরুতে কিছুটা অস্বস্তিতে ছিলেন কোহলি। এরপর নিজেকে সামলে নেন ভারত অধিনায়ক। জাদেজার সঙ্গে অবিচ্ছিন্ন ৩৩ রানের জুটিতে শেষ করেন দিন। ৩৭ বলে ৪টি চারে ২২ রানে খেলছেন কোহলি। ৯ রানে অপরাজিত জাদেজা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ভারত ১ম ইনিংস: ৬১.৩ ওভারে ১৯১

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ৮৪ ওভারে ২৯০

ভারত ২য় ইনিংস: (আগের দিন ৪৩/০) ৯২ ওভারে ২৭০/৩ (রোহিত ১২৭, রাহুল ৪৬, পুজারা ৬১, কোহলি ২২*, জাদেজা ৯*; অ্যান্ডারসন ২৩-৮-৪৯-১, রবিনসন ২১-৪-৬৭-২, ওকস ১৯-৫-৪৩-০, ওভারটন ১০-০-৩৮-০, মইন ১৫-০-৬৩-০, রুট ৪-১-৭-০)

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক