জাতীয় দলে চোখ রেখে এইচপির ক্যাম্পে আকবর-হৃদয়রা

এক ঝাঁক ক্রিকেটার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার অভিজ্ঞতা নেই কারও। তবে তাদের কেউ কেউ আছেন জাতীয় দলের আশেপাশে। নিকট কিংবা একটু দূর ভবিষ্যতের জন্য সম্ভাবনাময় বাকিরাও। সবারই স্বপ্নের সীমানায় জাতীয় দল। কাঙ্ক্ষিত সেই ঠিকানা খুঁজে নেওয়ার অভিযানে নিজেদের আরও প্রস্তুত করে নিতে যাচ্ছেন তারা চট্টগ্রামে। সেখানে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ হাই পারফরম্যান্স (এইচপি) দলের ক্যাম্প।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 21 August 2021, 11:46 AM
Updated : 21 August 2021, 02:11 PM

২২ ক্রিকেটারের সঙ্গে সাপোর্ট স্টাফদের বহর শনিবার রওনা হয়েছে চট্টগ্রামে। রোববার থেকেই শুরু নিজেদের শানিত করার লড়াই।

দেড় মাসের ক্যাম্পে ফিটনেস ও স্কিল নিয়ে নিবিড়ভাবে কাজ করার পাশাপাশি ম্যাচও খেলবেন এই উঠতি ক্রিকেটাররা। বাংলাদেশ ‘এ’ দলের সঙ্গে তিনটি একদিনের ও দুটি চার দিনের ম্যাচ হবে তাদের।

দুই-তিন জন ছাড়া এই দলের সবার আগে এইচপির ক্যাম্প করার অভিজ্ঞতা আছে। স্কোয়াডে আছেন গত বছর অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে শিরোপাজয়ী দলের বেশ কজন ক্রিকেটার। তারা এইচপিতে ছিলেন আগেও।

যুব বিশ্বকাপ জয়ী দলের শরিফুল ইসলাম, শামীম হোসেনরা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছেন এখন প্রায় নিয়মিতই। সেই দলে তাদের অধিনায়ক আকবর আলিও ছবি আঁকছেন জাতীয় দলের। স্বপ্ন পূরণের পথে এগিয়ে যেতে তিনি কাজে লাগাতে চান এই ক্যাম্প।

“সবারই মূল উদ্দেশ্য থাকে জাতীয় দলে খেলার এবং অনেক দিন খেলার। জাতীয় দলে খেলার পথে যে সমস্যাগুলো রয়েছে, সেই সমস্যাগুলো আমরা এই ক্যাম্পের মাধ্যমে কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করব। কিছুটা হলেও যেন এই ক্যাম্প থেকে উন্নতি করতে পারি, সেটিই মূল লক্ষ্য।”

ওই যুব দলের ব্যাটসম্যান তৌহিদ হৃদয় পরে ঘরোয়া ক্রিকেটেও বেশ ভালো পারফর্ম করছেন। সামনের কঠিন চ্যালেঞ্জের জন্য এই ক্যাম্পে নিজেকে ঝালিয়ে নিতে চান তিনিও।

“মহামারীর সময় ক্যাম্প আয়োজন করা অনেক কঠিন ছিল। অনেক কিছু পার করে আমরা ক্যাম্প করতে যাচ্ছি। আমাদের আসলে মূল লক্ষ্য থাকবে টেকনিক্যাল দিকগুলোয় আরও উন্নতি, আরও ভালো করা যেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে টিকে থাকতে পারি।”

কোভিড মহামারীর বিশ্বে এখনকার একটি বাস্তবতা জৈব-সুরক্ষা বলয়ও। সব আন্তর্জাতিক সিরিজ-টুর্নামেন্ট, ফ্র্যাঞ্চাইজি আসরগুলো সুরক্ষা বলয়েই আয়োজিত হচ্ছে। চট্টগ্রামে এইচপি দলের ক্যাম্পও হবে সুরক্ষা-বলয়েই। আকবর বললেন, সুরক্ষা বলয়ে থাকার অনুশীলনও তাদের হয়ে যাবে এই ক্যাম্প দিয়ে।

“এখানে কঠিন একটা পরিস্থিতি আছে, বায়ো-বাবল মেনে চলতে হবে ভালো করে। খুব সতর্কতার সঙ্গে আমাদের ক্যাম্পে থাকতে হবে। মেডিকেল ডিপার্টমেন্ট এবং আমাদের ডিপার্টমেন্টের চেয়ারম্যান আমাদেরকে গতকালকে নির্দেশনা দিয়েছেন। সেগুলো আমরা চেষ্টা করব মেনে চলার।”

বাংলাদেশ ‘এ’ দলের বিপক্ষে এইচপি দলের একদিনের ম্যাচ তিনটি আগামী ২, ৪ ও ৬ সেপ্টেম্বর। চারদিনের ম্যাচ দুটি শুরু ৯ সেপ্টেম্বর ও ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে।

এইচপি স্কোয়াড:

ব্যাটসম্যান: তানজিদ হাসান তামিম, পারভেজ হোসেন ইমন, মুনিম শাহরিয়ার, শাহাদাত হোসেন, মাহমুদুল হাসান জয়, তৌহিদ হৃদয়, আনিসুল ইসলাম ইমন।

উইকেটকিপার: ইমরান উজ জামান, আকবর আলি।

স্পিনার: মিনহাজুল আবেদীন আফ্রিদি, রকিবুল হাসান, হাসান মুরাদ, তানভির ইসলাম, রিশাদ হোসেন।

পেসার: শফিকুল ইসলাম, মুকিদুল ইসলাম, তানজিম হাসান সাকিব, মোহাম্মদ শাহিন আলম, সুমন খান, নোমান চৌধুরি সাগর, রেজাউর রহমান রাজা, রুয়েল মিয়া।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক