পায়ে ‘চাবুকের ছোবল’, মিলিয়ে গেল ব্রডের হাসি

ইতিহাসের মাত্র দ্বিতীয় বিশেষজ্ঞ পেসার হিসেবে ১৫০ টেস্ট খেলার দুয়ারে স্টুয়ার্ট ব্রড। চলছিল ক্ষণ গণনা। তিনি ছিলেন ফুরফুরে। অনুশীলনে উচ্ছ্বল। হঠাৎ পা হড়কে বদলে গেল চিত্র। দপ করে নিভে যাওয়ার মতোই হারিয়ে গেল হাসি। এই ইংলিশ পেসার বুঝে গেলেন, সব শেষ!

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 August 2021, 06:18 AM
Updated : 12 August 2021, 06:18 AM

দলের অনুশীলনে মঙ্গলবার হালকা গা গরমের সময় এই দুর্ঘটনার শিকার হন ব্রড। পরদিন স্ক্যান করে নিশ্চিত হওয়া যায় পরিণতি। ভারতের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের বাকি অংশে আর পাওয়া যাবে না এই পেসারকে।

ব্রড পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জানান ঘটনার বর্ণনা।

“পরিস্থিতি কত দ্রুত বদলে যেতে পারে! এক মুহূর্ত আগেও হাসিখুশি ছিলাম। এরপর গা গরমের সময় একটি হার্ডল পার হতে লাফ দিলাম, ডান অ্যাঙ্কেলের ওপর একটু অস্বস্তিকরভাবে পড়লাম। পরের পদক্ষেপ নেওয়ার সময় মনে হলো, আমার পায়ে যতটা জোরে সম্ভব চাবুক মারা হয়েছে।”

“সত্যি বলতে, ঘুরে তাকিয়ে আমি জিমি অ্যান্ডারসনকে জিজ্ঞেস করছিলাম যে, চাবুক মারল কেন! পরে বুঝতে পারলাম, সে আমার ধারেকাছে ছিল না। তখনই বুঝে গেলাম, বিপড়ে পড়েছি। স্ক্যানে দেখা গেল, গ্রেড ৩ কাফ (টিয়ার)।”

৩৫ বছর বয়সী একজন পেসার বড় চোট পেলে তার ক্যারিয়ারের ভবিষ্যৎ নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করে। তবে সেসব প্রশ্ন ডালপালা মেলতে শুরু করতেই তা ছেটে দিলেন ব্রড। জানিয়ে দিলেন, বছরের শেষ দিকে অস্ট্রেলিয়ায় অ্যাশেজ খেলার লক্ষ্য। শুভ কামনা জানালেন লর্ডস টেস্টে তার সতীর্থদের জন্যও।

“মৌসুম শেষ। ভারত সিরিজ থেকে ছিটকে পড়ায় হতাশ। তবে মূল মনোযোগ এখন অস্ট্রেলিয়ায়। সময় নেব, ছোট ছোট পদক্ষেপে এগোব এবং সেখানে যাওয়ার আগে, সবচেয়ে ফিট হয়ে উঠব। আমার ভাবনায় বড় মনোযোগ সেটিই।”

“এই সপ্তাহে ইংল্যান্ড দলের ছেলেদের জন্য শুভ কামনা। সোফায় বসে প্রতিটি বল দেখব এবং আশা করব, গৌরবস্নাত লর্ডসের সূর্যালোকে দেখব অনেক রান ও উইকেট।”

বৃহস্পতিবার থেকে শুরু ভারতের বিপক্ষে ইংল্যান্ডের লর্ডস টেস্ট। পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথমটি ড্র হয়েছিল ট্রেন্ট ব্রিজে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক