বাংলাদেশ সফরের অধিনায়ক নিয়ে কাজ চলছে অস্ট্রেলিয়ার

ওয়েস্ট ইন্ডিজ থেকে বুধবার বাংলাদেশের উদ্দেশে রওনা দিচ্ছে অস্ট্রেলিয়া দল। চার্টার্ড ফ্লাইটে তাদের ঢাকায় পা রাখার কথা বৃহস্পতিবার বিকেলে। কিন্তু এখনও চূড়ান্ত হয়নি তাদের এই সফরের নেতা। কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার অবশ্য তাড়ার কিছু দেখছেন না। সময়মতোই অধিনায়ক চূড়ান্ত করা হবে বলে জানালেন তিনি।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 July 2021, 04:58 AM
Updated : 28 July 2021, 04:58 AM

মূল অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ চোট নিয়ে সফর থেকে ছিটকে যাওয়ায় এই সঙ্কট তৈরি হয়েছে। বাংলাদেশ সফরের নেতা হওয়ার লড়াইয়ে আছেন মূলত দুই কিপার-ব্যাটার ম্যাথু ওয়েড ও অ্যালেক্স কেয়ারি।

এমনিতে টি-টোয়েন্টির সহ-অধিনায়ক ঘোষণা করা হয়েছিল ওয়েডকে। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজে ফিঞ্চের অনুপস্থিতিতে ওয়ানডে সিরিজ জয়ে দারুণভাবে নেতৃত্ব দিয়ে নজর কাড়েন কেয়ারি। কিন্তু টি-েটায়েন্টি দলে আবার তার জায়গা নিশ্চিত নয়। ক্যারিবিয়ায় ওয়ানডের আগে টি-টোয়েন্টি সিরিজে ব্যাট হাতে ভালো করেননি কেয়ারি।

এই দুজনের বাইরে মিচেল মার্শ ও মোইজেস হেনরিকেসও নেতৃত্বের আলোচনায় থাকবেন বলে জানা গেছে অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যমে। ওয়েস্ট ইন্ডিজে ওয়ানডে সিরিজের সহ-অধিনায়ক ছিলেন হেনরিকেস। আগে নানা সময়ই নেতৃত্বের প্রসঙ্গে আলোচনায় এসেছেন মার্শ।

নির্বাচক ট্রেভর হন্স ও জর্জ বেইলির সঙ্গে কথা বলে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত কয়েক দিনের মধ্যেই নেওয়া হবে বলে জানালেন ল্যাঙ্গার।

“আমরা এটি নিয়ে কাজ করব। এসব সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে ধারাবাহিক হতে চাই আমরা। আশা করি, উল্লেখযোগ্য একটা সময় ধরে দেখাতে পেরেছি যে দল ও নেতা নির্বাচন নিয়ে আমরা যথেষ্টই ধারাবাহিক এবং কোনো সংশয় নেই, বাংলাদেশে টি-টোয়েন্টির ক্ষেত্রেও সেই ধারাবাহিকতা দেখানো হবে।”

কেয়ারিকে একসময় অস্ট্রেলিয়ার ভবিষ্যৎ কাণ্ডারি ভেবেই সীমিত ওভারের ক্রিকেটে যৌথভাবে সহ-অধিনায়ক করা হয়েছিল। পরে তাকে সরিয়ে দেওয়া হয় এই দায়িত্ব থেকে। এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজে নেতৃত্ব দিয়ে আবার তিনি নিজেকে তুলে এনেছেন সামনের কাতারে। কোচ ল্যাঙ্গার মুগ্ধ মাঠে ভেতরে-বাইরে কেয়ারির নেতৃত্বগুণে।

“অ্যালেক্সের অধিনায়কত্ব ছিল দুর্দান্ত। সে খুবই ধীরস্থির এবং ব্যাটিংয়ের সময় তার মুখের দিকে তাকালেই সেটা চোখে পড়ে। ওর ক্যারিয়ার জুড়েই তা দেখেছি আমরা।”

“সে চূড়ান্ত পেশাদার, এজন্যই তার সঙ্গে কাজ করা সহজ। কারণ এটা জানা যে সে সবকিছুই ঠিকঠাক করবে। প্রতিপক্ষ নিয়ে খাটুনির সবটুকুর নিশ্চিত করে সে এবং তার জানা, আমাদের ক্রিকেটারদের কী অবস্থা। তার সঙ্গে কাজ করাটা তাই ছিল দারুণ। তার স্থিরতা, তার স্থৈর্য ও মাঠের বাইরে তার সবকিছুও আমার দারুণ লেগেছে। সে তাই দারুণ কাজ করেছে। এই দায়িত্বে সে ভালোভাবেই ছাপ রেখেছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক