স্তুতির জোয়ারে ভাসছে ‘অদম্য মনোবলের ভারত’

প্রথম টেস্টে ৩৬ রানে অলআউটের পর অনেকেই সিরিজের ফল ৪-০ দেখতে শুরু করেছিলেন। সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে নতুন ইতিহাস গড়েছে ভারত। অস্ট্রেলিয়ার দুর্গ ব্রিজবেনে স্বাগতিকদের হারিয়ে জিতে নিয়েছে সিরিজ। অদম্য মনোবল নিয়ে সাহসী ক্রিকেট খেলা দলটি ভাসছে স্তুতির জোয়ারে।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 19 Jan 2021, 01:35 PM
Updated : 19 Jan 2021, 01:35 PM

ব্রিজবেন টেস্টের শেষ দিনের রোমাঞ্চে ৩ উইকেটে জিতেছে ভারত। সিরিজ নির্ধারণী জয় এলো এমন এক ভেন্যুতে, যেখানে গত ৩২ বছর আর ৩১ টেস্টে হারেনি অস্ট্রেলিয়া। যে মাঠে এর আগে কখনও জেতেনি ভারত। আর এই জয়ে চার ম্যাচের সিরিজটি ২-১ এ জিতে নিয়েছে সফরকারীরা।

প্রথম টেস্টের পর দেশে ফিরে যান অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ছিলেন না ইশান্ত শর্মা। চোটের জন্য মাঝপথে ছিটকে যান মোহাম্মদ শামি, উমেশ যাদব, রবীন্দ্র জাদেজা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন। নিয়মিত খেলোয়াড়দের অনেককে ছাড়াই ভারতের এভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে সিরিজ জয় শচিন টেন্ডুলকারের কাছে অন্যতম সেরা। টুইট বার্তায় কিংবদন্তি এই ব্যাটসম্যান ভয়হীন ক্রিকেট খেলার প্রশংসা করেছেন।

“প্রতিটি সেশনে আমরা নতুন একজন নায়ক আবিষ্কার করেছি। প্রতিবারই আঘাত পেয়ে আমরা শক্তভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছি। আমরা বিশ্বাসের সীমা বাড়িয়েছি, সেটা ভয়ডরহীন ক্রিকেটের, এলোমেলো ক্রিকেটের নয়। আত্মবিশ্বাস ও ধৈর্যের সঙ্গে চোট ও অনিশ্চয়তার লড়াই চলছিল। অন্যতম সেরা সিরিজ জয়! অভিনন্দন ভারত।”

চোটে জর্জর ভারত শেষ টেস্টের দল সাজিয়েছিল অনেকটাই জোড়াতালি দিয়ে। অভিজ্ঞতা ও শক্তিতে পিছিয়ে থাকা তরুণ ভারত সুনিল গাভাস্কারের কাছে পথ প্রদর্শক।

“তরুণ ভারত এটা (অস্ট্রেলিয়ায় সিরিজ জয়) করেছে। তরুণ ভারত পথ দেখিয়েছে। তরুণ ভারত দেখিয়েছে তারা ভীত নয়। কী এক জয়, কী দুর্দান্ত এক জয়।”

সিরিজ শুরুর আগে মাইকেল ভন ভারতের হোয়াইটওয়াশড হওয়ার ভবিষৎবাণী করেছিলেন। কথা মিথ্যা প্রমাণ হলেও খারাপ লাগেনি ইংল্যান্ডের সাবেক এই অধিনায়কের। বরং ভারতের মানসিক শক্তির প্রাচুর্যতা উপলব্ধি করছেন তিনি।

“ওয়াও! সবচেয়ে সেরা টেস্ট জয় যদি নাও হয়, তবে সেসব জয়গুলোর মধ্যে একটি!! ইংল্যান্ডে আমাকে নিয়ে তামাশা, সমালোচনা করা হচ্ছে। মনোবল ও দক্ষতা দেখতে আমার ভালো লাগে। আর ভারত দলে এটা প্রচুর পরিমাণে আছে। শুবমান গিল ও রিশাভ পান্ত ভবিষ্যৎ তারকা।”

প্রথম টেস্ট খেলে দেশে ফিরে যাওয়া বিরাট কোহলি সামনে আসতে বলেছেন ওইসব মানুষদের, যারা ভারতের সামর্থ্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল।

“অসাধারণ এক জয়। অ্যাডিলেইডে হারের পর যারা আমাদের নিয়ে সন্দেহ করেছেন, সামনে আসুন। আদর্শ একটি পারফরম্যান্স। পুরোটা পথে আমাদের সঙ্গী ছিল কঠিন মনোবল ও দৃঢ়সংকল্পতা। ছেলেরা ও ম্যানেজমেন্ট দারুণ করেছে। ঐতিহাসিক এই মুহূর্ত উপভোগ কর তোমরা।”

অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে শেন ওয়ার্নের দেখা সেরা সিরিজ জয়গুলোর একটি। কিংবদন্তি এই লেগ স্পিনার কাছে, ঘুরে দাঁড়িয়ে এই জয় ছিল এক কথায় অসাধারণ।

“ভারত দলকে অভিনন্দন। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে আমার দেখা সেরা সিরিজ জয়ের একটি। এবং তারা এটা করেছে ৩৬ রানের দুঃস্বপ্নের পর। সঙ্গে চোটে ছোট হয়ে পড়া একটি স্কোয়াড-যারা দেখিয়েছে দারুণ মনোবল, কঠিন অবস্থা থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর সামর্থ্য, সাহস ও বিশ্বাস। স্রেফ অসাধারণ।”

মাহেলা জয়াবর্ধনে মনে করছেন, আজ ক্রিকেটের জয় হয়েছে।

“এই কারণেই টেস্ট ক্রিকেট একজন ক্রিকেটারের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। ভারতকে অভিনন্দন। অসাধারণ একটি ম্যাচ। দুর্দান্ত একটি সিরিজ দেখলাম। আজ ক্রিকেটই জিতেছে।”

শেষ দিনের শেষ ঘণ্টার শেষ সময়ে টেস্ট জয়; অবিশ্বাস্য এক অনুভূতি অনিল কুম্বলের কাছে। তার মতে, আপাতত ৪ দিনের টেস্টের আলোচনা বন্ধ হবে।

“অনেক অভিনন্দন ভারত দলকে শক্ত মনোভাব ও দুর্দান্ত স্কিল প্রদর্শনের জন্য। অসাধারণ একটি টেস্ট সিরিজের যথাযথ ফল। আশা করি, ৪ দিনের টেস্ট ক্রিকেট নিয়ে আলোচনা কিছু দিনের জন্য বন্ধ হবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক