ভারতের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে নেই ওয়ার্নার

বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফি পুনরুদ্ধার অভিযান শুরুর আগেই বড় ধাক্কা খেল অস্ট্রেলিয়া। প্রথম টেস্টে তারা পাচ্ছে না ডেভিড ওয়ার্নারকে। কুঁচকির চোটে অ্যাডিলেইডে দিন-রাতের টেস্টে খেলতে পারবেন না অভিজ্ঞ এই ওপেনার।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 Dec 2020, 04:33 AM
Updated : 9 Dec 2020, 04:33 AM

ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ফিল্ডিংয়ের সময় কুঁচকিতে টান লাগায় মাঠ ছাড়েন ওয়ার্নার। পরে খেলতে পারেননি তৃতীয় ওয়ানডে ও গোটা টি-টোয়েন্টি সিরিজ। প্রথম টেস্ট থেকে ছিটকে যাওয়া তাই সেই অর্থে বিস্ময়কর নয়। তবে অস্ট্রেলিয়ার সম্ভাবনায় জোর আঘাত অবশ্যই।

সীমিত ওভারের সিরিজ শেষে অস্ট্রেলিয়া দলের পরবর্তী ঠিকানা প্রথম টেস্টের ভেন্যু অ্যাডিলেইড। ওয়ার্নার আপাতত সিডনিতেই পুনর্বাসন চালিয়ে যাবেন। দ্বিতীয় টেস্টে তাকে পাওয়ার আশা করছে দল।

প্রথম টেস্টের আগে ওয়ার্নার সুস্থ হয়ে উঠবেন বলে এতদিন আশা করছিলেন তিনি নিজে ও টিম ম্যানেজমেন্ট। কিন্তু ২৪ সেঞ্চুরিতে ৭ হাজারের বেশি টেস্ট রান করা ব্যাটসম্যান জানালেন, ফেরা নিয়ে তাড়াহুড়ো করতে চান না তিনি।

“ অল্প সময়ের মধ্যেই আমার অনেক উন্নতি হয়েছে বলে মনে হচ্ছে। তবে পুরো ফিটনেস ফিরে পাওয়ার জন্য আমার কাছে সবচেয়ে ভালো মনে হচ্ছে সিডনিতেই থেকে গিয়ে কাজ চালিয়ে যাওয়া।”

“চোটের অবস্থা এখন আগের চেয়ে ভালো। তবে নিজের মনকে আমার সন্তুষ্ট করতে হবে ও সতীর্থদের বোঝাতে হবে যে আমি টেস্ট খেলার জন্য শতভাগ প্রস্তুত। রানিং বিটুইন দা উইকেট, মাঠে চটপটে থাকা, এসবও মাথায় রাখতে হবে। এই মুহূর্তে আমার মনে হচ্ছে, ফিটনেসের সেরাটা থেকে পিছিয়ে আমি। আরও দিন দশেক কাজ করলে হয়তো পার্থক্য গড়া হবে।”

ওয়ার্নার ছিটেক যাওয়ায় প্রথম টেস্টের জন্য অস্ট্রেলিয়ার উদ্বোধনী জুটির নিয়ে কৌতূহল নিল নতুন মোড়। এতদিন ওয়ার্নারের সঙ্গী হওয়ার লড়াইয়ে ছিলেন জো বার্নস ও উইল পুকোভস্কি। অস্ট্রেলিয়া ‘এ’ দলের হয়ে ভারতীয়দের বিপক্ষে তিন দিনের প্রস্তুতি ম্যাচে হেলমেটে বল লাগায় আপাতত পর্যবেক্ষণে আছে পুকোভস্কি। শুক্রবার থেকে শুরু হতে যাওয়া তিন দিনের দিবা-রাত্রির প্রস্তুতি ম্যাচে তিনি খেলতে পারছেন না। প্রথম টেস্টে তার খেলার সম্ভাবনাও তাই কমে এলো অনেকটা।

সেক্ষেত্রে বাজে ফর্মে থাকলেও বার্নসের প্রথম টেস্টে খেলা একরকম নিশ্চিত। শেফিল্ড শিল্ডে রান খরার পর ভারতীয়দের বিপক্ষে তিন দিনের ম্যাচে বার্নস করেছেন ৪ ও ০। টেস্টের আগে ফর্ম ফিরে পাওয়ার আরেকটি সুযোগ তিনি পাবেন দিন-রাতের তিন দিনের প্রস্তুতি ম্যাচে।

এই প্রস্তুতি ম্যাচে খেলবেন মার্কাস হ্যারিসও। ওয়ার্নারের চোট ও পুকোভস্কির কনকাশনের পর প্রথম টেস্টে বার্নসের সঙ্গে উদ্বোধনী জুটিতে দেখা যেতে পারে এই হ্যারিসকে।

ওপেনিং ভাবনায় এমনকি শন মার্শ কিংবা দলে ব্রাত্য হয়ে পড়া উসমান খাওয়াজার টেস্ট ক্যারিয়ার পুনরুজ্জীবিত হওয়ার সম্ভাবনাও কিছুটা সৃষ্টি হয়েছে পরিস্থিতির বিবেচনায়। ৩৭ বছর বয়সী মার্শ শেফিল্ড শিল্ডে সবশেষ চার ম্যাচে করেছেন তিন সেঞ্চুরি। সবশেষ রাউন্ডে সেঞ্চুরি করেছেন ৩৩ বছর বয়সী খাওয়াজা।

বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফির প্রথম টেস্ট শুরু ১৭ ডিসেম্বর।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক