ওয়ার্নার না থাকলে মাথাব্যথাও নেই!

ডেভিড ওয়ার্নারের মতো একজনকে না পাওয়া মানে দলের জন্য বড় ধাক্কা। তবে জাস্টিন ল্যাঙ্গার একটি মজার দিকও দেখছেন। ওয়ার্নার না খেলতে পারলে তো অন্তত একাদশ নির্বাচন নিয়ে খুব একটা মাথা ঘামাতে হবে না অস্ট্রেলিয়া কোচকে!

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 Dec 2020, 02:44 PM
Updated : 1 Dec 2020, 03:08 PM

ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে সিডনিতে রোববার ফিল্ডিংয়ের সময় কুঁচকিতে চোট পান ওয়ার্নার। পরে ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচ ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ থেকে ছিটকে যান অভিজ্ঞ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। ১৭ ডিসেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া প্রথম টেস্টেও তাকে পাওয়া নিয়ে আছে শঙ্কা।

ওয়ার্নার প্রথম টেস্টে না খেলতে পারলে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটে এই সময়ের তুমুল কৌতূহল জাগানিয়া একটি ব্যাপারের সহজ সমাধানও হয়ে যায়। উদ্বোধনী জুটিতে ওয়ার্নারের সঙ্গী হওয়ার লড়াইয়ে আপাতত আছেন উইলিয়াম পুকোভস্কি ও জো বার্নস। বার্নস ও ওয়ার্নারের জুটি এমনিতে জমে উঠতে শুরু করেছে। তবে টিম ম্যানেজমেন্টের জন্য মধুর সমস্যা হয়ে এসেছে এবারের শেফিল্ড শিল্ডে পুকোভস্কির দুর্দান্ত পারফরম্যান্স। বার্নস নাকি পুকোভস্কি, এই নিয়ে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটে আলোচনা চলছে স্কোয়াড ঘোষণার পর থেকেই।

ওয়ার্নার না থাকলে অন্য দুজনের একজনকে বেছে নিতে মাথা ঘামানোর ব্যাপারও নেই। অস্ট্রেলিয়ার একটি রেডিও স্টেশনকে সোমবার মজা করে সেটিই বললেন ওয়ানডে সিরিজ জিতে ফুরফুরে মেজাজে থাকা ল্যাঙ্গার।

"এটা (ওয়ার্নার না খেলতে পারলে) কিছুটা চাপ কমাতে পারে, তাই না? অবাক হওয়ার তাই কিছু নেই যে আমি বেশ নিশ্চিন্ত আছি! আমরা দুই ম্যাচ জিতেছি। টেস্টের জন্য কাকে বেছে নেব, তা নিয়ে দুর্ভাবনায় পড়তে হবে না আমাকে!”

শেষ পর্যন্ত প্রথম টেস্টে ওয়ার্নার না খেলতে পারলে অস্ট্রেলিয়ার জন্য তা হবে বড় আঘাত। লাল বলে ভারতের বিপক্ষে তার রেকর্ড বেশ ভালো। ১৬ টেস্টে ৩৬.০৩ গড়ে রান করেছেন ১ হাজার ৮১। সেঞ্চুরি আছে চারটি।

মজাটুকু শেষে দুর্ভাবনার ব্যাপারটিও ঠিকই তুলে ধরেছেন ল্যাঙ্গার।

“তার কুঁচকিতে প্রচণ্ড টান লেগেছে আর এই চোটে ভয়ঙ্কর ব্যথা হয়। দেখে মনে হচ্ছিল যেন কেউ তাকে গুলি করেছে, ড্রেসিং রুমে ব্যথায় কাতর ছিল। চার-পাঁচ দিন পর তার অবস্থা আবার দেখব আমরা। সে যতটা পেশাদার, ফিট হওয়ার সম্ভব সব চেষ্টাই করবে। শেষ পর্যন্ত খেলতে না পারলে অবশ্যই আমাদের জন্য বড় ক্ষতি হবে তা।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক