তাসকিন, রুবেলদের দেখে মুগ্ধ ডমিঙ্গো

তাসকিন আহমেদ পুরোই বদলে ফেলেছেন নিজেকে। রুবেল হোসেন যেন ফিরে গেছেন তার সেরা সময়ে। লম্বা চোটের পর সৈয়দ খালেদ আহমেদ ফিরেছেন দারুণভাবে। করোনাভাইরাসের বিরতির সময় ও পরে ক্রিকেটারদের ওয়ার্ক এথিক দেখে মুগ্ধ রাসেল ডমিঙ্গো। এই সময়টায় ফিটনেস নিয়ে যেভাবে খেটেছেন ক্রিকেটাররা, কোনো প্রশংসাই সেটির জন্য যথেষ্ট নয় বলে মনে করেন বাংলাদেশের প্রধান কোচ।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 Oct 2020, 03:04 PM
Updated : 22 Oct 2020, 03:31 PM

চলতি প্রেসিডেন্ট’স কাপে তাসকিন ও রুবেল দুর্দান্ত বোলিং করে চলেছেন। এই টুর্নামেন্টের আগে দুটি দুই দিনের ম্যাচেও তাসকিনের বোলিং ছিল দুর্দান্ত। খালেদ অসাধারণ কিছু না করলেও চোট কাটিয়ে আবার ছন্দে ফিরেছেন বলে মনে হয়েছে।

ফিটনেস নিয়ে তাদের এই নিবেদনের কথা উঠে এলো বৃহস্পতিবার রাসেল ডমিঙ্গোর ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে।

“গত ছয়-সপ্তাহে ছেলেরা যা কাজ করেছে, কোনো প্রশংসাই যথেষ্ট নয়। তাসকিনের শরীরের দিকে তাকান, দেখুন রুবেল কীভাবে ছুটছে এবং খালেদ ফিরে এসেছে বড় এক চোট থেকে। ফিটনেস নিয়ে ছেলেরা অনেক পরিশ্রম করেছে। আমরা চেষ্টা করছি ওদের স্কিলের উন্নতি করাতে এবং সর্বোচ্চ পর্যায়ে যেন পারফর্ম করতে পারে, তা নিশ্চিত করতে।”

এই সময়টয় সবচেয়ে বেশি নজর কেড়েছে তাসকিনের উন্নতি। করোনাভাইরাসের বিরতির সময়টায় অনেক খেটে কমিয়েছেন ওজন, পোক্ত হয়েছে পেশি। ফিটনেসের ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে বোলিংয়ে। সব স্পেলেই তাকে দেখা যাচ্ছে দারুণ গতিময় ও কার্যকর।

সপ্তাহ তিনেক আগে আরেকটি সংবাদ সম্মেলনে তাসকিনকে নিয়ে মুগ্ধতার কথা বলেছিলেন ডমিঙ্গো। সময়ের সঙ্গে তা বেড়েছে আরও।

“তাসকিন সবচেয়ে বড় যে কাজটি করেছে, ওয়ার্ক এথিক বদলে ফেলেছে। আগের চেয়ে এত বেশি পরিশ্রম করেছে সে…খুব ভালো শারীরিক অবস্থায় আছে এখন। এখন সে এক-দুই স্পেলের চেয়েও বেশি করতে পারে। তার পরের স্পেলগুলিও ছিল গতিময়, যা আমাদের জন্য সন্তুষ্টির। আমরা এটা নিশ্চিত করায় জোর দিচ্ছি, ছেলেরা যেন সকাল ১০ টা আর বিকেল ৫টায় একই গতিতে বল করতে পারে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক