১০ কোটি নয়, শেবাগের মতে ম্যাক্সওয়েলের দাম ১-২ কোটি

আইপিএলের নিলামে প্রতিবারই বেশ চড়া মূল্য পান গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। কিন্তু পারফরম্যান্স যেন পর্বতের মুষিক প্রসব। প্রতিবারই একই চিত্র দেখে বেশ বিরক্ত বিরেন্দর শেবাগ। ম্যাক্সওয়েলের পেছনে আইপিএল দলগুলির টাকার বস্তা নিয়ে ছোটার কোনো কারণ খুঁজে পান না সাবেক ভারতীয় ব্যাটসম্যান। 

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 Oct 2020, 04:08 AM
Updated : 10 Oct 2020, 10:03 AM

বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে বিপজ্জনক ব্যাটসম্যানদের একজন ম্যাক্সওয়েল, তার কাছে তাই দলের প্রত্যাশা থাকে আকাশচুম্বি। কিন্তু আইপিএলে সেই প্রত্যাশার প্রতিদান খুব সামান্যই দিতে পেরেছেন অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান। এবারও কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের হয়ে তার পারফরম্যান্স এখনও পর্যন্ত যাচ্ছেতাই।

পাঞ্জাবের হয়ে একসময় খেলেছেন শেবাগ, পরে কাজ করেছেন সাপোর্ট স্টাফে। ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকবাজে আলাপচারিতায় তিনি বললেন, ম্যাক্সওয়েলকে পাওয়ার জন্য দলগুলির এতটা আগ্রহের কারণ বোঝেন না তিনি।

“ জানি না, ম্যাক্সওয়েলের জ্বলে ওঠার জন্য আর কেমন ক্ষেত্র প্রয়োজন। সানরাইজার্সের বিপক্ষে সে বেশ আগেই উইকেটে গিয়েছে, অনেক ওভার বাকি ছিল। কিন্তু ব্যর্থ হয়েছে। এর আগে শেষ দিকে নেমেছে, কোনো চাপ ছিল না, তখনও পারেনি।”

“ আমি তার মানসিকতাই ঠিক বুঝি না। প্রতিবারই একই গল্প। বিশাল মূল্যে নিলামে কেনা হয় তাকে, কিন্তু ফল সেই একই। তার পরও লোকে (দলগুলি) তার পেছনে ছোটে। এটা আমি বুঝিই না। আমার মনে হয়, তার মূল্য ১০ কোটি থেকে ১-২ কোটিতে নেমে আসা উচিত। মনে রাখা উচিত, তার সবশেষ ফিফটি সেই ২০১৬ আইপিএলে।”

আইপিএলে সব মিলিয়ে ৭৫ ম্যাচ খেলে ম্যাক্সওয়েলের ফিফটি মোটে ৬টি, ব্যাটিং গড় ২২.২৩। গত দুই আসর মিলিয়ে ২৬ ম্যাচ খেলে পঞ্চাশের দেখা পাননি। এবার ৬ ম্যাচ খেলে এখনও পর্যন্ত সংগ্রহ কেবল ৪৮ রান। কেবল ২০১৪ আইপিএলে তিনি ৪ ফিফটিতে ৫৫২ রান করেছিলেন ১৮৭ স্ট্রাইক রেটে। এছাড়া তেমন সাফল্য নেই আর কোনো আসরেই।

২০১৭ সালে পাঞ্জাবের ক্রিকেট অপারেশন্স প্রধান থাকার সময়ও ম্যাক্সওয়েলের বাজে পারফরম্যান্সের কড়া সমালোচনা করেছিলেন শেবাগ।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক