জয় দিয়ে ওয়ানডে লিগ শুরু ইংল্যান্ডের

ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে লক্ষ্যটা ছোট রাখলেন ডেভিড উইলি। রান তাড়ায় শুরুতে কিছুটা চাপে পড়া ইংল্যান্ডকে টানলেন স্যাম বিলিংস। তার ফিফটিতে আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে ওয়ানডে সুপার লিগে শুভসূচনা করেছে ইংল্যান্ড। 

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 July 2020, 04:27 PM
Updated : 30 July 2020, 06:57 PM

সাউথ্যাম্পটনে বৃহস্পতিবার সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৬ উইকেটে জিতেছে ওয়েন মর্গ্যানের দল। গত বিশ্বকাপের পর দেশের মাটিতে এটাই ছিল বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের প্রথম ওয়ানডে।

উইলির দারুণ বোলিংয়ে ৪৪ ওভার ৪ বলে ১৭২ রানে গুটিয়ে যায় আয়ারল্যান্ড। জবাবে ২৭ ওভার ৫ বলে লক্ষ্য ছুঁয়ে ফেলে ইংল্যান্ড। করোনাভাইরাস বিরতির পর এটাই প্রথম ওয়ানডে। এই ম্যাচ দিয়েই শুরু হলো ১৩ দলের ওয়ানডে সুপার লিগ। 

এমনিতেই ছোট পুঁজি। তার ওপর প্রথম ওভার অসমাপ্ত রেখে মাঠ ছাড়েন পেসার বেন ম্যাককার্থি। তারপরও শুরুটা বেশ ভালোই ছিল সফরকারীদের।

২ রানেই জনি বেয়ারস্টোকে এলবিডব্লিউ করে বিদায় করেন অ্যান্ডি ম্যাকব্রাইন। ঝড়ের আভাস দিয়ে বিদায় নেন জেসন রয় ও জেমস ভিন্স। দ্রুত রান তোলার চেষ্টায় থাকা দুই ব্যাটসম্যানকে থামান ক্রেইগ ইয়ং।

ক্যাম্পারকে পুল করার চেষ্টায় কিপারকে ক্যাচ দিয়ে থামেন টম ব্যান্টন। ৭৮ রানে প্রথম চার ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে চাপে পড়া ইংল্যান্ডকে পথ দেখান বিলিংস ও মর্গ্যান। তাদের পাল্টা আক্রমণের জবাব জানা ছিল না আইরিশ বোলারদের।

থিতু হওয়ার পর শট খেলতে শুরু করেন বিলিংস। সহজাত ব্যাটিংয়ে তাকে সঙ্গ দেন মর্গ্যান। তাদের ৯৬ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ১৩৩ বল বাকি থাকতে জয়ের বন্দরে পৌঁছায় ইংল্যান্ড। 

জুটিতে অগ্রণী ছিলেন বিলিংস। ৫৪ বলে ১১ চারে এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান অপরাজিত থাকেন ৬৭ রানে। ছক্কায় ম্যাচ শেষ করা অধিনায়ক মর্গ্যান করেন ৪০ বলে ৩৬।

এর আগে রোজ বৌলে বৃহস্পতিবার টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই চাপে পড়ে আয়ারল্যান্ড। এক বছরের বেশি সময় পর ওয়ানডে খেলতে নামা উইলি কাঁপিয়ে দেন তাদের। সাকিব মাহমুদও উইকেট শিকারে যোগ দিলে ২৮ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলে সফরকারীরা।

গত বছর দলে জায়গা হারানোর পর আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার শেষ বলেই ধরে নিয়েছিলেন উইলি। কঠিন সময় পার করে এই অলরাউন্ডার যেন ফিরেছেন আরও ধারাল হয়ে।

প্রথম ওভারেই পল স্টার্লিংকে বিদায় করেন উইলি। পরের ওভারে তুলে নেন অধিনায়ক অ্যান্ড্রু বালবার্নির উইকেট। সপ্তম ওভারে পরপর দুই বলে ফেরত পাঠান গ্যারেথ ডেলানি ও লর্কান টাকারকে। মাঝে অভিষিক্ত হ্যারি টেক্টরকে গোল্ডেন ডাকের স্বাদ দেন মাহমুদ। 

উইলির হ্যাটট্রিক ঠেকিয়ে দেওয়া ক্যাম্পার অভিজ্ঞ কেভিন ও’ব্রায়েনকে নিয়ে গড়েন প্রতিরোধ। পঞ্চাশ ছোঁয়ার পরপরই ভাঙে সম্ভাবনাময় জুটি। লেগ স্পিনার আদিল রশিদকে ওড়ানোর চেষ্টায় লং অফে ধরা পড়েন ও’ব্রায়েন।

এরপর আয়ারল্যান্ডকে টানেন ক্যাম্পার ও ম্যাকব্রাইন। ক্রিজে গিয়েই বোলারদের ওপর চড়াও হওয়া ম্যাকব্রাইনের বিদায়ে ভাঙে ৬৬ রানের জুটি।

এই লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যান পুল করে ছক্কায় ওড়াতে চেয়েছিলেন কারানকে। টাইমিং করতে পারেননি, ছুটে এসে চমৎকার ডাইভিং ক্যাচ মুঠোয় জমান স্যাম বিলিংস। ৪৮ বলে তিন চার ও এক ছক্কায় ৪০ রান করেন ম্যাকব্রাইন।

বোলিংয়ে ফিরে ক্রেইগ ইয়ংকে বিদায় করে ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো পাঁচ উইকেট নেন উইলি, ৩০ রান খরচায়। তার আগের সেরা ছিল ৩/৩৪।

দক্ষিণ আফ্রিকায় জন্ম নেওয়া ২১ বছর বয়সী অলরাউন্ডার ক্যাম্পার দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে ১১৮ বলে চারটি চারে অপরাজিত থাকেন ৫৯ রানে।

আগামী শনিবার একই ভেন্যুতে সিরিজ নিশ্চিত করতে মাঠে নামবে ইংল্যান্ড। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

আয়ারল্যান্ড: ৪৪.৪ ওভারে ১৭২ (স্টার্লিং ২, ডেলানি ২২, বালবার্নি ৩, টেক্টর ০, ও’ব্রায়েন ২২, টাকার ০, ক্যাম্পার ৫৯*, সিমি ০, ম্যাকব্রাইন ৪০, ম্যাককার্থি ৩, ইয়ং ১১; উইলি ৮.৪-২-৩০-৫, মাহমুদ ৯-১-৩৬-২, রশিদ ১০-৩-২৬-১ কারান ৭-০-৩৭-১, মইন ১০-০-৩৭-০)

ইংল্যান্ড: ২৭.৫ ওভারে ১৭৪/৪ (রয় ২৪, বেয়ারস্টো ২, ভিন্স ২৫, ব্যান্টন ১১, বিলিংস ৬৭*, মর্গ্যান ৩৬*; ম্যাককার্থি ০.৫-০-৩-০, স্টার্লিং ০.১-০-১-০, ইয়ং ৮-০-৫৬-২, ম্যাকব্রাইন ৮-০-৪৭-১, ক্যাম্পার ৫-০-২৬-১, সিমি ৩.৫-০-২৩-০, ডেলানি ২-০-১২-০)

ফল: ইংল্যান্ড ৬ উইকেটে জয়ী

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক