রোহিতের ঘুম কেড়ে নিয়েছিলেন লি

ব্রেট লি ছিলেন যেন এক বিভীষিকা। গতি দিয়ে কাঁপন ধরিয়ে দিতেন ব্যাটসম্যানের মনে। কারো কারো রাতের ঘুমও কেড়ে নিতেন। যেমন হয়েছিল রোহিত শর্মার ক্ষেত্রে। ভারতীয় এই ওপেনার নাকি লির মুখোমুখি হতে হবে ভেবে রাতে ঘুমাতেই পারতেন না।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 May 2020, 11:45 AM
Updated : 3 May 2020, 11:45 AM

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে রোহিতের অভিষেক ২০০৭ সালে। ওই বছর অস্ট্রেলিয়া সফরে যাওয়ার আগে লির আগুনে গোলার চিন্তায় রাত কাটতো তার। অস্ট্রেলিয়ান ডানহাতি পেসারের বয়স তখন ৩০। সে সময় গতিতে ভাটা পড়েনি একটুও। ঘণ্টা প্রতি ১৫০ কিলোমিটারের বেশি গতির ডেলিভারি দিতেন নিয়মিত। তার বিরুদ্ধে ব্যাটিং করার কথা ভেবেই ভড়কে গিয়েছিলেন রোহিত।

স্টার স্পোর্টসের একটি আয়োজনে লির সামনেই সেই ভীতিকর সময়ের কথা শোনালেন রোহিত।

“একজন বোলার হলো (যাকে ভয় পেতেন) ব্রেট লি। কারণ, ২০০৭ সালে অস্ট্রেলিয়ায় আমার প্রথম সফরের আগের রাতে তার চিন্তায় ঘুমাতে পারিনি। আমি ভাবছিলাম, কীভাবে এই বোলারকে খেলব যে কিনা ঘণ্টা প্রতি ১৫০ কিলোমিটারের বেশি গতিতে বল করে।”

“২০০৭ সালে ব্রেট লি ফর্মের তুঙ্গে ছিলেন। আমি তাকে খুব কাছ থেকে দেখতাম এবং খেয়াল করেছিলাম তিনি তখন ধারাবাহিকভাবে ঘণ্টা প্রতি ১৫০-১৫৫ কিলোমিটার গতিতে বল করতেন। ওই সময় আমার মত তরুণ ক্রিকেটারের ঘুম কেড়ে নিয়েছিল তার গতি।”

ডেল স্টেইনেও বেশ ভীত ছিলেন রোহিত। দক্ষিণ আফ্রিকান এই পেসারের গতির সঙ্গে ছিল সুইং। তাকে খেলা এক রকম দুঃস্বপ্ন ছিল রোহিতের কাছে।

“আমার দুই জন পছন্দের বোলার যাদের কখনও খেলতে চাইতাম না, একজন হলেন ব্রেট লি আরেক জন ডেল স্টেইন। আমি কখনও স্টেইনের মুখোমুখি হতে চাইতাম না। কারণ, তার ছিল গতি ও সুইং, এই দুইটা একসঙ্গে খেলা ছিল দুঃস্বপ্ন। এটা স্রেফ অবাস্তব।”

ক্রিকেট থেকে অবসরে লি। টেস্টকে বিদায় বলে দিয়েছেন স্টেইন। চোটের জন্য ধারাবাহিক নন সীমিত ওভারের সংস্করণেও। বর্তমানে কাকে সবচেয়ে কঠিন মনে হয় রোহিতের?

“জশ হেইজেলউডকে আমি টেস্ট ক্রিকেটে খেলতে চাই না। কারণ সে খুবই সুশৃঙ্খল। লেংথ থেকে সরে না। কোনো বাজে বল দেয় না। এটা বুঝতে আমি তার বোলিং অনেক দেখেছি। এই বিষয়টি আমি জানি, যদি অস্ট্রেলিয়ায় খেলতে যেতে হয় তাহলে জশকে খেলার জন্য মানসিকভাবে আমাকে প্রস্তুত থাকতে হবে এবং সুশৃঙ্খল হতে হবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক