‘সাইফ উদ্দিন এই দলের সম্পদ’

আল আমিন হোসেন ও শফিউল ইসলাম যখন তুলোধুনো হচ্ছেন, ফুটে উঠছিল তখন মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিনের অভাব। শেষের ওভারগুলোয় এই তরুণই যে দলের বড় ভরসা! কিন্তু জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে সাইফ ছিলেন বিশ্রামে। সেই সিদ্ধান্তকে একদম সঠিক মনে করছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। বাংলাদেশ অধিনায়কের মতে, দারুণ সম্ভাবনাময় সাইফকে সামলাতে হবে খুব সতর্কতায়।

ক্রীড়া প্রতিবেদকসিলেট থেকে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 March 2020, 02:20 AM
Updated : 4 March 2020, 02:20 AM

পিঠের জটিল সমস্যাকাটিয়ে এই সিরিজ দিয়েই ৫ মাস পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরেছেন সাইফ। প্রথম ম্যাচে ব্যাটে-বলেএই পেস বোলিং অলরাউন্ডারের পারফরম্যান্স ছিল দুর্দান্ত।

দ্বিতীয় ম্যাচে মঙ্গলবারসাইফকে বিশ্রাম দেওয়া হয়। বিশ্রাম পান আরেক পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। তাদের জায়গায়সুযোগ পান আল আমিন ও শফিউল। এই দুজনের বোলিং গুঁড়িয়েই শেষ ৫ ওভারে ৭৭ রানের সমীকরণপ্রায় মিলিয়ে ফেলেছিল জিম্বাবুয়ে। ১০ ওভারে ৮৫ রান গুনেছেন আল আমিন, ৯ ওভারে ৭৬ শফিউল।

সাইফ থাকলে হয়তোজিম্বাবুয়ের ব্যাটসম্যানদের কাজ হয়ে উঠত আরেকটু কঠিন। সেটি মানছেন মাশরাফিও। তবে ম্যাচেরপর অধিনায়ক বললেন, খরুচে দুই পেসারকে সমস্যায় ফেলেছিল রাতের শিশির।

“সাইফ তো আমাদের স্পেশাল বোলার,বিশেষ করে ডেথ বোলিংয়ে কার্যকরি। যে দুজন খেলেছে, ওদের রেকর্ড ভালো। সম্প্রতি টি-টোয়েন্টিতেভালো খেলেছে। শিশিরের কারণে ওদের কাজ কঠিন ছিল। আল আমিনের বলে শুরুতে ক্যাচ পড়েছে,ওটা ক্যাচ হলে অন্যরকম কিছু হতে পারত। তবে সাইফ অবশ্যই ডেথ বোলিংয়ে দারুণ।”

দল বিপাকে পড়লেওসাইফের ক্যারিয়ার ও ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে তাকে বিশ্রাম দেওয়ার সিদ্ধান্ত যৌক্তিক ছিলমাশরাফির কাছে।

“সাইফ এই দলের দারুণ সম্পদ ও সম্ভাবনাময়একজন। ওকে আমি মনে করি যে ১০-১১-১২ বছর বাংলাদেশের ক্রিকেটকে সার্ভিস দেবে। আজকে খেলেনি,কারণ ও মাত্রই স্ট্রেস ফ্র্যাকচারের মতো ইনজুরি থেকে ফিরেছে। ওকে চাপ দেওয়া খুব ঝুঁকিপূর্ণ।”

“স্ট্রেস ফ্র্যাকচার এমনই ইনজুরি,আবার ফিরে এলে দেড়-দুই বছরের জন্য বাইরে চলে যেতে পারে। ওকে খুব সতর্কতায় সামলাতে হবে।ম্যাচ হারলেও আমি বলতাম যে খুব ভালো সিদ্ধান্ত ওকে বিশ্রাম দেওয়া।”

বিশ্রাম পাওয়া আরেকপেসার মুস্তাফিজকে নিয়ে ম্যানেজমেন্টের ভাবনার কথাও জানালেন অধিনায়ক।

“মুস্তাফিজকে নিয়ে হয়তো ম্যানেজমেন্টভাবছে ওর ওয়ার্কলোড সামলাতে। সামনে বিশ্বকাপ আসছে, অনেক গুরুত্বপূর্ণ সিরিজ আছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক