প্রথম দিনের নেটে যেমন করলেন নাঈম-আমিনুল

শুরুতে একটু স্ট্রেচিং, গা গরমের হালকা ফুটবল খেলা। এরপর লম্বা ফিল্ডিং সেশন। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার বাংলাদেশের ব্যাটিং-বোলিং সেশন শুরু হতে একটু সময় লাগল। নেট সেশনের জন্য তাই অপেক্ষা, জাতীয় দলের নেটে যে প্রথমবার খেলবেন মোহাম্মদ নাঈম শেখ ও আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।

ক্রীড়া প্রতিবেদক চট্টগ্রাম থেকেবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 Sept 2019, 02:37 PM
Updated : 17 Sept 2019, 03:51 PM

নেট সেশন শুরুর পর অবশ্য অপেক্ষা দীর্ঘায়িত হলো না। নাঈম ওপেনার, তাকে নেটে পাঠানোও হলো শুরুতেই। সেই নেটেই বল হাতে দেখা গেল আমিনুলকে।

ঘরোয়া ক্রিকেটে এমনিতে নাঈম সহজাত স্ট্রোক প্লেয়ার। ব্যাটিং খুব আঁটসাঁট নয়, টেকনিক নয় খুব আদর্শ। তবে ‘হ্যান্ড-আই কো অর্ডিনেশনে’ শট খেলেন বেশ ভালো। জাতীয় দলের নেটেও শুরুর কয়েক মিনিট তেমনই দেখা গেল। একটি শট দেখে কোচ রাসেল ডমিঙ্গো বলে উঠলেন, “ওয়েল ডান নাঈম…।”

তেমন প্রশংসা এরপর খুব কমই করতে পারলেন কোচ। নাঈম যে এরপর আর খুব ভালো খেলতেই পারছিলেন না! মূলত স্পিনারদেরই খেলছিলেন, আমিনুল-তাইজুল-সাব্বির-মাহমুদউল্লাহকে। তবে জাতীয় দলের নেটে প্রথম দিনে একটু নার্ভাস হয়ে পড়েছিলেন বলেই কিনা, তার সহজাত ব্যাটিং খুব একটা দেখা গেল না। বরং একটু অস্বস্তি, একটু জড়তাই থাকল বেশি।

ক্রিকেটার আমিনুলের যেভাবে বেড়ে ওঠা, তাতে তারও নেটে ব্যাট করতে আগেই যাওয়ার কথা। কিন্তু বাংলাদেশ হাই পারফরম্যান্স দলে অনুশীলনের সময় গত কিছুদিনে তার ক্যারিয়ারের গতিপথ মোড় পাল্টেছে নাটকীয়ভাবে। আগে টুকটাক লেগ স্পিন করতেন। এইচপির কোচ সাইমন হেলমট তার সেই লেগ স্পিনেই দেখেছেন উজ্জ্বল সম্ভাবনা। সেই লেগ স্পিনের কারণেই কিছুদিন আগে বাংলাদেশ ‘এ’ দল, ইমার্জিং দলে খেলে নাটকীয়ভাবে তার জায়গা হয়ে গেছে টি-টোয়েন্টির জাতীয় দলে।

তবে প্রথম দিনের নেটে খুব আহামরি মনে হয়নি আমিনুলের বোলিং। অ্যাকশন একটু অপ্রথাগত, কুইক আর্ম অ্যাকশন। অনেকটাই ভারতের হয়ে ১টি টেস্ট ও ২টি ওয়ানডে খেলা লেগ স্পিনার কর্ন শর্মার মতো। প্রথাগত লেগ স্পিনারদের মতো রান-আপ থেকে মোমেন্টাম পাওয়ার ব্যাপার ততটা নেই অ্যাকশনে।

মিনিট পনেরোর বোলিংয়ে বলার মতো টার্ন পেতে দেখা গেল কেবল ২-৩টি ডেলিভারিতে। লাইন-লেংথও খুব ধারাবাহিক নয়। আচমকা দু-একটি বল অবশ্য বাউন্স করেছে। সম্ভাবনা তার অবশ্যই আছে, তবে প্রথম দিনের অনুশীলনে খুব বিশেষ কিছু মনে হয়নি।

নাঈমের পাশের নেটেই ব্যাট করছিলেন প্রথমবার টি-টোয়েন্টি দলে সুযোগ পাওয়া নাজমুল হোসেন শান্ত। জাতীয় দল বা এই আবহ তার জন্য নতুন কিছু নয়। এই বাঁহাতিকে নেটে সাবলীল দেখা গেল।

এই তিন জন ছাড়াও ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের চট্টগ্রাম পর্বের দলে পরিবর্তন আছে আরও দুটি। দলে ফিরেছেন দুই পেসার রুবেল হোসেন ও শফিউল ইসলাম।

মঙ্গলবার বাংলাদেশের প্রতিনিধি হয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসা মোসাদ্দেক হোসেন এই পরিবর্তনগুলোকে বলছেন স্বাভাবিক। আলাদা করে বললেন বিপ্লবের লেগ স্পিন নিয়েও।

“যারা দলে এসেছে, সবাই কিন্তু পারফর্ম করেই আসছে। ‘এ’ দল বলেন, হাই পারফরম্যান্স বলেন, পারফর্ম করেই আসছে। কোনো ক্রিকেটার এছাড়া আর  কোন জায়গা থেকে আসবে! এখান থেকেই দেখতে হবে কেমন খেলছে। বিপিএল আছে, প্রিমিয়ার লিগ আছে, এখান থেকেই নেওয়া হয়। ওখানে ভালো পারফর্ম করছে বলেই এরা এখানে আসছে।”

“আমাদের দলে একজন লেগ স্পিনারও দরকার আছে। সেটা সবাই অনেক আগে থেকেই বুঝতে পারছে। বিপ্লব ভালো উইকেটেও দেখলাম ভালো বোলিং করে আসছে। তো ভালো কিছু করবে আশা করছি। আর নাঈম তো ‘এ’ দলে ভালো খেলে আসছে। আশা করছি ওরা ভালো কিছু করবে সামনে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক